প্রবেশদ্বার:ক্রিকেট

ক্রিকেট প্রবেশদ্বার ক্রিকেট ব্যাট এবং বল.png
সম্পাদনা 

ভূমিকা

ক্রিকেট

ক্রিকেট ব্যাট ও বলের একটি দলীয় খেলা যাতে এগারোজন খেলোয়াড়বিশিষ্ট দুইটি দল অংশ নেয়। এই খেলাটির উদ্ভব হয় ইংল্যান্ডে। পরবর্তীতে ব্রিটিশ উপনিবেশগুলো-সহ অন্যান্য দেশগুলোতে এই খেলা ব্যাপকভাবে প্রভাব বিস্তার লাভ করে চলছে। বর্তমানে বাংলাদেশ, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকাজিম্বাবুয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ৫ দিনের টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচ খেলে থাকে।এছাড়া, আরো বেশ কিছু দেশ ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক সংস্থা আইসিসি'র সদস্য। টেস্টখেলুড়ে দেশগুলি ছাড়াও আইসিসি অনুমোদিত আরো দু’টি দেশ অর্থাৎ মোট ১২টি দেশ একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণ করে থাকে।

ক্রিকেট খেলা ঘাসযুক্ত মাঠে (সাধারণত ওভাল বা ডিম্বাকৃতির) খেলা হয়, যার মাঝে ২২ গজের ঘাসবিহীন অংশ থাকে, তাকে পিচ বলে। পিচের দুই প্রান্তে কাঠের তিনটি করে লম্বা লাঠি বা স্ট্যাম্প থাকে। ঐ তিনটি স্ট্যাম্পের উপরে বা মাথায় দুইটি ছোট কাঠের টুকরা বা বেইল থাকে। স্ট্যাম্প ও বেইল সহযোগে এই কাঠের কাঠামোকে উইকেট বলে।ক্রিকেটে অংশগ্রহণকারী দু’টি দলের একটি ব্যাটিং ও অপরটি ফিল্ডিং করে থাকে। ব্যাটিং দলের পক্ষ থেকে মাঠে থাকে দুইজন ব্যাটসম্যান। তবে কোন কারণে ব্যাটসম্যান দৌড়াতে অসমর্থ হলে ব্যাটিং দলের একজন অতিরিক্ত খেলোয়াড় মাঠে নামতে পারে। তিনি রানার নামে পরিচিত। ফিল্ডিং দলের এগারজন খেলোয়াড়ই মাঠে উপস্থিত থাকে। ফিল্ডিং দলের একজন খেলোয়াড় (বোলার) একটি হাতের মুঠো আকারের গোলাকার শক্ত চামড়ায় মোড়ানো কাঠের বা কর্কের বল বিপক্ষ দলের খেলোয়াড়ের (ব্যাটসম্যান) উদ্দেশ্যে নিক্ষেপ করে। সাধারণত নিক্ষেপকৃত বল মাটিতে একবার পড়ে লাফিয়ে সুইং করে বা সোজাভাবে ব্যাটসম্যানের কাছে যায়। ব্যাটসম্যান একটি কাঠের ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে ডেলিভারীকৃত বলের মোকাবেলা করে, যাকে বলে ব্যাটিং করা। যদি ব্যাটসম্যান না আউট হয় দুই ব্যাটসম্যান দুই উইকেটের মাঝে দৌড়িয়ে ব্যাটিং করার জন্য প্রান্ত বদল করে রান করতে পারে। বল নিক্ষেপকারী খেলোয়াড়বাদে অন্য দশজন খেলোয়াড় ফিল্ডার নামে পরিচিত। এদের মধ্যে দস্তানা বা গ্লাভস হাতে উইকেটের পিছনে যিনি অবস্থান করেন, তাকে বলা হয় উইকেটরক্ষক। যে দল বেশি রান করতে পারে সে দল জয়ী হয়।

Cricketball.png আরও পড়ুন... ক্রিকেট
সম্পাদনা 

নির্বাচিত নিবন্ধ

The Ashes.jpg

অ্যাশেজ ক্রিকেটের ট্রফিবিশেষ। ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার অনুষ্ঠিত টেস্ট ম্যাচের সিরিজ বিজয়ী দলকে ১৮৮২ সাল থেকে এ ট্রফি প্রদান করা হয়। উনবিংশ শতকের শেষদিকে ইংরেজ ক্রিকেট দল অস্ট্রেলিয়ার কাছে ওভালে পরাভূত হলে বিদ্রুপাত্মকভাবে শোক প্রকাশ করে। এ প্রেক্ষিতেই ধারাবাহিকভাবে ইংরেজরা একটি ছাইপূর্ণ পাত্র উপস্থাপন করে যা পরবর্তীতে ট্রফির মর্যাদা লাভ করে।


বিস্তারিত

সম্পাদনা 

সংবাদ

সম্পাদনা 

নির্বাচিত চিত্র

ICC CWC 2007 team captains.jpg

২০০৭ ক্রিকেট বিশ্বকাপে ষোলটি দেশের অধিনায়ক একসঙ্গে জড়ো হয়েছেন।

সম্পাদনা 

আপনি জানেন কি..

সম্পাদনা 

নির্বাচিত তালিকা

একজন খেলোয়াড় তার অভিষেক টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচে ব্যাটিং করে সেঞ্চুরি (১০০ রান বা তার বেশি) করেছেন, এই ঘটনা এই পর্যন্ত ৯৭ বার করেছেন ঘটেছে। চার্লস ব্যানারম্যান সর্বপ্রথম এই কীর্তির অধিকারী যিনি মার্চ ১৮৭৭ সালে টেস্ট ইতিহাসের সর্বপ্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৬৫* রান করে এই কীর্তি গড়েন।

নং রান ব্যাটসম্যান দল বিপক্ষ ইনিংস টেস্ট মাঠ তারিখ
১৬৫* চার্লস ব্যানারম্যান  অস্ট্রেলিয়া  ইংল্যান্ড ১ম ১ম মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড ১৫ মার্চ ১৮৭৭
১৫২ উইলিয়াম গিলবার্ট গ্রেস  ইংল্যান্ড  অস্ট্রেলিয়া ১ম ১ম ওভাল, লন্ডন ৬ সেপ্টেম্বর ১৮৮০
১০৭ হ্যারি গ্রাহাম  অস্ট্রেলিয়া  ইংল্যান্ড ২য় ১ম লর্ডস, লন্ডন ১৭ জুলাই ১৮৯৩
১৫৪* কুমার শ্রী রঞ্জিতসিংজী  ইংল্যান্ড  অস্ট্রেলিয়া ৩য় ২য় ওল্ড ট্রাফোর্ড, ম্যানচেস্টার ১৬ জুলাই ১৮৯৬
১৩২* পেলহাম ওয়ার্নার  ইংল্যান্ড  দক্ষিণ আফ্রিকা ৩য় ১ম ওল্ড ওয়ান্ডারস, জোহেন্সবার্গ ১৪ ফেব্রুয়ারি ১৮৯৯

বিস্তারিত...

সম্পাদনা 

আইসিসি র‌্যাঙ্কিং

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। তারা নিয়মিত র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করে থাকে।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ
অবস্থান দলের নাম খেলার সংখ্যা পয়েন্ট রেটিং
 ভারত ২৪ ২,৯১৪ ১২১
 নিউজিল্যান্ড ১৮ ২,১৬৬ ১২০
 ইংল্যান্ড ৩২ ৩,৪৯৩ ১০৯
 অস্ট্রেলিয়া ১৭ ১,৮৪৪ ১০৮
 পাকিস্তান ২৪ ২,২৪৭ ৯৪
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২৪ ২,০২৪ ৮৪
 দক্ষিণ আফ্রিকা ১৬ ১,২৭৩ ৮০
 শ্রীলঙ্কা ২৭ ২,০৯৫ ৭৮
 বাংলাদেশ ১৫ ৬৯৪ ৪৬
১০  জিম্বাবুয়ে ১০ ৩৪৬ ৩৫
সূত্র: ক্রিকইনফো র‍্যাঙ্কিং, আইসিসি র‌্যাঙ্কিং, ১৩ মে, ২০২১
সর্বশেষ হালনাগাদ: ১৬ মে ২০২১


আইসিসি ওডিআই চ্যাম্পিয়নশীপ র‌্যাঙ্কিং
অবস্থান দলের নাম খেলার সংখ্যা পয়েন্ট রেটিং
 নিউজিল্যান্ড ১৭ ২,০৫৪ ১২১
 অস্ট্রেলিয়া ২৫ ২,৯৪৫ ১১৮
 ভারত ২৯ ৩,৩৪৪ ১১৫
 ইংল্যান্ড ২৭ ৩,১০০ ১১৫
 দক্ষিণ আফ্রিকা ২০ ২,১৩৭ ১০৭
 পাকিস্তান ২৪ ২,৩২৩ ৯৭
 বাংলাদেশ ২৪ ২,১৫৭ ৯০
 ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২৭ ২,২২২ ৮২
 শ্রীলঙ্কা ২১ ১,৬৫২ ৭৯
১০  আফগানিস্তান ১৭ ১,০৫৪ ৬২
১১  নেদারল্যান্ডস ৯৯ ৫০
১২  আয়ারল্যান্ড ১৮ ৮১৮ ৪৫
১৩  জিম্বাবুয়ে ১৫ ৫৮৮ ৩৯
১৪  ওমান ২৪০ ৩৪
১৫  স্কটল্যান্ড ১৪৮ ৩০
১৬    নেপাল ১১৯ ২৪
১৭  সংযুক্ত আরব আমিরাত ১৯০ ২১
১৮  নামিবিয়া ৯৭ ১৬
১৯  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৯৩ ১২
২০  পাপুয়া নিউগিনি
তথ্যসূত্র: আইসিসি ওডিআই র‌্যাঙ্কিং, ইএসপিএনক্রিকইনফো র‌্যাঙ্কিং ৩ মে, ২০২১
সর্বশেষ হালনাগাদ: ১৬ মে ২০২১
আইসিসি টি২০আই চ্যাম্পিয়নশীপ
র‌্যাঙ্ক দলের নাম খেলার সংখ্যা পয়েন্ট রেটিং
 ইংল্যান্ড ২২ ৬,০৮৮ ২৭৭
 ভারত ২৫ ৬,৮১১ ২৭২
 নিউজিল্যান্ড ২৩ ৬,০৪৮ ২৬৩
 পাকিস্তান ৩০ ৭,৮১৮ ২৬১
 অস্ট্রেলিয়া ২৩ ৫,৯৩০ ২৫৮
 দক্ষিণ আফ্রিকা ১৯ ৪,৭০৩ ২৪৮
 আফগানিস্তান ১২ ২,৮২৬ ২৩৬
 শ্রীলঙ্কা ১৩ ২,৯৫৭ ২২৭
 বাংলাদেশ ১৩ ২,৯২১ ২২৫
১০  ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৮ ৩,৯৯২ ২২২
১১  জিম্বাবুয়ে ১৯ ৩,৬২৮ ১৯১
১২  আয়ারল্যান্ড ১৮ ৩,৩৮৮ ১৮৮
১৩    নেপাল ১৯ ৩,৫৫৬ ১৮৭
১৪  স্কটল্যান্ড ১১ ২,০৩৫ ১৮৫
১৫  সংযুক্ত আরব আমিরাত ১১ ২,০২৩ ১৮৪
১৬  পাপুয়া নিউগিনি ১৪ ২,৫০১ ১৭৯
১৭  নেদারল্যান্ডস ২০ ৩,৫০৪ ১৭৫
১৮  ওমান ১০ ১,৭৩২ ১৭৩
১৯  নামিবিয়া ১৪ ২,২০৪ ১৫৭
২০  সিঙ্গাপুর ১২ ১,৬৭৮ ১৪০
২১  কাতার ১১ ১,৪২২ ১২৯
২২  কানাডা ১০ ১,২৬৩ ১২৬
২৩  হংকং ১৩ ১,৫৭২ ১২১
২৪  জার্সি ১৩ ১,৪৮১ ১১৪
২৫  কেনিয়া ৮৯৪ ১১২
২৬  ইতালি ৬৬৩ ১১১
২৭  কুয়েত ৮৬৬ ১০৮
২৮  সৌদি আরব ৪২৮ ১০৭
২৯  ডেনমার্ক ৬০৬ ১০১
৩০  বারমুডা ৫৬৮ ৯৫
৩১  মালয়েশিয়া ২০ ১,৭২৩ ৮৬
৩২  উগান্ডা ১০ ৮৪৭ ৮৫
৩৩  জার্মানি ৭৫৯ ৮৪
৩৪  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৬৪৪ ৮১
৩৫  বতসোয়ানা ১০ ৭৮৬ ৭৯
৩৬  নাইজেরিয়া ৩৭৫ ৭৫
৩৭  গার্নসি ৬৪৫ ৭২
৩৮  নরওয়ে ৩৫৫ ৭১
৩৯  অস্ট্রিয়া ৪২১ ৭০
৪০  স্পেন ৪৫৭ ৫৭
৪১  বাহরাইন ২২৭ ৫৭
৪২  রোমানিয়া ৪৫৩ ৫৭
৪৩  বেলজিয়াম ৫০২ ৫৬
৪৪  তানজানিয়া ১৬৭ ৫৬
৪৫  ফিলিপাইন ২৪১ ৪৮
৪৬  মেক্সিকো ৩১৩ ৪৫
৪৭  কেইম্যান দ্বীপপুঞ্জ ১৩২ ৪৪
৪৮  ভানুয়াতু ১০ ৪৩৫ ৪৪
৪৯  বেলিজ ২০৯ ৪২
৫০  আর্জেন্টিনা ২০৬ ৪১
৫১  পেরু ১৭৯ ৩৬
৫২  ফিজি ১০৫ ৩৫
৫৩  মালাউই ৩১২ ৩৫
৫৪  পানামা ১৬২ ৩২
৫৫  সামোয়া ১৫৯ ৩২
৫৬  কোস্টা রিকা ১২৬ ৩২
৫৭  জাপান ১২৬ ৩২
৫৮  মাল্টা ২১৪ ৩১
৫৯  থাইল্যান্ড ১৭৫ ২৫
৬০  পর্তুগাল ১১৯ ২৪
৬১  চেক প্রজাতন্ত্র ১২ ২৮৫ ২৪
৬২  লুক্সেমবুর্গ ১৮৭ ২৩
৬৩  ফিনল্যান্ড ১০৬ ২১
৬৪  দক্ষিণ কোরিয়া ৭৮ ২০
৬৫  মোজাম্বিক ১৭৫ ১৯
৬৬  আইল অব ম্যান ৭৭ ১৯
৬৭  বুলগেরিয়া ১৫৯ ১৮
৬৮  ভুটান ৪৭ ১২
৬৯  মালদ্বীপ ৬৫
৭০  সেন্ট হেলেনা ৫৫
৭১  ব্রাজিল ৩৯
৭২  চিলি ১৯
৭৩  জিব্রাল্টার ১৩
৭৪  মিয়ানমার
৭৫  চীন
৭৬  তুরস্ক
৭৭  ইসোয়াতিনি
৭৮  রুয়ান্ডা
৭৯  লেসোথো
৮০  ইন্দোনেশিয়া
তথ্যসূত্র: আইসিসি র‌্যাঙ্কিং, ক্রিকইনফো র‍্যাঙ্কিং, ৩ মে ২০২১
সম্পাদনা 

বিষয়শ্রেণী

সম্পাদনা 

উইকিমিডিয়া

Wikinews-logo.svg
উইকিসংবাদে ক্রিকেট
উন্মুক্ত সংবাদ উৎস

Wikiquote-logo.svg
উইকিউক্তিতে ক্রিকেট
উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন

Wikisource-logo.svg
উইকিসংকলনে ক্রিকেট
উন্মুক্ত পাঠাগার

Wikibooks-logo.png
উইকিবইয়ে ক্রিকেট
উন্মুক্ত পাঠ্যপুস্তক ও ম্যানুয়াল

Wikiversity-logo.svg
উইকিবিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রিকেট
উন্মুক্ত শিক্ষা মাধ্যম

Commons-logo.svg
উইকিমিডিয়া কমন্সে ক্রিকেট
মুক্ত মিডিয়া ভাণ্ডার

Wiktprintable without text.svg
উইকিঅভিধানে ক্রিকেট
অভিধান ও সমার্থশব্দকোষ

Wikidata-logo.svg
উইকিউপাত্তে ক্রিকেট
উন্মুক্ত জ্ঞানভান্ডার

Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg
উইকিভ্রমণে ক্রিকেট
উন্মুক্ত ভ্রমণ নির্দেশিকা

ক্যাশ পরিস্কার করুন