পাকিস্তান সেনাবাহিনী

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী

পাকিস্তান সেনাবাহিনী (উর্দু: پاک فوج পাক ফৌজ) পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর অংশ। ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের সময়ে ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীর একাংশ হতে এই বাহিনী গঠিত হয়। ইন্টান্যাশনাল ইন্সটিউট ফর স্ট্র‍্যাটেজিক স্টাডিজ (IISS) এর মতে ২০১০ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কার্যকর সেনা সংখ্যা ৫৫০,০০০ জন এবং সংরক্ষিত ট্রুপসের সংখ্যা প্রায় ৫০০,০০০ জন।[১] পাকিস্তানের সংবিধানে সামরিক পরিকল্পনার একটি বাধ্যতামূলক সেনানিয়োগের কথা উল্লেখ থাকলেও তা কখনও বাস্তবায়িত হয়নি।

পাকিস্তান সেনাবাহিনী
Flag of the Pakistani Army.svg
পাকিস্তান সেনা বাহিনীর পতাকা
প্রতিষ্ঠাকাল ১৪ আগস্ট ১৯৪৭; ৭৫ বছর আগে (1947-08-14)
প্রধান কার্যালয় রাওয়ালপিন্ডি সেনানিবাস
নেতৃত্ব
পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি আরিফ আলভি
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান
সেনাবাহিনী প্রধান (পাকিস্তান) জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া
লোকবল
সক্রিয় কর্মিবৃন্দ ৬,১৭,০০০
সংরক্ষিত কর্মিবৃন্দ ৫,০০,০০০
সম্পর্কিত নিবন্ধ
ইতিহাস ১ম পাক-ভারত যুদ্ধ
২য় পাক-ভারত যুদ্ধ
বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ
৩য় পাক-ভারত যুদ্ধ
সিয়াচেন যুদ্ধ
কার্গিল যুদ্ধ

এই বাহিনীর প্রাথমিক লক্ষ্যগুলি হল: বহিঃশত্রুর হাত থেকে দেশকে রক্ষা করা, অভ্যন্তরীণ শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষা করা।[২]। ১৯৪৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই বাহিনী বিমানবাহিনী এবং নৌবাহিনী একত্রে তিনটি যুদ্ধে জড়িয়েছে। যেগুলো প্রতিবেশী ভারত এবং আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী এলাকায় সংঘটিত হয়।[৩]

১৯৪৭ সাল হতে আজ পর্যন্ত পাকিস্তান সেনাবাহিনী তিনটি পাক-ভারত যুদ্ধ, একটি অঘোষিত যুদ্ধ (কার্গিল যুদ্ধ), এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয়।

১৯৭১ সালের বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ও তার স্থানীয় সহযোগী রাজাকার বাহিনী, আল বদরআল শামস এর হাতে ৩০ লাখ সাধারণ মানুষের প্রাণহানী ঘটে [৪]। যুদ্ধ শেষে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ১৬ই ডিসেম্বর তারিখে ঢাকার রেসকোর্সে মুক্তিবাহিনী ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত মিত্র বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করে। প্রায় ৯৩ হাজার পাকিস্তানি সেনার এই আত্মসমর্পণ ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে সর্ববৃহৎ আত্মসমর্পণের ঘটনা।

ইতিহাসসম্পাদনা

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ভারত বিভাজনের সিদ্ধান্ত যখন হয় তখন ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীকেও দুই ভাগ করার (একটি পাকিস্তান, অপরটি ভারত) সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় ১৯৪৬ সালের ১৯ অক্টোবর। ১৯৪৭ সালের ৩০ জুন ব্রিটিশ সরকার মাত্র দেড় লাখ সদস্যের একটি সেনাবাহিনী পাকিস্তানের হবে বলে ঘোষণা দেয়; যদিও পাকিস্তান সেনাবাহিনী সত্যিকার অর্থে পঞ্চাশ হাজারের বেশি সদস্য পায়নি। ১৪ই আগস্ট ১৯৪৭ তারিখে পাকিস্তান সেনাবাহিনী ব্রিটিশ জেনারেল ফ্র্যাঙ্ক ওয়ালটার মেসার্ভি'র অধীনে আত্মপ্রকাশ করে। পাকিস্তান সেনাবাহিনী পদাতিক শাখা হিসেবে ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীর পাঞ্জাব রেজিমেন্ট (ভারত)-এর একাংশ, বেলুচ রেজিমেন্ট এবং ফ্রন্টিয়ার ফোর্স রেজিমেন্ট পেয়েছিলো, ১৯৪৮ সালে তারা ইস্ট বেঙ্গল রেগিমেন্টআজাদ কাশ্মীর রেজিমেন্ট নামে নতুন দুটি রেজিমেন্ট গঠন করেছিলো।

পাকিস্তানের স্বাধীনতার পর থেকেই দেশটির সরকার সেনাবাহিনীর সম্প্রসারণ এবং আধুনিকায়নের ব্যাপারে মনোযোগী ছিলো। ১৯৪৭ সালের অক্টোবর মাসে নবগঠিত পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে প্রতিবেশী ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে লড়াইএ জড়িয়ে পড়তে হয়েছিলো কাশ্মীর ইস্যুকে কেন্দ্র করে, পাকিস্তান সেনাবাহিনী তখন অনেক ছোটো ছিলো, এর না ছিলো কোনো কোর না কোনো বড় ডিভিশন; ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম এবং ১২তম ডিভিশন ছিলো ছোটো আকারে এবং ১৪তম ডিভিশন ছিলো পূর্ব পাকিস্তান (বর্তমান বাংলাদেশ-এ)। সুতরাং মাত্র পাঁচটি ডিভিশন ভারতীয় সেনাবাহিনীর বারোটি ডিভিশনের সঙ্গে সীমান্তে লড়াইরত ছিলো তখন। ১৯৫০ সালে আরো একটি ডিভিশন (১৫তম) যোগ হয় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর অংশে। ডিভিশনগুলো ছিলো সবই পদাতিক বাহিনীর এবং ১৯৫০ সালেই সাঁজোয়া বহরে ১৫তম ল্যান্সার্স রেজিমেন্ট শিয়ালকোট সেনানিবাসে যুক্ত হয়েছিলো। ১৯৫০ সাল থেকে ১৯৫৪ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে আরো ছ'টি সাঁজোয়া রেজিমেন্ট যুক্ত হয়ঃ ৪র্থ ক্যাভালরি, ১২তম ক্যাভালরি, ১৪তম ল্যান্সার্স এবং ২০ ল্যান্সার্স।[৫] পাকিস্তান সেনাবাহিনী ১৯৬০ সালের আগ পর্যন্ত ব্যাপক পুনর্গঠনের মধ্য দিয়ে গিয়েছিলো এবং সৈন্য সংখ্যাও বৃদ্ধি করেছিলো, ১৯৫৭ সালেই তাদের প্রথম কোর (১ কোর) তৈরি করা হয়েছিলো এবং একটি পূর্নাঙ্গ সাঁজোয়া ডিভিশন (১ম সাঁজোয়া ডিভিশন) এ-দশকেই তারা বানিয়ে ফেলেছিলো। পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমি তৈরি করা হয়েছিলো পাকিস্তানের স্বাধীনতার এক বছর পরেই।

সেনা সদর দপ্তর ও স্টাফসম্পাদনা

Post Name
সেনাবাহিনী প্রধান (COAS), GHQ. জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া
Chief of General Staff (CGS) Lieutenant General Azhar Abbas
Chief of Logistics Staff (CLS) Lieutenant General Saqib Mehmood Malik
Inspector General Arms (IG Arms) Lieutenant General Majid Ehsan
সেনাপ্রধান সহকারী (AG) লেফটেন্যান্ট জেনারেল নোমান মেহমুদ
কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল (QMG) লেফটেন্যান্ট জেনারেল আমির আব্বাসি
Military Secretary (MS) Lieutenant General Sardar Hassan Azhar Hayat Khan
Inspector General Training & Evaluation (IG T&E) Lieutenant General Syed Muhammad Adnan
Inspector General Communications and Information Technology (IG C&IT) Lieutenant General Asif Ghafoor
Engineer-in-Chief (E-in-C) Lieutenant General Moazzam Ejaz

কর্পসসম্পাদনা

Corps সদর দপ্তরের অবস্থান Current Commander Major Corps Formations
I Corps মাংলা, আজাদ কাশ্মীর Lieutenant General Shaheen Mazhar Mehmood
  • 6th Armoured Division, (Gujranwala)
  • (Gujranala)
  • 17th Infantry Division, (Kharian)
  • 37th Infantry Division, (Kharian)
II Corps মুলতান, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Lieutenant General Muhammad Chiragh Haider Baloch
  • 1st Armoured Division, (Multan)
  • 40th Infantry Division, (Okara)
IV Corps লাহোর, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Lieutenant General Muhammad Abdul Aziz
  • 10th Infantry Division, (Lahore)
  • 11th Infantry Division, (Lahore)
V Corps করাচি, সিন্ধু প্রদেশ লেফটেন্যান্ট জেনারেল মুহাম্মদ সাঈদ
  • 16th Infantry Division, (Pano Aqil)
  • 18th Infantry Division, (Hyderabad)
  • 25th Mechanized Division, (Malir)
X Corps রাওয়ালপিন্ডি, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Lieutenant General Sahir Shamshad Mirza
  • Force Command Northern Areas, (Gilgit)
  • 12th Infantry Division, (Murree)
  • 19th Infantry Division, (Mangla)
  • 23rd Infantry Division, (Jhelum)
  • 34th Light Infantry Division, (Chilas)
XI Corps পেশাওয়ার, খাইবার পাখতুনখোয়া লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফয়েজ হামিদ
  • 7th Infantry Division, (Miranshah)
  • 9th Infantry Division, (Kohat)
XII Corps কোয়েটা, বেলুচিস্তান Lieutenant General Sarfaraz Ali
  • 33rd Infantry Division, (Quetta)
  • 41st Infantry Division, (Quetta)
  • 44th Light Infantry Division, (Gwadar)
XXX Corps গুজরানওয়ালা, পাঞ্জাব, পাকিস্তান লেফটেন্যান্ট জেনারেল মুহাম্মদ আমীর
  • 8th Infantry Division, (Sialkot)
  • 15th Infantry Division, (Sialkot)
XXXI Corps বাহাওয়ালপুর, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Lieutenant General Khalid Zia
  • 14th Infantry Division, (Okara)
  • 26th Mechanized Division, (Bahawalpur)
  • 35th Infantry Division, (Bahawalpur)
Air Defence Command রাওয়ালপিন্ডি, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Lieutenant General Hamood Uz Zaman Khan
  • 3rd Air Defence Division, (Sargodha)
  • 4th Air Defence Division, (Malir)
Strategic Forces Command রাওয়ালপিন্ডি, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Lieutenant General Muhammad Ali
  • 2 Artillery Division, (Gujranwala)
  • 21 Artillery Division, (Pano Aqil)
  • Stretegic Forces North, (Sargodha)
  • Strategic Forces South, (Petaro)
Army Aviation Command রাওয়ালপিন্ডি, পাঞ্জাব, পাকিস্তান Major General Nadeem Yousaf
  • 101 Avn Group (Rawalpindi)
  • 202 Avn Group (Quetta)
  • 303 Avn Group (Gujranwala)
  • 404 Avn Group (Multan)
  • 505 Avn Group (Mangla)
  • 606 Avn Group(Tarbela)

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. IISS 2010, pp. 366
  2. ISPR। "A Journey from Scratch to Nuclear Power"। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৩ 
  3. "History of Pakistan Army"। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৩ 
  4. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৮ মার্চ ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ডিসেম্বর ২০০৯ 
  5. "History of Pakistan Army"। ১৪ জানুয়ারি ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৩ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

Official websites