রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন

রাজশাহীর প্রধান রেলওয়ে স্টেশন

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন বাংলাদেশের রাজশাহীতে অবস্থিত একটি রেলওয়ে স্টেশন। রাজশাহী বিভাগীয় শহরের শিরোইল বাস টার্মিনালের বিপরীত দিকে স্টেশটি অবস্থিত। এই রেল স্টেশনটি শহরের প্রধান স্টেশন, এবং আব্দুলপুর -ঈশ্বরদী বাইপাস-জামতৈল-জয়দেবপুর হয়ে ঢাকার সাথে সংযুক্ত। স্টেশনটি ঢাকা এবং চট্টগ্রাম রেলস্টেশনের পর বাংলাদেশ রেলওয়ের তৃতীয় ব্যস্ততম এবং গুরুত্বপূর্ণ স্টেশন। বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের সদর দপ্তরটি এই স্টেশনের কমপ্লেক্সের মধ্যে অবস্থিত।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন
বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি স্টেশন
রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের সম্মুখপ্রান্ত
অবস্থানরাজশাহী
বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৪°২২′২৯″ উত্তর ৮৮°৩৬′১৭″ পূর্ব / ২৪.৩৭৪৭১৯° উত্তর ৮৮.৬০৪৭৮০° পূর্ব / 24.374719; 88.604780
মালিকানাধীনবাংলাদেশ রেলওয়ে
পরিচালিতপশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে
লাইনআব্দুলপুর-পুরোনো মালদহ লাইন
দূরত্বঢাকা থেকে দূরত্ব ২৬০ কিলোমিটার
প্ল্যাটফর্ম৬ টি
রেলপথব্রডগেজ
নির্মাণ
গঠনের ধরনমানক
পার্কিংআছে
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
স্টেশন কোডRAJ
শ্রেণীবিভাগপ্রথম শ্রেণীর স্টেশন
ইতিহাস
চালু১৯৩০
পুনর্নির্মিত২০০৩
আগের নামইস্টার্ন বেঙ্গল রেলওয়ে
অবস্থান
মানচিত্র

ইতিহাস সম্পাদনা

 
১৯৩০-এর দশকে রাজশাহী রেলস্টেশন

১৮৭৮ সালে, কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি রেলপথটি দুটি ভাগে বিভক্ত ছিল। প্রথম ভাগটি ছিল পূর্ববঙ্গ রাজ্যের রেলপথ ধরে কলকাতা স্টেশন (বর্তমানে শিয়ালদহ) থেকে পদ্মা নদীর দক্ষিণ তীরের দামুকদিয়া ঘাট পর্যন্ত ১৮৫ কিমির পথযাত্রা, তারপর ফেরিতে করে নদীর পেরিয়ে দ্বিতীয় যাত্রা শুরু হত। উত্তরবঙ্গ রেলপথের ৩৩৬ কিলোমিটার মিটার গেজ লাইনটি পদ্মার উত্তর তীরের সারাঘাটকে শিলিগুড়ির সাথে সংযুক্ত করেছিল।[১]

 
রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের প্ল্যাটফরমের সন্মুখভাগ

কলকাতা-শিলিগুড়ির মূল লাইনটি পর্যায়ক্রমে ব্রডগেজে রূপান্তরিত হয়। হার্ডিঞ্জ ব্রিজটি ১৯১৫ সালে খোলা হয়, অন্যদিকে সারা-সিরাজগঞ্জ লাইনটি ১৯১৫-১৬ সালের মধ্যে সারা-সিরাজগঞ্জ রেলওয়ে কোম্পানি দ্বারা দ্বারা নির্মিত হয়। তারপরে ১৯৩০ সালে, আবদুলপুর-আমনুরা ব্রডগেজ লাইনটি সারা-সিরাজগঞ্জ লাইনের একটি শাখা হিসাবে খোলা হয়। তখন আবদুলপুর-আমনুরা শাখা লাইনের স্টেশন হিসাবে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন চালু হয়।[২][৩] ২০০৩ সালে স্টেশনের টার্মিনাল ভবন, প্ল্যাটফর্ম এবং ইয়ার্ডটি পুনর্গঠন এবং পুনঃনির্মাণ করা হয়।

অবকাঠামো সম্পাদনা

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনটি সামনে থেকে অনেকটা পাখির মতো। স্টেশনের প্রধান প্রবেশ পথের আগেই সামনে রয়েছে গাড়িসহ অন্যান্য যানবাহনের পার্কিংয়ের সুবিশাল জায়গা। প্রধান স্টেশন ভবনের ডান পাশে আছে বিশ্রামাগার এবং টিকেট কাউন্টার। বাম পাশে আছে পুরুষ যাত্রীদের জন্য আরেকটি বিশ্রামাগার, রেলওয়ে ইনকোয়ারি, খাবার হোটেল, বইয়ের দোকান এবং ২ টি ফাস্টফুডের দোকান। প্লাটফর্ম এর ভিন্নতা এনে দিয়েছে এর বিশেষায়ীত ছাদ। চিরাচরিত কনক্রিটের ছাদের পরিবর্তে একটু ভিন্নধর্মী প্লাস্টিক দিয়ে ত্রিভুজ আকৃতির কয়েকটি অংশ দিয়ে ছাদ করা হয়েছে।

 
রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনের অভ্যন্তরভাগ
 
টিকেট কাউন্টারসমূহ

মোট ৬ টি প্লাটফর্ম সহ প্রধান ভবনটি ৩ তলা বিশিষ্ট। বামপাশের দোতলাতে আছে মসজিদ আর দোতলা ও তিনতলাতে আছে একটি আবাসিক হোটেল। রেলওয়ে স্টেশন এর দুই পাশে দুইটি প্রবেশ পথ দিয়ে প্লাটফর্ম এ প্রবেশ করা যায়। এছাড়াও একটি প্লাটফর্ম আছে যা মূল স্টেশন ভবনের সাথে সরাসরি সংযুক্ত নয়। মূলত চাঁপাইনবাবগঞ্জ/রহনপুরগামী লোকাল ট্রেনসমূহ উক্ত প্লাটফর্মে থামে।

স্টেশন ইয়ার্ডে ট্রেন ওয়াশ পিট ও ক্যরেজ শপ অবস্থিত। ওয়াশ পিটটি সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয়।

ট্রেন সুবিধাসমূহ সম্পাদনা

 
রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে কয়েকটি ট্রেন (উপর থেকে নিচে: রাজশাহী এক্সপ্রেস/ঢাকা কমিউটার, বরেন্দ্র এক্সপ্রেস, সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস, সিল্কসিটি/পদ্মা এক্সপ্রেস ও বনলতা এক্সপ্রেস)

সাপ্তাহিক বিরতির দিন বাদে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঢাকা, উত্তরবঙ্গদক্ষিণবঙ্গ পর্যন্ত বেশ কয়েকটি ট্রেন এই স্টেশনের মাধ্যমে চলাচল করে। আন্তঃনগর ট্রেনগুলোর মধ্যে সিল্কসিটি এক্সপ্রেস, পদ্মা এক্সপ্রেস, ধূমকেতু এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস নামক চারটি ট্রেন ঢাকার পথে যাতায়াত করে।[৪] যার মধ্যে বনলতা এক্সপ্রেস একটি বিরতিহীন ট্রেন যা সরাসরি চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী-ঢাকার মধ্যে চলাচল করে।[৫][৬] বরেন্দ্র এক্সপ্রেসতিতুমীর এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি উত্তরবঙ্গের নীলফামারী জেলার চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত যাতায়াত করে এবং বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস ট্রেনটি পঞ্চগড় জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করে। সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস এবং কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেন দুটি দক্ষিণবঙ্গের খুলনা পর্যন্ত, মধুমতি এক্সপ্রেস পদ্মাসেতু হয়ে ঢাকা যায়, টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস গোপালগঞ্জ জেলার গোবরা পর্যন্ত এবং ঢালারচর এক্সপ্রেস চাপাইনবয়াবগঞ্জ থেকে রাজশাহী হয়ে পাবনা জেলার ঢালারচর পর্যন্ত যাতায়াত করে।

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস এবং সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস দক্ষিণবঙ্গের খুলনা পর্যন্ত যাতায়াত করে, টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস গোপালগঞ্জ জেলার গোবরা পর্যন্ত যাতায়াত করে।]] ও মধুমতি এক্সপ্রেস পদ্মাসেতু হয়ে ঢাকা পর্যন্ত চলাচল করে। আন্তনগর সাটল ট্রেনটি রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জের মধ্যে চলাচল করে এবং ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ও ডাউন ধুমকেতু এক্সপ্রেস এর সাথে সংযুক্ত। বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনটির সাথে আন্তনগর দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেনটির সংযোগ আছে যা পার্বতীপুর থেকে দিনাজপুর পর্যন্ত বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রীদের পরিবহণ করে। এবং মধুমতি এক্সপ্রেস ট্রেনের সাথে (ডাউনে) ৫০৫ লোকাল ট্রেন এবং (আপে) শাটল-২ এর সংযোগ আছে যা রাজবাড়ীর পাঁচুরিয়া থেকে গোয়ালন্দ ঘাট পর্যন্ত যাত্রী আনা-নেওয়া করে।

বেশ কয়েকটি মেইল ট্রেন প্রতিদিনই চলাচল করে থাকে। এগুলোর মধ্যে রাজশাহী এক্সপ্রেস, মহানন্দা এক্সপ্রেস, উত্তরা এক্সপ্রেস, রাজশাহী কমিউটার ট্রেনগুলো অন্যতম। এছাড়াও ঈশ্বরদী, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ কয়েকটি রুটের IR লোকাল ট্রেনও এই স্টেশন থেকে নিয়মিত চলাচল করে থাকে। আমের মৌসুমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রাজধানী ঢাকা পর্যন্ত "ম্যাংগো স্পেশাল" ট্রেন সার্ভিস চলাচল করে থাকে।[৭]

রহনপুর-সিংঘাবাদ ট্রানজিট পয়েন্টে চলাচলরত সকল পণ্যবাহী ট্রেনসমূহ এই স্টেশনের উপর দিয়ে যাতায়াত করে। খুব শীঘ্রই রাজশাহী থেকে কোলকাতা পর্যন্ত একটি যাত্রীদের আন্তর্জাতিক ট্রেন সার্ভিস চালু হতে যাচ্ছে।[৮]

ট্রেনের সময়সূচী সম্পাদনা

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচী-[৯]

রেলের নম্বর ট্রেন এর নাম বন্ধের দিন ছেড়ে যাওয়ার স্থান ছেড়ে যাওয়ার সময় গন্তব্য পৌঁছানোর সময়
৭১৬ কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস মঙ্গলবার রাজশাহী ২:১৫:০০ অপরাহ্ন খুলনা ৮:১০:০০ অপরাহ্ন
৭৩১ বরেন্দ্র এক্সপ্রেস রবিবার রাজশাহী ৩:০০:০০ অপরাহ্ন চিলাহাটি ৯:২৫:০০ অপরাহ্ন
৭৩৩ তিতুমীর এক্সপ্রেস বুধবার রাজশাহী ৬:৩০:০০ পূর্বাহ্ণ চিলাহাটি ১:০০:০০ অপরাহ্ন
৭৫৪ সিল্কসিটি এক্সপ্রেস রবিবার রাজশাহী ৭:৪০:০০ পূর্বাহ্ণ ঢাকা ১:৩০:০০ অপরাহ্ন
৭৫৬ মধুমতি এক্সপ্রেস বৃহঃস্পতিবার রাজশাহী ৮:০০:০০ পূর্বাহ্ণ ঢাকা ০২:০০:০০ অপরাহ্ন
৭৬০ পদ্মা এক্সপ্রেস মঙ্গলবার রাজশাহী ৪:০০:০০ অপরাহ্ন ঢাকা ৯:৪০:০০ অপরাহ্ন
৭৬২ সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস রাজশাহী ৬:৪০:০০ পূর্বাহ্ণ খুলনা ১২:১০:০০ অপরাহ্ন
৭৭০ ধুমকেতু এক্সপ্রেস বুধবার রাজশাহী ১১:২০:০০ অপরাহ্ন ঢাকা ৪:৪৫:০০ পূর্বাহ্ণ
৭৮০ ঢালারচর এক্সপ্রেস সোমবার রাজশাহী ৪:৩০:০০ অপরাহ্ন ঢলারচর ৮:১৫:০০ অপরাহ্ন
৭৮৪ টুঙ্গীপাড়া এক্সপ্রেস সোমবার রাজশাহী ৩:৩০:০০ অপরাহ্ন গোবরা ১০:২৫:০০ অপরাহ্ন
৭৯১ বনলতা এক্সপ্রেস শুক্রবার রাজশাহী ০৬:৩৫:০০ অপরাহ্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৭:৩০:০০ অপরাহ্ন
৭৯২ বনলতা এক্সপ্রেস শুক্রবার রাজশাহী ০৭:০০:০০ পূর্বাহ্ণ ঢাকা ১১:৩০:০০ পূর্বাহ্ণ
৮০৩ বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস শুক্রবার রাজশাহী ০৯:১৫:০০ অপরাহ্ন বি.মু.সি.ই.
(পঞ্চগড়)
০৫:১০:০০ পূর্বাহ্ণ

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া আন্তঃনগর কমিউটার ও সাটল ট্রেনের সময়সূচী-[৯]

রেলের নম্বর রেলের নাম বন্ধের দিন ছেড়ে যাওয়ার স্থান ছেড়ে যাওয়ার সময় গন্তব্য পৌঁছানোর সময়
৫৭ রাজশাহী কমিউটার মঙ্গলবার রাজশাহী ৯:১৫:০০ পূর্বাহ্ণ রহনপুর ১১:১০:০০ পূর্বাহ্ণ
৭৭ রহনপুর কমিউটার মঙ্গলবার রাজশাহী ৩:০০:০০ অপরাহ্ন রহনপুর ৪:৩০:০০ অপরাহ্ন
৭৮ ঈশ্বরদী কমিউটার মঙ্গলবার রাজশাহী ৬:৩০:০০ অপরাহ্ন ঈশ্বরদী ৯:০০:০০ অপরাহ্ন
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাটল - ১ নাই রাজশাহী ৫:৫০:০০ পূর্বাহ্ণ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৭:১৫:০০ পূর্বাহ্ণ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাটল - ৩ বুধবার রাজশাহী ৫:১৫:০০ অপরাহ্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৬:৪০:০০ অপরাহ্ন

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া মেইল/এক্সপ্রেস ও লোকাল ট্রেনের সময়সূচী-[৯]

রেলের নম্বর রেলের নাম বন্ধের দিন ছেড়ে যাওয়ার স্থান ছেড়ে যাওয়ার সময় গন্তব্য পৌঁছানোর সময়
রাজশাহী এক্সপ্রেস নাই রাজশাহী ৮:২৫:০০ অপরাহ্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ ১০:৩০:০০ অপরাহ্ন
রাজশাহী এক্সপ্রেস নাই রাজশাহী ১০:১৫:০০ পূর্বাহ্ণ ঈশ্বরদী ১২:৪০:০০ অপরাহ্ন
১৫ মহানন্দা এক্সপ্রেস নাই রাজশাহী ৮:৪০:০০ অপরাহ্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ ১০:৪৫:০০ অপরাহ্ন
১৬ মহানন্দা এক্সপ্রেস নাই রাজশাহী ৮:১৫:০০ পূর্বাহ্ণ খুলনা ৪:৪০:০০ অপরাহ্ন
৩১ উত্তরা এক্সপ্রেস নাই রাজশাহী ০১:১৫:০০ অপরাহ্ন পার্বতিপুর ৮:১৫:০০ অপরাহ্ন
৫৬৩ লোকাল নাই রাজশাহী ০৬:১০:০০ পূর্বাহ্ণ রহনপুর ৮:৩০:০০ পূর্বাহ্ণ
৫৬৪ লোকাল নাই রাজশাহী ০৯:৩০:০০ অপরাহ্ন ঈশ্বরদী ১১:২০:০০ অপরাহ্ন
৫৬৫ লোকাল নাই রাজশাহী ০১:০০:০০ অপরাহ্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৩:০০:০০ অপরাহ্ন

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া পণ্যবাহী ট্রেনের সময়সূচী-

রেলের নম্বর রেলের নাম বন্ধের দিন ছেড়ে যাওয়ার স্থান ছেড়ে যাওয়ার সময় গন্তব্য পৌঁছানোর সময়
ম্যাংগো স্পেশাল - ১ নাই রাজশাহী ৮:৫৫:০০ পূর্বাহ্ণ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ১০:১৫:০০ পূর্বাহ্ণ
ম্যাংগো স্পেশাল - ২ নাই রাজশাহী ০৫:৫০:০০ অপরাহ্ন ঢাকা ০১:০০:০০ পূর্বাহ্ণ

চিত্রশালা সম্পাদনা

আরও দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "India: the complex history of the junctions at Siliguri and New Jalpaiguri"আইআরএফসিএ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১২ 
  2. "Brief History"। বাংলাদেশ রেলওয়ে। ২০১১-১২-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১১ 
  3. "Railways in colonial Bengal"দ্য ডেইলি স্টার। সংগ্রহের তারিখ ১১ জুলাই ২০১৯ 
  4. "New inter-city train on Dhaka-Rajshahi route from Nov 23"। The Daily Star। 19 November, 2009।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  5. "First Rajshahi-Dhaka direct train launched"। The Daily Star। 25 April, 2019।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  6. "PM opens first-ever non-stop train service on Dhaka-Rajshahi route"। Dhaka Tribune। 25 April, 2019।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  7. "Special train begins transporting mangoes from Rajshahi to capital"। Dhaka Tribune। ৫ জুন ২০২০। 
  8. "Rajshahi-Kolkata: New passenger train service on the cards"। The Daily Star। অক্টোবর ৩১, ২০১৯। 
  9. "রাজশাহী ট্রেনের সময়সূচী"। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, এটুআই, বিসিসি ও বেসিস। ১১ মার্চ ২০২০। 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা