বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় (Bangladesh University of Textiles; সংক্ষেপেঃ 'বুটেক্স' - 'BUTEX') বাংলাদেশের একটি শীর্ষস্থানীয় সরকারি প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়। এটি টেক্সটাইল প্রকৌশল শিক্ষায় দেশের প্রথম ও একমাত্র পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়

Bangladesh University of Textiles

বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগো.png
নীতিবাক্যজ্ঞানই শক্তি
ধরনসরকারি
স্থাপিত১৯২১
আচার্যরাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ
উপাচার্যপ্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মো. আবুল কাশেম (১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ থেকে -বর্তমান)[১]
শিক্ষার্থী২৭৯০
স্নাতক২৬৪০
স্নাতকোত্তর১৫০ +
অবস্থান
৯২, শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ এভিনিউ, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা, ১২০৮, বাংলাদেশ
শিক্ষাঙ্গনশহরের কেন্দ্রস্থলে, ১১.৬৭ একর (৪.৭২ হেক্টর)
সংক্ষিপ্ত নামবুটেক্স (BUTEX)
অধিভুক্তিবিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন
ওয়েবসাইটwww.butex.edu.bd

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯২১ সালে ব্রিটিশ শাসনামলে 'উয়েভিং স্কুল' নামে ঢাকার নারিন্দায় একটি প্রতিষ্ঠানটি চালু হয়েছিল। সময়ের পরীক্রমায় প্রতিষ্ঠানটি আজ বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়েছে৷ পাকিস্তান সরকার ক্ষমতা লাভের পর ১৯৫০ সালে এর নামকরণ করা হয়, 'ইস্ট পাকিস্তান টেক্সটাইল ইন্সটিটিউট'৷ পরবর্তিতে ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠানটিকে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের বর্তমান ক্যাম্পাসে স্থানান্তর করা হয়৷ ১৯৭৮ সাল থেকে এখানে চার বছর মেয়াদী বি.এসসি কোর্স চালু করা হয় এবং নামকরণ করা হয় 'কলেজ অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি'(CTET)। দেশের চলমান অর্থনীতিতে পোশাক শিল্পের গুরুত্ব বিবেচনা করে ২০১০ সালে টেক্সটাইল ইন্সটিটিউটকে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত করার প্রস্তাব করা হলে বিলটি জাতীয় সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে পাস হয়। মহামান্য রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের মাধ্যমে ২০১০ সালের ৫ অক্টোবর ‘বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় বিল’ টি চূড়ান্তভাবে পাস হয়, যা ২২ ডিসেম্বর, ২০১০ থেকে কার্যকর হয়। এ জন্য প্রতি বছর ২২ ডিসেম্বর 'টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় দিবস' হিসেবে পালন করা হয়। ২০১১ সালের ১৫ মার্চ, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়’(BUTex) – এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।[২] বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় আধুনিক মানে‌র টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার গড়ে তুলে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের অগ্রগতিতে অসামান্য ভূমিকা রাখছে।

শিক্ষা কার্যক্রমসম্পাদনা

বর্তমানে তিনটি অনুষদের অধীনে নয়টি বিষয়ের উপর বি.এসসি. ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু আছে, যা আট সেমিস্টারে বিভক্ত৷ প্রতিবছর ৬ মাস অন্তর অন্তর ২টি সেমিস্টার হয়। সাধারণত বছরগুলোকে লেভেল এবং সেমিস্টার গুলোকে টার্ম বলা হয়; অর্থাৎ ৪টি লেভেল-এ ৮টি টার্ম পরীক্ষা হয়ে থাকে।

  • অনুষদ এবং বিভাগ গুলো হলো :
অনুষদ বিভাগ সিট সংখ্যা
টেক্সটাইল ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ারিং ইয়ার্ন ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ারিং ৮০
ফেব্রিক্স ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ারিং ৮০
ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং ৪০
টেক্সটাইল মেশিনারি ডিজাইন এন্ড মেইনটেইন্স ৪০
টেক্সটাইল কেমিক্যাল প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অ্যাপ্লাইড সাইন্স ওয়েট প্রসেসিং ইঞ্জিনিয়ারিং ৮০
ডাইস এন্ড কেমিক্যাল

ইন্জিনিয়ারিং

৪০
এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ৪০
টেক্সটাইল ক্লদিং, ফ্যাশন ডিজাইন অ্যান্ড বিজনেস স্টাডিজ এ্যাপারেল ম্যানুফ্যাকচারিং ইঞ্জিনিয়ারিং ৮০
টেক্সটাইল ম্যানেজমেন্ট এন্ড বিজনেজ স্টাডিজ ৮০
টেক্সটাইল ফ্যাশন এন্ড ডিজাইন ৪০

এছাড়াও বুটেক্স এর অধীনে সাতটি টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ রয়েছে যেগুলো চার বছর মেয়াদি বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি প্রদান করে থাকে। এসব কলেজের একাডেমিক কার্যক্রম বুটেক্স সিলেবাস অনুযায়ী পরিচালিত এবং বুটেক্স থেকে সনদপত্র প্রদান করা হয়। কলেজগুলো সম্পূর্নভাবে বুটেক্স নিয়ন্ত্রিত।

১.পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ২.চট্টগ্রাম টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ৩.শেখ কামাল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, ঝিনাইদহ ৪.শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ৫.টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, নোয়াখালী ৬.ড.এম এ ওয়াজেদ মিয়া টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ৭.বঙ্গবন্ধু টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ

ক্যাম্পাসসম্পাদনা

ঢাকা শহরের শিল্পের প্রাণকেন্দ্র তেঁজগাও শিল্প এলাকায় বুটেক্সের অবস্থান।প্রবেশের শুরুতেই রয়েছে মেইন গেইট।

বুটেক্সের সকম একাডেমিক কার্যক্রম পরিচালিত হয় একাডেমিক বিল্ডিং থেকে।এখানে রয়েছে সকল উন্নত মানের সুযোগ সুবিধা। থাম্ব|একাডেমিক বিল্ডিং বুটেক্সের কার্যক্রমকে আরো বিশাল এবং যুগোপযোগী করতে বুটেক্সে স্থাপিত হচ্ছে ১৫তলা বিশিষ্ট "বঙ্গবন্ধু একাডেমিক বিল্ডিং" এটি সমগ্র বাংলাদেশের সবচেয়ে উঁচু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবন।এটি ছাত্রছাত্রীদের আন্তর্জাতিক মানের সুযোগ সুবিধা প্রদান করবে। থাম্ব|বঙ্গবন্ধু একাডেমিক ভবন ক্যাম্পাস এরিয়ায় বুটেক্সের রয়েছে কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ থাম্ব|কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ এছাড়াও রয়েছে থাম্ব|শহীদ মিনার থাম্ব|বুটেক্স ছাত্র সংসদ থাম্ব|ফোয়ারা থাম্ব|কোরিডোর বুটেক্সের ক্যাম্পাস একটি রঙিন ক্যাম্পাস।এর দেয়ালে দেয়ালে শোভা পায় অসংখ্য গ্র‍্যাফিতি এবং চিত্রকর্ম।

আবাসিক হলসম্পাদনা

শিক্ষার্থীদের আবাসনের জন্য চারটি আবাসিক হল রয়েছে; ছেলেদের জন্য রয়েছে তিনটি হল এবং মেয়েদের জন্য একটি। ‘শহীদ আজিজ হল’, ‘জি,এম,এ,জি ওসমানী হল’ এবং ‘সৈয়দ নজরুল ইসলাম হল’ ছেলেদের জন্য; আর মেয়েদের জন্য রয়েছে ‘শেখ হাসিনা হল’৷ ‘সুবাহান আলি হল’ নামে নতুন আরো একটি হল তৈরীর পরিকল্পনা করা হয়েছে।

G M A G Osmani Hall
Shohid Aziz Hall

ছাত্র সংগঠনসমূহসম্পাদনা

রাজনৈতিক সংগঠনসম্পাদনা

সাংস্কৃতিক ও বিজ্ঞান সংগঠনসম্পাদনা

  • বুটেক্স সাহিত্য সংসদ
  • বুটেক্স বিজনেস ক্লাব[৩][৪]
  • বাঁধন (স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন), বুটেক্স শাখা[৫]
  • বাউলিয়ানা
  • একাত্তর সাংস্কৃতিক সংঘ
  • বুটেক্স ডিবেটিং ক্লাব
  • বুটেক্স ফিল্ম সোসাইটি
  • বুটেক্স ড্রামা সোসাইটি
  • বুটেক্স সাইক্লিস্ট সার্কেল
  • বুটেক্স সাংবাদিক সংঘ
  • বুটেক্স দাবা ক্লাব
  • বুটেক্স বন্ধুসভা
  • বুটেক্স বিজ্ঞান ক্লাব
  • বুটেক্স সুহৃদ সমাবেশ
  • পথিক বুটেক্স
  • বুটেক্স কম্পিউটার ক্লাব
  • তরু
  • বুটেক্স সাহিত্য সংসদ
  • বুটেক্স সাংবাদিক সমিতি
  • বুটেক্স অ্যাপলের ক্লাব
  • বুটেক্স রোবটিক্স ক্লাব
  • বুটেক্স স্পিনার্স ক্লাব
  • বুটেক্স প্রোগ্রামিং ক্লাব

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Bangladeh University of Textiles"butex.edu.bd 
  2. "PM opens first textile university"bdnews24.com। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৫ 
  3. "Home" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩০ 
  4. "BUTEX Business Club – BUTEX"www.butex.edu.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩০ 
  5. "BADHAN - A Voluntary Blood Donors' Organization"badhan.com.bd। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ মে ২০১৫ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা