নারিন্দা

নারিন্দা বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা শহরের পুরানো ঢাকা অঞ্চলের একটি এলাকা। মধ্যযুগে মোগল শাসনামল থেকেই এখানে জনবসতি রয়েছে। এই এলাকাটির নাম এসেছে নারায়ণদিয়া শব্দের অপভ্রংশ হতে, যার অর্থ হলো নারায়ণের দীপ।[১]

১৬৪০ খ্রিস্টাব্দে ঢাকায় আগমনকারী পর্তুগিজ পরিব্রাজক ও ভ্রমণকারী সেবাস্তিয়ান মানরিকের বর্ণনায় নারিন্দার উল্লেখ পাওয়া যায়। সে সময় এই এলাকাটি ছিলো সুবা বাংলার রাজধানী ঢাকা শহরের পূর্ব সীমান্ত। পরবর্তীকালে, বিশেষ করে ইংরেজ শাসনামলে ঢাকা শহরের লোকসংখ্যা যখন কমে আসে, তখন নারিন্দা প্রায় জনশূন্য হয়ে পড়ে। ঊনবিংশ শতকের শেষ ভাগে গেন্ডারিয়া ও নারিন্দা এলাকাকে আবাসিক এলাকা হিসাবে গড়ে তোলা হয়।

দর্শনীয় স্থাপনাসম্পাদনা

নারিন্দা এলাকাতে ঢাকা শহরের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের কবরস্থান অবস্থিত। নারিন্দা এলাকাতেই ১৬২৮ খ্রিস্টাব্দে পর্তুগিজ ধর্মপ্রচারকেরা ঢাকার প্রাচীনতম গির্জা চার্চ অফ দি অ্যাসাম্পশন প্রতিষ্ঠিত করেন। [২] এছাড়া পুরনো ঢাকার সবচেয়ে পুরাতন মুসলিম স্থাপনার নিদর্শন হিসাবে অনুমিত বিনত বিবির মসজিদ এখানে অবস্থিত।

  • গুরুদাস সরকার লেন
  • মনির হোসেন লেন
  • শরৎগুপ্ত রোড
  • নারিন্দা লেন
  • ভজহরি সাহা স্ট্রীট
  • লালমোহন সাহা স্ট্রীট
  • বসুবাজার লেন
  • শাহ সাহেব লেন
  • ভগবৎসাহা শঙ্খনিধি লেন

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. মুনতাসীর মামুন, "ঢাকা: স্মৃতি বিস্মৃতির নগরী", ৩য় সংস্করণ, ৪র্থ মূদ্রণ, জানুয়ারি ২০০৪, অনন্যা প্রকাশনালয়, ঢাকা, পৃষ্ঠা ১৪১, আইএসবিএন ৯৮৪-৪১২-১০৪-৩
  2. Christianity in Bangladesh, জেরোম ডি'কস্টা, ক্যাথলিক বিশপ কনফারেন্স অফ বাংলাদেশ।

আরও দেখুনসম্পাদনা