প্রধান মেনু খুলুন

ব্রজমোহন কলেজ

বাংলাদেশের বরিশাল শহরে অবস্থিত প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

ব্রজমোহন কলেজ বা বি.এম কলেজ বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ও প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এটি বাংলাদেশের দক্ষিণাংশে বরিশাল শহরে অবস্থিত। ১৮৮৯ সালে প্রখ্যাত সমাজসেবক, রাজনীতিবিদ ও শিক্ষানুরাগী অশ্বিনীকুমার দত্ত কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। তখন কলেজটি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিভুক্ত ছিল। সেসময়ে এ কলেজের মান এতই উন্নত ছিল যে অনেকে একে দক্ষিণ বাংলার অক্সফোর্ড বলে আখ্যায়িত করেন। [১] ১৯৬৫ সালে কলেজটির জাতীয়করণ করা হয় ও বর্তমানে কলেজটি বাংলাদেশ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিভুক্ত। কলেজটিতে স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীতে ২২টি বিষয়ে ও স্নাতকোত্তর শ্রেণীতে ১৯টি বিষয়ে পাঠদান করে থাকে।কলেজে ছাত্রদের জন্য ৩টি (মুসলিম হোস্টেল, মহাত্মা অশ্বিনীকুমার হোস্টেল, কবি জীবনানন্দ দাশ হিন্দু হোস্টেল) এবং মেয়েদের জন্য চারতলা ভবনের ১টি হোস্টেল (বনমালী গাঙ্গুলী মহিলা হোস্টেল) রয়েছে। কলেজের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে মোট বইয়ের সংখ্যা ৪০,০০০। এখানে ১টি বাণিজ্য ভবন, ২টি কলা ভবন, একটি অডিটোরিয়াম, ৪টি বিজ্ঞান ভবন ও ৩টি খেলার মাঠ রয়েছে। এছাড়া দুই প্রান্তে দুটি দিঘি কলেজের সৌন্দর্যকে করে তুলেছে মনোমুগ্ধকর

ব্রজমোহন কলেজ
সরকারি বি এম কলেজ, বরিশাল.png
নীতিবাক্যসত্য, প্রেম ও পবিত্রতা
ধরনসরকারি কলেজ
স্থাপিত১৮৮৯
অধ্যক্ষঅধ্যাপক মোঃ শফিকুর রহমান সিকদার
শিক্ষার্থী২৭০০০ (প্রায়)
অবস্থান,
শিক্ষাঙ্গনশহরে (৬০ একর)
সংক্ষিপ্ত নামবিএম কলেজ
অধিভুক্তিবাংলাদেশ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
ওয়েবসাইটঅফিসিয়াল ওয়েবসাইট

পরিচ্ছেদসমূহ

ইতিহাসসম্পাদনা

 
ব্রজমোহন কলেজ, প্রধান ভবন

শিক্ষা কার্যক্রমসম্পাদনা

অবকাঠামোসম্পাদনা

প্রশাসনসম্পাদনা

কলেজ ভবনসম্পাদনা

ছাত্রাবাসসম্পাদনা

গ্রন্থাগারসম্পাদনা

সংগঠনসম্পাদনা

শিক্ষা-সহায়ক কার্যক্রমসম্পাদনা

  • বাংলাদেশ রোভার স্কাউট
  • বাংলাদেশ জাতীয় ক্যাডেট কোর (সুন্দরবন রেজিমেন্ট)

উল্লেখযোগ্য প্রাক্তন শিক্ষার্থীসম্পাদনা

চিত্রমালাসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা