অঁতোনি মার্সিয়াল

ফরাসি ফুটবলার

অঁতোনি জর্দান মার্সিয়াল (ফরাসি: Anthony Martial, ফরাসি উচ্চারণ: ​[ɑ̃.toni maʁsjal]; জন্ম: ৫ ডিসেম্বর ১৯৯৫; অঁতোনি মার্সিয়াল নামে সুপরিচিত) হলেন একজন ফরাসি পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি বর্তমানে ইংল্যান্ডের পেশাদার ফুটবল লীগের শীর্ষ স্তর প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এবং ফ্রান্স জাতীয় দলের হয়ে আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন। তিনি মূলত কেন্দ্রীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেললেও মাঝেমধ্যে ডান পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় এবং বাম পার্শ্বীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেন।

অঁতোনি মার্সিয়াল
Anthony Martial 27 September 2017 cropped.jpg
২০১৭ সালে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে মার্সিয়াল
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম অঁতোনি জর্দান মার্সিয়াল[১]
জন্ম (1995-12-05) ৫ ডিসেম্বর ১৯৯৫ (বয়স ২৫)
জন্ম স্থান মাসি, ফ্রান্স
উচ্চতা ১.৮১ মিটার (৫ ফুট ১১  ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান আক্রমণভাগের খেলোয়াড়
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব
ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড
জার্সি নম্বর
যুব পর্যায়
২০০১–২০০৯ লেজ উলিস
২০০৯–২০১২ লিওঁ
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
২০১২–২০১৩ লিওঁ যুব ১১ (৫)
২০১৩ লিওঁ (০)
২০১৩ মোনাকো যুব (৩)
২০১৩–২০১৫ মোনাকো ৪৯ (১১)
২০১৫– ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড 169 (৫৫)
জাতীয় দল
২০১০–২০১১ ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৬ ১৭ (৯)
২০১১–২০১২ ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৭ ১৩ (৯)
২০১২–২০১৩ ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৮ (৩)
২০১৩ ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৯ (০)
২০১৩–২০১৫ ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-২১ ১২ (৪)
২০১৫– ফ্রান্স ২৭ (২)
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে এবং ১২:২৩, ২৯ আগস্ট ২০২১ (ইউটিসি) তারিখ অনুযায়ী সকল তথ্য সঠিক।
‡ জাতীয় দলের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা ১২:২৩, ২৯ আগস্ট ২০২১ (ইউটিসি) তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

২০০১–০২ মৌসুমে, ফরাসি ফুটবল ক্লাব লেজ উলিসের যুব পর্যায়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে মার্সিয়াল ফুটবল জগতে প্রবেশ করেছেন এবং পরবর্তীকালে লিওঁয়ের যুব দলের হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি ফুটবল খেলায় বিকশিত হয়েছেন। ২০১২–১৩ মৌসুমে, প্রথমে লিওঁ যুব এবং অতঃপর লিওঁয়ের হয়ে খেলার মাধ্যমে তিনি তার জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ি জীবন শুরু করেছেন, যেখানে তিনি মাত্র এক মৌসুম অতিবাহিত করেছেন; লিওঁয়ের হয়ে তিনি ৩ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন। অতঃপর ২০১৩–১৪ মৌসুমে তিনি প্রায় ৫ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ফরাসি ক্লাব মোনাকোয় যোগদান করেছেন। ২০১৫–১৬ মৌসুমে, তিনি প্রায় ৬০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে মোনাকো হতে ইংরেজ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগদান করেছেন।

২০১০ সালে, মার্সিয়াল ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে ফ্রান্সের বয়সভিত্তিক পর্যায়ে অভিষেক করেছিলেন। প্রায় ৬ বছর যাবত ফ্রান্সের বয়সভিত্তিক দলের হয়ে খেলার পর, তিনি ২০১৫ সালে ফ্রান্সের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছেন; ফ্রান্সের জার্সি গায়ে তিনি এপর্যন্ত ২৭ ম্যাচে ২টি গোল করেছেন। তিনি ফ্রান্সের হয়ে উয়েফা ইউরো ২০১৬-এ অংশগ্রহণ করেছেন, যেখানে দিদিয়ে দেশঁয়ের অধীনে রানার-আপ হয়েছেন।

ব্যক্তিগতভাবে, মার্সিয়াল বেশ কিছু পুরস্কার জয়লাভ করেছেন, যার মধ্যে ২০১৫ সালে গোল্ডেন বয় জয় অন্যতম।[২] দলগতভাবে, মার্সিয়াল এপর্যন্ত ৪টি শিরোপা জয়লাভ করেছেন, যার সবগুলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে জয়লাভ করেছেন।

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

অঁতোনি জর্দান মার্সিয়াল ১৯৯৫ সালের ৫ই ডিসেম্বর তারিখে ফ্রান্সের প্যারিস হতে ১৪.৭ কিলোমিটার দূরবর্তী মাসিতে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং সেখানেই তার শৈশব অতিবাহিত করেছেন। তিনি গুয়াদলুপীয় বংশোদ্ভূত।[৩] তার বড় ভাই জোয়ান মার্সিয়াল এবং [[দোরিয়ান মার্সিয়াল] উভয়ই পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়, এর মধ্যে জোয়ান ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে ফুটবল খেলেছেন।[৪] মার্সিয়ালের পরিবার তাদের শিশুদের শিক্ষার উপর খুব জোর দিতো।[৪] তার শৈশবের ফুটবল শিক্ষক তাকে লাজুক এবং শান্ত প্রকৃতির মানুষ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।[৪] মার্সিয়াল একজন ক্যাথলিক এবং প্রত্যেক খেলার পূর্বে তিনি প্রার্থনা করেন।[৫]

আন্তর্জাতিক ফুটবলসম্পাদনা

মার্সিয়াল ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৬, ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৭, ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৮, ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৯ এবং ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে খেলার মাধ্যমে ফ্রান্সের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। ২০১০ সালের ২১শে সেপ্টেম্বর তারিখে তিনি ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে অভিষেক করেছেন। ফ্রান্স অনূর্ধ্ব-১৭ দলের হয়ে তিনি ২০১২ উয়েফা ইউরোপীয় অনূর্ধ্ব-১৭ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করেছেন,[৬][৭] তবে তার দল উক্ত প্রতিযোগিতার গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল; উক্ত প্রতিযোগিতায় তিনি ৩ ম্যাচে ১টি গোল করেছিলেন।[৮] এক বছর পর স্পেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে তিনি ২০১৩ উয়েফা ইউরোপীয় অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণ করেছেন,[৯] উক্ত প্রতিযোগিতার ফাইনালে তার দল সার্বিয়া অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে ১–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিল;[১০] এই আসরে তিনি ৫ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছিলেন।[১১] ফ্রান্সের বয়সভিত্তিক দলের হয়ে তিনি ৫১ ম্যাচে অংশগ্রহণ করে ২৫টি গোল করেছেন।

২০১৫ সালের ৪ঠা সেপ্টেম্বর তারিখে, মাত্র ১৯ বছর ৮ মাস ৩০ দিন বয়সে, ডান পায়ে ফুটবল খেলায় পারদর্শী মার্সিয়াল পর্তুগালের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফ্রান্সের হয়ে অভিষেক করেছেন।[১২] উক্ত ম্যাচের ৭৪তম মিনিটে আক্রমণভাগের খেলোয়াড় করিম বেনজেমার বদলি খেলোয়াড় হিসেবে তিনি মাঠে প্রবেশ করেন;[১৩] ম্যাচে তিনি ২০ নম্বর জার্সি পরিধান করে কেন্দ্রীয় আক্রমণভাগের খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছেন।[১৪] ম্যাচটি ফ্রান্স ১–০ গোলের ব্যবধানে জয়লাভ করেছিল।[১৫] ফ্রান্সের হয়ে অভিষেকের বছরে মার্সিয়াল সর্বমোট ৬ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন। জাতীয় দলের হয়ে অভিষেকের ১১ মাস ২৮ দিন পর, ফ্রান্সের জার্সি গায়ে প্রথম গোলটি করেন; ২০১৬ সালের ১লা নভেম্বর তারিখে, ইতালির বিরুদ্ধে ম্যাচে ফ্রান্সের হয়ে প্রথম গোলটি করার মাধ্যমে তিনি আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার প্রথম গোলটি করেন।[১৬][১৭][১৮]

পরিসংখ্যানসম্পাদনা

আন্তর্জাতিকসম্পাদনা

২৯ আগস্ট ২০২১ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
দল সাল ম্যাচ গোল
ফ্রান্স ২০১৬
২০১৭
২০১৮
২০১৯
২০২০
২০২১
সর্বমোট ২৭

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "List of Players under Written Contract Registered Between 01/09/2015 and 30/09/2015"। The Football Association। পৃষ্ঠা 3। ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০১৯ 
  2. Swales, Andy (১৯ ডিসেম্বর ২০১৫)। "Manchester United's Anthony Martial is Europe's Golden Boy for 2015"। Sky Sports। ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  3. "Un transfert ultra médiatique pour LE [sic] Guadeloupéen Anthony Martial" [A high-profile transfer for the Guadeloupean Anthony Martial] (French ভাষায়)। Radio Caraibe International। সংগ্রহের তারিখ ২৪ নভেম্বর ২০১৫ 
  4. "Anthony Martial: The making of Manchester United's star"। BBC Sport। ২৩ অক্টোবর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৪ অক্টোবর ২০১৫ 
  5. "Worst case scenario for Manchester United striker Anthony Martial as lover and ex-wife team up"। ২৪ জুলাই ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৭ 
  6. "France U17 - Squad U17 EURO 2012 Slowenien"worldfootball.net। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  7. "Euro UEFA 2012 du lundi 30 avril 2012 au jeudi 17 mai 2012" (French ভাষায়)। French Football Federation। ২৬ এপ্রিল ২০১২। ২ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ মে ২০১২ 
  8. "France U17 - AppearancesU17 EURO 2012"worldfootball.net (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  9. "France U19 - Squad U19 EURO 2013 Lithuania"worldfootball.net। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  10. "France-Serbia - Under-19"UEFA.com। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  11. "France U19 - AppearancesU19 EURO 2013"worldfootball.net। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  12. "France 0:1 (Friendlies 2015, September)"worldfootball.net (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  13. "Portugal vs. France - 4 September 2015"Soccerway। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  14. "Portugal - France, Sep 4, 2015 - International Friendlies - Match sheet"Transfermarkt (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  15. Strack-Zimmermann, Benjamin (৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Portugal vs. France (0:1)"National Football Teams (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  16. "Italy - France, Sep 1, 2016 - International Friendlies - Match sheet"Transfermarkt (ইংরেজি ভাষায়)। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  17. "Italy vs. France - 1 September 2016"Soccerway। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 
  18. "Italy - France 1:3 (Friendlies 2016, September)"worldfootball.net (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা