প্রধান মেনু খুলুন

অমল বোস

বাংলাদেশী অভিনেতা

অমল বোস (জন্ম: ১৯৪৩ - মৃত্যু: ২৩ জানুয়ারি, ২০১২) বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের একজন খ্যাতিমান অভিনেতা ছিলেন। পাশাপাশি মঞ্চ, টিভি, বেতার, বিজ্ঞাপনচিত্রসহ সর্বক্ষেত্রেই দীপ্ত পদচারণা ছিল তার।[২] তার প্রকৃত নাম অমলেন্দু বিশ্বাস[২] তিনি তার অভিনয় জীবন শুরু করেন মঞ্চ নাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে। ১৯৬৩ সালে থেকে তিনি ক্লাব থিয়েটার-এ মঞ্চ নাটকে কাজ করেন।[৩] ১৯৬৬ সালে তিনি প্রথম রাজা সন্ন্যাসী ছবিতে অভিনয় করেন।[১]

অমল বোস
জন্ম
অমলেন্দু বিশ্বাস[১]

১৯৪৩
মৃত্যু২৩ জানুয়ারি, ২০১২
বাসস্থানঢাকা, বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
অন্য নামঅমল বোস, অমলদা
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
পেশাচলচ্চিত্র অভিনেতা
মঞ্চ অভিনেতা
টিভি অভিনেতা
বেতার অভিনেতা
কার্যকাল১৯৬৬–২০১২
দাম্পত্য সঙ্গীস্বাতী বোস
সন্তানমন্দিরা বোস

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

অমল বোস ১৯৪৩ সালে ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ষাটের দশকের প্রথম থেকেই অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত হন। একাধারে মঞ্চ, টিভি, চলচ্চিত্র ও বেতার জগতে পদচারণা ছিল। সেই সুবাদে ঢাকাতেই তিনি জীবনের সিংহভাগ সময় কাটিয়েছেন। পরিবারের অন্যান্য সদস্যের মধ্যে ছিল তার স্ত্রী - স্বাতী বোস, একমাত্র মেয়ে - মন্দিরা বোস ও জামাই - ইন্দ্রজিৎ সরকার।[৪]

জনপ্রিয় এ অভিনেতা পেশাগত জীবনে জুট মিলস্‌ কর্পোরেশনের সিনিয়র অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। পরবর্তীতে ১৯৯৫ সালে চাকুরী জীবন থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

অভিনয় জীবনসম্পাদনা

মঞ্চ নাটকসম্পাদনা

১৯৬০-এর দশকে অমল বোস তার অভিনয় জীবন শুরু করেন মঞ্চে অভিনয়ের মাধ্যমে। তিনি ১৯৬৩ সালে থেকে ঢাকা ক্লাব থিয়েটার-এ মঞ্চ নাটকে কাজ করেছেন। নুরুল মোমেনের নাটক আলো ছায়া তার নির্দেশনায় দারুণ জনপ্রিয়তা পায়। সেই সময় তিনি অবসর, সপ্তরূপা, শৈবাল ও রংধনু নাট্যগোষ্ঠীর সঙ্গে অসংখ্য নাটকে অভিনয় করেন।[৩]

চলচ্চিত্র জগৎসম্পাদনা

১৯৬৬ সালে রাজা সন্ন্যাসী ছবিতে অভিনয় করে চলচ্চিত্রে পদার্পণ করেছিলেন। এরপর তিনি নীল আকাশের নীচে, শ্বশুরবাড়ী জিন্দাবাদ-সহ বহু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। অভিনয়ের পাশাপাশি একটি চলচ্চিত্র পরিচালনাও করেন অমল বোস। কেন এমন হয় নামের এই ছবিটি তিনি পরিচালনা করেন সত্তরের দশকে।[১] ২০০৪ সালে মতিন রহমান পরিচালিত রং নাম্বার এবং মুশফিকুর রহমান গুলজারের কুসুম কুসুম প্রেম ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন।

ছোট পর্দায়সম্পাদনা

বাংলাদেশ টেলিভিশনের সার্বজনীন দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রচারিত বিশেষ নাটিকায় অসুর চরিত্রে অভিনয় করে তিনি 'জাতীয় মহিষাসুর' হিসেবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছিলেন। দীর্ঘ ৩৮ বছর ঐ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি।[৫] ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমীর বিশেষ নাটিকায় কংসের চরিত্রে অভিনয়েও তিনি ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দ্ব্বী।[৬]

এছাড়াও, বিশিষ্ট পরিচালক ও উপস্থাপক হানিফ সংকেত পরিচালিত জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদি'র 'নানা-নাতি' পর্বে অমল বোসের নানামোহাম্মদ শওকত আলী তালুকদারের নাতি চরিত্রটি বহুল আলোচিত হয়।[৭][৮]

উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র ও চরিত্রসম্পাদনা

  • রাজা সন্ন্যাসী -
  • নীল আকাশের নীচে -
  • মহুয়া -
  • সোনালি আকাশ -
  • চন্দন দ্বীপের রাজকন্যা -
  • গুনাই বিবি -
  • রাজলক্ষ্মী শ্রীকান্ত -
  • অবিচার -
  • আজকের প্রতিবাদ -
  • আমি সেই মেয়ে -
  • তোমাকে চাই -
  • অজান্তে - আকবর
  • মন মানে না - ব্রিটিশ মামা
  • কাজের মেয়ে - এম. আলী
  • আমি তোমারী - চৌধুরী
  • তুমি শুধু তুমি -
  • সন্তান যখন শত্রু -
  • বিয়ের ফুল - কাশেম মল্লিক
  • তোমার জন্য পাগল -
  • মিলন হবে কতো দিনে - সৈয়দ বদরুজ্জামান
  • ক্ষেপা বাসু - বাসু'র মামা
  • মন - নয়নের বাবা (আইনজীবি)
  • ভালবাসা কারে কয় - পুলিশ অফিসার
  • হঠাৎ বৃষ্টি - (টেলিফোন অপারেটর)
  • শ্বশুরবাড়ী জিন্দাবাদ - মি: মজুমদার
  • মায়ের সম্মান - কাশেম
  • রং নাম্বার - আওলাদ (আবীরের বাবা)
  • কুসুম কুসুম প্রেম - ওঝা / গুনীন

সম্মাননাসম্পাদনা

অমল বোস তার দীর্ঘ অভিনয় জীবনে নব্বইয়ের দশকে পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম নির্মিত "আজকের প্রতিবাদ" ছবিতে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেছিলেন।[২]

মহাপ্রয়াণসম্পাদনা

২০১২ সালের ২৩ জানুয়ারিতে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তার যোগ দেওয়ার কথা ছিল।[১] কিন্তু তিনি সেই দিন সকালে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন, এবং তাকে ঢাকার অ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় চিকিৎসার জন্য।[১] পরবর্তীতে বেলা ১২টায় তার মেয়ের জামাই ইন্দ্রজিৎ সরকার হৃদরোগজনিত কারণে অমল বোসের মৃত্যু সংবাদ ঘোষণা করেন।[৯]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. প্রকাশকঃ দৈনিক প্রথম আলো অমল বোসের পথ বদলে গেল চির প্রস্থানের দিকে সংগৃহীত হয়েছেঃ জানুয়ারি ২৪, ২০১২
  2. জানুয়ারি ২৪, ২০১২, যায় যায় দিন এক নজরে অমল বোস সংগৃহীত হয়েছেঃ ২৪ জানুয়ারি, ২০১২
  3. জানুয়ারি ২৩ ২০১২, (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম) অভিনেতা অমল বোস আর নেই ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৬ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে সংগৃহীত হয়েছেঃ জানুয়ারি ২৪, ২০১২
  4. দৈনিক প্রথম আলো, ঢাকা, মুদ্রিত সংস্করণ, ২৬ জানুয়ারি, ২০১২ইং, পৃষ্ঠা-১৯
  5. দৈনিক ইত্তেফাক, বিনোদন প্রতিদিন, মুদ্রিত সংস্করণ, ২৪ জানুয়ারি, ২০১২ইং, পৃষ্ঠাঃ ১২
  6. দৈনিক যুগান্তর, আনন্দনগর, মুদ্রিত সংস্করণ, ২৪ জানুয়ারি, ২০১২ইং, পৃষ্ঠাঃ ১৩
  7. প্রকাশকঃ দৈনিক প্রথম আলো চলে গেলেন অমল বোস সংগৃহীত হয়েছেঃ জানুয়ারি ২৪, ২০১২
  8. দৈনিক প্রথম আলো, আনন্দ, ঢাকা, মুদ্রিত সংস্করণ, ২৬ জানুয়ারি, ২০১২ইং, পৃষ্ঠা-৩
  9. The Daily Star, Printed Version, P. 20, January 24, 2012

বহিঃসংযোগসম্পাদনা