রুয়ান্ডা জাতীয় ফুটবল দল

রুয়ান্ডা জাতীয় ফুটবল দল (ইংরেজি: Rwanda national football team) হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফুটবলে রুয়ান্ডার প্রতিনিধিত্বকারী পুরুষদের জাতীয় দল, যার সকল কার্যক্রম রুয়ান্ডার ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা রুয়ান্ডা ফুটবল ফেডারেশন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। এই দলটি ১৯৭৮ সাল হতে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার এবং ১৯৭৬ সাল হতে তাদের আঞ্চলিক সংস্থা আফ্রিকান ফুটবল কনফেডারেশনের সদস্য হিসেবে রয়েছে। ১৯৭৬ সালের ২৯শে জুন তারিখে, রুয়ান্ডা প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক খেলায় অংশগ্রহণ করেছে; গ্যাবনের লিব্রেভিলে অনুষ্ঠিত উক্ত ম্যাচে রুয়ান্ডা বুরুন্ডির কাছে ৬–২ গোলের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে।

রুয়ান্ডা
দলের লোগো
ডাকনামইভুবি
অ্যাসোসিয়েশনরুয়ান্ডা ফুটবল ফেডারেশন
কনফেডারেশনক্যাফ (আফ্রিকা)
প্রধান কোচভিনসেন্ট মাশামি
অধিনায়কজ্যাক তুয়িসেঙ্গে
সর্বাধিক ম্যাচহারুমা নিয়নজিমা (১০৩)
শীর্ষ গোলদাতাঅলিভিয়ে কারেকেজি (২৪)
মাঠআমাহোরো স্টেডিয়াম
ফিফা কোডRWA
ওয়েবসাইটwww.ferwafa.rw
প্রথম জার্সি
দ্বিতীয় জার্সি
ফিফা র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৩৫ হ্রাস ২ (১৯ নভেম্বর ২০২১)[১]
সর্বোচ্চ৬৪ (মার্চ ২০১৫)
সর্বনিম্ন১৭৮ (জুলাই ১৯৯৯)
এলো র‌্যাঙ্কিং
বর্তমান ১৪৩ হ্রাস ৩ (২৬ নভেম্বর ২০২১)[২]
সর্বোচ্চ৯৫ (অক্টোবর ২০০৮)
সর্বনিম্ন১৫০ (জুলাই ১৯৯৬)
প্রথম আন্তর্জাতিক খেলা
 বুরুন্ডি ৬–২ রুয়ান্ডা 
(লিব্রেভিল, গ্যাবন; ২৯ জুন ১৯৭৬)
বৃহত্তম জয়
 রুয়ান্ডা ৯–০ জিবুতি 
(দারুস সালাম, তানজানিয়া; ১৩ ডিসেম্বর ২০০৭)
বৃহত্তম পরাজয়
 ক্যামেরুন ৫–০ রুয়ান্ডা 
(লিব্রেভিল, গ্যাবন; ৭ জুলাই ১৯৭৬)
 জাইর ৬–১ রুয়ান্ডা 
(গ্যাবন; ১২ জুলাই ১৯৭৬)
 তিউনিসিয়া ৫–০ রুয়ান্ডা 
(তিউনিস, তিউনিসিয়া; ১০ এপ্রিল ১৯৮৩)
 উগান্ডা ৫–০ রুয়ান্ডা 
(কাম্পালা, উগান্ডা; ১ আগস্ট ১৯৯৮)
আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্স
অংশগ্রহণ১ (২০০৪-এ প্রথম)
সেরা সাফল্যগ্রুপ পর্ব (২০০৪)

৩০,০০০ ধারণক্ষমতাবিশিষ্ট আমাহোরো স্টেডিয়ামে ইভুবি নামে পরিচিত এই দলটি তাদের সকল হোম ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। এই দলের প্রধান কার্যালয় রুয়ান্ডার রাজধানী কিগালিতে অবস্থিত। বর্তমানে এই দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছেন ভিনসেন্ট মাশামি এবং অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করছেন আক্রমণভাগের খেলোয়াড় জ্যাক তুয়িসেঙ্গে

রুয়ান্ডা এপর্যন্ত একবারও ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। অন্যদিকে, আফ্রিকা কাপ অফ নেশন্সে রুয়ান্ডা এপর্যন্ত মাত্র ১ বার অংশগ্রহণ করেছে, যেখানে তারা শুধুমাত্র গ্রুপ পর্বে অংশগ্রহণ করতে সক্ষম হয়েছে।

হারুমা নিয়নজিমা, এরিক এনদায়িশিমিয়ে, দেসিরে এমবোনাবুকিয়া, জ্যাক তুয়িসেঙ্গে এবং অলিভিয়ে কারেকেজির মতো খেলোয়াড়গণ রুয়ান্ডার জার্সি গায়ে মাঠ কাঁপিয়েছেন।

র‌্যাঙ্কিংসম্পাদনা

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে, ২০১৫ সালের মার্চ মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে রুয়ান্ডা তাদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ অবস্থান (৬৪তম) অর্জন করে এবং ১৯৯৯ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা ১৭৮তম স্থান অধিকার করে, যা তাদের ইতিহাসে সর্বনিম্ন। অন্যদিকে, বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে রুয়ান্ডার সর্বোচ্চ অবস্থান হচ্ছে ৯৫তম (যা তারা ২০০৮ সালে অর্জন করেছিল) এবং সর্বনিম্ন অবস্থান হচ্ছে ১৫০। নিম্নে বর্তমানে ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং এবং বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিংয়ে অবস্থান উল্লেখ করা হলো:

ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং
১৯ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী ফিফা বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং[১]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৩৩     তুর্কমেনিস্তান ১১১৭.৬
১৩৪     লাতভিয়া ১১০০.০৩
১৩৫     রুয়ান্ডা ১০৯৫.৩৪
১৩৬     লিথুয়ানিয়া ১০৯১.৭৭
১৩৭     ইথিওপিয়া ১০৮৭.৮৯
বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং
২৬ নভেম্বর ২০২১ অনুযায়ী বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং[২]
অবস্থান পরিবর্তন দল পয়েন্ট
১৪১     নতুন ক্যালিডোনিয়া ১২৭০
১৪১     ফরাসি গায়ানা ১২৭০
১৪৩     রুয়ান্ডা ১২৬৪
১৪৪     তাজিকিস্তান ১২৬০
১৪৫     কোমোরোস ১২৫৩

প্রতিযোগিতামূলক তথ্যসম্পাদনা

ফিফা বিশ্বকাপসম্পাদনা

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব
সাল পর্ব অবস্থান ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো
  ১৯৩০ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৩৪
  ১৯৩৮
  ১৯৫০
  ১৯৫৪
  ১৯৫৮
  ১৯৬২
  ১৯৬৬
  ১৯৭০
  ১৯৭৪
  ১৯৭৮
  ১৯৮২
  ১৯৮৬
  ১৯৯০ প্রত্যাহার প্রত্যাহার
  ১৯৯৪ অংশগ্রহণ করেনি অংশগ্রহণ করেনি
  ১৯৯৮ উত্তীর্ণ হয়নি
    ২০০২
  ২০০৬ ১২ ১০ ১৭
  ২০১০ ১০ ১১
  ২০১৪ ১৩
  ২০১৮
  ২০২২ অনির্ধারিত অনির্ধারিত
মোট ০/২১ ৩৬ ২১ ২৯ ৫৪

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ফিফা/কোকা-কোলা বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং"ফিফা। ১৯ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১৯ নভেম্বর ২০২১ 
  2. গত এক বছরে এলো রেটিং পরিবর্তন "বিশ্ব ফুটবল এলো রেটিং"eloratings.net। ২৬ নভেম্বর ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৬ নভেম্বর ২০২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা