ধুনট উপজেলা

বগুড়া জেলার একটি উপজেলা

ধুনট বাংলাদেশের বগুড়া জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। বগুড়া জেলা হতে দক্ষিণ পূর্বে ৩৫ কিলোমিটার দূরত্বে ধুনট উপজেলা অবস্থিত। অনেক জ্ঞানী ও গুণী ব্যক্তির জন্ম এই ধুনটে।

ধুনট
উপজেলা
ধুনট বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
ধুনট
ধুনট
বাংলাদেশে ধুনট উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৪১′১২″ উত্তর ৮৯°৩২′৩১″ পূর্ব / ২৪.৬৮৬৬৭° উত্তর ৮৯.৫৪১৯৪° পূর্ব / 24.68667; 89.54194স্থানাঙ্ক: ২৪°৪১′১২″ উত্তর ৮৯°৩২′৩১″ পূর্ব / ২৪.৬৮৬৬৭° উত্তর ৮৯.৫৪১৯৪° পূর্ব / 24.68667; 89.54194 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগরাজশাহী বিভাগ
জেলাবগুড়া জেলা
আয়তন
 • মোট২৪৭.৭৫ কিমি (৯৫.৬৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০০১)
 • মোট২,৬৬,০০১[১]
সাক্ষরতার হার
 • মোট৬০.৫%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫০ ১০ ২৭
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

অবস্থানসম্পাদনা

 
উপজেলার সড়ক

অবস্থানঃ ২৪°৩২´ থেকে ২৪°৪৮´ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯°২৮´ থেকে ৮৯°৪০´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানাঃ এ উপজেলার উত্তরে গাবতলী উপজেলাসারিয়াকান্দি উপজেলা, দক্ষিণে সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলা, পশ্চিমে শাহজাহানপুর উপজেলাশেরপুর উপজেলা, পূর্বে কাজীপুর উপজেলা

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

ধুনট থানা গঠিত হয় ১৯৬২ সালে এবং থানা উপজেলায় রুপান্তরিত হয় ১৯৮৩ সালে। উপজেলায় গ্রাম রয়েছে ২১২ টি। এই উপজেলায় ১০টি ইউনিয়ন রয়েছে। ইউনিয়নগুলো হলো:

  1. নিমগাছি ইউনিয়ন
  2. কালের পাড়া ইউনিয়ন
  3. চিকাশী ইউনিয়ন
  4. গোসাইবাড়ী ইউনিয়ন
  5. ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়ন
  6. ধুনট ইউনিয়ন
  7. এলাঙ্গী ইউনিয়ন
  8. চৌকিবাড়ি ইউনিয়ন
  9. মথুরাপুর ইউনিয়ন
  10. গোপালনগর ইউনিয়ন

এছাড়া রয়েছে ধুনট পৌরসভা যা ২০০১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

ইতিহাসসম্পাদনা

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

২০০১ সালের আদমশুমারি অনুসারে মোট জনসংখ্যা ২,৬৬,০০১ জন। প্রতি কিলোমিটারে জনসংখ্যার ঘনত্ব ৬৩২ জন। বর্তমানে লোকসংখ্যা আনুমানিক ৪,৫০,০০০ হবে।

শিক্ষাসম্পাদনা

শিক্ষায় এই উপজেলা অনেক এগিয়ে। এখানে আছে বেশকিছু উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ধুনট উপজেলা সদরের ধুনট এন ইউ পাইলট সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় অত্র এলাকার শ্রেষ্ঠ মাধ্যমিক বিদ্যালয় যা ১৯৪১ সালে স্থাপিত। গোসাইবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় স্থাপিত ১৯১৮। মেয়েদের জন্য শিক্ষার শ্রেষ্ঠ বিদ্যালয় ধুনট পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় স্থাপিত ১৯৭৭। উচ্চশিক্ষা পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ ধুনট সরকারি কলেজ স্থাপিত ১৯৭২।

ধুনটের মথুরাপুর ইউনিয়নে আছে মুলতানী পারভীন শাহ'জাহান তালুকদার স্কুল এবং কলেজ ,  যা ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। আছে জি.এম.সি ডিগ্রি কলেজ।  পিরহাটি উচ্চ বিদ্যালয়, ছাতিয়ানী রোকেয়া ওবেদুল হক উচ্চ বিদ্যালয় ও গোপালনাগর উচ্চ বিদ্যালয়সহ প্রায় ১০০ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়।  রয়েছে জালশুকা হাবিবুর রহমান কলেজ যা ধুনটের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ! ধুনট মহিলা কলেজ স্থাপিত ১৯৯৬। রয়েছে বিখ্যাত পাঁচথুপি নছরতপুর জাহের আলী দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয় যা ১৯৭১ সালে নির্মিত। ইসলামি শিক্ষার জন্য আছে সবথেকে পুরাতন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জোড়খালি সিনিয়র মাদ্রাসা স্থাপিত ১৯১১। মাঠপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় স্হাপিত ১৯৯৩।

অর্থনীতিসম্পাদনা

কৃতী ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

বিবিধসম্পাদনা

প্রধান নদীঃ যমুনা, বাঙ্গালীইছামতী

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে ধুনট"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৪ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা