কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস

আন্তঃনগর ট্রেন পরিষেবা, বাংলাদেশ

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস (ট্রেন নং ৭১৫/৭১৬) বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর শহর রাজশাহী থেকে খুলনা শহরের মাঝে চলাচলকারী একটি আন্তঃনগর ট্রেন। এটি বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ট্রেন।

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস (খুলনা⇌রাজশাহী)
সংক্ষিপ্ত বিবরণ
পরিষেবা ধরনআন্তঃনগর ট্রেন
প্রথম পরিষেবা০১ মে, ১৯৮৬ (01 May, 1986)
বর্তমান পরিচালকপশ্চিমাঞ্চল
যাত্রাপথ
শুরুখুলনা রেলওয়ে স্টেশন
বিরতি১৩টি
শেষরাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন
ভ্রমণ দূরত্ব২৬৩.২ কিমি (১৬৩.৫ মা)
যাত্রার গড় সময়৫ ঘণ্টা ২৫ মিনিট
পরিষেবার হারদৈনিক
রেল নং৭১৫/৭১৬
যাত্রাপথের সেবা
শ্রেণীতাপানুকূল চেয়ার এবং শোভন চেয়ার
আসন বিন্যাসআছে
খাদ্য সুবিধাআছে
বিনোদন সুবিধাআছে
কারিগরি
গাড়িসম্ভারLHB কোচ
ট্র্যাক গেজব্রডগেজ ১,৬৭৬ মিলিমিটার (৫ ফুট ৬ ইঞ্চি)

ইতিহাস

সম্পাদনা

সর্বপ্রথম ১৯৮৬ সালের ১লা মে তারিখে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস তার উদ্বোধনী যাত্রা শুরু করে। এরপর ১৯৮৮ সালের দিকে সাময়িকভাবে ট্রেনটি বন্ধ করা হয়। পরে ১৯৮৯ সালের শেষের দিকে ট্রেনটি আবার চালু হয়। প্রথমিকভাবে ট্রেনটি শুধু যশোর, চুয়াডাঙ্গা এবং ঈশ্বরদী স্টেশনে যাত্রাবিরতী করতো। পুনরায় চালুর পর এই ট্রেনে ভেড়ামারা, পোড়াদহ এবং আলমডাঙ্গায় যাত্রাবিরতী সংযুক্ত করা হয়। ট্রেনটি মূলত খুলনা ভিত্তিক। এই রুটের অপর ট্রেন সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস

সময়সূচী

সম্পাদনা

(বাংলাদেশ রেলওয়ের সময়সূচী পরিবর্তনশীল। বাংলাদেশ রেলওয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে সর্বশেষ সময়সূচী যাচাই করার জন্য অনুরোধ করা হলো। নিম্নোক্ত সময়সূচীটি বাংলাদেশ রেলওয়ের ৫২তম সময়সূচী অনুযায়ী, যা ২০২০ সালের ১০ই জানুয়ারি হতে কার্যকর।)

ট্রেন

নং

উৎস প্রস্থান গন্তব্য প্রবেশ সাপ্তাহিক

ছুটি

৭১৫ খুলনা ০৬:১৫ রাজশাহী ১২:০০ মঙ্গলবার
৭১৬ রাজশাহী ১৪:১৫ খুলনা ২০:১০

যাত্রাবিরতি

সম্পাদনা

(অনেকসময় বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃক কোনো ট্রেনের যাত্রাবিরতি পরিবর্তিত হতে পারে। নিম্নোক্ত তালিকাটি ২০২০ সাল অব্দি কার্যকর।)

রোলিং স্টক

সম্পাদনা

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ১১টি (এল এইচ বি - ভারতীয়) যুক্ত ট্রেন। এতে ১টি এসি চেয়ার, ৮টি শোভন চেয়ার আর ২টি পাওয়ার কার আছে।[১]

দুর্ঘটনা

সম্পাদনা
  • ২১/১১/২০২০: সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটে যশোরের মুড়লি রেলক্রসিংয়ে রাজশাহী থেকে আসা খুলনাগামী কপোতাক্ষ এক্সপ্রেসের সাথে যশোরের নওয়াপাড়া থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জগামী কয়লাবোঝাই একটি ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এতে ট্রাকের চালক নিহত এবং হেলপার আহত হন।[২]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. দৈনিক ইনকিলাব। "লাল সবুজে কপোতাক্ষ বর্ণিল সাজে রাজশাহী স্টেশন" 
  2. "খুলনা-যশোরের সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক"দৈনিক কালের কণ্ঠ। ২০২০-১১-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-১১-২৬ 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা