কিশোরগঞ্জ উপজেলা

নীলফামারী জেলার একটি উপজেলা

কিশোরগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশের রংপুর বিভাগের নীলফামারী জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা

কিশোরগঞ্জ উপজেলা
উপজেলা
কিশোরগঞ্জ উপজেলা রংপুর বিভাগ-এ অবস্থিত
কিশোরগঞ্জ উপজেলা
কিশোরগঞ্জ উপজেলা
কিশোরগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
কিশোরগঞ্জ উপজেলা
কিশোরগঞ্জ উপজেলা
বাংলাদেশে কিশোরগঞ্জ উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৫°৫৪′২৪″ উত্তর ৮৯°১′৩১″ পূর্ব / ২৫.৯০৬৬৭° উত্তর ৮৯.০২৫২৮° পূর্ব / 25.90667; 89.02528 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশবাংলাদেশ
বিভাগরংপুর বিভাগ
জেলানীলফামারী জেলা
আয়তন
 • মোট২৬৪.৯৮ বর্গকিমি (১০২.৩১ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট২,৬১,০৬৯
 • জনঘনত্ব৯৯০/বর্গকিমি (২,৬০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৫৩%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫৫ ৭৩ ৪৫
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

ইতিহাসসম্পাদনা

কিশোরগঞ্জ উপজেলা প্রথমতঃ থানা হিসাবে ১৯২১ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং পরবর্তীতে উপজেলায় রুপান্তরিত হয়। একসময় এখানে একটি প্রভাবশালী জমিদার পরিবার বাস করত এবং জমিদারের নাম ছিল কিশোরী মোহন রায়। সাধারণ লোকের ধারণা যে উপজেলার নামের উৎপত্তিতে "কিশোরী" নামের সাথে "গঞ্জ" শব্দটি যোগ হয়ে কিশোরীগঞ্জ হয়েছিল যা পরবর্তীতে কিশোরগঞ্জ নামে পরিবর্তিত হয়েছে।

অবস্থানসম্পাদনা

কিশোরগঞ্জ উপজেলা নীলফামারী জেলাধীন পূর্বে অবস্থিত একটি উপজেলা । উপজেলার উত্তরে জলঢাকা উপজেলা, পূর্বে রংপুর জেলার গংগাচড়া উপজেলা দক্ষিণে রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলা ও পশ্চিমে নিলফামারী সদর উপজেলাসৈয়দপুর উপজেলা

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান:

মোঃ আবুল কালাম বারী পাইলোট (বর্তমান)[১]

মোঃ জাকির হোসেন বাবুল (বিগত)[২]

কিশোরগঞ্জ উপজেলা ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত:

ইউনিয়ন ২০০১ সন
ইউনিয়নের নাম ও জিও কোড আয়তন (একর) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
কিশোরগঞ্জ ৫১ ৫৬৫৯ ১৮২৪১ ১৬৯২৬ ৩৩.৬৪
বড়ভিটা ২৫ ৫৫৩৩ ১১৭৭৫ ১১১১৪ ৩৪.৯৩
বাহাগিলি ১৭ ৫৬৯৯ ১১৮৭৪ ১১৪১৬ ৩০.৬৫
পুঁটিমারী ৮৬ ৫৯১৩ ১৬২৩১ ১৪৮৬৭ ৩১.৮১
নিতাই ৬৯ ৫২৮৩ ১৩০২৫ ১২৩০৮ ২৯.১৯
চাঁদখানা ৩৪ ৫৭০০ ১৩৭০০ ১২৪৪২ ৩০.৪৭
রনচন্ডী ৯৪ ৫৬৯০ ১৩২৪৯ ১২৬৫২ ৩২.২৮
গরগ্রাম ৪৩ ৫৬৭৯ ১৪৩৯৭ ১৩৬১৫ ৩৮.৬২
মাগুরা ৬০ ৫৪৮৩ ১৮২৮৯ ১৭০৭১ ৩২.২২

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

মোটঃ ২,৬১,০৬৯ জন
পুরুষঃ ১,৩০,৯৩১ জন
মহিলাঃ ১,৩০,১৩৮ জন[২]

জলাশয় ও প্রধান নদীসম্পাদনা

  • তিস্তা
  • যমুনেশ্বরী
  • বুল্লাই
  • চেলওয়াল বিল ও বাফলার বিল উল্লেখযোগ্য।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসম্পাদনা

কলেজ ১০, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৪২, প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৫৯, মাদ্রাসা ৩০। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমহ:

  • কিশোরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ (১৯৭২)
  • মাগুড়া বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯২৬)
  • কিশোরগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় (১৯৩৯)
  • শরীফাবাদ দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয়।
  • কিশোরগঞ্জ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়
  • কিশোরগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
  • শিশু নিকেতন স্কুল এন্ড কলেজ
  • ছিট রাজীব আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়
  • মুশা পুষনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
  • সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ক্লাব ২২, লাইব্রেরি ২, সিনেমা হল ১, নাট্যমঞ্চ ১, নাট্যদল ১, খেলার মাঠ ২৭।
  • এ উপজেলায় শিক্ষার হার ৫৪%।

মেলাসম্পাদনা

  • চরকহাটি
  • টটুয়ার মেলা উল্লেখযোগ্য

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসম্পাদনা

মসজিদ ৩৮০, মন্দির ৯৯, মাযার ২ টি।

প্রাচীন নিদর্শনাদি ও প্রত্নসম্পদ চান খোসালের তিন গম্বুজ জামে মসজিদ (ভেড়ভেড়ী, অষ্টাদশ শতাব্দী), পুঁটিমারীর মন্দির (পুঁটিমারী), নবগয়াধাম (বাহাগিলি), ভীমের মায়ের চুলা (কিশোরগঞ্জ সদর

হাট বাজারসম্পাদনা

উল্লেখযোগ্য

  • কিশোরগঞ্জ হাট,
  • টেপার হাট,
  • বড়ভিটা হাট,
  • মাগুরার হাট ও
  • গারাগগ্রাম হাট

প্রধান ফল-ফলাদিসম্পাদনা

  • আম
  • কাঁঠাল
  • কলা
  • লিচু
  • পেঁপে

অর্থনীতিসম্পাদনা

এই উপজেলার অর্থনীতির শতকরা প্রায় ৭১ ভাগ কৃষিনির্ভর। বাকি ২৯ ভাগ বিভিন্ন পেশার উপর নির্ভরশীল। কিশোরগঞ্জ এর উর্বর ভূমি প্রধানত আলু, চাল, শাকসবজি, আদা ও ভুট্টা চাষের জন্য উপযোগী।

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে কিশোরগঞ্জ উপজেলা"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৪ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি" (PDF)। ১৩ নভেম্বর ২০১২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ আগস্ট ২০১২ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা