পোড়াদহ জংশন রেলওয়ে স্টেশন

বাংলাদেশের প্রথম রেলওয়ে জংশন

পোড়াদহ রেলওয়ে জংশন স্টেশন বাংলাদেশের খুলনা বিভাগের কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলায় অবস্থিত একটি রেলওয়ে স্টেশন। এটি বাংলাদেশের প্রথম রেলওয়ে জংশন।

পোড়াদহ জংশন রেলওয়ে স্টেশন
বাংলাদেশের প্রথম রেলওয়ে জংশন
সুন্দরবন এক্সপ্রেস ৪ নং প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে রয়েছে
চিত্রা এক্সপ্রেস ১ নং প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে রয়েছে
অবস্থানপোড়াদহ, মিরপুর উপজেলা, কুষ্টিয়া জেলা
 বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৩°৫১′৫১″ উত্তর ৮৯°০১′৫৫″ পূর্ব / ২৩.৮৬৪২৪৮৮° উত্তর ৮৯.০৩১৯৮০৭° পূর্ব / 23.8642488; 89.0319807
মালিকানাধীনবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচালিতপশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে
লাইন
প্ল্যাটফর্ম
রেলপথব্রডগেজ
ট্রেন পরিচালকবাংলাদেশ রেলওয়ে
নির্মাণ
গঠনের ধরনআদর্শ (ভূমিজ স্টেশন)
পার্কিংআছে
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
স্টেশন কোডপিডিবি
বিভাগ রেলওয়ে পাকশী বিভাগ
শ্রেণীবিভাগমানক
ইতিহাস
চালু১৮৬২; ১৬১ বছর আগে (1862)
মূল কোম্পানিইস্টার্ন বেঙ্গল রেলওয়ে
পরিষেবা
পূর্ববর্তী স্টেশন   বাংলাদেশ রেলওয়ে   পরবর্তী স্টেশন
মিরপুর   চিলাহাটি-পার্বতীপুর-সান্তাহার-দর্শনা লাইন   হালসা
হালসা  
পোড়াদহ-কালুখালী-গোয়ালন্দ ঘাট লাইন
  জগতি
অবস্থান
মানচিত্র

ইতিহাস

সম্পাদনা

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে রেল যোগাযোগে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ রেলওয়ে জংশন পোড়াদহ রেলওয়ে স্টেশন। বৃটিশ শাসনামলে ১৮৬২ সালের ১৫ নভেম্বর কলকাতা থেকে পোড়াদহ হয়ে কুষ্টিয়ার জগতি পর্যন্ত প্রথম রেলপথ স্থাপিত হয়।[১] পরে ১৮৭৮ সালের মধ্যে পোড়াদহ থেকে ভেড়ামারা রেলপথ চালু হলে পোড়াদহ রেলওয়ে জংশনে পরিণত হয়।[২]

পরিষেবা

সম্পাদনা

পোড়াদহ রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে যেসব ট্রেন চলাচল করে নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো:[৩]

আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচি

সম্পাদনা

পোড়াদহ জংশন রেলওয়ে স্টেশন বর্তমানে ৯টি আন্তঃনগর ট্রেন যাত্রাবিরতি দেয়।

আন্তঃনগর আপ এবং ডাউন ট্রেনের সময়সূচি
সময় বিন্যাস:২৪ ঘন্টা; ১৩:০০
ট্রেনের নাম ট্রেন নং পোড়াদহ জংশনে পৌঁছায় পোড়াদহ জংশন হতে ছাড়ে প্রারম্ভিক স্টেশন ছাড়ার সময় গন্তব্য স্টেশন পৌঁছানোর সময় সাপ্তাহিক বন্ধের বার
বেনাপোল এক্সপ্রেস ৭৯৫ ১৬:৪০ ১৬:৪৪ বেনাপোল ১৩:০০ ঢাকা ২০:৪৫ বুধ
৭৯৬ ০৩:৪৫ ০৩:৫০ ঢাকা ২৩:৪৫ বেনাপোল ০৭:২০
সুন্দরবন এক্সপ্রেস ৭২৫ ০০:৫৬ ০১:০০ খুলনা ২১:৪৫ ঢাকা ০৫:১০ মঙ্গল
৭২৬ ১২:১৫ ১২:২০ ঢাকা ০৮:১৫ খুলনা ১৫:৫০
মধুমতি এক্সপ্রেস ৭৫৫ ১৯:৫৫ ২০:১৫ ঢাকা ১৫:০০ রাজশাহী ২২:৪০ বৃহস্পতি
৭৫৬ ০৮:৫০ ০৯:১০ রাজশাহী ০৬:৪০ ঢাকা ১৪:০০
টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস ৭৮৩ ১০:৪০ ১১:০০ গোবরা ০৬:৪০ রাজশাহী ১৩:১৫ মঙ্গল
৭৮৪ ১৭:২৫ ১৭:৪৫ রাজশাহী ১৫:৩০ গোবরা ২২:১০
রূপসা এক্সপ্রেস ৭২৭ ১০:৩৮ ১০:৪১ খুলনা ০৭:১৫ চিলাহাটি ১৭:০৫ বৃহস্পতি
৭২৮ ১৪:৪৪ ১৪:৪৭ চিলাহাটি ০৮:৩০ খুলনা ১৮:২০
সীমান্ত এক্সপ্রেস ৭৪৭ ০০:৩১ ০০:৩৪ খুলনা ২১:১৫ চিলাহাটি ০৬:৪৫ সোম
৭৪৮ ০০:৩৬ ০০:৩৯ চিলাহাটি ১৮:৪৫ খুলনা ০৪:২০
কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ৭১৫ ১০:০০ ১০:০৩ খুলনা ০৬:৪৫ রাজশাহী ১২:২০ শুক্র
৭১৬ ১৬:৩৪ ১৬:৩৭ রাজশাহী ১৪:৩০ খুলনা ২০:২৫
সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস ৭৬১ ১৯:২০ ১৯:২৩ খুলনা ১৬:০০ রাজশাহী ২২:০০ সোম
৭৬২ ০৮:১০ ০৮:১৪ রাজশাহী ০৬:০০ খুলনা ১২:১০
চিত্রা এক্সপ্রেস ৭৬৩ ১২:২৬ ১২:২৯ খুলনা ০৯:০০ ঢাকা ১৮:০৫ রবি
৭৬৪ ০১:১৬ ০১:২০ ঢাকা ১৭:৩০ খুলনা ০৫:০০

চিত্রশালা

সম্পাদনা

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "উন্নয়নের কোনো ছোঁয়াই লাগেনি শতাব্দী প্রাচীন পোড়াদহ জংশন রেল স্টেশনে"একুশে টিভি। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-২০ 
  2. কুমার, কাঞ্চন (৯ মার্চ ২০২১)। "পোড়াদহ রেলওয়ে জংশন হাসপাতাল এখন পাকা মার্কেট"রাইজিংবিডি.কম। সংগ্রহের তারিখ ২৮ নভেম্বর ২০২২ 
  3. রিপোর্টার, স্টাফ (২০১৯-০৪-১৬)। "পোড়াদহ ট্রেনের নাম ও সময়সূচি"। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-২৮