টেস্ট ক্রিকেটে দশ হাজার বা তদূর্ধ্ব রান সংগ্রহকারী ব্যাটসম্যানের তালিকা

উইকিমিডিয়ার তালিকা নিবন্ধ

টেস্ট ক্রিকেটে দশ হাজার বা তদূর্ধ্ব রান সংগ্রহকারী ব্যাটসম্যানের তালিকায় একজন ক্রিকেটারের অন্তর্ভুক্তিকে গুরুত্বপূর্ণ অর্জন হিসেবে বিবেচনা করা হয়।[১] ১৯৭৪ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেট তারকা গারফিল্ড সোবার্স অবসর গ্রহণকালীন ৯৩ খেলায় অংশ নিয়ে ৮,০৩২ রান করেন।[২] এর নয়বছর পর ১৯৮২ সালে ভারতের বিপক্ষে খেলায় অংশ নিয়ে ইংরেজ ক্রিকেট তারকা জিওফ্রে বয়কট সোবার্সের রেকর্ড অতিক্রম করেন।[৩][৪] দুই বছর পর ১৯৮৩ সালে ভারতীয় তারকা সুনীল গাভাস্কার বয়কটের সংগ্রহ অতিক্রম করতে সমর্থ হন।[৫]

সুনীল গাভাস্কার
প্রথম টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে সুনীল গাভাস্কার ১০,০০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।

এর চার বছর বাদে মার্চ, ১৯৮৭ সালে ১০,০০০ রান সংগ্রহের সম্মাননায় সর্বপ্রথম অন্তর্ভুক্ত হন ভারতীয় ব্যাটিং প্রতিভা সুনীল গাভাস্কার। তিনি পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট খেলাকালীন এ মাইলফলকে পৌঁছেন।[৬] মার্চ, ২০১৯ সাল পর্যন্ত মাত্র ১৩জন খেলোয়াড় টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এ তালিকায় নিজেদের নাম ঠাঁই করে নিতে পেরেছেন। তন্মধ্যে - ৩জন করে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার; ২জন করে ওয়েস্ট ইন্ডিজশ্রীলঙ্কার এবং ১জন করে দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ডপাকিস্তানের খেলোয়াড় রয়েছে।[৬] এখনো পর্যন্ত বাংলাদেশ, নিউজিল্যান্ড, আফগানিস্তান, আয়ারল্যান্ড এবং জিম্বাবুয়ের কোন খেলোয়াড় এ তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্তি ঘটাতে পারেনি।

ইতিহাসসম্পাদনা

৬ মার্চ, ১৯৭১ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া সুনীল গাভাস্কার তাঁর খেলোয়াড়ী জীবনের পনের বছর তিনশত বাষট্টি দিনের মাথায় বিশ্বের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দশ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।[৭] ৪ মার্চ, ১৯৮৭ তারিখে পাকিস্তান দলের বিরুদ্ধে ইজাজ ফাকিহ'র বলে লেট কাটের মাধ্যমে ব্যক্তিগত ৫৮ রানের সময় এ সম্মাননা অর্জন করেন। এ মাইলফলক অর্জনে ১২৪ টেস্টের ২১২ ইনিংস খেলতে হয়েছে তাঁকে।[৮]

গাভাস্কারের ক্রিকেট জীবন থেকে অবসর গ্রহণের ছয় বছর ও ১৩৬ টেস্ট পর দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে অ্যালান বর্ডার দশ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন।[৮] ২ জানুয়ারি, ১৯৯৩ সালে বর্ডার সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একমাত্র ইনিংসে ৭৪ রান করেন। কার্ল হুপারের বলে অন-ড্রাইভে এক রান নেয়ার মাধ্যমে ২১ রান অতিক্রমের মাধ্যমে দশ হাজার রান স্পর্শ করেন। কিন্তু বিংশ শতকে তাঁর এ কীর্তিটি উইজডেন কর্তৃপক্ষ বৃহৎভাবে এড়িয়ে যায় ব্রায়ান লারা'র প্রথম দ্বি-শতক রানের জন্য।[৯]

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিখ্যাত ক্রিকেট তারকা ব্রায়ান লারা সবচেয়ে কম ১৯৫ ইনিংসে ১০,০০০ রানের মাইলফলকে পৌঁছেন। পরবর্তীতে শচীন তেন্ডুলকরকুমার সাঙ্গাকারা তার সমকক্ষ হন। অন্যদিকে অস্ট্রেলীয় তারকা স্টিভ ওয়াহ সর্বাধিকসংখ্যক ২৪৪ ইনিংস খেলে এ তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হন।[৬] তেন্ডুলকর সর্বাধিক খেলায় অংশগ্রহণ, সর্বাধিকসংখ্যক সেঞ্চুরি ও হাফ-সেঞ্চুরি করার ন্যায় বেশ কয়েকটি রেকর্ড ধারন করে আছেন। সময়ের হিসেবে ১০ বছর ৮৭ দিন বয়স নিয়ে ইংরেজ তারকা অ্যালাস্টেয়ার কুক সবচেয়ে কম সময় নিয়েছেন ও রাহুল দ্রাবিড়ের রেকর্ড ভঙ্গ করেছেন।[৬] অন্যদিকে ১৮ বছর ৩৭ দিন নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান শিবনারায়ণ চন্দরপল সবচেয়ে দীর্ঘদিন সময় নিয়েছেন।[৬] মার্চ, ২০১৯ সাল পর্যন্ত ১৫,৯২১ রান নিয়ে শচীন তেন্ডুলকর তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করে রেখেছন। তারপরই অস্ট্রেলীয় রিকি পন্টিং ১৩,৩৭৮ রান নিয়ে অবস্থান করছেন।[৫] পাকিস্তানী ক্রিকেটার ইউনুস খান সর্বশেষ খেলোয়াড় হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হয়েছেন।

তালিকাসম্পাদনা

  • সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী হিসেবে ব্যাটসম্যানদের নাম সাজানো হয়েছে। ছককে পরিসংখ্যানগত কারণে সাজাতে   আইকনে ক্লিক করুন।
নং খেলোয়াড় চিত্র দল রান টেস্ট ইনিংস গড় শতক অর্ধ-শতক প্রথম সর্বশেষ
শচীন তেন্ডুলকর     ভারত ১৫,৯২১ ২০০ ৩২৯ ৫৩.৭৮ ৫১ ৬৮ ১৯৮৯ ২০১৩
রিকি পন্টিং     অস্ট্রেলিয়া ১৩,৩৭৮ ১৬৮ ২৮৭ ৫১.৮৫ ৪১ ৬২ ১৯৯৫ ২০১২
জ্যাক ক্যালিস     দক্ষিণ আফ্রিকা ১৩,২৮৯ ১৬৬ ২৮০ ৫৫.৩৭ ৪৫ ৫৮ ১৯৯৫ ২০১৩
রাহুল দ্রাবিড়     ভারত ১৩,২৮৮ ১৬৪ ২৮৬ ৫২.৩১ ৩৬ ৬৩ ১৯৯৬ ২০১২
অ্যালাস্টেয়ার কুক      ইংল্যান্ড ১২,৪৭২ ১৬১ ২৯১ ৪৫.৩৫ ৩৩ ৫৭ ২০০৬ ২০১৮
কুমার সাঙ্গাকারা     শ্রীলঙ্কা ১২,৪০০ ১৩৪ ২৩৩ ৫৭.৪০ ৩৮ ৫২ ২০০০ ২০১৫
ব্রায়ান লারা     ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১১,৯৫৩ ১৩১ ২৩২ ৫২.৮৮ ৩৪ ৪৮ ১৯৯০ ২০০৬
শিবনারায়ণ চন্দরপল     ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১১,৮৬৭ ১৬৪ ২৮০ ৫১.৩৭ ৩০ ৬৬ ১৯৯৪ ২০১৫
মাহেলা জয়াবর্ধনে     শ্রীলঙ্কা ১১,৮১৪ ১৪৯ ২৫২ ৪৯.৮৪ ৩৪ ৫০ ১৯৯৭ ২০১৪
১০ অ্যালান বর্ডার     অস্ট্রেলিয়া ১১,১৭৪ ১৫৬ ২৬৫ ৫০.৫৬ ২৭ ৬৩ ১৯৭৮ ১৯৯৪
১১ স্টিভ ওয়াহ     অস্ট্রেলিয়া ১০,৯২৭ ১৬৮ ২৬০ ৫১.০৬ ৩২ ৫০ ১৯৮৫ ২০০৪
১২ সুনীল গাভাস্কার     ভারত ১০,১২২ ১২৫ ২১৪ ৫১.১২ ৩৪ ৪৫ ১৯৭১ ১৯৮৭
১৩ ইউনুস খান     পাকিস্তান ১০,০৯৯ ১১৮ ২১৩ ৫২.০৫ ৩৪ ৩৩ ২০০০ ২০১৭
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো; সর্বশেষ হালনাগাদ: ১০ মার্চ, ২০১৯

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Ugra, Sharda (২৪ ডিসেম্বর ২০০৯)। "1987-Gavaskar is the first to score 10,000 test runs: A 10 tonne toast"India Today। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  2. "Gary Sobers: Cricket's greatest genius"Rediff.com। ২৮ জুলাই ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০ জানুয়ারি ২০১৩ 
  3. "Third Test Match — India vs. England 1981–82"Wisden Cricketers' Almanack। সংগ্রহের তারিখ ২২ আগস্ট ২০১৫ 
  4. Botham, Ian (১৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯)। Head On — Ian Botham: The AutobiographyRandom Houseআইএসবিএন 978-0-091-92149-1 
  5. "Records / Test matches / Batting records / Most runs in career"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০১৫ 
  6. "Records / Test matches / Batting records / Fastest to 10000 runs"ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩১ মে ২০১৬ 
  7. "Fourth Test Match – INDIA v PAKISTAN 1986–87"ক্রিকইনফো। Wisden। সংগ্রহের তারিখ ৪ জানুয়ারি ২০১৩ 
  8. "Records / Bangladesh / Test matches / Most runs"ক্রিকইনফো। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জানুয়ারি ২০১৩ 
  9. "AUSTRALIA v WEST INDIES 1992–93 -Third Test"ক্রিকইনফো। Wisden। সংগ্রহের তারিখ ৪ জানুয়ারি ২০১৩ 

আরও দেখুনসম্পাদনা