পুভুক্কুল

১৯৯৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত জিন্স চলচ্চিত্রের সঙ্গীত

পুভুক্কুল (আদিসয়ম নামেও পরিচিত)[১] ১৯৯৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত তামিল চলচ্চিত্র জিন্সের একটি সঙ্গীত। বৈরামুথুর গীতিতে এ আর রহমান এই সঙ্গীত বা গানটির সুর ও সঙ্গীতায়জন করেছিলেন।[২] তামিল ভাষার মূল সংস্করণের পাশাপাশি এই গানের 'পুভুলো দাগুনা' ও 'আজুবা' শিরোনামের তেলেগু ও হিন্দি সংস্করণ আছে। মূল তামিল(ও তেলেগু) সংস্করণটি পরাক্কল উন্নিকৃষ্ণণ ও সুজাতা মোহনের কন্ঠে ধারণকৃত।[৩] ছয়টি ভিন্ন দেশে চিত্রায়িত গানের ভিডিওতে তামিল অভিনেতা প্রশান্ত এবং প্রাক্তন মিস ওয়ার্ল্ড বিজয়ী অভিনেত্রী ঐশ্বর্যা রাই ঠোঁট মিলিয়েছিলেন।

"পুভুক্কুল"
৩৫
জিন্স এ্যালবামের প্রচ্ছদ
জিন্স অ্যালবাম থেকে
এ আর রহমান (সঙ্গীত পরিচালক) এবং পরাক্কল উন্নিকৃষ্ণণ ও সুজাতা মোহন(কন্ঠ) কর্তৃক সঙ্গীত
মুক্তিপ্রাপ্ত৯ মার্চ, ১৯৯৮
বিন্যাসঅডিও ক্যাসেট & কমপ্যাক্ট ডিস্ক
স্টুডিওপঞ্চটন রেকর্ড ইন, চেন্নাই
ধারাচলচ্চিত্র সঙ্গীত
দৈর্ঘ্য:৪৮
লেবেলনিউ মিউজিক (তামিল)
সা রে গা মা(তামিল)
টি সিরিজ (হিন্দি)
আদিত্য মিউজিক (তেলেগু)
সুরকারএ আর রহমান
গীতিকারবৈরামুথু (তামিল)
জাভেদ আখতার (হিন্দি)
এ এম রত্নম ও শিবগনেশ(তেলেগু)
প্রযোজকএ আর রহমান
বহিঃ ভিডিও
ইউটিউবে "তামিল সংস্করণ"
ইউটিউবে "তেলেগু সংস্করণ'"

গীত ও সঙ্গীতায়জনসম্পাদনা

গীতিকার বৈরামুথু এই গানের গীতিতে জিন্স চলচ্চিত্রের ঐশ্বর্যা রাই অভিনীত 'মধুমিতা' চরিত্রটিকে বিশ্বের আশ্চর্য হিসাবে তুলনা ও "বিশ্বের অষ্টম আশ্চর্য" হিসেবে বর্ণনা করেন।[৪] এ এম রত্নম ও শিবগনেশ জুটি[৫] এবং জাভেদ আখতার[৪] 'পুভুলো দাগুনা' ও 'আজুবা' শিরোনামে এই গানের তেলেগু ও হিন্দি সংস্করণের গীত লিখেছিলেন। এ্যালবাম প্রচ্ছদের সুত্রানুসারে এ আর রহমান এই গানসহ জিন্স চলচ্চিত্রের সকল গানের সুর আরোপ, সঙ্গীতায়জন ও কন্ঠ ধারণ চেন্নাইয়ের পঞ্চটন রেকর্ডিং স্টুডিও-তে করেন। তামিল ও তেলেগু সংস্করণটি পরাক্কল উন্নিকৃষ্ণণ ও সুজাতা মোহনের কন্ঠে ধারণকৃত। হিন্দি সংস্করণটি হরিহরণসাধনা সরগম গেয়েছিলেন।[৬]

চলচ্চিত্রায়ণসম্পাদনা

জিন্সের পরিচালক এস. শঙ্কর স্বীকার করেছিলেন যে প্রকৃত সপ্তাশ্চর্যের তালিকা না থাকায় কোন আশ্চর্য স্থান গুলিতে চিত্রগ্রহণ করা হবে তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হয়েছিল।[৭] পরিচালক শঙ্কর, কুশীলব ও কলাকুশলীরা এই গান চিত্রায়ণের অভিজ্ঞতাকে "অত্যন্ত স্পষ্ট এবং স্মরণীয়" হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন।[৮] পিসার হেলানো মিনার, কলোসিয়াম, এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিং, চীনের মহাপ্রাচীর, তাজমহল, মিশরীয় পিরামিড এবং আইফেল টাওয়ারে দৃশ্যধারণের জন্য চলচ্চিত্রের কলাকুশলীরা ত্রিশ দিন ব্যাপী বিশ্বভ্রমণ করেছিলেন। প্যারিসের চিত্রগ্রহণ চলাকালে প্রিন্সেস ডায়ানার মৃত্যু হয়, একারণে চিত্রগ্রহণ বিলম্বিত হয়েছিল।[১]

গানের প্রথম অংশের চিত্রগ্রহণ ফ্রান্সের প্যারিসে শুরু হয়ে ইতালির রোম এবং পিসায় চলে আসে। দ্বিতীয় অংশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক সিটিতে, মিশরের গিজা এবং চীনের মহাপ্রাচীরে এবং শেষ অংশ ভারতের তাজমহলে ধারণ করা হয়।[৮]

মুক্তিসম্পাদনা

১৯৯৮ সালের ৯ মার্চ গানটি জিন্স চলচ্চিত্রের সঙ্গীত এ্যালবামের অংশ হিসেবে বিভিন্ন রেকর্ডিং লেবেল হতে ক্যাসেট ও কম্প্যাক্ট ডিস্ক ফরম্যাটে মুক্তি পেয়েছিল।[৩] জিন্স চলচ্চিত্রের অন্যান্য গানের সাথে এই গানটিও জনপ্রিয় হয়েছিল।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Rewind - 20 years of Jeans: 0% Wear-Out, 100% Nostalgia"A Humming Heart (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৮-০৫-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৭ 
  2. "Jeans (1998)"Raaga.com। ২০১৬-১০-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-১৩ 
  3. "Jeans - Music Reviews"Indolink। ২০১৬-০৮-৩১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৭ 
  4. "Of Jeans and bottom lines"Rediff.com (V. Srinivasan) 
  5. "Tamil Cinema Jeans - Review"indolink। ১৯৯৮-০৪-২৫। ২০১৬-০৩-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৮ 
  6. "A.R. Rahman, Javed Akhtar - Jeans"Discogs (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৬-২৭ 
  7. "Wonder of wonders"Rediff.com (Rajitha)। ২০১৬-০৩-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৪-০২ 
  8. "Jean's page"Indolink.com (S. Krishna)। ২০১৬-০৩-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৮-১১