মাহবুবউল আলম হানিফ

বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ ও সংসদ সদস্য

মাহবুবউল আলম হানিফ (জ. ২ জানুয়ারি ১৯৫৯) বাংলাদেশের কুষ্টিয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য। তিনি ২০১৪ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

মাহবুবউল আলম হানিফ
কুষ্টিয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য
কাজের মেয়াদ
২৯ জানুয়ারি ২০১৪ – বর্তমান
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1959-01-02) ২ জানুয়ারি ১৯৫৯ (বয়স ৬৩)[১]
ষোলদাগ, ভেড়ামারা, কুষ্টিয়া জেলা, বাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
দাম্পত্য সঙ্গীফৌজিয়া আলম
সন্তানফাহিম আফসার আলম
ফারহান সাদিক আলম
তানিশা আলম
মাতারহিমা আফছার
পিতাআফছার আলী
আত্মীয়স্বজনরবিউল আলম (ভাই)
রশিদুল আলম (ভাই)
শহিদুল আলম (ভাই)
রফিকুল আলম চুন্নু (ভাই)
আলেয়া বেগম (বোন)
আজিজা খানম (বোন)
ফাতেমা আশরাফি (বোন)
আফরোজা ইয়াসমিন (বোন)
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

জন্ম ও শিক্ষাজীবনসম্পাদনা

মাহবুবউল আলম হানিফ ১৯৫৯ সালের ২ জানুয়ারি তার পৈতৃক বাড়ি কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা উপজেলার ষোলদাগ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা রেলওয়ের কর্মকর্তা থাকার সুবাদে তিনি পাকশী রেলওয়ে কলোনীতে বড় হয়েছেন। আর এখানেই তিনি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের লেখাপড়া সম্পন্ন করেন। পরবর্তীতে তিনি ঢাকা কলেজে ভর্তি হন, কলেজ জীবনে তিনি সক্রিয়ভাবে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনা বিভাগে সম্মানসহ স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

ছাত্র রাজনীতিসম্পাদনা

মাহবুবউল আলম হানিফ ঢাকা কলেজে পড়াকালীন সময়ে ছাত্র রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগে যোগদান করেন।

১৯৯৬-২০১৩সম্পাদনা

১৯৯৬ সালে ৭ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুষ্টিয়া-২ আসনে (মিরপুর-ভেড়ামারা) দলীয় সংসদ প্রার্থী হিসাবে অংশগ্রহণ করেন। ২০০১ সালের ৮ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একই আসন থেকে পুনরায় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে। এবং ২০০৭-এর সংসদ নির্বাচনে পার্শ্ববর্তী কুষ্টিয়া-১ আসনে (দৌলতপুর) দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্ত হলেও দেশের তৎকালীন রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে উক্ত নির্বাচন স্থগিত করা হয়। ২০০৮ সালে ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুষ্টিয়া-২ আসনে দলের মনোনীত প্রার্থী হলেও জোটগত নির্বাচনের স্বার্থে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন।

২০০৯ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ১৮তম কাউন্সিলের মাধ্যমে প্রথম বারের মত তিনি কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদ লাভ করেন। পরবর্তীতে ২০১২, ২০১৬ ও ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত ১৯, ২০ ও ২১তম কাউন্সিলেও তাকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে পুনঃ দায়িত্ব প্রদান করা হয়। ২০১০ সাল হতে ২০১৩ সাল পর্যন্ত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৪-বর্তমানসম্পাদনা

২০১৪ সালের ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুষ্টিয়া-৩ আসন থেকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করে প্রথম বারের মত জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন।[২] ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত ১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একই আসন থেকে পুনরায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[৩]

তিনি আওয়ামী লীগের ২১তম কাউন্সিলের মাধ্যমে পুনঃ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন, এবং বর্তমানে এই দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া তিনি প্রাথমিক জীবনে ভেড়ামারা থানা আওয়ামীলীগের সদস্য হিসাবে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনৈতিক যাত্রা শুরু করেছিলেন, এরপর কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং সহ-সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Constituency 77_10_Bn"www.parliament.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-৩১ 
  2. "১০ম জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা"জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার 
  3. "বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জানুয়ারি ১, ২০১৯" (PDF)ecs.gov.bdবাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। ১ জানুয়ারি ২০১৯। ২ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৯