চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশন

বাংলাদেশের একটি রেলওয়ে স্টেশন

চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশন হল চিলাহাটি-দর্শনা ব্রডগেজ লাইনের একটি শেষ রেলওয়ে স্টেশন। এটি বাংলাদেশের রংপুর বিভাগের নীলফামারী জেলায় অবস্থিত একটি সীমান্তবর্তী স্টেশন।[১] ১৯৬৫ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত এটা বাংলাদেশ - ভারত সীমান্তের একটি বিলুপ্ত রেলওয়ে ট্রানজিট পয়েন্ট ছিলো। মিতালী এক্সপ্রেস চালু মাধ্যমে ৫৫ বছর পর রেলপথটি আবার চালু করা হয় [২]। স্টেশনটি চিলাহাটি ও ভারতে পরিষেবা প্রদান করে। ২০২০ সালের ১৭ই ডিসেম্বর থেকে একটি মালবাহী ট্রেন হলদিবাড়ি থেকে চিলাহাটি চলাচল করছে। [৩]১লা জুন, ২০২২ইং হতে এই রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে ভারতের জলপাইগুড়ি থেকে বাংলাদেশের ঢাকা পর্যন্ত আন্তর্জাতিক রেল যোগাযোগ শুরু হয়।

চিলাহাটি
বাংলাদেশ রেলওয়ে স্টেশন
Chilahati railway station (6).jpg
চিলাহাটি রেলস্টেশন
অবস্থাননীলফামারী, রংপুর
 বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৬°১৪′৩৮″ উত্তর ৮৮°৪৭′৪৮″ পূর্ব / ২৬.২৪৩৯° উত্তর ৮৮.৭৯৬৭° পূর্ব / 26.2439; 88.7967
উচ্চতা৪৮ মি (১৫৭ ফু)
লাইনচিলাহাটি-পার্বতীপুর-সান্তাহার-দর্শনা লাইন
নির্মাণ
গঠনের ধরনStandard (on ground station)
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
ইতিহাস
চালু১৮৭৮
আগের নামইস্টার্ন বেঙ্গল রেলওয়ে
অবস্থান

ব্রিটিশ আমলে চিলাহাটির গুরুত্বসম্পাদনা

হলদিবাড়ী-চিলাহাটিসম্পাদনা

সৈয়দপুর-চিলাহাটি রেলওয়ে লাইনসম্পাদনা

 
নীলফামারী থেকে চিলাহাটি মেরামতকৃত রেললাইন

১৮৭৪ সালে নর্থ বেঙ্গল স্টেট রেলওয়ে কর্তৃক এ লাইনটি নির্মাণ করা হয়। এভাবেই দীর্ঘদিন চলার পর ২০১০ সালে চিলাহাটি-ঢাকা আন্তঃনগর নীলসাগর এক্সপ্রেস চালুর লক্ষে সৈয়দপুর-চিলাহাটি ৬৪ কিলোমিটার রেল লাইনের পুরনো লাইন ও আকার পরিবর্তন ও উন্নয়নের কাজ হয়।[৪]

পরিসেবাসম্পাদনা

চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশন দিয়ে যেসব ট্রেন চলাচল করে নিম্নে তা উল্লেখ করা হলো:

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ট্রেন চলছে হাতে লেখা টিকিটে"। দৈনিক আমারদেশ। ১৮ মে ২০১৫। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "ঢাকা-জলপাইগুড়ি ট্রেন উদ্বোধন ২৭ মার্চ"SAMAKAL (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২৩ 
  3. "৫৬ বছর পর চিলাহাটি রেলষ্টেশনে ভারতীয় ইঞ্জিন"চিলাহাটি ওয়েব। সংগ্রহের তারিখ ২০২২-০২-২৫ 
  4. "Work on Saidpur-Chilahati railway project progresses"। The Independent। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১০। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১২