কুষ্টিয়া

বাংলাদেশের একটি শহর

কুষ্টিয়া বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চলের খুলনা বিভাগের একটি নগর। এটি একইসাথে কুষ্টিয়া জেলা ও কুষ্টিয়া সদর উপজেলার সদরদপ্তর। এর মোট আয়তন ৪২.৭৯ বর্গ কিলোমিটার এবং জনসংখ্যা প্রায় ৪১৮,৩১২[১] জন, যা কুষ্টিয়াকে বাংলাদেশের ১৩তম বৃহৎ শহরের মর্যাদা দিয়েছে।[১] কুষ্টিয়া সড়ক রেল ও নদী পথে বাংলাদেশের অন্যান্য শহরের সাথে যুক্ত। বাংলাদেশের একমাত্র সরকারি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় এখানে অবস্থিত। কুুুষ্টিয়া সাংস্কৃতিক রাজধানী নামেও পরিচিত। [২]

কুষ্টিয়া নগরী
নগর
কুষ্টিয়া
Tomb of Lalon 11.jpg
Kushtia Municipality .jpg
BRB Cable Tower Kushtia (1).jpg
Kushtia City 5.jpg
Lovely Tower (12).jpg
Porimol Tower (12).jpg
Selima medical college.jpg
Kushtia City 2.jpg
Kushtia City 3.jpg
Kushtia city 1.jpg
Kushtia City 4.jpg
উপর থেকেঃ লালন শাহের মাজার, কুষ্টিয়া পৌরসভা, বি আর বি ক্যাবল টাওয়ার, কুষ্টিয়া শহর, লাভলী টাওয়ার, পরিমল টাওয়ার, সেলিমা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং কুষ্টিয়া শহর
ডাকনাম: সাংস্কৃতিক রাজধানী
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগখুলনা বিভাগ
জেলাকুষ্টিয়া জেলা
উপজেলাকুষ্টিয়া সদর উপজেলা
সরকার
 • ধরনপৌরসভা
 • শাসককুষ্টিয়া পৌরসভা
আয়তন
 • পৌর এলাকা৪২.৭৯ কিমি (১৬.৫২ বর্গমাইল)
 • মহানগর৯৬.২৩ কিমি (৩৭.১৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১৮)
 • পৌর এলাকা৪,১৮,৩১২
 • পৌর এলাকার জনঘনত্ব৯৮০০/কিমি (২৫০০০/বর্গমাইল)
 • মহানগর৫,৫০,০০০
 • মহানগর জনঘনত্ব৫৭০০/কিমি (১৫০০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবাংলাদেশ সময় (ইউটিসি+৬)
Postal code৭০০০

ইতিহাসসম্পাদনা

১৮৬৯ সালে কুষ্টিয়ায় একটি পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। হ্যামিলটন'স গেজেট প্রথম কুষ্টিয়া শহরের কথা উল্লেখ করে। সম্রাট শাহজাহানের রাজত্বকালে এখানে একটি নদীবন্দর স্থাপিত হয়। যদিও ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি এ বন্দর বেশি ব্যবহার করত, তবুও নীলচাষী ও নীলকরদের আগমনের পরেই নগরায়ন শুরু হয়। ১৮৬০ সালে কলকাতার (তৎকালীন ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর রাজধানী)সাথে সরাসরি রেললাইন স্থাপিত হয়। একারণে এ অঞ্চল শিল্প-কারখানার জন্য আদর্শ স্থান বলে তখন বিবেচিত হয়েছিল। তৎকালীন সময়ে যজ্ঞেশ্বর ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস(১৮৯৬), রেণউইক, যজ্ঞেশ্বর এণ্ড কোং (১৯০৪) এবং মোহিনী মিলস (১৯১৯) প্রতিষ্ঠিত হয়।

ভূগোলসম্পাদনা

কুষ্টিয়া রাজধানী ঢাকা থেকে পশ্চিমে, খূলনা থেকে উত্তরে এবং রাজশাহী থেকে দক্ষিণ-পূর্বে, ২৩º৪২΄ উত্তর অক্ষাংশ থেকে ২৩º৫৯΄ উত্তর অক্ষাংশ পর্যন্ত এবং ৮৮º৫৫΄ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ থেকে ৮৯º০৪΄ দ্রাঘিমাংশে অবস্থিত। এর মোট আয়তন ১৪.৪৯ বর্গকিলোমিটার।

জনসংখ্যাসম্পাদনা

২০১৩ সালের তথ্য অনুযায়ী কুষ্টিয়ার মোট জনসংখ্যা ৪১৮,৩১২ জন।[৩] শহরের পুরুষ জনসংখ্যা ২১০,১১০ এবং নারী জনসংখ্যা ২০৮,২০২। নারী ও পুরুষের লিঙ্গ অনুপাত ১০০ঃ১০৫ এবং শিক্ষার হার ৭৪.৬%(৭ বছরের উর্দ্ধে)। মোট খানা সংখ্যা ৭৫,০০০ [৩]

যোগাযোগসম্পাদনা

রাজধানী ঢাকা থেকে কুষ্টিয়ার দুরত্ব ১৮০ কিলোমিটার, খুলনা থেকে ১৪৫ কিলোমিটার এবং রাজশাহী থেকে ১৩৭ কিলোমিটার।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "23: Area, Household, Population and Literacy Rate of the Cities, 2011"। Population & Housing Census-2011 [আদমশুমারি ও গৃহগণনা-২০১১] (পিডিএফ) (প্রতিবেদন)। জাতীয় প্রতিবেদন (ইংরেজি ভাষায়)। ভলিউম ৩: Urban Area Rport, 2011। ঢাকা: বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো। মার্চ ২০১৪। পৃষ্ঠা XI। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  2. "কুষ্টিয়া জেলা" |ইউআরএল= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)http (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-০৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. (প্রতিবেদন) http://municipality.kushtia.gov.bd/site/page/3ed097e8-0fbf-48c5-8371-2ec343f0f870/%E0%A6%8F%E0%A6%95%20%E0%A6%A8%E0%A6%9C%E0%A6%B0%E0%A7%87  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  4. "কুষ্টিয়া থেকে সড়ক পথে অন্যান্য জেলার দুরত্ব"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৬