দেওবন্দি

উপমহাদেশের আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের অনুসারী একমাত্র দল

দেওবন্দি (Pashto and ফার্সি: دیو بندی‎‎, উর্দু: دیو بندی‎‎, বাংলা: দেওবন্দি, হিন্দি: देवबन्दी) হল সুন্নি ইসলাম কেন্দ্রিক একটি পুনর্জাগরণবাদী আন্দোলন।[১] এর কেন্দ্র প্রাথমিকভাবে ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তানবাংলাদেশ। বর্তমানে যুক্তরাজ্যদক্ষিণ আফ্রিকাতেও এর বিস্তার ঘটেছে।[২] নামটি ভারতের দেওবন্দ নামক স্থান থেকে এসেছে। এখানে দারুল উলুম দেওবন্দ নামক মাদ্রাসা অবস্থিত। এই আন্দোলন পন্ডিত শাহ ওয়ালিউল্লাহ (১৭০৩-১৭৬২) দ্বারা অনুপ্রাণিত।[৩] ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে ব্যর্থ সিপাহীবিদ্রোহের এক দশক পর ১৮৬৬ সালের ৩০ মে দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এই আন্দোলনের সূচনা হয়। উপমহাদেশের অধিকাংশ মানুষ এ মতবাদ অনুসরণ করে থাকে।[৪][৫]

প্রতিষ্ঠাতাসম্পাদনা

উপরোক্ত ছয়জনকে আকাবিরে সিত্তাহ বলা হয়।[৫]

গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

সম্মেলনসম্পাদনা

দেওবন্দিদের অধীনে বাংলাদেশে দুইটি বড় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকার টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে বিশ্ব ইজতেমা নামে দাওয়াতে তাবলীগের একটি ইসলামি মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রায় ৫০ লক্ষ মানুষ অংশগ্রহণ করে। মধ্যেপ্রাচ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে হাজার হাজার মানুষ এ সম্মেলনে যোগদান করে। আরেকটি মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় বরিশালের চরমোনাই ইউনিয়নে। এতে প্রতিবছর প্রায় ২০ লক্ষ মানুষ অংশগ্রহণ করে।

আরও দেখুনসম্পাদনা

আরও পড়ুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "INDIA"। Darul Uloom Deoband। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  2. Muslim Schools and Education in Europe and South Africa - Google Books। Books.google.com.my। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ [পৃষ্ঠা নম্বর প্রয়োজন]
  3. Urban Terrorism: Myths and Realities - Anjali Nirmal - Google Books। Books.google.com.my। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ [পৃষ্ঠা নম্বর প্রয়োজন]
  4. "Deobandis - Oxford Islamic Studies Online"www.oxfordislamicstudies.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-০৬ 
  5. ‌দেওবন্দ আন্দোলনঃ ইতিহাস,ঐতিহ্য ও অবদান;আবুল ফাতাহ মুহাম্মদ ইয়াহইয়া;২০১১;পৃ.১৫৭

গ্রন্থপঞ্জিসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা