মুহাম্মদ ইবনে আবদুল ওয়াহাব

অষ্টাদশ শতাব্দীর মুসলিম পন্ডিত

মুহাম্মদ ইবন আব্দ আল-ওয়াহাব (আরবি: محمد بن عبد الوهاب‎‎; ১৭০০ - ২২ জুন ১৭৯২)[২] ছিলেন একজন মুসলিম পন্ডিত। তিনি সেসময়ে আরবে প্রচলিত কবর পুজা, কবরে সিজদাহ করা ও বিভিন্ন প্রকারের কুসংস্কার, শিরক, বিদ‘আতের প্রতিবাদ করেছেন।[৩] তার বিরোধীরা তার আন্দোলনকে ওয়াহাবী আন্দোলন নামে নামকরণ করেছে। বিশেষত সেসময়ের তুর্কী খলীফা এ আন্দোলনের বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচার চালান।[৩] প্রাক্তন সৌদি বাদশাহ মুহাম্মদ বিন সৌদের সাথে মুহাম্মদ বিন আব্দুল ওয়াহহাবএর চুক্তি বর্তমান সৌদি রাষ্ট্র গঠনের জন্য সহায়ক হয়েছিল। তার উত্তরসূরী আল আশ শাঈখ ঐতিহাসিকভাবে দীর্ঘদিন ধরে সৌদি আরব রাষ্ট্রের ওলামাদেরকে পরিচালনা করেছেন। বর্তমান সালাফি আলেমগণ তাকে এবং তার দেওয়া তথ্যসূত্রকে অধিক গ্রহণযোগ্য হিসেবে গ্রহণ করে থাকেন।

মুহাম্মদ ইবনে আব্দুল ওয়াহহাব
محمد بن عبد الوهاب.png
জন্ম১৭০০
মৃত্যু১৭৯২ (বয়স ৯১–৯২)
একাডেমিক পটভূমি
যার দ্বারা প্রভাবিতইবনে তাইমিয়া
মোহাম্মাদ হায়াত আস-সিন্ধী
ইবনে কাইয়িম
একাডেমিক কর্ম
যুগ১৮তম শতকে
বিদ্যালয় বা ঐতিহ্যওয়াহাবী আন্দোলন[১]
উল্লেখযোগ্য ধারণাইসলামের মধ্যে প্রবর্তিত (বিদআত), ইসলামী একেশ্বরবাদ (তাওহিদ) এবং বহুদেববাদ (শিরক)
যাদের প্রভাবিত করেনআব্দুল আজিজ ইবনে বায
মুহাম্মাদ ইবনে আল উসায়মীন
মুহাম্মদ নাসিরুদ্দীন আল-আলবানী
সায়্যেদ আহমেদ খান

রচিত গ্রন্থসমূহসম্পাদনা

  • কিতাবুত তাওহীদঃ আকিদাহ বিষয়ক একটি প্রসিদ্ধ পুস্তক। এই গ্রন্থের অনেকগুলো ব্যাখ্যা রচনা করেছেন পরবর্তীকালের উলামায়ে কেরাম। এর মধ্যে বিখ্যাত ২ টি ব্যাখ্যা হচ্ছেঃ আহমাদ ইবনু হুসাইনের আল দুররুন নাদীদ; এবং শায়খ সুলাইমানের ফাতহুল মাজিদ ফি শারহে কিতাবুত তাওহীদ।
  • কাশফুশ শুবুহাতঃ এই গ্রন্থটিও বহু ভাষায় অনূদিত হয়েছে। এটাও তাওহীদ সংক্রান্ত বই। বাংলায় এর একাধিক অনুবাদ হয়েছে, "সংশয় নিরসন" নামে। বিখ্যাত অ্যামেরিকান স্কলার ডঃ ইয়াসির কাযী এর একটা ব্যাখ্যা ইংরেজিতে রচনা করেছেন।
  • আল-উসুলুস ছালাছাহ ওয়া আদিল্লাতুহাঃ (তিনটি মৌলনীতি ও এর প্রমাণাদি) তিনটি আবশ্যকীয় জ্ঞান যা অর্জন করা প্রত্যেক মানুষের জন্য জরুরি, সেই বিষয়ের ওপর রচিত হয়েছে এ গ্রন্থ।
  • শুরুতুস সালাহ ওয়া আরকানুহাঃ ছালাতের শর্ত ও রোকন গুলোর বিস্তারিত বিবরণ দিয়ে লেখা হয়েছে এ বইটি।
  • আল-কাওয়াঈদ আল-আরবা'আহঃ চারটি মূলনীতি নিয়ে এই গ্রন্থ রচিত।
  • উসুলুল ঈমানঃ ঈমানের মূলনীতি বিষয়ক গ্রন্থ।
  • কিতাব ফযলিল ইসলাম
  • কিতাবুল কাবায়িরঃ (কবিরা গুনাহ সমূহ)
  • নসীহাতুল মুসলিমীনঃ (মুসলিমদের প্রতি উপদেশ)
  • ছিত্তাতু মাওয়াযি' মিনাস সীরাহ
  • তাফসীরুল ফাতিহাহ
  • মাসায়েলুল জাহিলিয়্যাহ
  • তাফসীরুশ শাহাদাহ
  • কিতাবুস সীরাহ (সিরাত গ্রন্থ)
  • আল-হাদীয়ুন নববী
  • মুখতাসারু ফাতহিল বারীঃ ইবনে হাজার আস্কলানি রহঃ রচিত সহীহ আল-বুখারির প্রসিদ্ধ শরাহ (ব্যাখ্যাগ্রন্থ) ফাতহুল বারীর সারসংক্ষেপ।
  • মুখতাসারুল শারহুল কাবীর
  • ফাযায়েলুল কু'আন
  • মুখতাসারুল মিনহাজ
  • মুখতাসারুল ইনসাফ
  • মুফিদুল মুসতাফিদ
  • আহাদীছুল ফিতান
  • মুখতাসারুস সাওয়ায়িক
  • আদাবুল মাশই ইলাস সালাত
  • আল রাদ্দ 'আলাল রাফিদা
  • আল-উসুলুস সিত্তাহ
  • মুখতাসার আস-সীরাতুর রাসূল
  • মুখতাসার আল-ঈমান

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. The Salafis consider themselves to be 'non-imitators' or 'not attached to tradition', and therefore answerable to no school of law at all, observing instead what they would call the practice of early Islam. However, to do so does correspond to the ideal aimed at by Ibn Hanbal, and thus they can be said to be of his 'school'. Glassé 2003: 407
  2. "Wahabi & Salafi"। Alahazrat.net। ২২ সেপ্টেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১২ 
  3. https://www.hadithbd.com/qaext.php?qa=6889