প্রধান মেনু খুলুন

রংপুর

বাংলাদেশের রংপুর বিভাগের বিভাগীয় এবং জেলাশহর

রংপুর বাংলাদেশের রংপুর বিভাগের অন্যতম প্রধান শহর এবং ১৮৬৯ সালে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের প্রাচীনতম পৌর কর্পোরেশনের একটি। রংপুর শহর ডিসেম্বর ১৬, ১৭৬৯ সালে বিভাগীয় সদর দপ্তর হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে। ১৮৯০ সালে তৎকালীন পৌর কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান ডিমলার জমিদার বাড়ির রাজা জানকীবল্লভ সেন রংপুর শহরে জলাবদ্ধতা নিরসনে তার মা চৌধুরানী শ্যামাসুন্দরী দেবী'র নামে যে ক্যানালটি পুনঃখনন করেন তাই আজকের শ্যামাসুন্দরী খাল নামে পরিচিত এবং তার দানকৃত বাগান বাড়ির জমিতে ১৮৯২ খ্রিষ্টাব্দে আজকের পৌরসভা ভবনটি গড়ে ওঠে।

রংপুর
বিভাগীয় সদরদপ্তরসিটি কর্পোরেশন
Rangpur City Corporation.jpg
Tajhat Rajbari.JPGRangpur town hall.jpg
বেগম রোকেয়ার বাড়ি (20).jpgRongpur zoo.JPG
রংপুর রংপুর বিভাগ-এ অবস্থিত
রংপুর
রংপুর
রংপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
রংপুর
রংপুর
রংপুর শহরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°৩৪′ উত্তর ৮৯°১৫′ পূর্ব / ২৫.৫৬° উত্তর ৮৯.২৫° পূর্ব / 25.56; 89.25স্থানাঙ্ক: ২৫°৩৪′ উত্তর ৮৯°১৫′ পূর্ব / ২৫.৫৬° উত্তর ৮৯.২৫° পূর্ব / 25.56; 89.25
Country বাংলাদেশ
Divisionরংপুর বিভাগ
জেলারংপুর বিভাগ
প্রতিষ্ঠাডিসেম্বর ১৬ ১৭৬৯[১]
পৌরসভা১৮৬৯[১]
সিটি কর্পোরেশনজুলাই ১ , ২০১২[২]
সরকার
 • ধরনমেয়র-কাউন্সিল
 • শাসকরংপুর সিটি কর্পোরেশন
 • সিটি মেয়রমোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা
আয়তন
 • মহানগর২৮ কিমি (১১ বর্গমাইল)
উচ্চতা৩৪ মিটার (১১২ ফুট)
জনসংখ্যা (২০১২)
 • বিভাগীয় সদরদপ্তরসিটি কর্পোরেশন৬,৫০,০০০
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্টাল কোড৫৪০০[৩]
জাতীয় কলিং কোড+৮৮০
কলিং কোড৫২১
ওয়েবসাইটঅফিশিয়াল ওয়েবসাইট

রংপুর বিভাগের একমাত্র পুর্ণাঙ্গ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় এই শহরের দক্ষিণাংশে অবস্থিত।

ইতিহাসসম্পাদনা

১৫৭৫ সালে মুঘল সাম্রাজ্যের অধিপতি আকবরের সেনাপতি রাজা মান সিংহ রংপুর জয় করেন এবং ১৬৬৮ সালে সমগ্র রংপুরে মোগলদের আধিপত্য প্রতিষ্ঠা পায়। এ অঞ্চলের মোগালবাসা এবং মোগলহাট নামগুলি দীর্ঘ মোগল শাসনের চিহ্ন বহন করছে। পরে রংপুর ঘোরাঘাট সরকারের অধীনে চলে আসে এবং পর্বর্তিতে ১৮'শ শতকের শেষের দিকে বৃটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির শাসনামলে রংপুরে ফকির-সন্ন্যাসী বিদ্রোহ সংঘটিত হয়েছিল।[৪]

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

রংপুরের মোট জনসংখ্যা ২৫৩৪৩৬৫ জন যার মধ্যে পুরুষ জনসংখ্যা ৫০.৯২% এবং মহিলা ৪৯.০৮%। সর্বোচ্চ ৮৯.৬০% ইসলাম ধর্মালম্বী, হিন্দু সম্প্রদায় ৯.৫৯% , খ্রিষ্টান ০.৫০% এবং অন্যান্য ০.৩১% সাঁওতাল এবং ওঁরাও জাতিগোষ্ঠী । মুসলমানদের মধ্যে সালাফি ঘরণার হার বাংলাদেশের অন্যান্য জেলার তুলনায় একটু বেশী হয়।[৫]

ভূগোলসম্পাদনা

অর্থনীতিসম্পাদনা

আশেপাশের জেলাগুলোর জন্য রংপুর একটি বাণিজ্যিক কেন্দ্রবিন্দু। শহরের কেন্দবিন্দুতে অসংখ্য সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংক, বীমা সংস্থা, আবাসিক হোটেল, চীনা ও ভারতীয় রেস্টুরেন্ট, ফাস্ট ফুড, মিষ্টির ও উপহারের দোকান রয়েছে। আঞ্চলিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এর প্রভাব অপরিসীম।

উল্লেখযোগ্য স্থানসমূহসম্পাদনা

 
তাজহাট জমিদার বাড়ি (রংপুর বিভাগীয় সদর দপ্তর ও যাদুঘর)
 
রংপুর টাউন হল

তাজহাট জমিদার বাড়িসম্পাদনা

তাজহাট জমিদার বাড়ি রংপুর শহরের দক্ষিণে অবস্থিত। ১৯৮৪ সালে হাইকোর্ট হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত এটি তাজহাট জমিদার বাড়ি নামেই পরিচিত ছিলো। ব্রিটিশ শাসনামলের শেষে ভবনটি দ্রুত পরিত্যক্ত এবং ক্ষয়প্রাপ্ত হতে থাকে। ১৯৮০ সালের দিকে এই ভবনটিকে "কোর্ট হাউস" হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছিলো। ২০০৪ সালে তাজহাট জমিদার বাড়িকে সংস্কার করে যাদুঘরে রুপান্তরিত করা হয় এবং এই যাদুঘরের সংগ্রহে হিন্দুদের কালো পাথরের ভাস্কর্য, চারুলিপি এবং মুঘল আমলের শিল্প উল্লেখযোগ্য। তহবিলের অভাবে যাদুঘরটি মাঝে মাঝে বন্ধ থাকে।[৬] এই জমিদার বাড়িটির প্রান্তদেশ দক্ষিণ-পূর্ব সীমান্তে তিন কিলোমিটার বিস্তৃত। ধারণা করা হয় যে মহারাজ গোপাল কুমার রায় কর্তৃক বিংশ শতাব্দী শুরুতে ১৯৮৪ থেকে ১৯৯১ সালের মধ্যে এটি নির্মাণ করা হয়। বাংলাদেশের সুপ্রীম কোর্টেরর রংপুর উচ্চ আদালতের শাখা হিসেবে ১৯৯৫ সালে প্রাসাদটি ব্যবহার করা হয়েছিলো। প্রত্নতত্ব বিভাগ কর্তৃক প্রাসাদটিকে সুরক্ষিত স্মৃতিস্তম্ভ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের জন্য বাংলাদেশ সরকার ২০০২ সালে এটিকে জাদুঘরে রুপান্তরিত করে। তদানুসারে ২০০৫ সাল থেকে ভবনটি রংপুর জাদুঘর হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

টাউন হলসম্পাদনা

সাংস্কৃতিক প্রোগ্রামের জন্য শহরের কেন্দ্রে একটি প্রাচীন অডিটোরিয়াম রয়েছে যেটি রংপুর টাউন হল নামে পরিচিত।

কারমাইকেল কলেজসম্পাদনা

১৯১৬ সালে প্রতিষ্টিত কারমাইকেল কলেজ বাংলাদেশের পুরাতন কলেজগুলোর মধ্যে অন্যতম। এই কলেজের প্রধান আকর্ষণ তার প্রশাসনিক ভবন(বাংলা বিভাগে অবস্থিত)। ভবনটি ইন্দো-ইসলামিক রেনেসাঁ স্থাপত্যশিল্পের নিদর্শন।

জাদু নিবাসসম্পাদনা

জাদু নিবাস রংপুর সরকারি কলেজের পাশে রাধাবালভে অবস্থিত। এটি মশিউর রহমান যাদু মিয়ার নিবাস ছিলো। এই বাড়িটির বয়স আনুমানিক একশত বছর। বাড়িটি সম্ভবত মহারাজা গোপাল লাল রায় এর সময়ে নির্মিত এবং মালিকানাধীন ছিল, এই সময় রংপুর জেলা পরিষদ, রংপুর টাউন হল এবং তাজহাট জমিদার বাড়ি নির্মিত করা হয়েছিল।

শিক্ষাসম্পাদনা

 
রংপুর মেডিকেল কলেজ

রংপুরের উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমুহ হলঃ

বিশ্ববিদ্যালয়
মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজসমুহ
  • রংপুর মেডিকেল কলেজ
  • প্রাইম মেডিকেল কলেজ
  • রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ
  • নর্দান প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ
  • রংপুর আর্মি মেডিকেল কলেজ
  • কাসির উদ্দিন মেমোরিয়েল মেডিকেল কলেজ
  • রংপুর ডেন্টাল কলেজ
কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান
কলেজসমুহ
  • বেগম রোকেয়া মহিলা কলেজ
  • রংপুর সরকারি কলেজ
  • কারমাইকেল কলেজ[৭]
  • কালেক্টোরেট স্কুল এন্ড কলেজ
  • কারমাইকেল কলিজিয়েট স্কুল এন্ড কলেজ
  • রংপুর মডেল কলেজ
  • পুলিশ লাইনস স্কুল এন্ড কলেজ
  • লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজ
  • রংপুর ক্যাডেট কলেজ
  • কেরামত আলী কলেজ
  • ক্যান্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ
  • বিদ্যালয় সমুহ
বিদ্যালয়সমুহ

জলবায়ুসম্পাদনা

রংপুর আদ্র উপক্রান্তীয় জলবায়ুর মধ্যে অবস্থিত। রংপুরের আবহাওয়ার মধ্যে মৌসুমি বায়ু, উষ্ণ তাপমাত্রা, আর্দ্রতা, ও ভারী বৃষ্টিপাতের বিদ্যমান। গ্রীষ্মকাল এপ্রিলের শুরু থেকে জুলাই পর্যন্ত হয়। বার্ষিক তাপমাত্রা ২৪.৯ °সে ([রূপান্তর: অজানা একক]) এবং বার্ষিক বৃষ্টিপাত ২,১৯২ মিলিমিটার ([রূপান্তর: অজানা একক])।

রংপুরের আবহাওয়া সংক্রান্ত তথ্য
মাস জানুয়ারী ফেব্রুয়ারি মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগষ্ট সেপ্টেম্বর অক্টোবর নভেম্বর ডিসেম্বর
সর্বোচ্চ তাপমাত্রা (°সেঃ) 1২৪.৪° ২৭.১° ৩১.৫° ৩৪.১° ৩২.৬° ৩১.৮° ৩১.৭° ৩১.৮° ৩১.৮° ৩০.৯° ২৮.৪° ২৫.৬°
সর্বনিম্ন তাপমাত্রা (°সেঃ) ১০.৩ ১২.০ ১৫.৯ ২১.০ ২৩.০ ২৪.৭ ২৫.৭ ২৬.৩ ২৫.৬ ২২.৩ ১৬.৪ ১২.২
বৃষ্টিপাত(মিঃমিঃ) ১২ ২৬ ৭৮ ২৯১ ৪৮১ ৪৬১ ৩৫২ ৩১৫ ১৫৪ ১০
Source: [১]|[National news papers]
রংপুরের আবহাওয়া
মাস জানুয়ারী ফেব্রুয়ারি মার্চ এপ্রিল মে জুন জুলাই আগষ্ট সেপ্টেম্বর অক্টোবর নভেম্বর ডিসেম্বর
গড় তাপমাত্রা (°সেঃ) 1১৩.৫° ১৫.৫° ১৯° ২১° ২১.৫° ২৩° ২২° ২৩° ২১.৫° ২২.৫° ১৮.৫° ১৬°
গড় বৃষ্টিপাত (মিঃমিঃ) ০.১ ০.৬ ২.৮ ৬.৭ ২.৯ ১.৪
Source: [২]|[National news papers]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৫ নভেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৪ 
  2. Our Correspondent, Rangpur (2012-07-02)। "Rangpur turns city corporation"। Thedailystar.net। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১০ , ২০১৪  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  3. www.geopostcodes.com, GeoPostcodes, ZIP codes, ZIPCodes, gazetteer, Postcodes। "ZIP Code database of Bangladesh, Rangpur, Rangpur, Rangpur Sadar"। Geopostcodes.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৬-১১ 
  4. Lorenzen, D.N. (১৯৭৮)। "Warrior Ascetics in Indian History."। Journal of the American Oriental Society.। American Oriental Society। 98 (1): 617–75। doi:10.2307/600151জেস্টোর 600151 
  5. "Population Census Wing, BBS."। ২০০৫-০৩-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০০৬ 
  6. Muhammad Moniruzzaman (২০১২), "Ray, Gopal Lal", Sirajul Islam; Ahmed A. Jamal, Banglapedia: National Encyclopedia of Bangladesh (Second সংস্করণ), Asiatic Society of Bangladesh, ১৭ জুন ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ১৭ জুন ২০১৫ 
  7. Muhammad Maniruzzaman (২০১২)। "Carmichael College, Rangpur"। Sirajul Islam and Ahmed A. Jamal। Banglapedia: National Encyclopedia of Bangladesh (Second সংস্করণ)। Asiatic Society of Bangladesh। ৮ মার্চ ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১৪