২০১৪ আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০

আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০
(২০১৪ বিশ্ব টুয়েন্টি২০ থেকে পুনর্নির্দেশিত)

২০১৪ আইসিসি টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপ (ইংরেজি: 2014 ICC World Twenty20) বাংলাদেশে[২] অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপের ৫ম আসর। এ প্রতিযোগিতা ১৬ মার্চ থেকে ৬ এপ্রিল ২০১৪ তারিখ পর্যন্ত বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হয়।[২][৩][৩][৪] এ প্রতিযোগিতা আয়োজনের ফলে টানা দ্বিতীয়বারের মতো এশিয়ার কোন দেশে আইসিসি টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ২০১০ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল বাংলাদেশকে স্বাগতিক দেশ হিসেবে ঘোষণা করে।[৫] পূর্বের চারটি প্রতিযোগিতা দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

২০১৪ আইসিসি টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপ
২০১৪ আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ এর লোগো.svg
২০১৪ আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ এর লোগো
তারিখ১৬ মার্চ – ৬ এপ্রিল ২০১৪[১]
ব্যবস্থাপকআন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল
ক্রিকেটের ধরনটুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক
প্রতিযোগিতার ধরনগ্রুপ পর্ব ও নক-আউট
আয়োজক বাংলাদেশ
বিজয়ী শ্রীলঙ্কা
খেলার সংখ্যা৩৫
প্রতিযোগিতার সেরা
খেলোয়াড়
বিরাট কোহলি (ভারত)
সর্বোচ্চ রানভারত বিরাট কোহলি (৩১৯)
সর্বোচ্চ উইকেটদক্ষিণ আফ্রিকা ইমরান তাহির (১২)
নেদারল্যান্ডস আহসান মালিক (১২)
প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটআইসিসিওয়ার্ল্ডটুয়েন্টি২০.কম
ইউডিআরএসনা

লোগোসম্পাদনা

৬ এপ্রিল ২০১৩, আইসিসি ঢাকায় একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে টুর্নামেন্টের লোগো উন্মোচন করে। এছাড়াও আইসিসি দেশের নদী প্রতিনিধিত্বমূলক নীল splashes সঙ্গে বাংলাদেশের পতাকার রং ব্যবহার করে. লোগো এছাড়াও রিক্সা দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়।[৬] টি ক্রিকেট তাড়াতাড়ি গঠিত এবং T20 মধ্যে '0 'একটি সবুজ স্তর সঙ্গে সম্পূর্ণ ক্রিকেট বল প্রতিনিধিত্ব করে।[৭][৮]

বিন্যাসসম্পাদনা

গ্রুপ পর্যায় এবং সুপার ১০ চলাকালীন, দলসমূহকে নিম্নরূপ পয়েন্ট এবং পুরস্কার প্রদান করা হয়:

ফলাফল পয়েন্ট
বিজয় ২ পয়েন্ট
ফলাফল নেই/টাই ১ পয়েন্ট
পরাজয় ০ পয়েন্ট

অংশগ্রহণকারী দলসম্পাদনা

প্রথমবারের মতো এবারের প্রতিযোগিতায় আইসিসি’র ১০ পূর্ণাঙ্গ সদস্য২০১৩ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ বাছাইপর্বে যোগ্যতা অর্জনকারী ৬ সহযোগী সদস্য দেশের মোট ১৬টি দল অংশগ্রহণ করে। ৮ অক্টোবর, ২০১২ তারিখ মোতাবেক আইসিসি টি২০আই চ্যাম্পিয়নশীপে পূর্ণাঙ্গ সদস্যভূক্ত শীর্ষ ৮ দল সরাসরি সুপার ১০ পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। বাদ-বাকী ৮ দলের মধ্য থেকে ২টি দল গ্রুপ পর্বে উত্তীর্ণ হয়ে সুপার ১০ পর্বে অংশগ্রহণ করতে হয়েছে।[৩][৯]

খেলা পরিচালনাকারী কর্মকর্তাসম্পাদনা

আইসিসি রেফারিদের সেরা তালিকা থেকে ৪-সদস্যবিশিষ্ট ম্যাচ রেফারিকে প্রতিযোগিতা সফলভাবে পরিচালনার জন্য দায়িত্ব প্রদান করা হয়।[১০] তারা হলেন:

মাঠে অবস্থান করে খেলা পরিচালনার জন্য আইসিসি আম্পায়ারদের সেরা তালিকা থেকে ১১জন এবং আম্পায়ার ও রেফারিদের আন্তর্জাতিক তালিকা থেকে ৩ জন কর্মকর্তা মনোনীত হন।[১০] তারা হলেন:

দলের সদস্যসম্পাদনা

মাঠসম্পাদনা

২০১৪ আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০'র মাঠের অবস্থান

এই টুর্নামেন্টে ম্যাচের সংখ্যা ৬০টি, এর মধ্যে পুরুষদের ৩৫টি ও মহিলাদের ১৫টি।[১১] পুরুষদের ১৬টি ও মহিলাদের ১০টি দল এতে অংশ নিচ্ছে। ম্যাচগুলোর ভেন্যু হিসেবে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম এবং সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের খেলা হবে। এছাড়া ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম এবং বিকেএসপিকেও বিশ্বকাপের ভেন্যু হিসেবেও নির্বাচন করা হয়।[৩][১২][১৩] আর মহিলা ইভেন্টের জন্য কক্সবাজার ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্বাচন করা হয়।

  বাংলাদেশ
ঢাকা চট্টগ্রাম সিলেট
শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম
স্থানাঙ্ক:২৩°৪৮′২৪.৯৫″ উত্তর ৯০°২১′৪৮.৮৭″ পূর্ব / ২৩.৮০৬৯৩০৬° উত্তর ৯০.৩৬৩৫৭৫০° পূর্ব / 23.8069306; 90.3635750 স্থানাঙ্ক:২২°২১′২০.৮৮″ উত্তর ৯১°৪৬′০৪.১৬″ পূর্ব / ২২.৩৫৫৮০০০° উত্তর ৯১.৭৬৭৮২২২° পূর্ব / 22.3558000; 91.7678222 স্থানাঙ্ক:২৪°৫৫′১৪.৮১″ উত্তর ৯১°৫২′০৭.১৫″ পূর্ব / ২৪.৯২০৭৮০৬° উত্তর ৯১.৮৬৮৬৫২৮° পূর্ব / 24.9207806; 91.8686528
ধারণক্ষমতা: ২৬,০০০ ধারণক্ষমতা: ২০,০০০ ধারণক্ষমতা: ২২,০০০ (২০১৩)[১৪]
 

সময়সূচীসম্পাদনা

নিম্নে স্থানীয় নির্ধারিত সময় অনুযায়ী খেলার সময়সূচী উল্লেখ করা হল:

প্রস্তুতিমূলক খেলাসম্পাদনা

১২ মার্চ থেকে ১৯ মার্চ পর্যন্ত ১৬ দল ১৬টি অনুশীলনী খেলায় অংশগ্রহণ করেছে।[১৫]

১২ মার্চ
১৫:৩০
স্কোরকার্ড
আফগানিস্তান  
১৫০/৭ (২০ ওভার)
  নেদারল্যান্ডস
৮৬ (১২.৩ ওভার)
মোহাম্মাদ নবী ৪০ (২৫)
আহসান মালিক ৩/২৮ (৪ ওভার)
মাইকেল সোয়ার্ত ২১ (১৫)
আফতাব আলম ৪/২৫ (৩ ওভার)
আফগানিস্তান ৩৫ রানে জয়ী (ডি/এল)
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এস রবি (ভারত) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
  • আফগানিস্তান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১২ মার্চ
১৫:৩০
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত  
১৪২/৭ (২০ ওভার)
  বাংলাদেশ
১৪৬/৬ (১৮.৫ ওভার)
খুররম খান ৪৪ (৩৫)
ফরহাদ রেজা ২/২৫ (২ ওভার)
তামিম ইকবাল ৪৩ (৩০)
মঞ্জুলা গুরুগে ২/২৫ (৪ ওভার)
আমজাদ জাভেদ ২/২৫ (৪ ওভার)
বাংলাদেশ ৪ উইকেটে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১২ মার্চ
১৯:৩০
স্কোরকার্ড
জিম্বাবুয়ে  
১৫৩/৭ (২০ ওভার)
  হংকং
১৫৯/৬ (২০ ওভার)
হংকং ৪ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
  • হংকং টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১২ মার্চ
১৯:৩০
স্কোরকার্ড
নেপাল    
১৩৭/৭ (২০ ওভার)
  আয়ারল্যান্ড
১৪১/৫ (১৯.১ ওভার)
আয়ারল্যান্ড ৫ উইকেটে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও ইয়ান গোল্ড (ইংল্যান্ড)
  • আয়ারল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৪ মার্চ
০৯:৩০
স্কোরকার্ড
আফগানিস্তান  
১৬৮/৬ (২০ ওভার)
  জিম্বাবুয়ে
১৭৩/৩ (১৯.৩ ওভার)
জিম্বাবুয়ে ৭ উইকেটে জয়ী
এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৪ মার্চ
০৯:৩০
স্কোরকার্ড
নেপাল    
৯৫ (২০ ওভার)
  সংযুক্ত আরব আমিরাত
৯৯/৪ (১৮.৫ ওভার)
স্বপ্নীল পাতিল ৩৩ (৪১)
সোমপাল কামি ১/১৭ (৪ ওভার)
শক্তি গৌচাঁন ১/১৭ (৪ ওভার)
সংযুক্ত আরব আমিরাত ৬ উইকেটে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: নাইজেল লং (ইংল্যান্ড) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৪ মার্চ
১৩:৩০
স্কোরকার্ড
হংকং  
১২৭ (১৯.৫ ওভার)
  নেদারল্যান্ডস
১০০ (১৬.৫ ওভার)
হংকং ২৭ রানে জয়ী
এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও এস. রবি (ভারত)
  • নেদারল্যান্ডস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৪ মার্চ
১৩:৩০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ  
১৭৯/৩ (২০ ওভার)
  আয়ারল্যান্ড
১৩৫/৮ (২০ ওভার)
বাংলাদেশ ৪৪ রানে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: রিচার্ড ইলিংওয়ার্থ (ইংল্যান্ড) ও রিচার্ড কেটেলবরা (ইংল্যান্ড)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৭ মার্চ
১৫:৩০
স্কোরকার্ড
নিউজিল্যান্ড  
১৪৫/৯ (২০ ওভার)
  পাকিস্তান
১৪৯/৪ (১৯.৫ ওভার)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৭ মার্চ
১৯:৩০
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা  
১৫৩/৬ (২০ ওভার)
  ভারত
১৪৮ (২০ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৮ মার্চ
১৫:৩০
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড  
১৩১/৭ (২০ ওভার)
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১৩২/৩ (১৬.১ ওভার)
ক্রিস গেইল ৫৮* (৩৮)
স্টিফেন প্যারি ১/১৫ (২.১ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭ উইকেটে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: আনিসুর রহমান (বাংলাদেশ) ও এনামুল হক (বাংলাদেশ)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৮ মার্চ
১৯:৩০
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ এ  
১১৬ (১৮.৪ ওভার)
  দক্ষিণ আফ্রিকা
১২২/৫ (১৮.৩ ওভার)
মুখতার আলি ৩৫* (২০)
ডেল স্টেইন ২/১০ (২.২ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৫ উইকেটে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: আনিসুর রহমান (বাংলাদেশ) ও এনামুল হক (বাংলাদেশ)
  • বাংলাদেশ এ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৯ মার্চ
১৪:৩০
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া  
২০০/৭ (২০ ওভার)
  নিউজিল্যান্ড
১৯৭/৯ (২০ ওভার)
ডেভিড ওয়ার্নার ৬৫ (২৬)
কাইল মিলস ২/২১ (৪ ওভার)
অস্ট্রেলিয়া ৩ রানে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৯ মার্চ
১৫:৩০
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
১৭২/৫ (২০ ওভার)
  শ্রীলঙ্কা
১৩৯ (১৯.২ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩৩ রানে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, মিরপুর
আম্পায়ার: কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা) ও নাইজেল লং (ইংল্যান্ড)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৯ মার্চ
১৯:৩০
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড  
১৫৮/৬ (২০ ওভার)
  ভারত
১৭৮/৪ (২০ ওভার)
মঈন আলী ৪৬ (৩৮)
রবীন্দ্র জাদেজা ২/২৩ (৩ ওভার)
বিরাট কোহলি ৭৪* (৪৮)
রবি বোপারা ১/২৫ (২ ওভার)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়

১৯ মার্চ
১৯:৩০
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান  
৭১ (১৭.৩ ওভার)
  দক্ষিণ আফ্রিকা
৭২/২ (১৪ ওভার)
উমর আকমল ১৭ (২৪)
ওয়েন পার্নেল ২/২ (১.৩ ওভার)
হাশিম আমলা ২৪ (২০)
উমর গুল ১/৮ (২ ওভার), শহীদ আফ্রিদি ১/৮ (৩ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৮ উইকেটে জয়ী
খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম, ফতুল্লা
আম্পায়ার: এনামুল হক (বাংলাদেশ) ও শরফুদ্দৌলা (বাংলাদেশ)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

গ্রুপ পর্বসম্পাদনা

গ্রুপ এসম্পাদনা

দল খেলা জিত হার পরি গড় পয়েন্ট
  বাংলাদেশ +১.৪৬৬
    নেপাল +০.৯৩৩
  আফগানিস্তান -০.৯৮১
  হংকং -১.৪৫৫
১৬ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
আফগানিস্তান  
৭২ (১৭.১ ওভার)
  বাংলাদেশ
৭৮/১ (১২ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৬ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেপাল    
১৪৯/৮ (২০ ওভার)
  হংকং
৬৯ (১৭ ওভার)
জ্ঞানেন্দ্র মল্ল ৪৮ (৪১)
হাসিব আমজাদ ৩/২৫ (৪ ওভার)
বাবর হায়াত ২০ (২৫)
শক্তি গৌচাঁন ৩/৯ (৪ ওভার)
  • হংকং টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৮ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
হংকং  
১৫৩/৮ (২০ ওভার)
  আফগানিস্তান
১৫৪/৩ (১৮ ওভার)
মার্ক চ্যাপম্যান ৩৮ (৪৩)
জাদরান, নবী ২/২৭ (৪ ওভার)
মোহাম্মদ শাহজাদ ৬৮ (৫৩)
তানভীর আফজাল ১/১৯ (৩ ওভার)
আফগানিস্তান ৭ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: মোহাম্মদ শাহজাদ (আফগানিস্তান)
  • হংকং টসে জয়ী হয় এবং ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৮ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেপাল    
১২৬/৫ (২০ ওভার)
  বাংলাদেশ
১৩২/২ (১৫.৩ ওভার)
পরশ খাদকা ৪১ (৩৫)
আল-আমিন হোসেন ২/১৭ (৪ ওভার)
এনামুল হক বিজয় ৪২ (৩৩)
বসন্ত রেগমি ১/১৪ (৩ ওভার)
বাংলাদেশ ৮ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া) ও আলীম দার (পাকিস্তান)
সেরা খেলোয়াড়: আল-আমিন হোসেন (বাংলাদেশ)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২০ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেপাল    
১৪১/৫ (২০ ওভার)
  আফগানিস্তান
১৩২/৮ (২০ ওভার)
সুবাস খাকুরেল ৫৬ (৫৩)
শাপুর জাদরান ২/১৯ (৪ ওভার)
আসগর স্তানিকজাই ৪৯ (৩৬)
জীতেন্দ্র মুখ্য ৩/১৮ (৪ ওভার)
নেপাল ৯ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: এস. রবি (ভারত) ও আলীম দার (পাকিস্তান)
সেরা খেলোয়াড়: জীতেন্দ্র মুখ্য (নেপাল)
  • আফগানিস্তান টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২০ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ  
১০৮ (১৬.৩ ওভার)
  হংকং
১১৪/৮ (১৯.৪ ওভার)
সাকিব আল হাসান ৩৪ (২৭)
নাদিম আহমেদ ৪/২১ (৩.৩ ওভার)
মুনির দার ৩৬ (২৭)
সাকিব আল হাসান ৩/৯ (৪ ওভার)
হংকং ২ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: নাদিম আহমেদ (হংকং)
  • হংকং টসে জয়ী হয় এবং ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

গ্রুপ বিসম্পাদনা

দল খেলা জিত হার পরি গড় পয়েন্ট
  নেদারল্যান্ডস +০.৯৫৭
  জিম্বাবুয়ে +০.৬৪১
  আয়ারল্যান্ড -০.১২৫
  সংযুক্ত আরব আমিরাত -১.৫৪১
১৭ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
জিম্বাবুয়ে  
১৬৩/৫ (২০ ওভার)
  আয়ারল্যান্ড
১৬৪/৭ (২০ ওভার)
ব্রেন্ডন টেলর ৫৯ (৪৬)
জর্জ ডকরেল ২/১৮ (৪ ওভার)
আয়ারল্যান্ড ৩ উইকেটে জয়ী
সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, সিলেট
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা)
সেরা খেলোয়াড়: পল স্টার্লিং (আয়ারল্যান্ড)
  • আয়ারল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৭ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত  
১৫১ (১৯.৫ ওভার)
  নেদারল্যান্ডস
১৫২/৪ (১৮.৫ ওভার)
শাইমান আনোয়ার ৩২ (১৯)
আহসান মালিক ৩/১৬ (৩.৫ ওভার)
স্টিফেন মাইবার্গ ৫৫ (৩৬)
কামরান শাজাদ ২/১৯ (৪ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ৬ উইকেটে জয়ী
সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, সিলেট
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও ইয়ান গোল্ড (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: টম কুপার (নেদারল্যান্ডস)
  • সংযুক্ত আরব আমিরাত টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৯ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস  
১৪০/৫ (২০ ওভার)
  জিম্বাবুয়ে
১৪৬/৫ (২০ ওভার)
টম কুপার ৭২* (৫৮)
প্রসপার উতসেয়া ২/২৪ (৪ ওভার)
ব্রেন্ডন টেলর ৪৯ (৩৯)
পিটার সিলার ২/৯ (২ ওভার)
জিম্বাবুয়ে ৫ উইকেটে জয়ী
সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, সিলেট
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: ব্রেন্ডন টেলর (জিম্বাবুয়ে)
  • নেদারল্যান্ডস টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১৯ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত  
১২৩/৬ (২০ ওভার)
  আয়ারল্যান্ড
১০৩/৩ (১৪.২ ওভার)
শাইমান আনোয়ার ৩০ (২৮)
পল স্টার্লিং ২/১২ (৩ ওভার)
এড জয়েস ৪৩ (৩৮)
শরীফ আসাদুল্লাহ ২/২১ (৩ ওভার)
আয়ারল্যান্ড ২১ রানে জয়ী (ডি/এল)
সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, সিলেট
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও ইয়ান গোল্ড (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: এড জয়েস (আয়ারল্যান্ড)
  • আয়ারল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২১ মার্চ
১১:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
সংযুক্ত আরব আমিরাত  
১১৬/৯ (২০ ওভার)
  জিম্বাবুয়ে
১১৮/৫ (১৩.৪ ওভার)
এল্টন চিগুম্বুরা ৫৩* (২১)
মাঞ্জুলা গুরুগে ২/১৮ (৪ ওভার)
জিম্বাবুযে ৫ উইকেটে জয়ী
সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, সিলেট
আম্পায়ার: বিলি বাউডেন (নিউজিল্যান্ড) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: এল্টন চিগুম্বুরা (জিম্বাবুয়ে)
  • জিম্বাবুয়ে টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২১ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
আয়ারল্যান্ড  
১৮৯/৪ (২০ ওভার)
  নেদারল্যান্ডস
১৯৩/৪ (১৩.৫ ওভার)
অ্যান্ড্রু পয়েন্টার ৫৭ (৩৮)
আহসান মালিক ২/২৬ (৪ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ৬ উইকেটে জয়ী
সিলেট বিভাগীয় স্টেডিয়াম, সিলেট
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও ইয়ান গোল্ড (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: স্টফান মাইবার্গ (নেদারল্যান্ডস)
  • নেদারল্যান্ডস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

সুপার ১০সম্পাদনা

গ্রুপ ১সম্পাদনা

দল খেলা জিত হার পরি গড় পয়েন্ট
  শ্রীলঙ্কা ২.২৩৩
  দক্ষিণ আফ্রিকা ০.০৭৫
  নিউজিল্যান্ড −০.৬৭৮
  ইংল্যান্ড −০.৭৭৬
  নেদারল্যান্ডস −০.৮৮৬
২২ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা  
১৬৫/৭ (২০ ওভার)
  দক্ষিণ আফ্রিকা
১৬০/৮ (২০ ওভার)
কুশল পেরেরা ৬১ (৪০)
ইমরান তাহির ৩/২৬ (৪ ওভার)
জেপি ডুমিনি ৩৯ (৩০)
সচিত্র সেনানায়েকে (২/২২ ৪ ওভার)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২২ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ইংল্যান্ড  
১৭২/৬ (২০ ওভার)
  নিউজিল্যান্ড
৫২/১ (৫.২ ওভার)
মঈন আলী ৩৬ (২৩)
কোরে অ্যান্ডারসন ২/৩২ (৪ ওভার)
কেন উইলিয়ামসন ২৪* (১৭)
জেড ডার্নবাখ ১/১৩ (২ ওভার)
নিউজিল্যান্ড ৯ রানে জয়ী (ডি/এল)
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: কোরে অ্যান্ডারসন (নিউজিল্যান্ড)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৪ মার্চ
১৫:৩০
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
১৭০/৬ (২০ ওভার)
  নিউজিল্যান্ড
১৬৮/৮ (২০ ওভার)
রস টেলর ৬২ (৩৭)
ডেল স্টেইন ৪/১৭ (৪ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ২ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও এস. রবি (ভারত)
সেরা খেলোয়াড়: জেপি ডুমিনি (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৪ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস  
৩৯ (১০.৩ ওভার)
  শ্রীলঙ্কা
৪০/১ (৫ ওভার)
পিটার বোরেন ১৬ (১৮)
অজন্তা মেন্ডিস ৩/১২ (২.৩ ওভার)
কুশল পেরেরা ১৪ (১০)
আহসান মালিক ১/১৮ (২ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ৯ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (শ্রীলঙ্কা)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৭ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
১৪৫/৯ (২০ ওভার)
  নেদারল্যান্ডস
১৩৯ (১৮.৪ ওভার)
হাশিম আমলা ৪৩ (২২)
আহসান মালিক ৫/১৯ (৪ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৬ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: ইমরান তাহির (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • নেদারল্যান্ডস টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করা সিদ্ধান্ত নেয়।

২৭ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা  
১৮৯/৪ (২০ ওভার)
  ইংল্যান্ড
১৯০/৪ (১৯.২ ওভার)
ইংল্যান্ড ৬ উইকেটে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: আলীম দার (পাকিস্তান) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: অ্যালেক্স হেলস (ইংল্যান্ড)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৭ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস  
১৫১/৪ (২০ ওভার)
  নিউজিল্যান্ড
১৫২/৪ (১৯ ওভার)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৭ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
১৯৬/৫ (২০ ওভার)
  ইংল্যান্ড
১৯৩/৭ (২০ ওভার)
দক্ষিণ আফ্রিকা ৩ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও রড টাকার (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: এবি ডি ভিলিয়ার্স (দক্ষিণ আফ্রিকা)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৩১ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
নেদারল্যান্ডস  
১৩৩/৫ (২০ ওভার)
  ইংল্যান্ড
৮৮ (১৭.৪ ওভার)
রবি বোপারা ১৮ (২০)
লোগান ফন বীক ৩/৯ (২ ওভার)
নেদারল্যান্ডস ৪৫ রানে জয়ী
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম, চট্টগ্রাম
আম্পায়ার: স্টিভ ডেভিস (অস্ট্রেলিয়া) ও ব্রুস অক্সেনফোর্ড (অস্ট্রেলিয়া)
সেরা খেলোয়াড়: মুদাচ্ছার বুখারী (নেদারল্যান্ডস)
  • ইংল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৩১ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা  
১১৯ (১৯.২ ওভার)
  নিউজিল্যান্ড
৬০ (১৫.৩ ওভার)
  • নিউজিল্যান্ড টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

গ্রুপ ২সম্পাদনা

দল খেলা জিত হার পরি গড় পয়েন্ট
  ভারত ১.২৮০
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১.৯৭১
  পাকিস্তান -০.৩৮৪
  অস্ট্রেলিয়া -০.৮৫৭
  বাংলাদেশ -২.০৭২
২১ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান  
১৩০/৭ (২০ ওভার)
  ভারত
১৩১/৩ (১৮.৩ ওভার)
উমর আকমল ৩৩ (৩০)
অমিত মিশ্র ২/২২ (৪ ওভার)
বিরাট কোহলি ৩৬* (৩২)
সাঈদ আজমল ১/১৮ (৪ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৩ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান  
১৯১/৫ (২০ ওভার)
  অস্ট্রেলিয়া
১৭৫ (২০ ওভার)
উমর আকমল ৯৪ (৫৪)
নাথান কোল্টার-নিল ২/৩৬ (৪ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৩ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
১২৯/৭ (২০ ওভার)
  ভারত
১৩০/৩ (১৯.৪ ওভার)
রোহিত শর্মা ৬২* (৫৫)
আন্দ্রে রাসেল ১/১২ (২ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৫ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
১৭১/৭ (২০ ওভার)
  বাংলাদেশ
৯৮ (১৯.১ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৮ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
অস্ট্রেলিয়া  
১৭৮/৮ (২০ ওভার)
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
১৭৯/৪ (১৯.৪ ওভার)
ক্রিস গেইল ৫৩ (৩৫)
মিচেল স্টার্ক ২/৫০ (৪ ওভার)
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৬ উইকেটে জয়ী
শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, মিরপুর, ঢাকা
আম্পায়ার: মারাইজ ইরাসমাস (দক্ষিণ আফ্রিকা) ও ইয়ান গোল্ড (ইংল্যান্ড)
সেরা খেলোয়াড়: ড্যারেন স্যামি (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

২৮ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ  
১৩৮/৭ (২০ ওভার)
  ভারত
১৪১/২ (১৮.৩ ওভার)
আনামুল হক ৪৪ (৪৯)
অমিত মিশ্র ৩/২৬ (৪ ওভার)
  • ভারত টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৩০ মার্চ
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
পাকিস্তান  
১৯০/৫ (২০ ওভার)
  বাংলাদেশ
১৪০/৭ (২০ ওভার)
আহমেদ শেহজাদ ১১১* (৬২)
আব্দুর রাজ্জাক ২/২০ (৪ ওভার)
সাকিব আল হাসান ৩৮ (৩২)
উমর গুল ৩/৩০ (৪ ওভার)
  • পাকিস্তান টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

৩০ মার্চ
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ভারত  
১৫৯/৭ (২০ ওভার)
  অস্ট্রেলিয়া
৮৬ (১৬.২ ওভার)
যুবরাজ সিং ৬০ (৪৩)
ব্র্যাড হজ ১/১৩ (২ ওভার)
  • অস্ট্রেলিয়া টসে জয়ী হয়ে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১ এপ্রিল
১৫:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
বাংলাদেশ  
১৫৩/৫ (২০ ওভার)
  অস্ট্রেলিয়া
১৫৮/৩ (১৭.৩ ওভার)
অ্যারন ফিঞ্চ ৭১ (৪৫)
আল-আমিন হোসেন ২/৩০ (৩.৩ ওভার)
  • বাংলাদেশ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

১ এপ্রিল
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ওয়েস্ট ইন্ডিজ  
১৬৬/৬ (২০ ওভার)
  পাকিস্তান
৮২ (১৭.৫ ওভার)
  • ওয়েস্ট ইন্ডিজ টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

নক-আউট পর্বসম্পাদনা

  সেমিফাইনাল ফাইনাল
                 
①১    শ্রীলঙ্কা ১৬০/৬ (২০ ওভার) (ডি\এল)  
②২    ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৮০/৪ (১৩.৫ ওভার)  
    ②১    শ্রীলঙ্কা ১৩৪/৪ (১৭.৫ ওভার)
  ①২    ভারত ১৩০/৪ (২০ ওভার)
②১    ভারত ১৭৬/৪ (১৯.১ ওভার)
①২    দক্ষিণ আফ্রিকা ১৭২/৪ (২০ ওভার)  

সেমিফাইনালসম্পাদনা

৩ এপ্রিল
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
শ্রীলঙ্কা  
১৬০/৬ (২০ ওভার)
  ওয়েস্ট ইন্ডিজ
৮০/৪ (১৩.৫ ওভার)
  • শ্রীলঙ্কা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।
৪ এপ্রিল
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
দক্ষিণ আফ্রিকা  
১৭২/৪ (২০ ওভার)
  ভারত
১৭৬/৪ (১৯.১ ওভার)
  • দক্ষিণ আফ্রিকা টসে জয়ী হয়ে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।

ফাইনালসম্পাদনা

৬ এপ্রিল
১৯:৩০ (দিন/রাত)
স্কোরকার্ড
ভারত  
১৩০/৪ (২০ ওভার)
  শ্রীলঙ্কা
১৩৪/৪ (১৭.৫ ওভার)

পরিসংখ্যানসম্পাদনা

ব্যাটিংসম্পাদনা

সর্বাধিক রান[১৬]
খেলোয়াড়ের নাম ম্যাচ সংখ্যা ইনিংস রান গড় স্ট্রাইক রেট সর্বোচ্চ রান ১০০ ৫০
  বিরাট কোহলি ৩১৯ ১০৬.৩৩ ১২৯.১৪ ৭৭ ২৪ ১০
  টম কুপার ২৩১ ৫৭.৭৫ ১৩৭.৫০ ৭২* ২২ ১০
  স্টিফেন মাইবার্গ ২২৪ ৩২.০০ ১৫৪.৪৮ ৬৩ ২৬ ১৩
  রোহিত শর্মা ২০০ ৪০ ১২৩.৪৫ ৬২* ১৯
  জেপি ডুমিনি ১৮৭ ৬২.৩৩ ১৪০.৬০ ৮৬* ১৪
  সাকিব আল হাসান ১৮৬ ৩৭.২০ ১২৯.১৬ ৬৬ ১৫

বোলিংসম্পাদনা

সর্বাধিক উইকেট[১৭]
খেলোয়াড়ের নাম ম্যাচ সংখ্যা ইনিংস উইকেট ইকোনোমি গড় সেরা বোলিং ৪ উইঃ ৫ উইঃ
  ইমরান তাহির ১২ ৬.৫৫ ১০.৯১ ৪/২১
  আহসান মালিক ১২ ৬.৬৮ ১৩.৮৩ ৫/১৯
  স্যামুয়েল বদ্রি ১১ ৫.৬৫ ১০.২৭ ৪/২১
  রবিচন্দ্রন অশ্বিন ১১ ৫.৩৫ ১১.২৭ ৪/১১
  অমিত মিশ্র ১০ ৬.৬৮ ১৪.৭০ ৩/২১
  আল-আমিন হোসেন ১০ ৭.৩৩ ১৮.৭০ ৩/২১

অর্জনসমূহসম্পাদনা

বাংলাদেশ
  • গ্রুপ পর্বে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে মোকাবেলা করে। ২০০৭ সালের আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতার পর থেকে ১০ খেলা হারার পর বাংলাদেশের প্রথম জয় এবং আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় জয়।[১৮] টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপের উভয় পর্যায়ে ৯ উইকেটের ব্যবধানে সর্ববৃহৎ জয়।[১৯] দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৮ বলের ব্যবধানে জয় বাংলাদেশের জন্য টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপের উভয় পর্যায়ে সর্ববৃহৎ জয়।[১৯]
আফগানিস্তান
  • গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের বিপক্ষে আফগানিস্তান প্রথমবারের মতো টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে মোকাবেলা করে।[১৮] টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের ৭২ রান সংগ্রহ সর্বনিম্ন।[২০] টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে ৭২ রান বাংলাদেশের বিপক্ষে আফগানিস্তান সর্বনিম্ন সংগ্রহ।[২১] টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে ৯ উইকেটের ব্যবধানে আফগানিস্তানের সর্ববৃহৎ পরাজয়।[২২] দ্বিতীয় ইনিংসে ৪৮ বলের ব্যবধানে পরাজয় টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিক এবং টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে সর্ববৃহৎ পরাজয়।[২২] ৭২ রানে অল-আউট টুয়েন্টি২০ বিশ্বকাপে ২য় সর্বনিম্ন এবং টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের ইতিহাসে ৬ষ্ঠ সর্বনিম্ন রান হিসেবে স্বীকৃত।[২৩][২৪]
নেপাল
  • গ্রুপ পর্বে প্রথমবারের মতো হংকংয়ের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে মুখোমুখি হয়। টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে পারস খডকা ১ম বলেই উইকেট লাভ করেন।[২৫]
হংকং
  • গ্রুপ পর্বে প্রথমবারের মতো নেপালের বিপক্ষে টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকে মুখোমুখি হয়। নজীব আমর টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের সবচেয়ে বয়ষ্ক খেলোয়াড় হিসেবে অভিষিক্ত হন।[২৬] আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতার ইতিহাসে ৬৯ রান দ্বিতীয় সর্বনিম্ন ও টুয়েন্টি২০ আন্তর্জাতিকের ইতিহাসে ৬ষ্ঠ সর্বনিম্ন রান হিসেবে চিহ্নিত।[২৭][২৮]

প্রচার মাধ্যমসম্পাদনা

দেশ/অঞ্চল[২৯][৩০] টেলিভিশন রেডিও ইন্টারনেট
  আফগানিস্তান লিমার টিভি সালাম ওয়ান্তাদার
  অস্ট্রেলিয়া ফক্স স্পোর্টস
নাইন নেটওয়ার্ক (শুধুমাত্র অস্ট্রেলিয়ার খেলা ও চূড়ান্ত খেলা)
foxsports.com.au
  ব্রুনাই,   মালয়েশিয়া আস্ত্রো
  বাংলাদেশ বাংলাদেশ টেলিভিশন
মাছরাঙ্গা টিভি
গাজী টিভি
বাংলাদেশ বেতার starsports.com
  কানাডা স্পোর্টসনেট স্পোর্টসনেট ওয়ার্ল্ড অনলাইন
ক্যারিবিয়, মধ্য আমেরিকাদক্ষিণ আমেরিকা ইএসপিএন সিএমসি ইএসপিএন৩
  ইউরোপ যুক্তরাজ্য ও আয়ারল্যান্ড ব্যতীত ইউরোস্পোর্ট
  ভারত স্টার স্পোর্টস
দূরদর্শন (কেবলমাত্র ভারতের খেলা)
অল ইন্ডিয়া রেডিও starsports.com
ভারত উপমহাদেশ স্টার স্পোর্টস starsports.com
  প্রজাতন্ত্রী আয়ারল্যান্ড,   যুক্তরাজ্য স্কাই স্পোর্টস বিবিসি skysports.com
  হংকং,   ফিলিপাইন,
  পাপুয়া নিউ গিনি,   সিঙ্গাপুর
স্টার স্পোর্টস
স্টার ক্রিকেট
starsports.com
মধ্যপ্রাচ্যউত্তর আফ্রিকা ওএসএন স্পোর্টস ক্রিকেট ৮৯.১ রেডিও৪
    নেপাল নেপাল টেলিভিশন
  নিউজিল্যান্ড স্কাই টিভি রেডিও স্পোর্ট
  নরওয়ে এনআরকে
প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ ফিজি টিভি
  পাকিস্তান পিটিভি হোম (টেরেস্ট্রিয়াল)
পিটিভি স্পোর্টস (ক্যাবল)
টেন স্পোর্টস (ক্যাবল ও আইপি টিভি)
পিবিসি
হাম এফএম
হট এফএম (পাকিস্তানের খেলা)
starsports.com
  শ্রীলঙ্কা সিএসএন এসএলবিসি starsports.com
  দক্ষিণ আফ্রিকা এসএবিসি
সুপারস্পোর্ট
এসএবিসি supersport.com
সাব সাহারান আফ্রিকা সুপারস্পোর্ট supersport.com
  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র,   পুয়ের্তো রিকো,   গুয়াম,
  মেক্সিকো,   নিকারাগুয়া  পানামা
ইএসপিএন২ (শুধুমাত্র চূড়ান্ত খেলা) ইএসপিএন৩

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Men - Fixtures"ICC। ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  2. "2014 T20 WC Fixtures"। ২৭ অক্টোবর ২০১৩। ১ নভেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৩ 
  3. "West Indies to start World T20 title defence against India"ICC। ২৭ অক্টোবর ২০১৩। ২৯ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ অক্টোবর ২০১৩ 
  4. "টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু মার্চে"। প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৬, ২০১৩ 
  5. "Bangladesh to host World Twenty20 2014"Cricinfo। ১ জুলাই ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  6. "Logo for ICC World Twenty20 2014 Bangladesh launched in Dhaka"। Cricket.com.pk। ৬ এপ্রিল ২০১৩। ২৩ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১৩ 
  7. "ICC World Twenty20 2014 Bangladesh logo launched"Yahoo! News। ৬ এপ্রিল ২০১৩। ১১ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  8. "ICC and BCB Unveil Logo For 2014 World Twenty20"। Cricket World। ৬ এপ্রিল ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  9. "BCB promises stellar T20 WC"The Daily Star। ৭ এপ্রিল ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  10. "ICC ANNOUNCES MATCH OFFICIALS AND SCHEDULE FOR ICC WORLD T20 2014"International Cricket Council। ১৬ মার্চ ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৪ 
  11. "BNS among World T20 venues"নিউ এইজ। ৩ মে ২০১২। ২০১৩-১০-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৪-০৬ 
  12. "সিলেটেও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের খেলা"বাংলা নিউজ টোয়েন্টিফোর। ৬ মার্চ ২০১৩। ১০ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ মার্চ ২০১৩ 
  13. "BCB optimistic about World Twenty20 preparation"Cricinfo। ৬ এপ্রিল ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  14. "ধারণক্ষমতা ২২ হাজারে উন্নীত করা হবে!"। sylhetexpress.com। ১৬ মার্চ ২০১৩। ২৮ আগস্ট ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জুলাই ২০১৩ 
  15. "ICC World Twenty20 Warm-up Matches, 2013/14"CricInfo। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৩-০৩ 
  16. "Most runs in 2014 ICC World Twenty20"espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৬ মার্চ ২০১৪ 
  17. "Most wickets in 2014 ICC World Twenty20"espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৬ মার্চ ২০১৪ 
  18. "Spinners give Bangladesh important win"ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ১৬, ২০১৪ 
  19. "Bangladesh / Records / Twenty20 Internationals / Largest victories" 
  20. "Afghanistan / Records / Twenty20 Internationals / Lowest totals" 
  21. "v Bangladesh / Records / Twenty20 Internationals / Lowest totals" 
  22. "v Afghanistan / Records / Twenty20 Internationals / Largest victories" 
  23. "World T20 / Records / Lowest totals" 
  24. "Records / Twenty20 Internationals / Team records / Lowest innings totals" 
  25. ""Records / Twenty20 Internationals / Bowling records / Wicket with first ball in career"."espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৪ 
  26. ""Records / Twenty20 Internationaals / Individual records (captains, players, umpires) / Oldest players on debut"."espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৪ 
  27. ""World T20 / Records / Lowest totals"."espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৪ 
  28. ""Records / Twenty20 Internationals / Team records / Lowest innings totals"."espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৪ 
  29. TV Broadcasters ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৪ মার্চ ২০১৪ তারিখে icc-cricket.com. Retrieved on 14 March, 2014
  30. Radio Broadcasters ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৪ মার্চ ২০১৪ তারিখে icc-cricket.com. Retrieved on 14 March, 2014

বহিঃসংযোগসম্পাদনা