২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ

২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ হচ্ছে উয়েফা কর্তৃক আয়োজিত ইউরোপীয় দলগুলোর ফুটবল প্রতিযোগিতার ৬৬তম আসর এবং ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নস ক্লাব হতে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে নামে পরিবর্তন করার পর ২৯তম আসর।

২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ
Istanbul Atatürk Olympic Stadium 1.jpg
প্রতিযোগিতার বিবরণ
তারিখবাছাইপর্ব:
৮ আগস্ট ২০২০ – ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
চূড়ান্ত পর্ব:
২০ অক্টোবর ২০২০ – ২৯ মে ২০২১
দলচূড়ান্ত পর্ব: ৩২
মোট: ৭৯ (৫৪টি অ্যাসোসিয়েশন থেকে)
প্রতিযোগিতার পরিসংখ্যান
ম্যাচ১০৮
গোল সংখ্যা৩২৬ (ম্যাচ প্রতি ৩.০২টি)
দর্শক সংখ্যা১,৬৫,৯৩৯ (ম্যাচ প্রতি ১,৫৩৬ জন)
শীর্ষ গোলদাতানরওয়ে আরলিং ব্রাউট হোলান্ড (১০টি গোল)
সর্বশেষ হালনাগাদ: ১০ মার্চ ২০২১

এই আসরের ফাইনাল তুরস্কের ইস্তাম্বুলের আতাতুর্ক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। এই স্টেডিয়ামটি মূলত ২০২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ ফাইনালের আয়োজক স্টেডিয়াম ছিল, তবে ২০২০ সালে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে পরবর্তীতে তা পরিবর্তন করা হয়।[১] ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের বিজয়ী দল ২০২১ উয়েফা সুপার কাপে ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের বিজয়ী দলের বিরুদ্ধে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে; উক্ত খেলায় বিজয়ী দল জাপানে অনুষ্ঠিত ২০২১ ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। একই সাথে উভয় দল স্বয়ংক্রিয়ভাবে ২০২১–২২ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে খেলার জন্য উত্তীর্ণ হবে।

এই প্রতিযোগিতার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হচ্ছে জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ, যারা পূর্ববর্তী আসরের ফাইনালে ফরাসি ক্লাব পারি সাঁ-জেরমাঁকে ১–০ গোলে পরাজিত করেছিল।

দল বণ্টনসম্পাদনা

উয়েফার ৫৫টি সদস্য রাষ্ট্রের মধ্যে ৫৪টি রাষ্ট্রের সর্বমোট ৭৯টি দল ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে অংশগ্রহণ করেছে (শুধুমাত্র লিশটেনস্টাইন এর ব্যতিক্রম, কারণ তারা কোনো ঘরোয়া লীগ আয়োজন করে না)। উয়েফা দেশ গুণাঙ্ক নিয়ম অনুযায়ী উয়েফার অ্যাসোসিয়েশন র‍্যাঙ্কিং করা হয়, যার মাধ্যমে এই প্রতিযোগিতায় প্রত্যেক অ্যাসোসিয়েশন হতে কতটি দল অংশগ্রহণ করবে তা নির্ধারণ করা হয়েছে:[২]

  • অ্যাসোসিয়েশন ১–৪ হতে ৪টি করে দল খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।
  • অ্যাসোসিয়েশন ৫–৬ হতে ৩টি করে দল খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।
  • অ্যাসোসিয়েশন ৭–১৫ হতে ২টি করে দল খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।
  • অ্যাসোসিয়েশন ১৬–৫৫ (ব্যতিক্রম লিশটেনস্টাইন) হতে ১টি করে দল খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।
  • ২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ২০১৯–২০ উয়েফা ইউরোপা লীগের বিজয়ীদের এই আসরে খেলার একটি অতিরিক্ত প্রবেশাধিকার ছিল, যার মাধ্যমে তারা যদি তাদের ঘরোয়া লীগের মাধ্যমে ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে খেলার যোগ্যতা অর্জন না করেও এই আসরে অংশগ্রহণ কতে পারত। তবে চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ইউরোপা লীগের বিজয়ী দলগুলো তাদের ঘরোয়া লীগের মধ্য দিয়ে যোগ্যতা অর্জন করার ফলে মৌসুমে উক্ত অতিরিক্ত প্রবেশাধিকারের প্রয়োজন হয়নি।

অ্যাসোসিয়েশন র‍্যাঙ্কিংসম্পাদনা

২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের জন্য, ২০১৯ সালের উয়েফা দেশ গুণাঙ্ক অনুযায়ী প্রত্যেক সদস্য রাষ্ট্র হতে কতটি দল খেলবে তা বরাদ্দ করা হয়েছে, যেটি ২০১৪–১৫ মৌসুম হতে ২০১৮–১৯ মৌসুম পর্যন্ত ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় তাদের ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে নির্ধারিত।[৩]

এই দেশ গুণাঙ্কের দল বরাদ্দ ছাড়াও, নিম্নে উল্লেখিত ক্ষেত্রে অ্যাসোসিয়েশন হতে অতিরিক্ত দলও এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারে:

  • (ইউসিএল) – ২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ বিজয়ী দলের জন্য অতিরিক্ত স্থান।
  • (ইউইএল) – ২০১৯–২০ উয়েফা ইউরোপা লীগ বিজয়ী দলের জন্য অতিরিক্ত স্থান।
২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের জন্য অ্যাসোসিয়েশন র‍্যাঙ্কিং
অব. অ্যাসোসিয়েশন গুণাঙ্ক দল টীকা
  স্পেন ১০৩.৫৬৯
  ইংল্যান্ড ৮৫.৪৬২
  ইতালি ৭৪.৭২৫
  জার্মানি ৭১.৯২৭
  ফ্রান্স ৫৮.৪৯৮
  রাশিয়া ৫০.৫৪৯
  পর্তুগাল ৪৮.২৩২
  বেলজিয়াম ৩৯.৯০০
  ইউক্রেন ৩৮.৯০০
১০   তুরস্ক ৩৪.৬০০
১১   নেদারল্যান্ডস ৩২.৪৩৩
১২   অস্ট্রিয়া ৩১.২৫০
১৩   চেক প্রজাতন্ত্র ২৮.৬৭৫
১৪   গ্রিস ২৭.৬০০
১৫   ক্রোয়েশিয়া ২৭.৩৭৫
১৬   ডেনমার্ক ২৭.০২৫
১৭    সুইজারল্যান্ড ২৬.৯০০
১৮   সাইপ্রাস ২৪.৯২৫
১৯   সার্বিয়া ২২.২৫০
অব. অ্যাসোসিয়েশন গুণাঙ্ক দল টীকা
২০   স্কটল্যান্ড ২২.১২৫
২১   বেলারুশ ২১.৮৭৫
২২   সুইডেন ২০.৯০০
২৩   নরওয়ে ২০.২০০
২৪   কাজাখস্তান ১৯.২৫০
২৫   পোল্যান্ড ১৯.২৫০
২৬   আজারবাইজান ১৯.০০০
২৭   ইসরায়েল ১৮.৬২৫
২৮   বুলগেরিয়া ১৭.৫০০
২৯   রোমানিয়া ১৫.৯৫০
৩০   স্লোভাকিয়া ১৫.৬২৫
৩১   স্লোভেনিয়া ১৫.০০০
৩২   লিশটেনস্টাইন ১৩.৫০০
৩৩   হাঙ্গেরি ১০.৫০০
৩৪   উত্তর মেসিডোনিয়া ৮.০০০
৩৫   মলদোভা ৭.৭৫০
৩৬   আলবেনিয়া ৭.৫০০
৩৭   আয়ারল্যান্ড ৭.৪৫০
অব. অ্যাসোসিয়েশন গুণাঙ্ক দল টীকা
৩৮   ফিনল্যান্ড ৭.২৭৫
৩৯   আইসল্যান্ড ৭.২৫০
৪০   বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ৭.১২৫
৪১   লিথুয়ানিয়া ৬.৭৫০
৪২   লাতভিয়া ৫.৬২৫
৪৩   লুক্সেমবুর্গ ৫.৫০০
৪৪   আর্মেনিয়া ৫.২৫০
৪৫   মাল্টা ৫.১২৫
৪৬   এস্তোনিয়া ৫.০০০
৪৭   জর্জিয়া ৪.৭৫০
৪৮   ওয়েলস ৪.১২৫
৪৯   মন্টিনিগ্রো ৪.১২৫
৫০   ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জ ৪.০০০
৫১   জিব্রাল্টার ৪.০০০
৫২   উত্তর আয়ারল্যান্ড ৩.৮৭৫
৫৩   কসোভো ২.৫০০
৫৪   অ্যান্ডোরা ১.৮৩১
৫৫   সান মারিনো ০.৬৬৬

বিন্যাসসম্পাদনা

নিম্নে এই মৌসুমের প্রবেশ তালিকা উল্লেখ করা হয়েছে।[৪]

২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রবেশাধিকার তালিকা
পর্ব যেসকল দল এই পর্বে প্রবেশ করে যেসকল দল পূর্ববর্তী পর্ব হতে প্রবেশ করে
প্রাথমিক পর্ব
(৪টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ৫২–৫৫ থেকে ৪টি চ্যাম্পিয়ন
প্রথম বাছাইপর্ব
(৩৪টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ১৮–৫১ থেকে ৩৩টি চ্যাম্পিয়ন (ব্যতিক্রম লিশটেনস্টাইন)
  • প্রাথমিক পর্ব থেকে ১টি বিজয়ী
দ্বিতীয় বাছাইপর্ব
(২৬টি দল)
চ্যাম্পিয়ন পথ
(২০টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ১৫–১৭ থেকে ৩টি চ্যাম্পিয়ন
  • প্রথম বাছাইপর্ব থেকে ১৭টি বিজয়ী
লীগ পথ
(৬টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ১০–১৫ থেকে ৬টি রানার-আপ
তৃতীয় বাছাইপর্ব
(১৬টি দল)
চ্যাম্পিয়ন পথ
(১০টি দল)
  • দ্বিতীয় বাছাইপর্ব (চ্যাম্পিয়ন পথ) থেকে ১০টি বিজয়ী
লীগ পথ
(৬টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ৭–৯ থেকে ৩টি রানার-আপ
  • দ্বিতীয় বাছাইপর্ব (লীগ পথ) থেকে ৩টি বিজয়ী
প্লে-অফ পর্ব
(১২টি দল)
চ্যাম্পিয়ন পথ
(৮টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ১২–১৪ থেকে ৩টি বিজয়ী
  • তৃতীয় বাছাইপর্ব (চ্যাম্পিয়ন পথ) থেকে ৫টি বিজয়ী
লীগ পথ
(৪টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ৬-এর ৩য় স্থান অধিকারী
  • তৃতীয় বাছাইপর্ব (লীগ পথ) থেকে ৩টি বিজয়ী
গ্রুপ পর্ব
(৩২টি দল)
  • অ্যাসোসিয়েশন ১–১১ থেকে ১১টি বিজয়ী
  • অ্যাসোসিয়েশন ১–৬ থেকে ৬টি রানার-আপ
  • অ্যাসোসিয়েশন ১–৫ থেকে ৫টি তৃতীয় স্থান অধিকারী
  • অ্যাসোসিয়েশন ১–৪ থেকে ৪টি চতুর্থ স্থান অধিকারী
  • প্লে-অফ পর্ব থেকে ৪টি বিজয়ী (চ্যাম্পিয়ন পথ)
  • প্লে-অফ পর্ব থেকে ২টি বিজয়ী (লীগ পথ)
নকআউট পর্ব
(১৬টি দল)
  • গ্রুপ পর্ব থেকে ৮টি গ্রুপ বিজয়ী
  • গ্রুপ পর্ব থেকে ৮টি গ্রুপ রানার-আপ

চ্যাম্পিয়নস লীগের চ্যাম্পিয়ন দল ফুটবল ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ এবং ইউরোপা লীগের চ্যাম্পিয়ন দল সেভিয়া তাদের ঘরোয়া লীগের মাধ্যমে এই আসরে খেলার যোগ্যতা অর্জন করার ফলে পূর্বনির্ধারিত প্রবেশ তালিকায় বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে। যাহোক, কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ এবং ২০২০–২১ ইউরোপীয় মৌসুমের সময়সূচিতে বিলম্বের ফলে, ২০২০–২১ ইউরোপীয় মৌসুমটি ২০১৯–২০ মৌসুম সমাপ্তির পূর্বেই শুরু হয়েছিল। সুতরাং, চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ইউরোপা লীগের চ্যাম্পিয়ন দলের ভিত্তিতে যে প্রবেশ তালিকার পরিবর্তন করা উচিত, তা পূর্বের বাছাইপর্বের ম্যাচগুলো খেলা না হওয়া এবং / অথবা তাদের ড্র হওয়া পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ইউরোপা লীগের শিরোপাধারী দলের স্থান নির্ধারণের পরে উয়েফা পূর্বনির্ধারিত প্রবেশ তালিকার পরিবর্তন করতে "অভিযোজিত পুনঃভারসাম্য" পদ্ধতি ব্যবহার করেছিল এবং শিরোপাধারী দল নির্ধারিত হওয়ার পূর্বে যে সকল পর্বের ম্যাচ ইতিমধ্যে আয়োজন করা হয়েছিল, তা এই আসরে কোন প্রভাব ফেলেনি (নিয়ম ৩.০৪)।[২] এই আসরে নিম্নলিখিত পরিবর্তন সাধিত হয়েছিল:

  • ২০২০ সালের ৯ই এবং ১০ই আগস্ট তারিখে, প্রথম বাছাইপর্ব এবং দ্বিতীয় বাছাইপর্বের (চ্যাম্পিয়নস পথ) ড্র অনুষ্ঠিত হওয়ার সময়, চ্যাম্পিয়ন লীগের চ্যাম্পিয়ন দলের স্থান শূন্য ঘোষণা করা হবে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের কোয়ার্টার-ফাইনালের অংশগ্রহণকারী দলের মধ্যে লিওঁ তাদের ঘরোয়া লীগের মাধ্যমে ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বের জন্য উত্তীর্ণ হতে পারেনি। সুতরাং, উক্ত ড্রগুলো পূর্বনির্ধারিত প্রবেশ তালিকা অনুযায়ী আয়োজন করা হয়েছিল; যার ম্যাচগুলো ২০২০ সালের ১৮–১৯ এবং ২৫–২৬ আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ম্যাচগুলো ২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের সেমি-ফাইনাল ম্যাচের পরও পরিবর্তন করা হয়নি, যা ২০২০ সালের ১৮–১৯ আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত সময়ে এটি নিশ্চিত হওয়া গিয়েছিল যে ফাইনালে অংশগ্রহণকারী উভয় দল, বায়ার্ন মিউনিখ এবং পারি সাঁ-জেরমাঁ ইতিমধ্যে তাদের ঘরোয়া লীগের মাধ্যমে ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বের জন্য উত্তীর্ণ হয়েছে, যার অর্থ হচ্ছে চ্যাম্পিয়নস লীগের চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য বরাদ্দকৃত পূর্বনির্ধারিত স্থানটি খালি ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলস্বরূপ, "অভিযোজিত পুনঃভারসাম্য" পদ্ধতি তৃতীয় বাছাইপর্বের (চ্যাম্পিয়ন পথ) ড্র থেকে শুরু হয়েছিল, যার ড্র ২০২০ সালের ৩১শে আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং উক্ত প্রবেশ তালিকায় নিম্নলিখিত পরিবর্তন সাধিত হয়েছিল:
    • অ্যাসোসিয়েশন ১১-এর (নেদারল্যান্ডস) চ্যাম্পিয়ন দল আয়াক্স প্লে-অফের (চ্যাম্পিয়ন পথ) পরিবর্তে সরাসরি গ্রুপ পর্বে প্রবেশ করেছে।
    • অ্যাসোসিয়েশন ১৩ এবং ১৪-এর (চেক প্রজাতন্ত্র এবং গ্রিস) চ্যাম্পিয়ন দল যথাক্রমে স্লাভিয়া প্রাহা এবং অলিম্পিয়াকোস তৃতীয় বাছাইপর্বের (চ্যাম্পিয়ন পথ) পরিবর্তে প্লে-অফে (চ্যাম্পিয়ন পথ) প্রবেশ করেছে।
  • ২০২০ সালের ১০ই আগস্ট তারিখে, দ্বিতীয় বাছাইপর্বের (লীগ পথ) ড্র অনুষ্ঠিত হওয়ার সময়, ইউরোপা লীগের চ্যাম্পিয়ন দলের স্থান শূন্য ঘোষণা করা হবে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ২০১৯–২০ উয়েফা ইউরোপা লীগের কোয়ার্টার-ফাইনালের অংশগ্রহণকারী দলের মধ্যে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্স, বায়ার লেভারকুজেন, কোপেনহেগেন এবং বাজেল তাদের ঘরোয়া লীগের মাধ্যমে ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বের জন্য উত্তীর্ণ হতে পারেনি। সুতরাং, উক্ত ড্র পূর্বনির্ধারিত প্রবেশ তালিকা অনুযায়ী আয়োজন করা হয়েছিল; যার ম্যাচগুলো ২০২০ সালের ২৫–২৬ আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ম্যাচগুলো ২০১৯–২০ উয়েফা ইউরোপা লীগের কোয়ার্টার -ফাইনাল ম্যাচের পরও পরিবর্তন করা হয়নি, যা ২০২০ সালের ১০–১১ আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত সময়ে এটি নিশ্চিত হওয়া গিয়েছিল যে ফাইনালে অংশগ্রহণকারী সকল দল, সেভিয়া, ইন্টার মিলান, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং শাখতার দোনেৎস্ক ইতিমধ্যে তাদের ঘরোয়া লীগের মাধ্যমে ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বের জন্য উত্তীর্ণ হয়েছে, যার অর্থ হচ্ছে ইউরোপা লীগের চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য বরাদ্দ পূর্বনির্ধারিত স্থানটি খালি ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলস্বরূপ, "অভিযোজিত পুনঃভারসাম্য" পদ্ধতি তৃতীয় বাছাইপর্বের (চ্যাম্পিয়ন পথ) ড্র থেকে শুরু হয়েছিল, যার ড্র ২০২০ সালের ৩১শে আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এবং উক্ত প্রবেশ তালিকায় নিম্নলিখিত পরিবর্তন সাধিত হয়েছিল:
    • অ্যাসোসিয়েশন ৫-এর (ফ্রান্স) তৃতীয় স্থান অধিকারী দল রেনে তৃতীয় বাছাইপর্বের (লীগ পথ) পরিবর্তে সরাসরি গ্রুপ পর্বে প্রবেশ করেছে।
    • অ্যাসোসিয়েশন ৬-এর (রাশিয়া) তৃতীয় স্থান অধিকারী দল ক্রাস্নোদার তৃতীয় বাছাইপর্বের (লীগ পথ) পরিবর্তে প্লে-অফে (লীগ পথ) প্রবেশ করেছে।

দলসম্পাদনা

২০২০ সালের এপ্রিলের শুরুর দিকে, উয়েফা এক ঘোষণায় জানিয়েছিল যে ইউরোপে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে এই আসরে উত্তীর্ণের সময়সীমা পরবর্তী নির্দেশনা পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে।[৫] উয়েফা তার অন্তর্ভুক্ত সকল অ্যাসোসিয়েশনকে একটি চিঠি পাঠিয়েছিল, যেখানে উল্লেখ করা হয়েছিল যে ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় যোগ্যতা অর্জনের জন্য সকল ঘরোয়া লীগের মৌসুম অকালে শেষ না করে সম্পূর্ণরূপে সম্পন্ন করতে হবে।[৬] অতঃপর ২০২০ সালের ২১শে এপ্রিল তারিখে, উয়েফার ৫৫টি অ্যাসোসিয়েশনের সাথে এক সভার পর উয়েফা তাদের দেশীয় শীর্ষ লীগ এবং কাপ প্রতিযোগিতা শেষ করার জন্য দৃঢ়ভাবে সুপারিশ করেছিল, যদিও কিছু বিশেষ ক্ষেত্রে যেখানে এটি বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয় সেখানে উয়েফা তার ক্লাবের প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার ক্ষেত্রে দিকনির্দেশনা তৈরি করবে; এরপরও কোন ক্ষেত্রে লীগ বা কাপ বাতিল করা হয়েছে।[৭][৮] উয়েফার কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠক শেষে ২০২০ সালের ২৩শে এপ্রিল তারিখে, এক ঘোষণায় জানানো হয়েছিল যে যদি জনস্বাস্থ্য বা অর্থনৈতিক সমস্যার সাথে সম্পর্কিত শর্ত মেনে বৈধ কারণে কোন ঘরোয়া প্রতিযোগিতা সমাপ্ত হওয়া পূর্বে বন্ধ হয়ে যায়, তবে জাতীয় অ্যাসোসিয়েশনগুলো ২০১৯–২০ মৌসুমে ঘরোয়া প্রতিযোগিতায় ফলাফলের ভিত্তিতে ২০২০–২১ উয়েফা ক্লাব প্রতিযোগিতার জন্য তাদের অংশগ্রহণকারী দল নির্বাচন করবে এবং উয়েফা উক্ত ঘরোয়া প্রতিযোগিতার সমাপ্তি বৈধ নয় বলে মনে করলে তাদের অংশগ্রহণ প্রত্যাখ্যান করার অধিকার সংরক্ষণ করবে। স্থগিত হওয়া ঘরোয়া প্রতিযোগিতা পূর্বনির্ধারিত বিন্যাস থেকে আলাদা বিন্যাস সহকারে পুনরায় শুরু করা যেতে পারে, যার মাধ্যমে উক্ত ঘরোয়া প্রতিযোগিতার ক্লাবগুলো পূর্বের মতোই উয়েফা ক্লাব প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে।[৯][১০] সকল লীগ তাদের প্রতিযোগিতা পুনরায় শুরু করার পরিকল্পনা করছে কিনা সে বিষয়ে উয়েফা সকল অ্যাসোসিয়েশনকে ২০২০ সালের ২৫শে মে তারিখে মধ্যে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে বলেছে,[১১] তবে এই সময়সীমাটি পরবর্তীতে বাড়ানো হয়েছিল। ২০২০ সালের ১৭ই জুন তারিখে, উয়েফা এক ঘোষণায় জানিয়েছিল যে, সকল অ্যাসোসিয়েশনকে অবশ্যই ২০২০ সালের ৩রা আগস্ট তারিখে মধ্যে ঘরোয়া লীগ হতে তাদের দলের প্রবেশ নিশ্চিত করতে হবে।[১]

নিম্নে উল্লেখিত ছকে বন্ধনীগুলো প্রতিটি দল কীভাবে এই আসরে প্রবেশ করেছে তা নির্দেশ করে:

  • চ্যা: চ্যাম্পিয়নস লীগ চ্যাম্পিয়ন
  • ইউ: ইউরোপা লীগ চ্যাম্পিয়ন
  • ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ: পূর্ববর্তী মৌসুম শেষে লীগের পয়েন্ট তালিকায় অবস্থান
  • পরিত্যক্ত-: ইউরোপে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে জাতীয় অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা পরিত্যক্ত মৌসুম শেষে লীগের পয়েন্ট তালিকায় অবস্থান; করোনাভাইরাসের মহামারীর প্রতিক্রিয়া হিসেবে ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় সকল দলের অংশগ্রহণে নির্দেশিকা অনুসারে উয়েফার অনুমোদন প্রয়োজন।[১২]
২০১৯–২০ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে উত্তীর্ণ দল (পর্ব অনুসারে)
গ্রুপ পর্ব
  বায়ার্ন মিউনিখচ্যা (১ম)   ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড (৩য়)   আরবি লাইপৎসিশ (৩য়)   পোর্তু (১ম)
  সেভিয়াইউ (৪র্থ)   চেলসি (৪র্থ)   বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ (৪র্থ)   ক্লাব ব্রুজ (পরিত্যক্ত-১ম)[BEL]
  রিয়াল মাদ্রিদ (১ম)   ইয়ুভেন্তুস (১ম)   পারি সাঁ-জেরমাঁ (পরিত্যক্ত-১ম)[FRA]   শাখতার দোনেৎস্ক (১ম)
  বার্সেলোনা (২য়)   ইন্টার মিলান (২য়)   মার্সেই (পরিত্যক্ত-২য়)[FRA]   ইস্তাম্বুল বাশাকশেহির (১ম)
  আতলেতিকো মাদ্রিদ (৩য়)   আতালান্তা (৩য়)   রেনে (পরিত্যক্ত-৩য়)[FRA]   আয়াক্স (পরিত্যক্ত-১ম)[NED]
  লিভারপুল (১ম)   লাৎসিয়ো (৪র্থ)   জিনিত সেন্ট পিটার্সবার্গ (১ম)
  ম্যানচেস্টার সিটি (২য়)[ENG]   বরুসিয়া ডর্টমুন্ড (২য়)   লকোমতিভ মস্কো (২য়)
প্লে-অফ পর্ব
চ্যাম্পিয়ন পথ লীগ পথ
  রেড বুল জালৎসবুর্গ (১ম)   অলিম্পিয়াকোস (১ম)   ক্রাস্নোদার (৩য়)
  স্লাভিয়া প্রাহা (১ম)
তৃতীয় বাছাইপর্ব
চ্যাম্পিয়ন পথ লীগ পথ
  বেনফিকা (২য়)   দিনামো কিয়েভ (২য়)
  খেন্ট (পরিত্যক্ত-২য়)[BEL]
দ্বিতীয় বাছাইপর্ব
চ্যাম্পিয়নস পথ লীগ পথ
  দিনামো জাগরেব (১ম)   ইয়াং বয়েজ (১ম)   বেশিকতাশ (৩য়)[TUR]   ভিক্টোরিয়া প্লজেন (২য়)
  মিচিল্যান (১ম)   এজেড (পরিত্যক্ত-২য়)[NED]   পিএওকে (২য়)
  রাপিড ভিয়েনা (২য়)   লকোমোতিভা (২য়)
প্রথম বাছাইপর্ব
  ওমোনিয়া (পরিত্যক্ত-১ম)[CYP]   ম্যাকাবি তেল আবিব (১ম)   তিরানা (১ম)   আরারাত-আর্মেনিয়া (১ম)
  রেড স্টার বেলগ্রেড (১ম)   লুদোগোরেতস রাজগ্রাদ (১ম)   ডানডক (১ম)   ফ্লোরিয়ানা (পরিত্যক্ত-১ম)[MLT]
  সেল্টিক (পরিত্যক্ত-১ম)[SCO]   ক্লুজ (১ম)   কেইউপিএস (১ম)   ফ্লোরা (১ম)
  দিনামো ব্রেস্ত (১ম)   স্লোভান ব্রাতিস্লাভ (১ম)   রেইকাভিক (১ম)   দিনামো তিবি‌লিসি (১ম)
  ইয়ুরগোডেন্স (১ম)   সেলিয়ে (১ম)   সারায়েভো (পরিত্যক্ত-১ম)[BIH]   কোনাহ'স কায় (পরিত্যক্ত-১ম)[WAL]
  মোলদা (১ম)   ফেরেন্তসভারোস (১ম)   সুদুভা (১ম)   বুদুচনোস্ত (পরিত্যক্ত-১ম)[MNE]
  আস্তানা (১ম)   সিলেক্স (পরিত্যক্ত-২য়)[MKD]   রিগা (১ম)   ক্লাকসভিক (১ম)
  লেগিয়া ওয়ারশ (১ম)   শেরিফ তিরাস্পোল (১ম)   ফোলা এশ (পরিত্যক্ত-১ম)[LUX]   ইউরোপা (পরিত্যক্ত-১ম)[GIB]
  কারাবাখ (পরিত্যক্ত-১ম)[AZE]
প্রাথমিক পর্ব
  লিনফিল্ড (পরিত্যক্ত-১ম)[NIR]   দ্রিতা (১ম)   ইন্টার ক্লাব দেস্কালদেস (১ম)   ত্রে ফিওরি (পরিত্যক্ত-১ম)[SMR]

টীকা

  1. ^ আজারবাইজান: আজারবাইজানে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ আজারবাইজান প্রিমিয়ার লীগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল কারাবাখ (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; আজারবাইজানী ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য কারাবাখকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[১৩]
  2. ^ বেলজিয়াম: বেলজিয়ামে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ বেলজীয় প্রথম বিভাগ এ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দুটি দল ক্লাব ব্রুজ (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) এবং খেন্ট ছিল; রয়্যাল বেলজিয়ান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্ব এবং তৃতীয় বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য যথাক্রমে ক্লাব ব্রুজ এবং খেন্টকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[১৪]
  3. ^ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা: বসনিয়া ও হার্জেগোভিনায় করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা প্রিমিয়ার লীগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল সারায়েভো (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য সারায়েভোকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[১৫]
  4. ^ সাইপ্রাস: সাইপ্রাসে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ সাইপ্রাসীয় প্রথম বিভাগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল ওমোনিয়া (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; সাইপ্রাস ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য ওমোনিয়াকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[১৬]
  5. ^ ইংল্যান্ড: ম্যানচেস্টার সিটি ২০১৯–২০ প্রিমিয়ার লীগ শেষ পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন, যার ফলে তারা সরাসরি ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে উত্তীর্ণ হয়েছিল। তবে, তারা ২০২০–২১ এবং ২০২১–২২ মৌসুমের জন্য উয়েফার সকল ধরনের ক্লাব প্রতিযোগিতা হতে নিষিদ্ধ ছিল। উয়েফা আর্থিক ন্যায়বিচার আইন লঙ্ঘন করার কারণে উয়েফা ক্লাবের অর্থনৈতিক সংস্থার ২০২০ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি তারিখে এই ঘোষণা প্রদান করে।[১৭] পরবর্তীতে, ম্যানচেস্টার সিটি ক্রীড়া সালিশি আদালতের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আবেদন করেছিল[১৮] এবং ২০২০ সালের ১৩ই জুলাই তারিখে ঘোষণা করা হয়েছিল যে ম্যানচেস্টার সিটির ওপর উয়েফার ক্লাব প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া বিষয়ক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে এবং তারা ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে খেলতে পারবে।[১৯]
  6. ^ ফ্রান্স: ফ্রান্সে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ লীগ ১ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ তিনটি দল পারি সাঁ-জেরমাঁ (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল), মার্সেই এবং রেনে ছিল; ফরাসি ফুটবল ফেডারেশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণের জন্য ক্লাবত্রয়কে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২০]
  7. ^ জিব্রাল্টার: জিব্রাল্টারে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ জিব্রাল্টার জাতীয় লীগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল ইউরোপা ছিল; জিব্রাল্টার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য ইউরোপাকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২১]
  8. ^ লুক্সেমবুর্গ: লুক্সেমবুর্গে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ লুক্সেমবুর্গ জাতীয় বিভাগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল ফোলা এশ ছিল; লুক্সেমবুর্গ ফুটবল ফেডারেশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য ফোলা এশকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২২]
  9. ^ মাল্টা: মাল্টায় করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ মাল্টীয় প্রিমিয়ার লীগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল ফ্লোরিয়ানা (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; লুক্সেমবুর্গ ফুটবল ফেডারেশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য ফ্লোরিয়ানাকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৩]
  10. ^ মন্টিনিগ্রো: মন্টিনিগ্রোয় করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ মন্টিনিগ্রীয় প্রথম লীগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল বুদুচনোস্ত পোদগোরিৎসা (যারা লীগটি সমাপ্ত ঘোষণা করার পূর্বেই শিরোপা জয় নিশ্চিত করেছিল) ছিল; মন্টিনিগ্রো ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য বুদুচনোস্ত পোদগোরিৎসাকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৪]
  11. ^ নেদারল্যান্ডস: নেদারল্যান্ডসে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ এরেডিভিজি পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল আয়াক্স এবং এজেড ছিল; রয়্যাল ডাচ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে এবং দ্বিতীয় বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য যথাক্রমে আয়াক্স এবং এজেডকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৫]
  12. ^ উত্তর মেসিডোনিয়া: উত্তর মেসিডোনিয়ায় করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ ম্যাসেডোনীয় প্রথম ফুটবল লীগ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল ভারদার (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; তবে ভারদার উয়েফার সনদ অর্জন করতে সমর্থ হয়নি। এর ফলস্বরূপ, লুক্সেমবুর্গ ফুটবল ফেডারেশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য পয়েন্ট তালিকায় দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারী দল সিলেক্সকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৬]
  13. ^ উত্তর আয়ারল্যান্ড: উত্তর আয়ারল্যান্ডে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ এনআইএফএল প্রিমিয়ারশিপ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল লিনফিল্ড (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; আইরিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রাথমিক পর্বে অংশগ্রহণের জন্য লিনফিল্ডকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৭]
  14. ^ সান মারিনো: সান মারিনোয় করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ কাম্পিওনাতো সাম্মারিনেজে দি কালচো পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল ত্রে ফিওরি (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; সান মারিনো ফুটবল ফেডারেশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রাথমিক পর্বে অংশগ্রহণের জন্য ত্রে ফিওরিকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৮]
  15. ^ স্কটল্যান্ড: স্কটল্যান্ডে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ স্কটিশ প্রিমিয়ারশিপ পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল সেল্টিক (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; স্কটিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য সেল্টিককে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[২৯]
  16. ^ তুরস্ক: ২০১৯–২০ সুপার লীগে দ্বিতীয় স্থান অধিকারী ত্রাবজোনস্পোর ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের দ্বিতীয় বাছাইপর্বের জন্য অংশগ্রহণের জন্য হতো, তবে ২০২০–২১ মৌসুমের উয়েফার সকল ধরনের ক্লাব প্রতিযোগিতা হতে নিষিদ্ধ রয়েছে। উয়েফা আর্থিক ন্যায়বিচার আইন লঙ্ঘন করার কারণে উয়েফা ক্লাবের অর্থনৈতিক সংস্থার ২০২০ সালের ৩রা জুন তারিখে এই ঘোষণা প্রদান করে।[৩০] পরবর্তীতে, ত্রাবজোনস্পোর ক্রীড়া সালিশি আদালতের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আবেদন করেছিল[৩১] এবং ২০২০ সালের ৩০শে জুলাই তারিখে ঘোষণা করা হয়েছিল যে ম্যানচেস্টার সিটির ওপর উয়েফার ক্লাব প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া বিষয়ক নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে এবং তারা ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে খেলতে পারবে না।[৩২] এর ফলস্বরূপ, তুর্কি ফুটবল ফেডারেশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের দ্বিতীয় বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য পয়েন্ট তালিকায় তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দল বেশিকতাশকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।
  17. ^ ওয়েলস: ওয়েলসে করোনাভাইরাসের মহামারীর কারণে ২০১৯–২০ কেমরে প্রিমিয়ার পরিত্যক্ত হয়েছিল। লীগ সমাপ্ত ঘোষণা করার সময় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ দল কোনাহ'স কায় নোমাডস (যারা চ্যাম্পিয়ন ঘোষিত হয়েছিল) ছিল; ওয়েলস ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের প্রথম বাছাইপর্বে অংশগ্রহণের জন্য কোনাহ'স কায় নোমাডসকে প্রতিনিধি হিসেবে নির্ধারণ করেছিল।[৩৩]

সময়সূচিসম্পাদনা

এই আসরটি মূলত ২০২০ সালের জুনে শুরু হওয়ার কথা ছিল, তবে ইউরোপে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে এটি আগস্ট পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছিল।[৩৪] ২০২০ সালের ১৭ই জুন তারিখে উয়েফার নির্বাহী কমিটি একটি নতুন সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছিল।[৩৫] প্লে-অফ ব্যতীত বাছাইপর্বের সকল ম্যাচ এক লেগের ম্যাচ হিসেবে আয়োজন করা হয়েছিল, যেখানে খেলায় অংশগ্রহণকারী দুটি দলের মধ্যে যেকোন একটি দল ম্যাচটি আয়োজন করেছে (প্রাথমিক পর্ব ব্যতীত, যেগুলো নিরপেক্ষ মাঠে আয়োজন করা হয়েছিল); যেটি ড্রয়ের দিন নির্ধারণ করা হয়েছিল।[১][৩৬]

এই আসরের সকল পর্বের সময়সূচি নিম্নে উল্লেখ করা হলো (সকল ড্র উয়েফার প্রধান সদরদপ্তর সুইজারল্যান্ডের নিওঁ-এ অনুষ্ঠিত হয়েছে, যদি না অন্যথায় অনুষ্ঠিত হওয়ার বিষয়ে বিবৃতি প্রদান করা হয়েছে)।[৩৭]

গ্রুপ পর্বের ড্রটি মূলত গ্রিসের এথেন্সের স্তাভরোস নারচোস ফাউন্ডেশন কালচারাল সেন্টারে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল, তবে উয়েফা ২০২০ সালের ৯ই সেপ্টেম্বর তারিখে এক ঘোষণায় জানায় যে, গ্রুপ পর্বের ড্রটি নিওঁয়ে অনুষ্ঠিত হবে।[৩৮] তবে শেষ পর্যন্ত এটি জেনেভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের সময়সূচি
ধাপ পর্ব ড্রয়ের তারিখ প্রথম লেগ দ্বিতীয় লেগ
বাছাইপর্ব প্রাথমিক পর্ব ১৭ জুলাই ২০২০ ৮ আগস্ট ২০২০ (সেমি-ফাইনাল পর্ব) ১১ আগস্ট ২০২০ (ফাইনাল পর্ব)
প্রথম বাছাইপর্ব ৯ আগস্ট ২০২০ ১৮–১৯ আগস্ট ২০২০
দ্বিতীয় বাছাইপর্ব ১০ আগস্ট ২০২০ ২৫–২৬ আগস্ট ২০২০
তৃতীয় বাছাইপর্ব ৩১ আগস্ট ২০২০ ১৫–১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
প্লে-অফ প্লে-অফ পর্ব ১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২২–২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২৯–৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
গ্রুপ পর্ব ম্যাচদিন ১ ১ অক্টোবর ২০২০
(জেনেভা)
২০–২১ অক্টোবর ২০২০
ম্যাচদিন ২ ২৭–২৮ অক্টোবর ২০২০
ম্যাচদিন ৩ ৩–৪ নভেম্বর ২০২০
ম্যাচদিন ৪ ২৪–২৫ নভেম্বর ২০২০
ম্যাচদিন ৫ ১–২ ডিসেম্বর ২০২০
ম্যাচদিন ৬ ৮–৯ ডিসেম্বর ২০২০
নকআউট পর্ব ১৬ দলের পর্ব ১৪ ডিসেম্বর ২০২০ ১৬–১৭ ও ২৩–২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ৯–১০ মার্চ ও ১৬–১৭ মার্চ ২০২১
কোয়ার্টার-ফাইনাল ১৯ মার্চ ২০২১ ৬–৭ এপ্রিল ২০২১ ১৩–১৪ এপ্রিল ২০২১
সেমি-ফাইনাল ২৭–২৮ এপ্রিল ২০২১ ৪–৫ মে ২০২১
ফাইনাল তুরস্কের ইস্তাম্বুলের আতাতুর্ক স্টেডিয়ামে ২০২১ সালের ২৯শে মে

মহামারীর পূর্বে পরিকল্পনা অনুসারে এই আসরের মূল সময়সূচিটি নিম্নরূপ (সকল ড্র উয়েফার প্রধান সদরদপ্তর সুইজারল্যান্ডের নিওঁ-এ অনুষ্ঠিত হয়েছে, যদি না অন্যথায় অনুষ্ঠিত হওয়ার বিষয়ে বিবৃতি প্রদান করা হয়েছে):

করোনাভাইরাস মহামারীর প্রভাবসম্পাদনা

ইউরোপে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে, এই আসরে নিম্নে উল্লেখিত বিশেষ নিয়মগুলো প্রয়োগ করা হয়েছে:[৩৯][৪০]

  • যদি কোন দেশে করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর জন্য ভ্রমণে বিধিনিষেধ থাকে যা সফরকারী দলকে স্বাগতিক দলের দেশে প্রবেশ করতে বা তাদের নিজের দেশে ফিরে আসতে বাধা প্রদান করে, তবে ম্যাচটি একটি নিরপেক্ষ দেশে বা সফরকারী দলের দেশে আয়োজন করা যেতে পারে।
  • কোন দল যদি খেলতে অস্বীকৃতি জানায় বা ম্যাচটি না হওয়ার জন্য দায়ী বলে বিবেচিত হয়, তবে তারা উক্ত ম্যাচে বাজেয়াপ্ত বলে বিবেচিত হবে। উভয় দল যদি খেলতে অস্বীকার করে বা ম্যাচটি না হওয়ার জন্য দায়ী বলে বিবেচিত হয়, তবে উভয় দলকেই অযোগ্য ঘোষণা করা হবে।
  • যদি কোন দলের খেলোয়াড়ের এবং / অথবা কর্মকর্তার সার্স-২ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসে এবং তারা উয়েফার নির্ধারিত সময়সীমার পূর্বে ম্যাচে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে না পারে, তবে তারা উক্ত ম্যাচে বাজেয়াপ্ত হয়েছেন বলে বিবেচিত হবেন।

২০২০ সালের ২৪শে সেপ্টেম্বর তারিখে, উয়েফা এক ঘোষণায় জানিয়েছিল যে প্রতি দলকে গ্রুপ পর্বের ম্যাচ হতে প্রতি ম্যাচে ৫ জন খেলোয়াড় বদল করার অনুমতি দেওয়া হবে, অন্যদিকে অতিরিক্ত সময়ে ষষ্ঠ খেলোয়াড় পরিবর্তন করা যাবে। তবে পরবর্তীতে প্রতিটি দলকে ম্যাচ চলাকালীন খেলোয়াড় বদলের জন্য অতিরিক্ত সময়ে চতুর্থ খেলোয়াড় বদল করা, অতিরিক্ত সময় শুরুর পূর্বে প্রথমার্ধ শেষে বদল করা খেলোয়াড় এবং অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধ শেষে বদল করা খেলোয়াড় বাদ দিয়ে কেবলমাত্র তিনটি সুযোগ দেওয়া হয়। এর ফলস্বরূপ, প্রতি ম্যাচে সর্বোচ্চ ১২ জন বদলি খেলোয়াড় তালিকাভুক্ত করা যেতে পারবে।[৪১]

বাছাইপর্বের সকল ম্যাচ বিনা দর্শকের উপস্থিতিতে বন্ধ দরজার পেছনে আয়োজন করা হয়েছিল।[৩৬] ২০২০ উয়েফা সুপার কাপে দর্শকদের আংশিক প্রত্যাবর্তনের পরে, ২০২০ সালের ১লা অক্টোবর উয়েফা এক ঘোষণায় জানিয়েছিল যে, গ্রুপ পর্বের পরের ম্যাচগুলোতে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে ৩০% দর্শক মাঠে উপস্থিত থেকে খেলা উপভোগ করতে পারবে।[৪২]

প্রাথমিক পর্বসম্পাদনা

২০২০ সালের ১৭ই জুলাই তারিখে দুপুর ১২টায় (সিইএসটি) প্রাথমিক পর্বের জন্য ড্র অনুষ্ঠিত হয়েছিল।[৪৩] এই পর্বের সেমি-ফাইনালের ম্যাচদ্বয় ৮ই আগস্ট তারিখে সুইজারল্যান্ডের নিওঁয়ের কলোরায় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে।[৪৪] অন্যদিকে, এই পর্বের ফাইনাল ম্যাচটি ১১ই আগস্ট তারিখে একই স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল, তবে দ্রিতার দুই জন খেলোয়াড়ের সার্স-২ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসার পরে লিনফিল্ডকে প্রায়োগিকভাবে ৩–০ গোলের জয় পুরস্কৃত করা হয়।

দল ১  ফলাফল  দল ২
সেমি-ফাইনাল পর্ব
ত্রে ফিওরি   ০–২   লিনফিল্ড
দ্রিতা   ২–১   ইন্টার ক্লাব দেস্কালদেস
দল ১  ফলাফল  দল ২
ফাইনাল পর্ব
দ্রিতা   ০–৩
(পুরস্কৃত)[ক]
  লিনফিল্ড
  1. মূলত দ্রিতা এবং লিনফিল্ডের মধ্যকার প্রাথমিক পর্বের ফাইনাল ম্যাচটি ২০২০ সালের ১১ই আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল, তবে দ্রিতার দুই জন খেলোয়াড়ের সার্স-২ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসার কারণে এবং পুরো সুইস কর্তৃপক্ষ দ্বারা পুরো দল কোয়ারেন্টিনে যাওয়ার ফলে দ্রিতা এই ম্যাচে অংশগ্রহণ করতে পারেনি।[৪৫][৪৬] অতঃপর উয়েফার কোভিড-১৯ সম্পর্কিত নিয়ম অনুযায়ী লিনফিল্ডকে প্রায়োগিকভাবে ৩–০ গোলের জয় পুরস্কৃত করা হয়।[৪৭][৪৮]

সেমিফাইনাল এবং চূড়ান্ত পর্বে পরাজিত দল ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের দ্বিতীয় বাছাইপর্বে প্রবেশ করেছে।

বাছাইপর্বসম্পাদনা

প্রথম বাছাইপর্বসম্পাদনা

২০২০ সালের ৯ই আগস্ট তারিখে দুপুর ১২টায় (সিইএসটি) প্রথম বাছাইপর্বের জন্য ড্র অনুষ্ঠিত হয়েছিল।[৪৯] এই পর্বের ম্যাচগুলো ২০২০ সালের ১৮ এবং ১৯শে আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্লোভান ব্রাতিস্লাভের ১ জন খেলোয়াড়ের সার্স-২ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসার পর পুরো দল কোয়ারেন্টিনে যাওয়ার ফলে ক্লাকসভিক এবং স্লোভান ব্রাতিস্লাভের মধ্যকার ম্যাচটি বাতিল করে ক্লাকসভিককে প্রায়োগিকভাবে ৩–০ গোলের জয় পুরস্কৃত করা হয়।

