আইসল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল

আইসল্যান্ড জাতীয় ফুটবল দল (আইসল্যান্ডীয়: Íslenska karlalandsliðið í knattspyrnu, ইংরেজি: Iceland national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে আইসল্যান্ডের প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম আইসল্যান্ডের ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসল্যান্ডীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৪৭ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৫৪ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা উয়েফার সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৩০ সালের ২৯শে জুলাই তারিখে, আইসল্যান্ড প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে আইসল্যান্ড ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জকে ১–০ গোলের ব্যবধানে পরাজিত করেছে।

আইসল্যান্ড
দলের লোগো
ডাকনামস্ট্রালকারনির অকার
(আমাদের ছেলে)
অ্যাসোসিয়েশনআইসল্যান্ডীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন
কনফেডারেশনউয়েফা (ইউরোপ)
প্রধান কোচখালি
অধিনায়কআরন গুন্নারসন
সর্বাধিক ম্যাচরুনার ক্রিস্টিনসন (১০৪)
শীর্ষ গোলদাতাএইদুর গুদয়নসেন
খলবেইন সিখথরসন (২৬)
মাঠলেগারটালসভেটলুর
ফিফা কোডISL
ওয়েবসাইটwww.ksi.is/english/
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৬০ হ্রাস(১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ১৮ (ফেব্রুয়ারি–মার্চ ২০১৮)
সর্বনিম্ন১৩১ (এপ্রিল–জুন ২০১২)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ৭০ হ্রাস ২৬ (১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ১৯ (অক্টোবর ২০১৭)
সর্বনিম্ন১২৮ (আগস্ট ১৯৭৩)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জ ০–১ আইসল্যান্ড 
(ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জ; ২৯ জুলাই ১৯৩০)[৩]
বৃহত্তম জয়
 আইসল্যান্ড ৯–০ ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জ 
(খেপলাভিক, আইসল্যান্ড; ১০ জুলাই ১৯৮৫)
বৃহত্তম পরাজয়
 ডেনমার্ক ১৪–২ আইসল্যান্ড 
(কোপেনহেগেন, ডেনমার্ক; ২৩ আগস্ট ১৯৬৭)
বিশ্বকাপ
অংশগ্রহণ১ (২০১৮-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (২০১৮)
উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ
অংশগ্রহণ১ (২০১৬-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যকোয়ার্টার-ফাইনাল (২০১৬)

৯,৮০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট লেগারটালসভেটলুরে স্ট্রালকারনির অকার নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় আইসল্যান্ডের রাজধানী রেইকিয়াভিকে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন আল-আরবির মধ্যমাঠের খেলোয়াড় আরন গুন্নারসন

আইসল্যান্ড এপর্যন্ত কেবলমাত্র ১ বার ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে পৌঁছানো। অন্যদিকে, উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপে আইসল্যান্ড এপর্যন্ত মাত্র ১ বার অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে সেরা সাফল্য হচ্ছে উয়েফা ইউরো ২০১৬-এর কোয়ার্টার-ফাইনালে পৌঁছানো, যেখানে তারা ফ্রান্সের কাছে ৫–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

রুনার ক্রিস্টিনসন, রাগনার সিগুর্দসন, বিরকির মার সাইভারসন, খলবেইন সিখথরসন এবং এইদুর গুদয়নসেনের মতো খেলোয়াড়গণ আইসল্যান্ডের জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিংসম্পাদনা

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে আইসল্যান্ড তাদের ইতিহাসে সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ অবস্থান (১৮তম) অর্জন করে এবং ২০১২ সালের এপ্রিল মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৩১তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে আইসল্যান্ডের সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ১৯তম (যা তারা ২০১৭ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১২৮। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৫৮     ক্যামেরুন ১৪০৪.৪৬
৫৯     জ্যামাইকা ১৪০২.৩৯
৬০     আইসল্যান্ড ১৩৯৭.৩২
৬১     মালি ১৩৯৬.৫২
৬২     বুর্কিনা ফাসো ১৩৯৩.৮২
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
৬৮   ২২   আর্মেনিয়া ১৫৬৩
৬৯     বাহরাইন ১৫৫৭
৭০   ২৬   আইসল্যান্ড ১৫৫৫
৭১     মালি ১৫৫৩
৭২     উজবেকিস্তান ১৫৪৫

প্রতিযোগিতামূলক তথ্যসম্পাদনা

ফিফা বিশ্বকাপসম্পাদনা

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
  ১৯৩০ ফিফার সদস্য ছিল না ফিফার সদস্য ছিল না
  ১৯৩৪
  ১৯৩৮
  ১৯৫০
  ১৯৫৪ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৫৮ উত্তীর্ণ হয়নি ২৬
  ১৯৬২ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৬৬
  ১৯৭০
  ১৯৭৪ উত্তীর্ণ হয়নি ২৯
  ১৯৭৮ ১২
  ১৯৮২ ১০ ২১
  ১৯৮৬ ১০
  ১৯৯০ ১১
  ১৯৯৪
  ১৯৯৮ ১০ ১১ ১৬
    ২০০২ ১০ ১৪ ২০
  ২০০৬ ১০ ১৪ ২৭
  ২০১০ ১৩
  ২০১৪ ১২ ১৭ ১৭
  ২০১৮ গ্রুপ পর্ব ২৮তম ১০ ১৬
  ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট গ্রুপ পর্ব ১/২১ ১০৬ ২৮ ১৯ ৫৯ ১১৬ ২১৫

অর্জনসম্পাদনা

শিরোপাসম্পাদনা

  • চ্যাম্পিয়ন (২): ১৯৮০, ১৯৮৪

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  3. Courtney, Barrie (১৬ মে ২০০৮)। "Faroe Islands – List of International Matches"। RSSSF। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা