মুর্শিদাবাদ জেলা

পশ্চিমবঙ্গের একটি জেলা

মুর্শিদাবাদ জেলা পূর্ব ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মালদা বিভাগের একটি জেলা। এই জেলার মধ্য দিয়ে ভাগীরথী নদী বয়ে গিয়ে জেলাকে দুভাগে ভাগ করেছে। নদীর পশ্চিমের অংশ রাঢ় অঞ্চল ও পূর্বের অংশ বাগড়ি অঞ্চল নামে পরিচিত।[২] ৫.৩১৪ বর্গ কিলোমিটার (২,০৬২ বর্গ মাইল) আয়তনের এলাকা এবং ৭১.০২ লক্ষ জনসংখ্যা থাকায় এটি একটি জনবহুল জেলা। মুর্শিদাবাদ ভারতের নবমতম (ভারতের ৬৪১টি জেলার মধ্যে) জনবহুল জেলা।[৩] এই জেলার সদর দপ্তর বহরমপুর শহরে অবস্থিত।

মুর্শিদাবাদ
Murshidabad
জেলা
মুর্শিদাবাদের অবস্থান
দেশ ভারত
রাজ্যপশ্চিমবঙ্গ
সরকার
 • লোকসভা নির্বাচনীজঙ্গীপুর, বহরমপুর, মুর্শিদাবাদ
 • বিধানসভাফরাক্কা, সামসেরগঞ্জ, সুতি, জঙ্গীপুর, রঘুনাথগঞ্জ, সাগরদিঘী, লালাগোলা, ভগবানগোলা, রানিনগর, মুর্শিদাবাদ, নবগ্রাম, খরগ্রাম, বাড়ওয়ান, কান্দি, ভরতপুর, বেলডাঙা, বহরমপুর, হরিহরপাড়া, নওদা, ডোমকল, জলঙ্গি,রেজিনগর,আজিমগঞ্জ
 • প্রশাসনিক বিভাগমালদা
 • সদর দপ্তরবহরমপুর
আয়তন
 • জেলা৫,৩২৪ বর্গকিমি (২,০৫৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • জেলা৭১,০৩,৮০৭
 • ক্রম৯ম (ভারত)
 • জনঘনত্ব১,৩৩৪/বর্গকিমি (৩,৪৬০/বর্গমাইল)
 • পৌর এলাকা১৪,০০,৬৯২
 • গ্রামীণ৫৭,০৩,১১৫
Demographics
 • Population Growth২১.০৯%
 • সক্ষরতা৬৬.৫৯%
 • জন্মানুপাত৯৫৮
ভাষা
 • সরকারিবাংলা, ইংরেজি
সময় অঞ্চলIST (ইউটিসি+5:30)
ওয়েবসাইটOfficial Website
কাটরা মসজিদ, মুর্শিদাবাদ
লালবাগ ইমামবাড়া
কৃষ্ণ মন্দির, মুর্শিদাবাদ

মুর্শিদাবাদ নবাবী আমলে সুবে বাংলার (বর্তমান পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা ও বাংলাদেশ) প্রশাসনিক কেন্দ্র ছিল।

নামকরণসম্পাদনা

বাংলার নবাব মুর্শিদ কুলি খানের নাম অনুসারে মুর্শিদাবাদ শহর এবং জেলার নামকরণ হয়েছে।[২] এটি নবাবী আমলে বাংলার (বর্তমানে বিহার, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশ) প্রশাসনিক কেন্দ্র ছিল।

  • মুর্শিদাবাদ নামকরণের ঐতিহাসিক পটভূমি-

অষ্টাদশ শতকের আগে এই শহরের নাম ছিল - মুকসুদাবাদ আবার কেউ কেউ বলে মুকসুসাবাদ । এই নামকরণ নিয়ে ঐতিহাসিক দের মধ্যে নানা মতভেদ রয়েছে।

প্রবাদ আছে- বাদশাহ্ হোসেন শাহে্র সময় মুখ্সুদন দাস নামে এক নানকপন্থী বাদশাহ্ র রোগ নিরাময় করে এ স্থানটি নোখরাজ রুপে পায় পরে তার নাম অনুসারে স্থানটির নাম হয় -মুখ্সুদাবাদ।

রিয়াজুস সালাতিন এর মতে - মুখসুদ খাঁ নামে এক প্রসিদ্ধ ব্যবসায়ীর নাম অনুসারে স্থানটির নাম-  মুখসুদাবাদ।

'আইন-ই-আকবরী 'তে আছে মুখসুদাবাদ এর প্রতিষ্ঠাতা বাংলার শাসনকর্তা সায়েদ খাঁর ভাই মুখসুদ খাঁ।

পঞ্চদশ অথবা ষোড়শ শতকের রচনা 'ভবিষ্যৎ পুরান ' এ এই শহরকে মোরাসুদাবাদ বলে উল্লেখ করা হয়েছে, বলা হয়েছে এই শহরের প্রতিষ্ঠাতা একজন যবন( মুসলমান)।

সায়র-উল- মুতক্ষরীন এর অনুবাদক রেমুঙ্গ সায়েবের মতে এই স্থানটির নাম ছিল -কোলারিয়া (Colaria) পরে হয় -ম্যাকসুদাবাদ (Macsoodabad) এবং তার পর হয় মুরসুদাবাদ(Moorsoodabad)।

টিফেনথেলার মতে এই শহরের প্রতিষ্ঠাতা বাদশাহ্ আকবর।

তবে যায় হোক মুশিদকুলী খাঁ ১৭০৩ সালে তার দেওয়ানী দপ্তর ঢাকা থেকে পুরোনো মুখ্সুদাবাদ বা মুখসুসাবাদ এ নিয়ে আসে।  ১৭০৪ সালে তিনি নায়েব নাজিম পদে নিয়োগ হন ও তার নাম অনুসারে মুখসুদাবাদের নাম রাখেন মুর্শিদাবাদ।

১৭০৪ সনে তৈরি মুদ্রায় সর্বশেষ মুখসুদাবাদ নাম দেখা যায়। ১৭০৫ সালে তৈরি মুদ্রায় সর্বপ্রথম মুর্শিদাবাদ নাম দেখা যায়।

এই হল মুর্শিদাবাদ জেলার নামকরণের ঐতিহাসিক পটভূমি।

ইতিহাসসম্পাদনা

প্রাচীনযুগ

খ্রিস্টীয় সপ্তম শতাব্দীতে গৌড় অঞ্চলের রাজা শশাঙ্কের রাজধানী মুর্শিদাবাদ জেলার কর্ণসূবর্ণ অঞ্চলে ছিল। বাংলার অন্যতম পাল রাজা মহিপালের রাজধানী শহরও সম্ভবত এই জেলায় ছিল।

মধ্যযুগ

আঠারো শতকের গোড়ার দিকে এই জেলাটির বর্তমান নাম এবং আঠারো শতকের শেষার্ধে এর বর্তমান আকারটি পাওয়া যায়। মুর্শিদাবাদ শহর, যা এই জেলারও নাম, এর প্রতিষ্ঠাতা মুর্শিদকুলি খানের নামানুসারে হয়েছে। ১৭০১ খ্রিস্টাব্দে আওরঙ্গজেব কর্তৃক করতলব খান বাংলা সুবাহের দিওয়ান নিযুক্ত হন। ১৭০২ খ্রিস্টাব্দে তিনি তাঁর রাজধানী ঢাকা থেকে মাকসুদাবাদে স্থানান্তরিত করেন। ১৭০৩ খ্রিস্টাব্দে মোগল সম্রাট আওরঙ্গজেব তাঁকে মুর্শিদকুলি খান উপাধিতে সম্মানিত করেছিলেন এবং তাঁর নতুন শিরোনাম অধিগ্রহণের পরে ১৭০৪ সালে এই শহরটির নাম মুর্শিদাবাদ রাখার অনুমতি মঞ্জুর করেন। নবাব মুর্শিদকুলি খান মুর্শিদাবাদকে সুবে বাংলার (বর্তমান বাংলা, বিহার ও ওড়িশা) রাজধানী করেন। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি পলাশীর যুদ্ধের পরে বহু বছর ধরে এখান থেকে রাজত্ব করেছিল।

আধুনিক যুগ

ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের মুর্শিদাবাদ জেলা কমিটি ১৯১২ সালে ব্রজ ভূষণ গুপ্তের সভাপতিত্বে গঠিত হয়েছিল। স্বদেশী আন্দোলন এবং ভারত ছাড়ো আন্দোলন এই জেলাতেও সক্রিয় ছিল। ১৫ ই আগস্ট ১৯৪৭ সালে ভারতীয় স্বাধীনতা অধিনিয়ম ১৯৪৭ কার্যকর হয় এবং পরবর্তী দুই দিনের জন্য মুর্শিদাবাদ জেলা মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে পূর্ব পাকিস্তানের অংশ ছিল। হুগলি নদীটি পুরোপুরি ভারতের অভ্যন্তরে নিশ্চিত করার জন্য ১৯৪৭ সালের ১৭ই আগস্ট র্যাডক্লিফ কমিশন চূড়ান্ত সীমানা নির্ধারণের সময় মুর্শিদাবাদকে ভারতীয় অধিসংঘে স্থানান্তরিত করে।

ভূ-প্রকৃতিসম্পাদনা

ভৌগোলিক সীমানাসম্পাদনা

মুর্শিদাবাদ জেলা ২৩º৪৩' উঃ ও ২৪º৫২' উঃ অক্ষাংশ এবং ৮৭º৪৯' পূঃ ও ৮৮º৪৪' পূঃ দ্রাঘিমাংশের মধ্যে অবস্থিত।[২]

পশ্চিমবঙ্গের মধ‍্যভাগে অবস্থিত এই জেলাটি অনেকটা ত্রিভূজের অনুরূপ আকৃতিবিশিষ্ট।

এই জেলার উত্তরে মালদহ জেলা ও বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা, উত্তর-পূর্বে বাংলাদেশের রাজশাহী জেলা, দক্ষিণে নদীয়া জেলা, দক্ষিণ-পশ্চিমে পূর্ব বর্ধমান জেলা, পশ্চিমে বীরভূম জেলা এবং উত্তর-পশ্চিমে ঝাড়খণ্ডের পাকুড় জেলা অবস্থিত ৷

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

প্রশাসনিক মহকুমা ও ব্লকঃ

মুর্শিদাবাদ জেলা পাঁচটি মহকুমা নিয়ে গঠিত। পৌরসভা এলাকা বাদে প্রতিটি মহকুমায় একাধিক সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক রয়েছে যা আবার গ্রামীণ এলাকা এবং আদমশুমারি শহরে বিভক্ত। মুর্শিদাবাদ জেলায় মোট ৮টি পৌরসভা ও ২৬টি সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক রয়েছে।

বহরমপুর সদর মহকুমার পৌরসভা ও ব্লকসমূহ

বহরমপুরবেলডাঙ্গা পৌরসভা

• বহরমপুর, বেলডাঙ্গা- ১, বেলডাঙ্গা- ২, হরিহরপাড়া ও নওদা সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক

ডোমকল মহকুমার পৌরসভা ও ব্লকসমূহ

ডোমকল পৌরসভা

• ডোমকল, রাণীনগর- ১, রাণীনগর- ২ ও জলঙ্গী সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক

লালবাগ মহকুমা পৌরসভা ও ব্লকসমূহ

মুর্শিদাবাদজিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পৌরসভা

• মুর্শিদাবাদ-জিয়াগঞ্জ, ভগবানগোলা- ১, ভগবানগোলা- ২, লালগোলা ও নবগ্রাম সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক

কান্দি মহকুমা পৌরসভা ও ব্লকসমূহ

কান্দি পৌরসভা

• কান্দি, খড়গ্রাম, বড়ঞা, ভরতপুর- ১ ও ভারতপুর- ২ সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক

জঙ্গীপুর মহকুমা পৌরসভা ও ব্লকসমূহ

জঙ্গিপুরধুলিয়ান পৌরসভা

• সাগরদিঘী, রঘুনাথগঞ্জ-১, রঘুনাথগঞ্জ- ২, সুতি- ১, সুতি-২, সামশেরগঞ্জ ও ফারাক্কা সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক

পুলিশি প্রশাসনিক সার্কেল ও থানাঃ

মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশ পাঁচটি সার্কেলে বিভক্ত। প্রতিটি সার্কেল আবার কয়েকটি করে থানা নিয়ে গঠিত। মুর্শিদাবাদ জেলায় মোট ২৯টি থানা রয়েছে।

বহরমপুর সদর সার্কেলের থানাসমূহ

• বহরমপুর, বেলডাঙা, রেজিনগর, হরিহরপাড়া, নওদা, দৌলতাবাদ ও শক্তিপুর থানা এবং বহরমপুর মহিলা থানা

লালবাগ সার্কেলের থানাসমূহ

• মুর্শিদাবাদ, লালগোলা, জিয়াগঞ্জ, ভগবানগোলা, রানীতলা ও নবগ্রাম থানা

ডোমকল সার্কেলের থানাসমূহ

• ডোমকল, জলঙ্গী, ইসলামপুর ও রাণীনগর থানা

কান্দি সার্কেলের থানাসমূহ

• কান্দি, বড়ঞা, খড়গ্রাম, ভরতপুর ও সালার থানা

জঙ্গীপুর সার্কেলের থানাসমূহ

• সাগরদিঘী, রঘুনাথগঞ্জ, সূতি, সামসেরগঞ্জ ও ফরাক্কা থানা এবং জঙ্গিপুর মহিলা থানা

ইতিহাস ও ঐতিহ্যসম্পাদনা

ভাষা ও সংস্কৃতিসম্পাদনা

মুরশিদাবাদ জেলাার ভাষাসমূহ ২০১১ [৪].[৫]

  বাংলা (৯৮.৪৯%)
  হিন্দী (০.৩৬%)
  সাঁওতালি (০.৭১%)
  অন্যান্য (০.৪৪%)

জেলার বেশিরভাগ জনগোষ্ঠী বাংলাভাষায় কথা বলে। কথ্য উপভাষাটি (রাঢ়ি উপভাষা) কম-বেশি দক্ষিণ বঙ্গের মতো, তবে কিছুটা আঞ্চলিক প্রভাব লক্ষ্য করা যায় । বাংলা ভাষার একটি ছোট উপভাষা, মালদাইয়া (জঙ্গিপুরী, শেরশাহবাদিয়া নামেও পরিচিত) জেলার জঙ্গিপুর মহকুমার জনসাধারণের মধ্যে বহুল প্রচলিত। এছাড়াও, বাংলা ভাষার দ্বারা প্রভাবিত হিন্দি-উর্দু ভাষার একটি কথ‍্যভাষা, খোট্টা ভাষা ( মালদহ, মুর্শিদাবাদ ও বীরভূমের কিছু অঞ্চলে এবং এছাড়াও মেদিনীপুরের কিছু অংশে প্রচলিত) জেলার উত্তরাংশের কিছু এলাকায় (বিশেষত ফারাক্কা, সামসেরগঞ্জ, সুতি, জঙ্গীপুর এলাকায়) ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে প্রচলিত।

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

অর্থনীতিসম্পাদনা

পরিবহন ও যোগাযোগসম্পাদনা

শিক্ষা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-সম্পাদনা

  • কামুরদিয়াড় নজবুল হক হাই মাদ্রাসা,(কামুড় দিয়াড়,মোমিনপুর, মুর্শিদাবাদ )
  • জিয়াগঞ্জ রাজা বিজয় সিংহ বিদ্যামন্দির ( হাইস্কুল পাড়া, পোঃ জিয়াগঞ্জ, জিঃ মুর্শিদাবাদ)
  • গোয়ালজান রিফিউজি হাই স্কুল ( এইচ, এস ), পোঃ গোয়ালজান, জিঃ মুর্শিদাবাদ ।
  • নতুনগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় (লালবাগ, নূতন গ্রাম)
  • নবপল্লী জে.সি.এস হাই স্কুল(উঃ মাঃ), গাঁতলা, কান্দি, মুর্শিদাবাদ।
  • দেবপুর হাইস্কুল (উঃ মাঃ), গ্ৰাম+পোঃ- দেবপুর, থানা- বেলডাঙা, মুর্শিদাবাদ। ে
  • বেলডাঙ্গা সি আর জি এস উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • হরেকনগর এ এম ইনস্টিটিউশন,বেলডাঙ্গা
  • বেলডাঙ্গা হরিমতি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • বেলডাঙ্গা শ্রীশ চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • বিশুরপুকুর উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • বানিপীঠ গার্লস উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • নৌপুকুরিয়া জে জে ইনস্টিটিউশন,বেলডাঙ্গা
  • বেগুনবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • মির্জাপুর হাজি সোলেমান চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • কুমারপুর বি এন এম উচ্চ বিদ্যালয়,বেলডাঙ্গা
  • বেলডাঙ্গা দারুল হাদিস হাই মাদ্রাসা, বেলডাঙ্গা
  • দেবকুন্ডু হাই মাদ্রাসা, বেলডাঙ্গা
  • দেবকুন্ডু শেখ আব্দুর রাজ্জাক মেমোরিয়াল গার্লস হাই মাদ্রাসা, বেলডাঙ্গা
  • ফরিদপুর হাই স্কুল (উচ্চ বিদ্যালয়), জলঙ্গী
  • আমিরাবাদ হাই মাদ্রাসা (উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়) পোঃ মরিচা থানাঃ রানীনগর
  • কাতলামারী উচ্চ বিদ্যালয় , থানা : রানীনগর
  • সাগরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, সাগরপাড়া
  • সাগরপাড়া বালিকা বিদ্যালয়, সাগরপাড়া
  • জলঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়, জলঙ্গী
  • জলঙ্গী বালিকা বিদ্যালয়, জলঙ্গী
  • ডোমকল ভবতারণ হাই স্কুল (উচ্চ বিদ্যালয়), ডোমকল
  • টিকরবাড়িয়া কাজী নজরুল হাই স্কুল, জলঙ্গী
  • ভগীরথপুর হাইস্কুল (উচ্চ বিদ্যালয়),ডোমকল
  • লোচনপুর নৃত্যকালী উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পো. - লোচনপুর, থা. - ইসলামপুর
  • ভগবানগোলা উচ্চ বিদ্যালয়, ভগবানগোলা
  • ভগবানগোলা বালিকা বিদ্যালয়, ভগবানগোলা
  • মোরগ্রাম হাইস্কুল(উঃমাঃ)স্থাপিত(সন ১৮৮৫),গ্রাম+পোঃ-মোরগ্রাম,সাগরদিঘী
  • ঝাউবনা উচ্চ বিদ্যালয় (উঃমাঃ), ঝাউবনা, নওদা
  • আমতলা উচ্চ বিদ্যালয় (উঃমাঃ), আমতলা, নওদা
  • পাটিকাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় (উঃমাঃ), পাটিকাবাড়ী, নওদা
  • ত্রিমোহিনী হাই মাদ্রাসা (উঃমাঃ), ত্রিমোহনী, নওদা
  • কাজিসাহা হাই মাদ্রাসা (উঃমাঃ), কাজিসাহা, বেলডাঙ্গা
  • মানিকনগর উচ্চ বিদ্যালয় (উঃমাঃ), মানিকনগর, বেলডাঙ্গা

কলেজসম্পাদনা

ঐতিহাসিক ও দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

 
হাজার দুয়ারি ভবন

বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

পত্র-পত্রিকাসম্পাদনা

  • কথাবার্তা
  • সোঁদামাটি
  • রবিবার
  • সময় সাহিত্য পত্রিকা (সম্পাদক: উৎপলকুমার গুপ্ত)
  • বাসভূমি পত্রিকা (সম্পাদক: অরূপ চন্দ্র)
  • ঝড়
  • রঙধনু
  • মুর্শিদাবাদ বার্তা
  • মুর্শিদাবাদ সমাচার
  • চাতক
  • অহনা
  • ভালো মন্দ
  • প্রবাহ
  • জমিন
  • ছাপাখানার গলি
  • একুশে কবিতা
  • অর্কেস্ট্রা
  • দ্বাদশাঞ্জলী
  • কিরণ
  • আবার এসেছি ফিরে
  • এবং পুণশ্চ
  • পরি
  • অহল্যা
  • পল্লব সন্দেশ
  • শরতের ফুল
  • নবারুণ
  • মিরাজ
  • সায়ক
  • দূত
  • চলর্মি
  • বালার্ক
  • গণকণ্ঠ
  • দ্রান্দিক
  • আগমনি
  • নির্মাল্য
  • ফসিল
  • কবিতারাও কথা বলে ( সম্পাদক: অমরজিৎ মণ্ডল)
  • অনুভূতির কথায় (সম্পাদক: হামিম হোসেন মণ্ডল)[৬]

গুরুত্বপূর্ণ বইসম্পাদনা

নদ-নদীসম্পাদনা

খাল-বিলসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Murshidabad District : Census 2011 data"। Census Organization of India। ২০১১। জানুয়ারি ১, ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ৩১, ২০১৩ 
  2. "About Us"www.murshidabad.gov.in (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-১০-১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১০-১৯ 
  3. "Indian Districts by Population, Sex Ratio, Literacy 2011 Census"www.census2011.co.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১০-১৯ 
  4. http://www.censusindia.gov.in/2011census/C-16.html
  5. "DISTRIBUTION OF THE 22 SCHEDULED LANGUAGES-INDIA/STATES/UNION TERRITORIES - 2011 CENSUS" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১৬ 
  6. "অনুভূতিপূর্ণ সৃষ্ট রচনা দিয়ে সাজানো একটি স্বল্প পরিসরের পত্রিকা"। দৈনিক স্টেটসম্যান। ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। পৃষ্ঠা ৮।