মিশর জাতীয় ফুটবল দল

মিশর জাতীয় ফুটবল দল (আরবি: منتخب مصر لكرة القدم‎‎, ইংরেজি: Egypt national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে মিশরের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম মিশরের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা মিশরীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯২৩ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৫৩ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা আফ্রিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯২০ সালের ২৮শে আগস্ট তারিখে, মিশর প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; বেলজিয়ামের খেন্টে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে মিশর ইতালির কাছে ২–১ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

মিশর
দলের লোগো
ডাকনামআল-ফিরাইনা (পারোহ)
অ্যাসোসিয়েশনমিশরীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনক্যাফ (আফ্রিকা)
প্রধান কোচহুসাম আল বদরি
অধিনায়কআহমেদ ফাতহি
সর্বাধিক ম্যাচআহমেদ হাসান (১৮৪)
শীর্ষ গোলদাতাহুসাম হাসান (৬৮)
মাঠকায়রো আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম
ফিফা কোডEGY
ওয়েবসাইটwww.efa.com.eg
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৪৯ অপরিবর্তিত (১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ(জুলাই – সেপ্টেম্বর ২০১০, ডিসেম্বর ২০১০)
সর্বনিম্ন৭৫ (মার্চ ২০১৩)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৫৯ বৃদ্ধি(১ এপ্রিল ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ১৪ (আগস্ট ২০১০)
সর্বনিম্ন৬৮ (এপ্রিল ১৯৯৭)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 ইতালি ২–১ মিশর 
(খেন্ট, বেলজিয়াম; ২৮ আগস্ট ১৯২০)
বৃহত্তম জয়
 মিশর ১৫–০ লাওস 
(জাকার্তা, ইন্দোনেশিয়া; ১৫ নভেম্বর ১৯৬৩)
বৃহত্তম পরাজয়
 ইতালি ১১–৩ মিশর 
(আমস্টার্ডাম, নেদারল্যান্ডস; ৯ জুন ১৯২৮)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ৩ (১৯৩৪-এ প্রথম)
সেরা সাফল্য১৬ দলের পর্ব (১৯৩৪)
আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্স
অংশগ্রহণ২৩ (১৯৫৭-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যচ্যাম্পিয়ন (১৯৫৭, ১৯৫৯, ১৯৮৬, ১৯৯৮, ২০০৬, ২০০৮, ২০১০)
কনফেডারেশন্স কাপ
অংশগ্রহণ২ (১৯৯৯-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (১৯৯৯, ২০০৯)

৭৫,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট কায়রো আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে আল-ফিরাইনা নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় মিশরের রাজধানী কায়রোয় অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন হুসাম আল বদরি এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন পিরামিডের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় আহমেদ ফাতহি

মিশর এপর্যন্ত ৩ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ১৯৩৪ ফিফা বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছানো, যেখানে তারা হাঙ্গেরির কাছে ৪–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে। অন্যদিকে, আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্সে মিশর অন্যতম সফল দল, যেখানে তারা ৭টি (১৯৫৭, ১৯৫৯, ১৯৮৬, ১৯৯৮, ২০০৬, ২০০৮ এবং ২০১০) শিরোপা জয়লাভ করেছে। এছাড়াও, মিশর ১৯৯৯ এবং ২০০৯ ফিফা কনফেডারেশন্স কাপের গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করেছে।

আহমেদ হাসান, হুসাম হাসান, এসাম এল-হেদারি, মোহাম্মদ সালাহ এবং মোহাম্মদ আবুতরিকাহের মতো খেলোয়াড়গণ মিশরের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিংসম্পাদনা

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১০ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে মিশর তাদের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ অবস্থান (৯ম) অর্জন করে এবং ২০১৩ সালের মার্চ মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ৭৫তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে মিশরের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১৪তম (যা তারা ২০১০ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ৬৮। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৪৭     জ্যামাইকা ১৪৩৭
৪৮     স্কটল্যান্ড ১৪৩৬
৪৯     মিশর ১৪৩২
৫০     কোস্টা রিকা ১৪২৭
৫০     ক্যামেরুন ১৪২৭
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১ এপ্রিল ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৫৭     হন্ডুরাস ১৬০৪
৫৭   ১৪   আইসল্যান্ড ১৬০৪
৫৯     মিশর ১৬০২
৬০   ১০   উত্তর মেসিডোনিয়া ১৬০০
৬১   ১০   ইসরায়েল ১৫৯২

প্রতিযোগিতামূলক তথ্যসম্পাদনা

ফিফা বিশ্বকাপসম্পাদনা

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
  ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৩৪ ১৬ দলের পর্ব ১৩তম ১১
  ১৯৩৮ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
  ১৯৫০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৫৪ উত্তীর্ণ হয়নি
  ১৯৫৮ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
  ১৯৬২
  ১৯৬৬
  ১৯৭০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৭৪ উত্তীর্ণ হয়নি
  ১৯৭৮ ১০ ১৫ ১১
  ১৯৮২
  ১৯৮৬
  ১৯৯০ গ্রুপ পর্ব ২০তম
  ১৯৯৪ উত্তীর্ণ হয়নি
  ১৯৯৮ ১৫
    ২০০২ ১০ ২২
  ২০০৬ ১০ ২৬ ১৫
  ২০১০ ১৩ ২২
  ২০১৪ ১৯ ১৪
  ২০১৮ গ্রুপ পর্ব ৩১তম ১২
  ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ১৬ দলের পর্ব ৩/২১ ১২ ৮৯ ৫১ ১৮ ২০ ১৬১ ৮৫

অর্জনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১ এপ্রিল ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১ এপ্রিল ২০২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা