আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর বা আইএসপিআর হল বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর মিডিয়া ও সংবাদ সংস্থা। এটি দেশের প্রচার মাধ্যম ও সাধারণ জনগণের কাছে সামরিক সংবাদ ও তথ্য প্রচার করে। এই পরিদপ্তরটি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর
আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের লোগো.png
সংক্ষেপেআইএসপিআর
গঠিত১৯৭২
ধরনসামরিক সংস্থা
আইনি অবস্থাসক্রিয়
উদ্দেশ্যবেসামরিক-সামরিক সম্পর্ক
সদরদপ্তরঢাকা সেনানিবাস
যে অঞ্চলে
বাংলাদেশ
দাপ্তরিক ভাষা
বাংলা
ইংরেজি
পরিচালক
লে. ক. আবদুল্লাহ ইবনে জায়েদ
প্রধান প্রতিষ্ঠান
বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী
ওয়েবসাইটwww.ispr.gov.bd

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৭২ সালে সশস্ত্র বাহিনী এবং অন্যান্য আন্তঃবাহিনী সংস্থার প্রচার ও জনসংযোগ কাজ পরিচালনার জন্য রাষ্ট্রপতির আদেশবলে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর প্রতিষ্ঠিত হয়।[১] প্রথমে পুরাতন হাইকোর্ট ভবন এলাকায় অবস্থিত প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অফিস ভবনের সাথে ছোট একটি অংশে ৩৭ জন জনবল নিয়ে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের অফিস স্থাপন করা হয়। এটির প্রথম পরিচালক হন যাহিদ হোসেন।[১]

এটির কর্মপরিধি বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে ১৯৭৭ সালে জনবল বৃদ্ধি করে ৫৬ জন করা হয় ও দপ্তরটির সাংগঠনিক কাঠামো পুনর্গঠন করা হয়। পরে ১৯৮২ সালে প্রধান সামরিক আইন প্রশাসকের সচিবালয় থেকে জারিকৃত আদেশের মাধ্যমে এই পরিদপ্তরের সাংগঠনিক কাঠামো পুনঃবিন্যাস করা হয় ও দপ্তরটির জনবল হ্রাস করে ৩৩ জনে আনা হয়।[১]

১৯৯৩ সালে পুরাতন হাইকোর্ট ভবন থেকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অফিস গণভবন কমপ্লেক্সে স্থানান্তর করা হলে এই পরিদপ্তরের অফিসও গণভবনে আনা হয়। পরে আরো দুইবার পরিদপ্তরের অফিসস্থান পরিবর্তন হয়। ২০০৪ সালে এর অফিস অস্থায়ীভাবে পুরাতন লগ এরিয়া সদরদপ্তররের দোতলায় স্থানান্তরিত করা হয় ও বর্তমানে এই অবস্থান থেকে এটি এর কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

কাজসম্পাদনা

সকল গণমাধ্যমের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে, সশস্ত্র বাহিনী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সংস্থাসমূহের যাবতীয় কার্যক্রমের প্রচারণা ও জনসংযোগের কার্যক্রম পরিচালনা করা।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ইতিহাস"www.ispr.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৯