প্রধান মেনু খুলুন

সিউড়ি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বীরভূম জেলার একটি শহর ও পৌরসভা এলাকা। সিউড়ী শহরটি বৃটিশ আমলে তৈরি। এই শহরটি ছোটনাগপুর মালভূমির সম্প্রসারিত অংশে স্থিত। সমুদ্রপৃষ্ঠ হইতে উচ্চতা প্রায় ২৩৩ ফুট।[১]

Siuri
সিউড়ি
Siuri
শহর
Siuri পশ্চিমবঙ্গ-এ অবস্থিত
Siuri
Siuri
Location in West Bengal, India
স্থানাঙ্ক: ২৩°৫৫′০০″ উত্তর ৮৭°৩২′০০″ পূর্ব / ২৩.৯১৬৭° উত্তর ৮৭.৫৩৩৩° পূর্ব / 23.9167; 87.5333স্থানাঙ্ক: ২৩°৫৫′০০″ উত্তর ৮৭°৩২′০০″ পূর্ব / ২৩.৯১৬৭° উত্তর ৮৭.৫৩৩৩° পূর্ব / 23.9167; 87.5333
দেশ ভারত
রাজ্যপশ্চিমবঙ্গ
জেলাবীরভূম
উচ্চতা৭১ মিটার (২৩৩ ফুট)
জনসংখ্যা (২০০১)
 • মোট৭৯,৮১৮
ভাষাসমূহ
 • সরকারীবাংলাইংরেজি
সময় অঞ্চলIST (ইউটিসি+5:30)
PIN731101
টেলিফোন কোড91 3462
যানবাহন নিবন্ধনWB 54
লোকসভা আসনবীরভূম
বিধানসভা আসনসিউড়ি
ওয়েবসাইটbirbhum.nic.in

নামকরণসম্পাদনা

বীরবভূম জেলা সদর তথা শতাব্দী প্রাচীন শহর হল সিউড়ি। এই শহরের নামের দু’ধরণের বানান চোখে পড়ে। জেলা প্রশাসনিক ভবন, পুরভবন, শতাব্দী প্রাচীন জেলা স্কুল, গ্রন্থাগার থেকে শুরু করে বহু জায়গায় রয়েছে ‘সিউড়ী’ বানান। টেলি যোগাযোগ সংস্থার অফিস, পত্রপত্রিকা, বিভিন্ন দোকানপাটে শহরের বানান লেখা ‘সিউড়ি’। অনেক গবেষকের মতে সিউড়ি নামের উৎপত্তির ইতিহাসে আছে এর রহস্য। গৌরীহর মিত্র ‘বীরভূমের ইতিহাস’ গ্রন্থে লিখছেন ‘‘বীরভূমের রাজধানী সিউড়ী, শূরী (বা শৌর্য্যশালী) শব্দের অপভ্রংশ। তাই ইংরেজিতে সিউড়ি-র বানান শূরী (suri) লেখা হয়।’’ বীরভূমে এক সময় বৌদ্ধদের প্রভাব ছিল বলেই শিবাড়ী থেকে সিউড়ী হয়েছে। বীরভূমের ইতিহাসবিদ অর্ণব মজুমদারের মতে সিউড়ি নয়, শতাব্দী প্রচীন জনপদ হিসাবে বিখ্যাত ছিল সিউড়ির সন্নিকটস্থ কড়িধ্যা। প্রচুর সংখ্যক তন্তুবায়ী বা তাঁতি, শাঁখারি পরিবারের বাস ছিল কড়িধ্যায়। থাকতেন জমিদারেরাও। তার শিয়রে অর্থাৎ ঠিক উত্তর দিকে থাকা জনপদ সিউড়ির নাম ‘শিয়র’ থেকেই হয়েছে।[২]

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

ভারতের ২০০১ সালের আদমশুমারি অনুসারে সিউড়ি শহরের জনসংখ্যা হল ৬১,৮১৮ জন।[৩] এর মধ্যে পুরুষ ৫১% এবং নারী ৪৯%।

এখানে সাক্ষরতার হার ৭৪%। পুরুষদের মধ্যে সাক্ষরতার হার ৭৯% এবং নারীদের মধ্যে এই হার ৬৮%। সারা ভারতের সাক্ষরতার হার ৫৯.৫%, তার চাইতে সিউড়ি এর সাক্ষরতার হার বেশি।

এই শহরের জনসংখ্যার ১১% হল ৬ বছর বা তার কম বয়সী।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. সিউড়ী শহরের ইতিহাস - সুকুমার সিংহ, আশাদীপ
  2. দয়াল সেনগুপ্ত (২২ ২ আগস্ট ০১৬)। "ই না ঈ? বানান বিতর্কে সিউড়ি" (ইংরেজি ভাষায়)। আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ৭ এপ্রিল ২০১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)
  3. "ভারতের ২০০১ সালের আদমশুমারি" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০০৬