দল ১  ফলাফল  দল ২
ফেরেন্তসভারোস   ২–০   ইয়ুরগোডেন্স
সেল্টিক   ৬–০   রেইকাভিক
লেগিয়া ওয়ারশ   ১–০   লিনফিল্ড
শেরিফ তিরাস্পোল   ২–০   ফোলা এশ
কোনাহ'স কায় নোমাডস   ০–২   সারায়েভো
রেড স্টার বেলগ্রেড   ৫–০   ইউরোপা
বুদুচনোস্ত পোদগোরিৎসা   ১–৩   লুদোগোরেতস রাজগ্রাদ
আরারাত-আর্মেনিয়া   ০–১ (অ.স.প.)   ওমোনিয়া
ফ্লোরিয়ানা   ০–২   ক্লুজ
ম্যাকাবি তেল আবিব   ২–০   রিগা
কারাবাখ   ৪–০   সিলেক্স
দিনামো তিবি‌লিসি   ০–২   তিরানা
দিনামো ব্রেস্ত   ৬–৩   আস্তানা
মোলদা   ৫–০   কেইউপিএস
ফ্লোরা   ১–১ (অ.স.প.)
(২–৪ পেনাল্টি)
  সুদুভা
সেলিয়ে   ৩–০   ডানডক
ক্লাকসভিক   ৩–০
(পুরস্কৃত)[ক]
  স্লোভান ব্রাতিস্লাভ
  1. মূলত ক্লাকসভিক এবং স্লোভান ব্রাতিস্লাভের মধ্যকার প্রাথমিক পর্বের ফাইনাল ম্যাচটি ২০২০ সালের ১৯শে আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল, তবে স্লোভান ব্রাতিস্লাভের একজন কর্মকর্তা সার্স-২ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসার কারণে এবং ফারো কর্তৃপক্ষ দ্বারা পুরো দল কোয়ারেন্টিনে যাওয়ার ফলে স্লোভান ব্রাতিস্লাভ এই মেচটি ২১শে আগস্ট পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছিল।[৫০] ২১শে আগস্ট তারিখে, স্লোভান ব্রাতিস্লাভের একজন খেলোয়াড়ের সার্স-২ করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ইতিবাচক ফলাফল আসার কারণে ফারো কর্তৃপক্ষ দ্বারা দ্বিতীয় সারির পুরো দল কোয়ারেন্টিনে যাওয়ার ফলে ম্যাচটি আর অনুষ্ঠিত হতে পারেনি।[৫১][৫২] অতঃপর উয়েফার কোভিড-১৯ সম্পর্কিত নিয়ম অনুযায়ী ক্লাকসভিককে প্রায়োগিকভাবে ৩–০ গোলের জয় পুরস্কৃত করা হয়।[৫৩][৫৪]

এই পর্বে পরাজিত দল ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের দ্বিতীয় বাছাইপর্বে প্রবেশ করেছে।

দ্বিতীয় বাছাইপর্বসম্পাদনা

২০২০ সালের ১০ই আগস্ট তারিখে দুপুর ১২টায় (সিইএসটি) দ্বিতীয় বাছাইপর্বের জন্য ড্র অনুষ্ঠিত হয়েছিল।[৫৫] এই পর্বের ম্যাচগুলো ২০২০ সালের ২৫ এবং ২৬শে আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দল ১  ফলাফল  দল ২
চ্যাম্পিয়ন পথ
ক্লুজ   ২–২ (অ.স.প.)
(৫–৬ পেনাল্টি)
  দিনামো জাগরেব
ইয়াং বয়েজ   ৩–১   ক্লাকসভিক
সেল্টিক   ১–২   ফেরেন্তসভারোস
সুদুভা   ০–৩   ম্যাকাবি তেল আবিব
লেগিয়া ওয়ারশ   ০–২ (অ.স.প.)   ওমোনিয়া
সেলিয়ে   ১–২   মোলদা
লুদোগোরেতস রাজগ্রাদ   ০–১   মিচিল্যান
দিনামো ব্রেস্ত   ২–১   সারায়েভো
কারাবাখ   ২–১   শেরিফ তিরাস্পোল
তিরানা   ০–১   রেড স্টার বেলগ্রেড
দল ১  ফলাফল  দল ২
লীগ পথ
এজেড   ৩–১ (অ.স.প.)   ভিক্টোরিয়া প্লজেন
ভিক্টোরিয়া প্লজেন   ৩–১   বেশিকতাশ
লকোমোতিভা   ০–১   রাপিড ভিয়েনা

চ্যাম্পিয়ন পথে পরাজিত দশটি দল থেকে দুটি দল, তিরানা এবং লুদোগোরেতস রাজগ্রাদ প্লে-অফে (চ্যাম্পিয়ন পথ) প্রবেশ করেছে, ইউরোপা লীগের দ্বিতীয় বাছাইপর্বের ড্রয়ের পর ২০২০ সালের ৩১শে আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত একটি ড্র দ্বারা নির্ধারিত হয়েছিল।[৫৬] অন্য আটটি দল তৃতীয় বাছাইপর্বে (চ্যাম্পিয়ন পথ) প্রবেশ করেছিল। লীগ পথে পরাজিত দলগুলো ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের তৃতীয় বাছাইপর্বে (মূল পথ) প্রবেশ করেছে।

তৃতীয় বাছাইপর্বসম্পাদনা

দল ১  ফলাফল  দল ২
চ্যাম্পিয়ন পথ
ফেরেন্তসভারোস   ২–১   দিনামো জাগরেব
কারাবাখ   ০–০ (অ.স.প.)
(৫–৬ পেনাল্টি)
  মোলদা
ওমোনিয়া   ১–১ (অ.স.প.)
(৪–২ পেনাল্টি)
  রেড স্টার বেলগ্রেড
মিচিল্যান   ৩–০   ইয়াং বয়েজ
ম্যাকাবি তেল আবিব   ১–০   দিনামো ব্রেস্ত
দল ১  ফলাফল  দল ২
লীগ পথ
পিএওকে   ২–১   বেনফিকা
দিনামো কিয়েভ   ২–০   এজেড
খেন্ট   ২–১   রাপিড ভিয়েনা

এই পর্বে পরাজিত দল ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের প্লে-অফে (চ্যাম্পিয়ন পথ) প্রবেশ করেছে। অন্যদিকে, এই লীগ পথে পরাজিত দল ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের গ্রুপ পর্বে প্রবেশ করেছে।

প্লে-অফসম্পাদনা

দল ১ সমষ্টি দল ২ ১ম লেগ ২য় লেগ
চ্যাম্পিয়ন পথ
স্লাভিয়া প্রাহা   ১–৪   মিচিল্যান ০–০ ১–৪
ম্যাকাবি তেল আবিব   ২–৫   রেড বুল জালৎসবুর্গ ১–২ ১–৩
অলিম্পিয়াকোস   ২–০   ওমোনিয়া ২–০ ০–০
মোলদা   ৩–৩ (অ্যা)   ফেরেন্তসভারোস ৩–৩ ০–০
দল ১ সমষ্টি দল ২ ১ম লেগ ২য় লেগ
লীগ পথ
ক্রাস্নোদার   ৪–২   পিএওকে ২–১ ২–১
খেন্ট   ১–৫   দিনামো কিয়েভ ১–২ ০–৩

এই পর্বের চ্যাম্পিয়ন পথ এবং লীগ পথে পরাজিত দল ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের গ্রুপ পর্বে প্রবেশ করেছে।

গ্রুপ পর্বসম্পাদনা

 
 
ম্যানচেস্টার
 
মাদ্রিদ
২০২০–২১ উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের গ্রুপ পর্বে খেলা দলগুলোর অবস্থান।
  বাদামী: গ্রুপ পর্ব;   লাল: গ্রুপ পর্ব;   কমলা: গ্রুপ পর্ব;   হলুদ: গ্রুপ ডি;
  সবুজ: গ্রুপ ই;   নীল: গ্রুপ এফ;   বেগুনী: গ্রুপ জি;   গোলাপী: গ্রুপ এইচ।

গ্রুপ পর্বে মোট ১৪টি দেশ থেকে ৩২টি দল অংশগ্রহণ করেছে: ২৬টি দল সরাসরিভাবে এই পর্বে অংশগ্রহণ করেছে এবং ৬টি দল প্লে-অফ হতে (৪টি চ্যাম্পিয়ন পথ হতে এবং ২টি লীগ পথ হতে) উত্তীর্ণ হয়ে দল এই পর্বে অংশগ্রহণ করেছে।

২০২০ সালের ১লা অক্টোবর তারিখে বিকাল ৫টায় (সিইএসটি) সুইজারল্যান্ডের জেনেভার আরটিএস স্টুডিওজে গ্রুপ পর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হয়েছে।[৫৭] এই ড্রয়ে সর্বমোট ৩২টি দলকে ৮টি গ্রুপে বিভক্ত করা হয়েছে, যেখানে প্রতিটি গ্রুপে ৪টি করে দল রয়েছে। উক্ত ড্রয়ে নিয়ম ছিল যে একই অ্যাসোসিয়েশনের দলগুলোকে পরস্পরের বিপক্ষে ড্র করা যাবে না। ড্রয়ের জন্য, দলগুলোকে ৪টি পাত্রে নিম্নলিখিত নীতির উপর ভিত্তি করে ভাগ করা হয়েছে (যা ২০১৫–১৬ মৌসুম হতে কার্যকর হচ্ছে):[৫৮][৫৯]

  • পাত্র ১-এ চ্যাম্পিয়নস লীগ এবং ইউরোপা লীগের চ্যাম্পিয়ন দল এবং ২০১৯ উয়েফা দেশ গুণাঙ্কের উপর ভিত্তি করে শীর্ষ ৬টি অ্যাসোসিয়েশনের চ্যাম্পিয়নদের রাখা হয়েছে।[৩] যদি উক্ত দুই প্রতিযোগিতার কোন এক চ্যাম্পিয়ন অথবা উভয় চ্যাম্পিয়ন দল শীর্ষ ৬ অ্যাসোসিয়েশনের মধ্যে বিদ্যমান থাকে তবে পরবর্তী শীর্ষ অবস্থানের অ্যাসোসিয়েশনের চ্যাম্পিয়ন দল পাত্র ১-এ স্থান পাবে।
  • পাত্র ২, ৩ এবং ৪-এ অবশিষ্ট দলগুলোকে ২০২০ উয়েফা দেশ গুণাঙ্কের উপর ভিত্তি করে রাখা হয়েছে।[৬০]

প্রত্যেক গ্রুপে, দলগুলো প্রত্যেক দলের সাথে রাউন্ড-রবিন নিয়মে নিজস্ব মাঠে এবং বিপরীত দলের মাঠে ম্যাচ খেলবে। প্রত্যেক গ্রুপের বিজয়ী দল এবং রানার-আপ দল ১৬ দলের পর্বের জন্য উন্নীত হবে এবং তৃতীয় স্থান অধিকারী দলগুলো ২০২০–২১ উয়েফা ইউরোপা লীগের ৩২ দলের পর্বে প্রবেশ করবে। এই পর্বের ম্যাচদিনগুলো হলো: ২০–২১ অক্টোবর, ২৭–২৮ অক্টোবর, ৩–৪ নভেম্বর, ২৪–২৫ নভেম্বর, ১–২ ডিসেম্বর এবং ৮–৯ ডিসেম্বর ২০২০।

যেসকল ক্লাবগুলো গ্রুপ পর্বে খেলার জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছে তাদের যুব দলগুলোও ২০২০–২১ উয়েফা যুব লীগে একই দিনে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে, যেখানে দলগুলো উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগ পথ (শীর্ষ ৩২ অ্যাসোসিয়েশনের ঘরোয়া চ্যাম্পিয়ন দল প্লে-অফের পূর্ব পর্যন্ত আলাদা ঘরোয়া চ্যাম্পিয়নস পথে অংশগ্রহণ করেছে।

এই আসরের গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে ইস্তাম্বুল বাশাকশেহির, ক্রাস্নোদার, মিচিল্যান এবং রেনে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগে অভিষেক করেছে। অন্যদিকে, এই আসরে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লীগের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৩টি রুশ দল গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করেছে।[৬১]

গ্রুপ এসম্পাদনা

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন BAY ATM SAL LMO
  বায়ার্ন মিউনিখ ১৮ +১৩ ১৬ নকআউট পর্বের জন্য উত্তীর্ণ ৪–০ ৩–১ ২–০
  আতলেতিকো মাদ্রিদ −১ ১–১ ৩–২ ০–০
  রেড বুল জালৎসবুর্গ ১০ ১৭ −৭ ইউরোপা লীগে স্থানান্তরিত ২–৬ ০–২ ২–২
  লকোমতিভ মস্কো ১০ −৫ ১–২ ১–১ ১–৩
উৎস: উয়েফা
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার




লকোমতিভ মস্কো  ১–৩  রেড বুল জালৎসবুর্গ
প্রতিবেদন

গ্রুপ বিসম্পাদনা

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন RMA MÖN SHK INT
  রিয়াল মাদ্রিদ ১১ +২ ১০ নকআউট পর্বের জন্য উত্তীর্ণ ২–০ ২–৩ ৩–২
  বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ১৬ +৭ [ক] ২–২ ৪–০ ২–৩
  শাখতার দোনেৎস্ক ১২ −৭ [ক] ইউরোপা লীগে স্থানান্তরিত ২–০ ০–৬ ০–০
  ইন্টার মিলান −২ ০–২ ২–২ ০–০
উৎস: উয়েফা
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার
টীকা:
  1. হেড-টু-হেড পয়েন্ট: বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখ ৬, শাখতার দোনেৎস্ক ০।





গ্রুপ সিসম্পাদনা

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন MCI POR OLY MAR
  ম্যানচেস্টার সিটি ১৩ +১২ ১৬ নকআউট পর্বের জন্য উত্তীর্ণ ৩–১ ৩–০ ৩–০
  পোর্তু ১০ +৭ ১৩ ০–০ ২–০ ৩–০
  অলিম্পিয়াকোস ১০ −৮ [ক] ইউরোপা লীগে স্থানান্তরিত ০–১ ০–২ ১–০
  মার্সেই ১৩ −১১ [ক] ০–৩ ০–২ ২–১
উৎস: উয়েফা
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার
টীকা:
  1. হেড-টু-হেড অ্যাওয়ে গোল: অলিম্পিয়াকোস ১, মার্সেই ০।





গ্রুপ ডিসম্পাদনা

অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন LIV ATA AJX MID
  লিভারপুল ১০ +৭ ১৩ নকআউট পর্বের জন্য উত্তীর্ণ ০–২ ১–০ ২–০
  আতালান্তা ১০ +২ ১১ ০–৫ ২–২ ১–১
  আয়াক্স ইউরোপা লীগে স্থানান্তরিত ০–১ ০–১ ৩–১
  মিচিল্যান ১৩ −৯ ১–১ ০–৪ ১–২
উৎস: উয়েফা
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: গ্রুপ পর্বের টাইব্রেকার
মিচিল্যান