জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়

জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় (জন্ম ২ জুলাই ১৯৪৪) একজন বাংলাদেশী অভিনেতা এবং আবৃত্তিকার। তিনি বাংলা চলচ্চিত্রে এবং টেলিভিশন নাটকে অভিনয় করেন।

জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়
জন্ম (1944-07-02) ২ জুলাই ১৯৪৪ (বয়স ৭৬)
পেশা
  • অভিনেতা
  • আবৃত্তিকার
কর্মজীবন১৯৭১–বর্তমান
সন্তান

জন্মসম্পাদনা

জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় খুলনা বিভাগের সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার ঈম্বরীপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ছোটবেলা থেকেই তিনি বেড়ে উঠেছেন পারিবারিক পরিবেশে। তার পরিবারের সবাই সঙ্গীত নিয়ে সব সময় মেতে থাকতেন।[১] জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় এর বাবা কালীকানন্দ চট্টোপাধ্যায় ভালো আবৃত্তিকার ছিলেন। তাদের বাড়িতে ছিল তাদের নিজস্ব থিয়েটারের দল। সেই থিয়েটার দল বছরে কয়েকটি যাত্রা এবং নাটক মঞ্চস্থ করতো এবং তাতে তাদের পরিবারের সবাই অভিনয় করতেন। অনেক ছোটবেলায় এরকমই এক 'পালা'য় বিবেকের সহচর বালক বা 'এক-আনি'র ভূমিকায় জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়ের প্রথম মঞ্চে ওঠা। এর পর একটু বড় হয়ে আবৃত্তি আর অভিনয়ের দিকে তার আগ্রহ আরো বেড়ে যায়। পাশাপাশি শিখেছেন গান আর তবলাবাদন।[২]

কলেজ জীবনে তিনি বামপন্থী রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। সেই সাথে তিনি একটি সাংস্কৃতিক দলের সদস্য হয়ে বেশ কিছু নাটকে অভিনয় করেন।[৩] জয়ন্ত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক সম্পন্ন করেন।[৪][৫]

চলচ্চিত্রসম্পাদনা

শিরোনাম বছর চরিত্র টীকা
সূচনা ১৯৮৮ রফিক
আদম সুরত ১৯৮৯ বর্ণনাকারী
নদীর নাম মধুমতী ১৯৯৫ মজনু
কিত্তনখোলা ২০০০ রবি দাস
চতুর্থ মাত্রা ২০০১ আব্দুল করিম টেলিভিশন চলচ্চিত্র
মাটির ময়না ২০০২ কাজী
আধিয়ার ২০০৩ শমসের আলী
জয়যাত্রা ২০০৪ ডাক্তার কালিকিংকর
শিলালিপি
অন্তর্যাত্রা ২০০৫ ইকবাল
নিরন্তর ২০০৬ নাসিম
দূরত্ব কর্ণসুন্দর বিক্রেতা
মেড ইন বাংলাদেশ ২০০৭ হায়দার আলী
নয় নম্বর বিপদ সংকেত ম্যানেজার
বাঁশি
দ্য লাস্ট ঠাকুর ২০০৮ মুস্তফা
আমার আছে জল দোকানদার
রূপান্তর হরিপদ
বৃত্তের বাইরে ২০০৯ হরিপদ
রানওয়ে ২০১০ মামা
অপেক্ষা আতাউল করিম
কারিগর ২০১২
ঘেটুপুত্র কমলা ঘেটুদলের প্রধান
পিতা বিপিন
শিখন্ডী কথা ২০১৩ রমজেদ মোল্লা
হরিজন ২০১৪ মঙ্গল
মেঘমল্লার অধ্যক্ষ
সুতপার ঠিকানা ২০১৫ সুতপার বাবা
অমি ও আইস্ক্রিমঅলা মাহতাব উদ্দিন
কৃষ্ণপক্ষ ২০১৬ মামা অতিথি উপস্থিতি
মাটির প্রজার দেশে জব্বর তালুকদার
A Warm Interview হুমায়ুন কবির
Hunger & Love: Tobu O Bhalobasha ২০১৭ বারেক
সত্তা
একজন কবির মৃত্যু
পূর্ণগ্রাসের কাল ২০১৮ ভাস্কর চৌধুরী স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র
চন্দ্রাবতী কথা ২০১৯ দিজবংশী দাস ভট্টাচার্য
পদ্মার প্রেম
আগস্ট ১৯৭৫ ২০২১ মৌলভী আব্দুল হাকিম, ইমাম
টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই ২০২১

ওয়েব ধারাবাহিকসম্পাদনা

বছর শিরোনাম ওটিটি চরিত্র সহ-শিল্পী পরিচালক টীকা
২০২১ কন্ট্রাক্ট জি৫ চঞ্চল চৌধুরী, জাকিয়া বারী মম, আরিফিন শুভ, রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা, আয়েশা খান,‌ শ্যামল মাওলা, ইরেশ যাকের, রওনক হাসান, তারিক আনাম খান, মাজনুন মিজান তানিম নূর এবং কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায়

পুরস্কার ও মনোনয়নসম্পাদনা

আরটিভি স্টার অ্যাওয়ার্ড
বছর বিভাগ কাজ ফলাফল সূত্র.
২০১৩ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক নাটকে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা শহুরে সময় বিজয়ী [৬]
২০১৮ গোলাম মোস্তফা স্মৃতি পুরস্কার সাংস্কৃতি ও আবৃত্তিতে অবদান বিজয়ী [৭]
২০১৮ নরেণ বিশ্বাস পদক আবৃত্তি বিজয়ী [৮]
২০১৮ শিল্পকলা পদক আবৃত্তি বিজয়ী [৯]
২০১৯ নরেণ বিশ্বাস পদক আবৃত্তি বিজয়ী [১০]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "হুমায়ূন আহমেদ আমার কাছে জীবন্ত : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়"। ১৩ নভেম্বর ২০১৪। 
  2. "জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়"। জুলাই ৫, ২০১৫। 
  3. "অভিনেত্রী নওশাবাকে নিয়ে প্রেমের কবিতা লিখলেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়"। ৯ অক্টোবর ২০১৩। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় (১৪ নভেম্বর ২০১৪)। "জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়"প্রিয়। ৬ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০১৬ 
  5. "এ সপ্তাহের সাক্ষাৎকার জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়"বিবিসি বাংলা। ৯ অক্টোবর ২০১৩। 
  6. শাওন, রাশেদ (২৭ জানুয়ারি ২০১৩)। "আরটিভির সেরা সজল ও মৌসুমী"বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০২০ 
  7. ঢাকা লাইভ প্রতিবেদক (৪ মার্চ ২০১৮)। "GOLAM MUSTAFA MEMORIAL AWARD Jayanta Chattopadhyay honoured this year" (ইংরেজি ভাষায়)। ঢাকা: দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট (বাংলাদেশ)। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০২১ 
  8. সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক (১৮ নভেম্বর ২০১৯)। "Jayanta receives Naren Biswas Padak" (ইংরেজি ভাষায়)। ঢাকা: নিউ এজ (বাংলাদেশ)। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০২১ 
  9. আলম, জাহাঙ্গীর (১৯ জুলাই ২০১৯)। "Shilpakala Padak 2018 conferred on seven cultural luminaries" (ইংরেজি ভাষায়)। ঢাকা: দ্য ডেইলি স্টার (বাংলাদেশ)। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০২১ 
  10. সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক (২২ নভেম্বর ২০১৯)। "Jayanta Chattopadhyay receives Naren Biswas Padak" (ইংরেজি ভাষায়)। ঢাকা: ঢাকা কুরিয়ার। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা