প্রধান মেনু খুলুন

রোহিত শর্মা

ভারতীয় ক্রিকেটার

রোহিত গুরুনাথ শর্মা (মারাঠি: रोहित शर्मा, তেলুগু: రోహిత్ శర్మ; জন্ম: ৩০ এপ্রিল, ১৯৮৭) মহারাষ্ট্রে জন্মগ্রহণকারী ভারতীয় ক্রিকেটার। ডানহাতি মধ্যম সারির ব্যাটসম্যান হিসেবে ভারতীয় দলে অংশগ্রহণ করছেন এবং মাঝে মাঝে ডান হাতে অফ ব্রেক বোলারের ভূমিকায় অগ্রসর হন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০ বছর বয়সে অভিষিক্ত হয়ে ফিল্ডিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন রোহিত শর্মা। এছাড়াও নরম মেজাজে চমকপ্রদ ব্যাটিংয়ের মাধ্যমে সকলের নজর কেড়েছেন।

রোহিত শর্মা
Rohit Sharma November 2016 (cropped).jpg
২০১৬ সালে রোহিত শর্মা
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরোহিত গুরুনাথ শর্মা
জন্ম (1987-04-30) ৩০ এপ্রিল ১৯৮৭ (বয়স ৩২)
নাগপুর, মহারাষ্ট্র, ভারত
ডাকনামরো
উচ্চতা৫ ফুট ১০ ইঞ্চি (১.৭৮ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৬৮)
২৩ জুন ২০০৭ বনাম আয়ারল্যান্ড
শেষ ওডিআই৬ জুলাই ২০১৯ বনাম শ্রীলঙ্কা
টি২০আই অভিষেক
(ক্যাপ ১৭)
১৯ সেপ্টেম্বর ২০০৭ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টি২০আই২৮ ডিসেম্বর ২০১২ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
2006/07–presentমুম্বই
2008–2010ডেকান চার্জারস (দল নং 45)
২০১১–বর্তমানমুম্বই ইন্ডিয়ান্স (দল নং ৪৫)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০ আন্তর্জাতিক টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ২৭ ২১৪ ১০০ ৩১৪
রানের সংখ্যা ১,৫৮৫ ৮,৬৫৭ ২,৩৩১ ৮,২০০
ব্যাটিং গড় ৩৯.৬২ ৪৯.১৮ ৩২.৩৭ ৩২.১৫
১০০/৫০ ৫/১০ ২৭/৪২ ৪/১৭ ৬/৫৫
সর্বোচ্চ রান ১৭৭ ২৬৪ ১১৮ ১১৮
বল করেছে ৩৩৪ ৫৯৩ ৬৮ ৬২৮
উইকেট ২৯
বোলিং গড় ১০১.০০ ৬৪.৩৭ ১১৩.০০ ২৮.১৭
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a n/a
সেরা বোলিং ১/২৬ ২/২৭ ১/২২ ৪/৬
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২৫/– ৭৪/– ৩৫/– ১২৬/–
উৎস: ইএসপিএন ক্রিকইনফো, ৬ জুলাই ২০১৯

একদিনের আন্তর্জাতিকের ইতিহাসে একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে ২৫০ রানের কোটা অতিক্রম করে রেকর্ড গড়েন। ১৩ নভেম্বর, ২০১৪ তারিখে ইডেন গার্ডেন্সে অনুষ্ঠিত খেলায় তিনি ব্যক্তিগত ২৬৪ রান সংগ্র হ করেন। এছাড়াও একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি ওডিআই ক্রিকেটে দুইবার ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকান।

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

নাগপুরের তেলেগু ভাষাভাষী পরিবারের সন্তান রোহিত শর্মার পিতা গুরুনাথ শর্মা ও মাতা পুর্ণিমা শর্মা। মুম্বাইয়ে প্রাথমিক শিক্ষাগ্রহণ শেষে বৃত্তি নিয়ে বরিবালী স্বামী বিবেকানন্দ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে অধ্যয়ন করেন।[১] সেখানেই বিদ্যালয়ের ক্রিকেট কোচ দীনেশ ল্যাডের দৃষ্টিতে পড়েন তিনি।[২] পরবর্তীতে ভারতের অনূর্ধ্ব-১৭ ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলে অন্তর্ভুক্ত হন।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

২০০৬ আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপসম্পাদনা

২০০৬ সালে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে খেলেন । চেতেশ্বর পূজারা তার সহখেলোয়াড় ছিলেন। সেসময় ইয়ন মর্গ্যান, ডিন এলগার, টম কুপার, মুশফিকুর রহিম, অ্যারন ফিঞ্চ, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, মইসেস হেনরিকুইস, সাকিব আল হাসান , উসমান খাওয়াজা, গ্যারি ব্যালেন্স, ক্রেগ কাইজওয়েটার, টিম সাউদিমঈন আলী তার প্রতিদ্বন্দ্বী খেলোয়াড় ছিলেন।

২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপসম্পাদনা

২০১৯ সালের এপ্রিলে ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত ভারত দলে তিনি সহ-অধিনায়ক হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ভারতে উদ্বোধনী ম্যাচে তিনি ১৪৪ বলে ১২২ রান করে ম্যাচ সেরা হন এবং ভারতের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২,০০০ রান পূর্ণ করেন। ৯ই জুন তিনি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অর্ধশতক করেন এবং কোন নির্দিষ্ট দলের বিপক্ষে সবচেয়ে কম ইনিংস (৩৭ ইনিংস) খেলে ২০০০ রান করেন।[৩] ৬ই জুলাই শ্রীলঙ্কার বিপক্কে তিনি প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে বিশ্বকাপের এক আসরে পাঁচটি শতক করেন। এছাড়া তিনি দুই বিশ্বকাপে ৬টি শতক করে বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ শতকের দিক থেকে শচীন তেন্ডুলকরকে স্পর্শ করেন।[৪]

লিস্ট এ ক্রিকেটসম্পাদনা

যুব বিশ্বকাপের সাফল্যের কারণে ২০০৬ সালের দেওধর ট্রফিতে পার্থিব প্যাটেল এর নেতৃত্বে পশ্চিমাঞ্চলের দলে সুযোগ পান।

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটসম্পাদনা

যুব বিশ্বকাপের সাফল্যের কারণে ২০০৬ সালের জুলাই তে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত টপ এন্ড সিরিজএ পার্থিব প্যাটেল/ভেনুগোপাল রাও এর নেতৃত্বে ভারত 'এ' দলে সুযোগ পান।

ঘরোয়া টি২০ ক্রিকেটসম্পাদনা

২০০৭ সালে অনুষ্ঠিত আন্তঃ রাজ্য টি ২০ প্রতিযোগিতায় আমোল মজুমদার-এর নেতৃত্বে মুম্বাই দলে সুযোগ পান।

২০০৭ সালে আয়ারল্যান্ড সফরে ফিউচার কাপে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশ নেন। বেলফাস্টে অনুষ্ঠিত খেলায় তার অভিষেক ঘটলেও তিনি ব্যাটিং করেননি।[৫] ২০ সেপ্টেম্বর, ২০০৭ তারিখে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজের ক্রীড়াশৈলী উপস্থাপন করেন। ঐদিন আইসিসি বিশ্ব টুয়েন্টি২০ প্রতিযোগিতার গ্রুপ পর্বের খেলায় দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৪০ বলে অপরাজিত ৫০ রান করে দলকে বিজয়ের মুখ দেখান।[৬] অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির সাথে ৫ম উইকেট জুটিতে ৮৫ রান করে দলকে ১৫৩/৫-এ নিয়ে যান। খেলায় তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন।[৬] এছাড়াও, চূড়ান্ত খেলায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৬ বলে ৩০ রান করেন।[৭]

বিশ্বের ৯৮তম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে ৭ নভেম্বর, ২০১৩ তারিখে কলকাতায় অনুষ্ঠিত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি তার প্রথম টেস্ট ম্যাচে সেঞ্চুরি করার কৃতিত্ব অর্জন করেন।

কীর্তিগাঁথাসম্পাদনা

একদিনের আন্তর্জাতিকের ইতিহাসে প্রথম ব্যক্তি হিসেবে তিনটি দ্বী শতক রানের ইনিংস গড়েন রোহিত। সর্বোপরি সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ২৬৪ রান করে নতুন রেকর্ডের অধিকারী হন তিনি। এছাড়াও, লিস্ট-এ ক্রিকেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন। ১৩ নভেম্বর, ২০১৪ তারিখে ইডেন গার্ডেন্সে অনুষ্ঠিত সফরকারী শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দলের বিপক্ষে মাত্র ১৭৩ বল থেকে ২৬৪ রান করে দলকে পঞ্চমবারের মতো চার শতাধিক রান সংগ্রহে সহায়তা করেন। মাত্র চার রানের জন্য লিস্ট-এ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের অধিকার থেকে বঞ্চিত হন ও শেষ বলে তিনি আউট হন। ৩৩ চার ও ৯ ছক্কার সাহায্যে তিনি এ রান সংগ্রহ করেন।[৮] ৫৯ রানে ২ উইকেটের পতনের পর কোহলিকে সাথে নিয়ে ২০২ রানের জুটি গড়েন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Rohit makes a mark with T20"NDTV। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৪-১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. Gollapudi, Nagraj (২৭ ফেব্রুয়ারি ২০০৮)। "Forthcoming attraction"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৪-১৬ 
  3. "শচিনের রেকর্ড ভাঙলেন রোহিত শর্মা"দ্য ডেইলি স্টার। ৯ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুলাই ২০১৯ 
  4. "অনন্য কীর্তি গড়লেন রোহিত শর্মা"এনটিভি অনলাইন। ৬ জুলাই ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুলাই ২০১৯ 
  5. "Only ODI:Ireland v India at Belfast, 23 June 2007"Cricinfo। ২৩ জুন ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৫-১৫ 
  6. "ICC World Twenty20 24th Match, Group E:India v South Africa at Durban, 20th September 2007"Cricinfo। ২০ সেপ্টেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৫-১৫ 
  7. "ICC World Twenty20-final:India v Pakistan at Johannesburg, 24th September 2007"Cricinfo। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৫-১৫ 
  8. "Rohit 264 powers India to 404; India v Sri Lanka, 4th ODI, Kolkata"Cricinfo। ১৩ নভেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৪ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা