এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ

বাংলাদেশের ১৭তম সেনাপ্রধান

এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ (জন্ম: ১ ডিসেম্বর ১৯৬৩)[১] বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একজন জেনারেল। তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সেনাপ্রধান হিসেবে নিয়োগপত্র লাভ করেন, যা ২৪ জুন ২০২১ থেকে পরবর্তী ৩ বছরের জন্য কার্যকর হয়।[৩][৪][৫] তিনি ১৭তম সেনাপ্রধান হিসেবে জেনারেল আজিজ আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হন।


এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ
এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ.jpg
১৭তম সেনাবাহিনী প্রধান
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২৪ জুন ২০২১
রাষ্ট্রপতিআব্দুল হামিদ
প্রধানমন্ত্রীশেখ হাসিনা
পূর্বসূরীআজিজ আহমেদ
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1963-12-01) ১ ডিসেম্বর ১৯৬৩ (বয়স ৫৮)
খুলনা, পূর্ব পাকিস্তান, পাকিস্তান
(বর্তমানে খুলনা, বাংলাদেশ)[১][২]
জাতীয়তাবাংলাদেশী
সন্তানদুই কন্যা
প্রাক্তন শিক্ষার্থী
সামরিক পরিষেবা
আনুগত্য বাংলাদেশ
শাখা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
কাজের মেয়াদ১৯৮৩ - বর্তমান
পদBangladesh-army-OF-9.svg Four star.jpg জেনারেল
ইউনিটইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট (পদাতিক কোর)
কমান্ড• কোয়ার্টারমাস্টার জেনারেল - বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
জিওসি - অ্যার্টডক
জিওসি - ১৯ পদাতিক ডিভিশন
জিওসি - লজিস্টিকস এরিয়া
• কমান্ডার - ৫২ পদাতিক ব্রিগেড
রেজিমেন্টের কর্নেল - ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট & বাংলাদেশ ইনফ্যান্ট্রি রেজিমেন্ট (বীর)
• কর্নেল কমান্ড্যান্ট - মিলিটারি পুলিশ কোর
• মহাপরিচালক (ডিজি) - বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল এন্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ
• সিনিয়র ডিরেক্টরিং স্টাফ (এসডিএস) - জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজ
• ডেপুটি ফোর্স কমান্ডার - মধ্য অফ্রিকান প্রজাতন্ত্র (মিনুসকা)
যুদ্ধমোজাম্বিকে জাতিসংঘের কার্যক্রম (ওএনউএমওজেড), মধ্য অফ্রিকান প্রজাতন্ত্র এ জাতিসংঘের কার্যক্রম (মিনুসকা)

এর আগে তিনি কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) হিসেবে সেনাসদরে, আর্মি ট্রেনিং অ্যান্ড ডকট্রিন কমান্ডের (অ্যার্টডক) জিওসি হিসেবে ও আর্মি গল্‌ফ ক্লাবের প্রেসিডেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন।[৬]

জন্ম ও শিক্ষাজীবনসম্পাদনা

এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ১ ডিসেম্বর ১৯৬৩ সালে খুলনার একটি স্বনামধন্য মুসলিম ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।[২] তার পিতা মরহুম শেখ মোহাম্মদ রোকন উদ্দিন আহমেদ ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা, অধ্যাপক এবং সমাজকর্মী।

শফিউদ্দিন আহমেদ ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজের প্রাক্তন ছাত্র।[৭] শফিউদ্দিন আহমেদ দেশে এবং বিদেশে বেশ কয়েকটি সামরিক কোর্সে অংশ নিয়েছেন। তিনি সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি), মিরপুর, বাংলাদেশের স্নাতক। তিনি পিএলএ জাতীয় প্রতিরক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টারন্যাশনাল সিম্পোজিয়াম কোর্স এবং একই বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিফেন্স অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ কোর্সে অংশ নেন। তিনি জাতীয় প্রতিরক্ষা বিশ্ববিদ্যালয়, ওয়াশিংটন ডিসি থেকে নেন স্নাতক। তিনি বিভিন্ন শাখায় তিনটি মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) থেকে সিকিউরিটি স্টাডিজের উন্নয়নে প্রথম শ্রেণীর সাথে এমফিল ডিগ্রি লাভ করেন এবং একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডিতে অধ্যয়নরত। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়,বাংলাদেশ থেকে ডিফেন্স স্টাডিজ (এমডিএস) এ মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এমবিএ) ডিগ্রি অর্জন করেছেন, যেখানে তিনি প্রথম স্থান অর্জন করেছিলেন এবং এমআইএসটি স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন।[৩] তিনি ২৮ আগস্ট ২০২১ সালে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) থেকে ডেভেলপমেন্ট অব সিকিউরিটি স্টাডিজ বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।[৮]

কর্মজীবনসম্পাদনা

এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ২৩ ডিসেম্বর ১৯৮৩ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ৪র্থ ব্যাটালিয়নের আওতাধীন, নবম বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমি দীর্ঘমেয়াদি কোর্সে পদাতিক কোরে কমিশন লাভ করেন। কমিশন পরবর্তী তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামে কাউন্টার ইনসার্জেন্সি অপারেশন এলাকায় ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে যোগদান পূর্বক তাঁর সামরিক কর্মজীবন শুরু করেন।[৯] তিনি বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমির ১ম বাংলাদেশ ব্যাটালিয়নে ব্যাটালিয়ন কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং একটি পদাতিক ব্রিগেডের কমান্ডার ছিলেন। তিনি সেনাবাহিনী সদরদপ্তরের জেনারেল স্টাফ শাখায়, সামরিক প্রশিক্ষণ পরিদপ্তরে সামরিক প্রশিক্ষণের পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ২০১২ সালে ১৯তম পদাতিক ডিভিশন ও ঘাটইল এলাকার জেনারেল অফিসার কমান্ডিং ও অঞ্চলিক কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।[১০]

তিনি ২০২০ সালের অক্টোবরে সেনাবাহিনীর কোর অব মিলিটারি পুলিশের ৬ষ্ঠ কর্নেল কমান্ড্যান্ট হিসাবে অভিষিক্ত হন। সাভার সেনানিবাসে কোর অব মিলিটারি পুলিশ সেন্টার অ্যান্ড স্কুলে (সিএমপিসিঅ্যান্ডএস) তিনি ‘৬ষ্ঠ কর্নেল কমান্ড্যান্ট’ হিসাবে অভিষিক্ত হন। সেনাবাহিনীর প্রচলিত রীতি অনুযায়ী একজন সিনিয়র অফিসারের প্রতি গভীর ও আন্তরিক শ্রদ্ধা নিবেদন করে পিতৃসুলভ অভিভাবকের আসনে ‘কর্নেল কমান্ড্যান্ট’ উপাধি দিয়ে অভিষিক্ত করা হয়ে থাকে।

তিনি বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্যাটেজিক স্টাডিজের (বিআইআইএসএস) মহাপরিচালক এবং জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের সিনিয়র ডাইরেক্টিং স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

জাতিসংঘ মিশনসম্পাদনা

এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ মধ্য অফ্রিকান প্রজাতন্ত্র এ জাতিসংঘের কার্যক্রম (মিনুসকা) এর ডেপুটি ফোর্স কমান্ডার হিসেবে ২০১৪-২০১৬ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন এবং অসাধারণ পারফরম্যান্সের জন্য এসআরএসজি কর্তৃক উদ্ধৃতি পেয়েছে।।[১১][১২] মোজাম্বিকে ইউএনএসসি এর অধীনে, তিনি ১৯৯৩-১৯৯৪ পর্যন্ত ইউএনএসসি মিশন এ দায়িত্ব পালন করেন।

সেনাপ্রধান হিসেবেসম্পাদনা

৩০ ডিসেম্বর, ২০২০ তারিখ এ, আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে যে, লেফট্যানেন্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ কোয়ার্টারমাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। পরে, ১০ জুন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কোয়ার্টারমাস্টার জেনারেল (কিউএমজি) লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে আগামী তিন বছরের জন্য সেনাবাহিনীর নতুন প্রধান হিসেবে মনোনীত করা হয়, যা ২৪ জুন ২০২১ থেকে কার্যকর হবে।

নবনিযুক্ত সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদকে ২৪ জুন ২০২১ তারিখ সকালে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে জেনারেল পদমর্যাদার ব্যাজ পরানো হয়। নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ শাহীন ইকবাল এবং বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান জেনারেল পদমর্যাদার ব্যাজ দিয়ে নতুন সেনাপ্রধানকে ভূষিত করেন।

বর্তমানে, জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৭তম সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী, বাংলাদেশ ডিজেল প্ল্যান্ট লিমিটেড, ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড, আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এবং সেনা কল্যাণ সংস্থার ট্রাস্টি বোর্ডের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যানও। তিনি বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ গল্ফ ফেডারেশনের নির্বাহী কমিটির সভাপতি। তিনি কুর্মিটোলা গল্ফ ক্লাবের নির্বাহী কমিটির সভাপতির দায়িত্বও পালন করছেন। তিনি জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের এবং সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ, মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির গভর্নিং বডির ভাইস চেয়ারম্যান।[১৩]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ ব্যক্তিজীবনে নূরজাহান আহমেদের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এই দম্পতির দুই কন্যা রয়েছে।[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "New Chief of Army Staff biography"ডেইলি সান (ঢাকা)। ২৫ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২১ 
  2. "Chief of Army Staff"Bangladesh Army। ২৪ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২১ 
  3. "এক নজরে নতুন সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ"যমুনা টিভি। ১০ জুন ২০২১। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুন ২০২১ 
  4. "লে. জেনারেল হলেন শফিউদ্দিন আহমেদ"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৯ 
  5. "মেজর জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ এর লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে পদোন্নতি লাভ"আইএসপিআর। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৯ 
  6. "লেফটেন্যান্ট জেনারেল হলেন এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ"বাংলা ট্রিবিউন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৯ 
  7. "Lt Gen SM Shafiuddin Ahmed made new chief of Bangladesh Army"। New Age Ltd.। 
  8. "সেনানিবাসে কর্মব্যস্ত সময় পার করেছেন সেনাবাহিনী প্রধান"আইএসপিআর। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  9. "নবনিযুক্ত সেনাবাহিনী প্রধানের দায়িত্বভার গ্রহণ"আইএসপিআর। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০২১ 
  10. "লে. জেনারেল হলেন এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ"দৈনিক নয়াদিগন্ত। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৯ 
  11. মেজর জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ এর লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে পদোন্নতি লাভআইএসপিআর। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-২৯ 
  12. "লেফটেন্যান্ট জেনারেল হলেন শফিউদ্দিন আহমেদ"dailyjagaran.com। ২৬ আগস্ট ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১৯ 
  13. "Chief of Army Staff - Bangladesh Army"www.army.mil.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২৬ 
সামরিক দপ্তর
পূর্বসূরী
আজিজ আহমেদ
বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান
২৪ জুন ২০২১ – বর্তমান
উত্তরসূরী
দায়িত্বাধীন