বকশীগঞ্জ উপজেলা

জামালপুর জেলার একটি উপজেলা

বকশীগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশের জামালপুর জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। এটি ৭ টি ইউনিয়ন এবং একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এটি ময়মনসিংহ বিভাগের অধীন জামালপুর জেলার ৭ টি উপজেলার একটি এবং এটি জেলার উত্তরভাগে অবস্থিত। বকশীগঞ্জ জামালপুর জেলার সর্ব কনিষ্ঠ উপজেলা। বকশীগঞ্জ উপজেলার উত্তরে ভারতের মেঘালয় রাজ্য, দক্ষিণে ইসলামপুর উপজেলা, পূর্বে শ্রীবর্দী উপজেলা, পশ্চিমে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা। উপজেলার উত্তর-পূর্বাংশে গারো পাহাড় অবস্থিত।

বকশিগঞ্জ
উপজেলা
বকশিগঞ্জ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
বকশিগঞ্জ
বকশিগঞ্জ
বাংলাদেশে বকশীগঞ্জ উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°১৩′ উত্তর ৮৯°৫২′ পূর্ব / ২৫.২১৭° উত্তর ৮৯.৮৬৭° পূর্ব / 25.217; 89.867স্থানাঙ্ক: ২৫°১৩′ উত্তর ৮৯°৫২′ পূর্ব / ২৫.২১৭° উত্তর ৮৯.৮৬৭° পূর্ব / 25.217; 89.867 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগময়মনসিংহ বিভাগ
জেলাজামালপুর জেলা
আয়তন
 • মোট২৩৮.২৯ কিমি (৯২.০০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট২,১৮,৯৩০
 • জনঘনত্ব৯২০/কিমি (২৪০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৬৮.৯৩%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড২১৪০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৩০ ৩৯ ০৭
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

১৯৩৭ সালে দেওয়ানগঞ্জ থানার অন্তর্ভুক্ত বকশীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ গঠিত হয়। ৩০ এপ্রিল ১৯৮২ সালে বকশীগঞ্জ থানা এবং ১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৩ সালে উপজেলা গঠিত হয়। বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বকশীগঞ্জ উপজেলা জামালপুর-১ সংসদীয় আসনের অন্তর্ভুক্ত । এ আসনটি জাতীয় সংসদে ১৩৮ নং আসন হিসেবে চিহ্নিত।

বকশীগঞ্জ উপজেলার আয়তন ২০৪.৩০ বর্গ কিলোমিটার[২] এবং জনসংখ্যা ২০১১ সনের আদম শুমারী অনুযায়ী ২,১৮,৯৩০ জন। পুরষ ও নারীর অনুপাত ১০০ঃ৯৭, জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৯১৯ জন, শিক্ষার হার ৩৩.১%।[৩]

অবস্থান ও আয়তনসম্পাদনা

জামালপুর জেলা সদর থেকে ৪৫ কিলোমিটার অদূরে ও স‌োজা উত্তর প্রান্ত‌ে, জেলা ও দ‌েশের শেষ সীমান্তে, নয়নাভ‌িরাম গাছ-গাছালী ও চ‌ির সবুজ ঘন বন‌ের গা ঘ‌েঁষে গারো পাহাড়ের পাদদেশে বকশীগঞ্জ অবস্থ‌িত । উত্তর‌ে ভারতের মেঘালয় রাজ্য (রাস্তা দ্বারা সংযুক্ত) ও গার‌ো পাহাড়, পূর্বে শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলা, দক্ষিণে জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলা, পশ্চিমে জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা। ২৫.০৬ ডিগ্রী থেকে ২৫.১৮ ডিগ্রী উত্তর অক্ষাংশে এবং ৮৯.৪৭ ডিগ্রী থেকে ৮৯.৫৭ ডিগ্রী পূর্ব দ্রাঘিমাংশে ২৩৮.২৯ বর্গ কিলো মিটার জুড়ে বকশীগঞ্জ উপজেলা অবস্থিত।

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

ইউনিয়ন
  1. বকশীগঞ্জ ইউনিয়ন
  2. বগারচর ইউনিয়ন
  3. কামালপুর ইউনিয়ন, বকশীগঞ্জ
  4. বাট্টাজোর ইউনিয়ন
  5. সাধুরপাড়া ইউনিয়ন
  6. নিলাক্ষিয়া ইউনিয়ন
  7. মেরুরচর ইউনিয়ন
পৌরসভা
  1. বকশীগঞ্জ পৌরসভা

থানা: ০৩ট‌ি

এছাড়া এই উপজেলায় রয়েছে গ্রাম ৩০৫ ট‌ি, মেীজা ১৭৫ট‌ি, আদর্শ গ্রাম ০৮ট‌ি, ডাকবাংল‌ো ০২টি, ফায়ার স্ট‌েশন ০১ট‌ি, আশ্রয়ন প্রকল্প ০৪ট‌ি, হাট-বাজার ১৪ট‌ি, ব্যাংক ১০ট‌ি, এন জ‌ি ও ১৬ট‌ি, সাংস্কৃত‌িক ক্লাব ৩৫ট‌ি, মহ‌িলা সংগঠন ০৫ট‌ি, খ‌েলার মাঠ ২২ট‌ি, উপজ‌েলা সদর হাসপাতাল ০১ট‌ি, ইসলাম‌িক ফাউন্ড‌েশন হাসপাতাল ০১ট‌ি, উপজ‌েলা মাতৃসদন ক‌েন্দ্র ০১ট‌ি, ইউন‌িয়ন পর‌িবার কল্যাণ ক‌েন্দ্র ০৭ট‌ি, কম‌িউনিট‌ি ক্ল‌িনিক ২৭ট‌ি, উপজ‌েলা প্রান‌ি সম্পদ হাসপাতাল ০১ট‌ি, কৃত্র‌িম প্রজনন ক‌েন্দ্র ০১ট‌ি, উপজ‌েলা ভূম‌ি অফ‌িস ০১ট‌ি, ইউনিয়ন ভূম‌ি অফ‌িস ০৭ট‌ি ইত্যাদি ।

ইতিহাসসম্পাদনা

বকশীগঞ্জ একটি প্রাচীন ও ঐতিহাসিক জনপদের নাম । ১৯৮২ সালের ৩০ এপ্রিল সাতটি ইউনিয়ন নিয়ে "বকশীগঞ্জ থানা" গঠন করা হয়। ১৯৮৩ সালের ১৪ সেপ্টেন্বর বকশীগঞ্জ থানাকে “বকশীগঞ্জ উপজেলা” হ‌িস‌েবে উন্নীত করা হয়েছে। ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ সালে ২০.৮০ বর্গ কিলো মিটার নিয়ে "বকশীগঞ্জ পৌরসভা" গঠন করা হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধসম্পাদনা

১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে ১১ নম্বর সেক্টরের প্রাণকেন্দ্র ছিল বকশীগঞ্জ । ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধারা ভারত সীমান্ত অতিক্রম করে বকশীগঞ্জের ভিতর দিয়ে বহুবার কামালপুর ঘাঁটি আক্রমণ করে । ৩১ জুলাই ১১ নং সেক্টরের ১ম ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট ব্যাটালিয়ন কমান্ডিং অফিসার মেজর মইনুল হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা কামালপুর আক্রমণ করে । এ যুদ্ধে পাকবাহিনীর ব্যাপক ক্ষতি হয়। যুদ্ধের সময় ক্যাপ্টেন সালাহউদ্দিন মমতাজ, আহাদুজ্জামান, আবুল কালাম আজাদসহ ৩৫ জন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন । ১৪ নভেম্বর গোলার আঘাতে কর্নেল আবু তাহের গুরুতরভাবে আহত হন । ৪ ডিসেম্বর বকশীগঞ্জ উপজেলা শত্রমুক্ত হয় ।

নামকরণসম্পাদনা

বকশীগঞ্জ একটি প্রাচীন ও ঐতিহাসিক জনপদের নাম । তবে বকশীগঞ্জ নামকরণ নিয়ে রয়েছে নানান মতভেদ। তবে বকশীগঞ্জ আদি নাম রাজেন্দ্রগঞ্জ । এখনো দলিলপত্রে রাজেন্দ্রগঞ্জ মৌজা । বকশীগঞ্জ নামকরণ নিয়ে স্মরনিকার নামে একটি জার্নালে ৪৪-৪৫ পৃষ্ঠায় প্রকাশিত এক প্রবন্ধে অধ্যাপক আফসার আলীর লেখায় উল্লেখ করা হয়েছে । কেউ কেউ বলেন শত বছর আগে এখানে “বকশী” নামে এক মুসলিম ফকির ছিলেন । তাকে কেন্দ্র করে একটি খনকা বা আস্তানা গড়ে উঠে । এই আস্তানাকে থেকে হয়ে উঠে একটি হাট । সেই ব্যক্তির নাম অনুসারে নাম হয় বকশীর হাট। কালের বিবর্তনে বকশীর হাট থেকে বর্তমানে “বকশীগঞ্জ” নামে রূপান্তরিত হয়েছে ।

জনসংখ্যাসম্পাদনা

ম‌োট জনসংখ্যা ২,১৮,৯৩০ জন । পুরুষ ৫১.০৭% ; মহ‌িলা ৪৮.৯৩% ; মুসল‌িম ৯৮.২১% ; হ‌িন্দু ১.৩৯% ; খ্র‌িস্টান ০.১৯% ; ব‌েীদ্ধ ০.১১% ও অন্যান্য ০.১০% । এই উপজ‌েলায় গার‌ো সহ অন্যান্য উপজাত‌ি জনগ‌োষ্ঠীর বসবাস রয়‌েছে ।

আবহাওয়াসম্পাদনা

বকশীগঞ্জের জলবায়ু উষ্ণ, আর্দ্র ও নাতিশীতোষ্ণ এবং স্বাস্থ্য সম্মত ও কৃষ‌ি উপয‌োগী ।

অর্থনীত‌িসম্পাদনা

বকশীগঞ্জ উপজেলার অর্থনীতি অনেকটাই কৃষি প্রধান । তবে ব্যবসা ও মানবসম্পদ এই এলাকার অর্থনীতির অন্যতম প্রধান ভিত্তি । প্রধান কৃষি ফসলের মধ্যে - ধান, পাট, গম, তুলা, সরিষা, আখ, মিষ্টি আলু, চ‌িনা বাদাম, ছোলা, মসুর ডাল, হলুদ, পেঁয়াজ, মর‌িচ, ও ব‌িভিন্ন রকমারি শাক-সবজি ইত্যাদি চাষ হয় । বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি - ভুট্টা, তিল, তিসি, কাউন, চীনা ইত্যাদ‌িও চাষ হয় । প্রধান ফল-ফলাদি - আম, জাম, কলা, পেঁপে,কাঁঠাল, তরমুজ, প‌েয়ারা, নারক‌েল, আনারস ইত্যাদ‌ি । এ উপজেলায় অনেক মৎস্য, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগির খামার রয়েছে । আর‌ো আছে‌ - কুটিরশিল্প , স্বর্ণশিল্প, তাঁতশিল্প, বাঁশ ও বেতশিল্প, কাচ বালি শিল্প, চিনা মাট‌ি ও নুড়‌ি পাথর শ‌িল্প, নকশীকাঁথা শিল্প, জামদানি শিল্প ইত্যাদ‌ি বিশ‌েষভাব‌ে উল্লেখ যোগ্য । এখানে একটি পাটকল রয়েছে ।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য - ধান, পাট, সরিষা, তুলা, পিঁয়াজ, হলুদ, শাকসবজি ইত্যাদি ।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস - কৃষি ৫৬.৯১%, অকৃষি শ্রমিক ৩.০১%, শিল্প ০.৯৩%, ব্যবসা ১৫.৩৬%, পরিবহন ও যোগাযোগ ৩.৫৭%, চাকরি ৭.৮৯%, নির্মাণ ২.২২%, ধর্মীয় সেবা ০.৪৩%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ১.৪৩% এবং অন্যান্য ৭.৯৮% ।

প্রাকৃত‌িক সম্পদ

প্রাকৃত‌িক সম্পদ‌ের মধ্য‌ে - চীনা মাট‌ি, সাদা মাট‌ি/কাচ বালি , পাথর ও নুড়ি পাথর ইত্যাদি উল্লখয‌োগ্য ।

পানীয়জলের উৎস - নলকূপ ৮৬.৯৯%, ট্যাপ ১১.৩১%, পুকুর ০.৩% এবং অন্যান্য ১.৪% ।

শ‌িক্ষা প্রত‌িষ্ঠানসম্পাদনা

এই উপজেলায় ৪৯টি সরকারী ও ৪৯ ট‌ি ব‌েসরকার‌ি এবং ৫ ট‌ি কম‌িউন‌িটি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে । সরকার‌ি কল‌েজ রয়েছে ১টি ও ব‌েসরকার‌ি কল‌েজ রয়েছে ৮ ট‌ি । মাধ্যম‌িক ব‌িদ্যালয় রয়‌েছে ২৬ ট‌ি ও ন‌িম্ন মাধ্যম‌িক ব‌িদ্যালয় রয়‌েছে ৬ ট‌ি । মাদরাসা রয়েছে ১৮ টি । এ ছাড়াও ২ ট‌ি ট‌েক্সটাইল ভোক‌েশনাল ইনস্ট‌িটিউট রয়‌েছে যার একট‌ি সরকার‌ি ।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিবর্গসম্পাদনা

মুক্ত‌িযোদ্ধা-

  • শহীদ মুক্তিযোদ্ধা তসলিম উদ্দিন
  • শহীদ মুক্তিযোদ্ধা গাজী আছাদুজ্জামান
  • নুরুল ইসলাম (বীর বিক্রম)
  • মতিউর রহমান (বীর প্রতীক)
  • বশির আহমেদ (বীর প্রতীক)
  • জহুরুল হক (বীর প্রতীক)
  • বীর মুক্তিযোদ্ধা বদরুল ইসলাম
  • বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান

রাজনীত‌িবিদ -

  • বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম আব্দুল হামিদ মেম্বার ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ,বকশীগঞ্জ উপজেলা শাখা।
  • এম এ সাত্তার - জাতীয় পার্টির সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ।
  • আলহাজ আবুল কালাম আজাদ এমপি সাবেক তথ্য ও সংস্কৃতিমন্ত্রী ,ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর নেতা
  • আব্দুল কাইয়ুম (সাবেক সচিব,আইজিপি) ও বিএনপি চেয়ারপার্সন এর উপদেষ্টা ।
  • আব্দুর রউফ তালুকদার (চ‌েয়ারম্যান, বকশীগঞ্জ উপজ‌েলা পর‌িষদ)
  • নুর মোহাম্মদ, সমাজসেবক।
  • সাইফুল ইসলাম বিজয়, সাধারণ সম্পাদক,বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বকশীগঞ্জ উপজেলা শাখা।


দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

  • লাউচাপড়া পাহাড়িকা বিনোদন কেন্দ্র ও প‌িকনিক স্পট
  • কামালপুর ১১ নং সেক্টর মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ
  • ১১ নং সেক্টর মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর
  • কামালপুর স্থলবন্দর
  • বকশীগঞ্জ বাণিজ্যিক কেন্দ্র
  • গারো পাহাড়
  • নিলাক্ষ‌িয়া ও চরকাউর‌িয়ার নীলকুঠ‌ির ভগ্নাবশ‌েষ
  • বনফুল ট্যুর‌িজম কমপ্ল‌েক্স
  • বকশীগঞ্জ ইন্ড্রাস্ট‌িয়াল পার্ক

পত্র- পত্র‌িকাসম্পাদনা

দৈনিকসম্পাদনা

সাপ্তাহিক বকশীগঞ্জ, উর্মি বাংলা প্রতিদিন, দৈনিক গনজয়, সেবা হট নিউজ[৪]

খেলাধুলাসম্পাদনা

খেলাধুলার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল‌ো ক্রিক‌েট, ফুটবল, ব‌েডম‌িন্টন ইত্যাদ‌ি । এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের গ্রামীণ খেলাধুলা য‌েমন-হাডুডু, বউচোরী, দাড়িয়াবান্দা, গোল্লাছোট, সাঁতার, ডাংগুলী,ও ঘুড়ি ওড়ানো ইত্যাদ‌ি । বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দিবসে স্থানীয় শিল্পিদের পরিবেশনায় বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়ে থাকে।এছাড়া অনেক এলাকায় বিভিন্ন ধরনের গ্রামীণ মেলার আয়েজন করা হয় যা অনেক বিনোদনপূর্ণ হয়ে থাকে।

ধর্মীয় প্রত‌িষ্ঠানসম্পাদনা

  • মসজ‌িদ - ২৯৫ টি
  • মন্দ‌ির - ০৩ টি
  • গীর্জা - ০২

নদ-নদীসম্পাদনা

বকশীগঞ্জ উপজেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত নদ-নদী : ব্রহ্মপুত্র নদ, দশানী ও জিনজিরাম নদী প্রবাহমান।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে বকশীগঞ্জ উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ১৪ আগস্ট ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুলাই ২০১৫ 
  2. "বকশীগঞ্জ উপজেলা"বাংলাপিডিয়া। ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০২০ 
  3. "জেলা পরিসংখ্যান ২০১১, জামালপুর" (PDF)বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ, ২০২০  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  4. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "পত্র পত্রিকা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ১৪ আগস্ট ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ মার্চ ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা