প্রধান মেনু খুলুন

মোহাম্মাদ নবী

আফগান ক্রিকেটার

মোহাম্মাদ নবী (পশতু: محمد نبي; জন্ম: ৩ মার্চ, ১৯৮৫) হলেন একজন ডানহাতি ব্যাটসম্যান এবং ডানহাতি অফ ব্রেক বোলার, যিনি আফগানিস্তান জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে থাকেন। তিনি বর্তমানে আফগানিস্তান জাতীয় দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন। ২০১৩ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ এ সিলেট রয়ালস তাকে মার্কিন ডলার $৩০,০০০ বিনিময়ে কিনে নেয়।

মোহাম্মাদ নবী
Mohammad Nabi-Australia.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমোহাম্মাদ নবী ঈসা খেল
জন্ম (1985-03-03) ৩ মার্চ ১৯৮৫ (বয়স ৩৪)
লোগার, আফগানিস্তান
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি ব্যাটসম্যান
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ওডিআই অভিষেক১৯ এপ্রিল ২০০৯ বনাম স্কটল্যান্ড
শেষ ওডিআই৪ অক্টোবর ২০১৩ বনাম কেনিয়া
টি২০আই অভিষেক১ ফেব্রুয়ারি ২০১০ বনাম আয়ারল্যান্ড
শেষ টি২০আই৮ ডিসেম্বর ২০১৩ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০১১আফগান চিটাস
২০০৭–২০১১মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাব
২০০৮–২০১২পাকিস্তান কাস্টমস
২০১৩–বর্তমানসিলেট রয়ালস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা ওডিআই টি২০আই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৭ ২২ ২৫ ৫৫
রানের সংখ্যা ৬৫৫ ২৫৮ ১,০৪৮ ১,৫৬৭
ব্যাটিং গড় ৩৬.৩৮ ১৩.৫৭ ২৬.৮৭ ৩৬.৪০
১০০/৫০ ০/৫ ০/০ ২/৩ ২/৮
সর্বোচ্চ রান ৬২ ৪৬ ১১৭ ১৪৬
বল করেছে ১,২১৫ ৪৫৬ ৩,২৩৮ ২,৬৩২
উইকেট ২৩ ১৮ ৬১ ৬০
বোলিং গড় ৩৬.১৭ ৩০.২২ ২৪.৬০ ৩০.২১
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/৩১ ৩/২৩ ৬/৩৩ ৫/১২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১৬/– ১১/– ১২/– ২৯/–
উৎস: ইএসপিএন ক্রিকইনফো, ১০ ডিসেম্বর ২০১৩

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

নবী হচ্ছেন আফগানিস্তান জাতীয় দলের ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য অন্যতম একজন খেলোয়াড় এবং তিনি তার খেলার মাধ্যমে নিজের দেশকে অনেক দুর নিয়ে যেতে চেষ্টা করছেন। ২০০৯ সালে আইসিসি বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারে তিনি দ্রুত ১১ উইকেট লাভ করেন যার ফলে আফগানিস্তান ভাল ফলাফল করতে সামর্থ্য হয়। র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ৫নং অবস্থান পর্যন্ত যেতে সক্ষম হন, যার ফলে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার সৌভাগ্য অর্জন করেন। উক্ত খেলায় অভিষেক ম্যাচে নবী স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৫৮ রানের এক অসাধারণ ইনিংস উপহার দেন।

২০১০ সালের ফেব্রুয়ারীতে নবীর টুয়েন্টি ২০ আন্তর্জাতিক খেলায় আয়ারল্যান্ড এর বিরুদ্ধে অভিষেক ঘটে, যেখানে তিনি মাত্র ১টি উইকেট লাভ করেছিলেন। যদিও উক্ত খেলায় আফগানিন্তান ৫ উইকেটে হেরে গিয়েছিল।

২০১০ সালের নভেম্বরে নবীকে এশিয়ান গেমসের জন্য আফগানিস্তান জাতীয় দলের অধিনায়ক নির্বাচিত করা হয় এবং নওরোজ মঙ্গলকে অধিনায়ক থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়। নবীর অধিনায়কত্বে আফগানিস্তান রানার্স আপ হয় যেখানে তারা ফাইনাল খেলায় বাংলাদেশের সাথে পরাজিত হয়।

ক্লাব জীবনসম্পাদনা

মোহম্মাদ নবী বাংলাদেশের সিলেট রয়ালসের হয়ে ক্লাব জীবন শুরু করেন। এছাড়াও পাকিস্তানের আফগান চিটাস এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের মারলিবন ক্রিকেট ক্লাবের হয়েও খেলছেন।

সিলেট রয়্যালসসম্পাদনা

২০১৩ সালের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে নবী সিলেট রয়ালস এর হয়ে খেলেন এবং তার অসাধারণ নৈপূন্য প্রদর্শনের মাধ্যমে তার দল সেমি-ফাইনালে খেলতে সামর্থ হয়। তিনি ১৩ ম্যাচে ১৬ উইকেট লাভ করেন এবং টুর্ণামেন্টে টপ ব্যাটসম্যানদের মধ্য অন্যতম একজন ছিলেন। আন্দ্রে রাসেল এর ইনজুরির কারণে নবী দলে জায়গা পান। শেষ খেলায় ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরস এর বিরুদ্ধে নবী ক্রিস গেইল এর উইকেট লাভ করেন। উক্ত খেলায় গেইল দ্রুত গতিতে মাত্র ৫১ বলে ১১৪ রানের একটি ঝড়ো ইনিংস উপহার দেন যাতে করে তার দল সহজেই ফাইনাল খেলায় প্রবেশ করতে সামর্থ্য হয়। উক্ত খেলায় নবী দুই উইকেট নেন (ইকোনমি ৪.২৫)। অপর সেমি ফাইনালে চিটাগং কিংস এর বিরুদ্ধে নবী আরও ২টি উইকেট লাভ করেন কিন্তু তাদের জয়কে তারা থামাতে পারেননি।[১]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা