প্রধান মেনু খুলুন

মেদিনীপুর ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার একটি সদর শহর ও পৌরসভা এলাকা।এই শহরে মেদিনীপুর বিভাগের সদর দপ্তর অবস্থিত।

মেদিনীপুর
মিডনাপুর
শহর
মেদিনীপুর রেলওয়ে স্টেশন
মেদিনীপুর রেলওয়ে স্টেশন
মেদিনীপুর পশ্চিমবঙ্গ-এ অবস্থিত
মেদিনীপুর
মেদিনীপুর
ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে মেদিনীপুরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°২৫′২৬″ উত্তর ৮৭°১৯′০৮″ পূর্ব / ২২.৪২৪° উত্তর ৮৭.৩১৯° পূর্ব / 22.424; 87.319স্থানাঙ্ক: ২২°২৫′২৬″ উত্তর ৮৭°১৯′০৮″ পূর্ব / ২২.৪২৪° উত্তর ৮৭.৩১৯° পূর্ব / 22.424; 87.319
দেশ ভারত
রাজ্যপশ্চিমবঙ্গ
জেলাপশ্চিম মেদিনীপুর
সরকার
 • সংসদ সদস্যসন্ধ্যা রায়
 • চেয়ারম্যানপ্রণব বসু
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট১,৬৯,১২৭
Languages
 • Officialবাংলা, ইংরেজি
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+৫:৩০)
পিন নং৭২১১০১ এবং ৭২১১০২
টেলিফোন কোড৯১-৩২২২
যানবাহন নিবন্ধনWB-33-xxxx, WB-34-xxxx
Lok Sabha কেন্দ্রMedinipur
Vidhan Sabha কেন্দ্রMedinipur, Kharagpur
ওয়েবসাইটpaschimmedinipur.gov.in

ভৌগোলিক উপাত্তসম্পাদনা

শহরটির অবস্থানের অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ হল ২২°২৬′ উত্তর ৮৭°২০′ পূর্ব / ২২.৪৩° উত্তর ৮৭.৩৩° পূর্ব / 22.43; 87.33[১] সমূদ্র সমতল হতে এর গড় উচ্চতা হল ২৪ মিটার (৭৮ ফুট)।

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

ভারতের ২০১১ সালের আদম শুমারি অনুসারে মেদিনীপুর শহরের জনসংখ্যা হল ১৬৯,১২৭ জন।[২] এর মধ্যে পুরুষ ৮৫,৩৬২, এবং নারী ৮৩,৭৬৫।

এখানে সাক্ষরতার হার ৯১%। বিগত ২০০১ সালের আদম শুমারি আনুসারে পুরুষদের মধ্যে সাক্ষরতার হার ৮০% এবং নারীদের মধ্যে এই হার ৭১% (২০১১ সালের সম্পূর্ণ তথ্য এখন পাওয়া যাইনাই)। সারা ভারতের সাক্ষরতার হার ৬৫%, তার চাইতে মেদিনীপুর এর সাক্ষরতার হার বেশি। এই শহরের জনসংখ্যার ১০% হল ৬ বছর বা তার কম বয়সী।

১৮২১ সালে মেদিনীপুর পুরসভা গঠিত হয়। বর্তমানে তৃনমূল কংগ্রেস পুরসভা পরিচালনা করে।

মেদিনীপুরের শহরের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটসম্পাদনা

মেদিনীপুর,পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সদর শহর, স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রাণকেন্দ্র। শহরের নামটি কোথা থেকে এসেছে তা নিয়ে বিভিন্ন জন বিভিন্ন মতামত পোষন করেছেন। অনেকে মনে করেন স্থানীয় দেবী মেদিনীমাতা থেকে মেদিনীপুর নামটি এসেছে। অন্য মতটি হল খ্রি তেরো শতকে সামন্তরাজা প্রাণকরের পুত্র মেদিনীকর মেদিনীপুর প্রতিষ্ঠা করেন। তার নামানুসারেই মেদিনীপুর নামটি এসেছে। বিখ্যাত সংস্কৃত অভিধান ‘মেদিনীকোষ’ মেদিনীকরের রচনা।

মেদিনীপুর শহরের সংক্ষিপ্ত সময় সারণীসম্পাদনা


শ্রী চৈতন্য দেব মেদিনীপুর দিয়ে পুরী ভ্রমণ করেন।
১৫৯৩ খ্রীষ্টাব্দ রাজা মান সিংহ ওড়িষ্যা ও মেদিনীপুর অধিগ্রহণ করেন।মেদিনীপুর মুঘল সাম্রাজ্যের অর্ন্তরভুক্ত হয়।
১৭৬৩ খ্রীষ্টাব্দ মেদিনীপুরের ‘বড় বাজার’ গড়ে ওঠে।
১৭৭৭ খ্রীষ্টাব্দ মিঃ পিয়ারস মেদিনীপুরের প্রথম কালেকটর নিযুক্ত হন।
১৭৮৩ খ্রীষ্টাব্দ ২রা সেপ্টেম্বর মেদিনীপুর শহরকে জেলার সদর ঘোষণা করা হয়।
১৮৩৪ খ্রীষ্টাব্দ মেদিনীপুর কলিজিয়েট স্কুল স্থাপিত হয়। বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় এই বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন।
১৮৪১ খ্রীষ্টাব্দ শিব চন্দ্র দেব কর্ত্তক মেদিনীপুরে ব্রাম্ভ সমাজ প্রতিষ্ঠিত হয়।
১৮৫১ খ্রীষ্টাব্দ দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর মেদিনীপুর আসেন।
১৮৫২ খ্রীষ্টাব্দ প্রথম পাঠাগার গড়ে ওঠে যার বর্তমান নাম ‘ঋষি রাজনারায়ণ বসু স্মৃতি পাঠাগার’।
১৮৮৩ খ্রীষ্টাব্দ মেদিনীপুর মহাবিদ্যালয় স্থাপিত হয়।
১৯০২ খ্রীষ্টাব্দ অরবিন্দ ঘোষ মেদিনীপুর আসেন। হেমচন্দ্র দাস কানুনগো, সত্যেন্দ্রনাথ বসু এবং ঞ্জানেন্দ্রনাথ বসু মেদিনীপুরে সশস্ত্র বিপ্লবী দল গড়ে তোলেন।
১৯০৮ খ্রীষ্টাব্দ ক্ষুদিরাম বসুপ্রফুল্ল চাকী কিংসফোর্ডকে আক্রমণ করেন। দূর্ভাগ্যবসত মিঃ ও মিসেস কেনেডি মারা যান। ক্ষুদিরাম বসুর ফাঁসি হয়, প্রফুল্ল চাকি আত্মহত্যা করেন।
১৯২০ খ্রীষ্টাব্দ প্রিন্স ওয়েলস এর ভারত আগমনে মেদিনীপুরে বিদ্রোহ ছড়িয়ে পরে। গান্ধিজি মেদিনীপুর আসেন।
১৯২৫ খ্রীষ্টাব্দ গান্ধিজি পুনরায় মেদিনীপুর আসেন।
১৯২৯ খ্রীষ্টাব্দ বীরেন্দ্রনাথ শাসমল এর নেতৃত্বে চৌকিদারি শুল্ক প্রথা অবলুপ্তির দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়। নেতাজী মেদিনীপুরে আসেন।
১৯৩১ খ্রীষ্টাব্দ জ্যোতিজীবন ঘোষ ও বিমল দাশগুপ্ত জেলা কালেকটর মিঃ জেমস পেডিকে হত্যা করেন।
১৯৮১ খ্রীষ্টাব্দ বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হয়।
২০০৪ খ্রীষ্টাব্দ মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ স্থাপিত হয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Medinipur"Falling Rain Genomics, Inc। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫,২০০৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  2. "ভারতের ২০০১ সালের আদম শুমারি"। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৫, ২০০৬