প্রধান মেনু খুলুন

ইয়ান ক্রেগ

অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার

ইয়ান ডেভিড ক্রেগ (ইংরেজি: Ian Craig; জন্ম: ১২ জুন, ১৯৩৫ - মৃত্যু: ১৬ নভেম্বর, ২০১৪) নিউ সাউথ ওয়েলসের ইয়াস এলাকায় জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলিয়ার বিশিষ্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। দ্য কোল্ট নামে পরিচিত ইয়ান ক্রেগ ১৯৫৩ থেকে ১৯৫৮ মেয়াদকালে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্ট খেলায় অংশ নিয়েছেন।[১] ডানহাতি ব্যাটসম্যান ইয়ান ক্রেগ সর্বকনিষ্ঠ অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার হিসেবে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে দ্বি-শতক হাঁকিয়েছিলেন ও রেকর্ড স্থাপন করেন।[২][৩] এরপর তিনি টেস্ট ক্রিকেট দলে অন্তর্ভুক্ত হন ও অস্ট্রেলীয় দলকে নেতৃত্ব দেন। তার খেলার ধরন অনেকটাই ডন ব্র্যাডম্যানের মতো। তাই তাকে নেক্সট ব্রাডম্যান হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছিল। কিন্তু তার খেলোয়াড়ী জীবন তেমন পূর্ণাঙ্গতা পায়নি।

ইয়ান ক্রেগ
Ian Craig 1960b.jpg
১৯৬০ সালে ইয়ান ক্রেগ
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামইয়ান ডেভিড ক্রেগ
জন্ম(১৯৩৫-০৬-১২)১২ জুন ১৯৩৫
ইয়াস, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু১৬ নভেম্বর ২০১৪(2014-11-16) (বয়স ৭৯)
ডাকনাম"দ্য কোল্ট"[১]
উচ্চতা১.৯৩ মিটার (৬ ফুট ৪ ইঞ্চি)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাব্যাটসম্যান, অধিনায়ক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৬৫)
৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
শেষ টেস্ট২৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৮ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৫১/৫২-১৯৩১/৬২নিউ সাউথ ওয়েলস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১১ ১৪৪
রানের সংখ্যা ৩৫৮ ৭,৩২৮
ব্যাটিং গড় ১৯.৮৮ ৩৭.৯৬
১০০/৫০ ০/২ ১৫/৩৮
সর্বোচ্চ রান ৫৩ ২১৩*
বল করেছে ১৩০
উইকেট
বোলিং গড় ১৩০.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/– ৭০/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ৭ আগস্ট ২০১৭

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

১৭ বছর ২৩৯ দিন বয়সে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। ১৯৫২-৫৩ মৌসুমে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে এ খেলায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের ইতিহাসে অদ্যাবধি সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটারের মর্যাদা পাচ্ছেন তিনি।[৪]

১৯৫০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে জাতীয় দলের পুণঃগঠনের অংশ হিসেবে একদল তরুণ খেলোয়াড়ের নেতৃত্ব দেন ক্রেগ। ১৯৫৭-৫৮ মৌসুমে অস্ট্রেলীয় দল নির্বাচকমণ্ডলী দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তাকে অধিনায়ক মনোনীত করেন। ঐ মৌসুমে তিনি মাত্র ছয় টেস্ট খেলেন। তখনো তিনি দলের প্রতিষ্ঠিত সদস্য হননি। মাত্র ২২ বছর ১৯৪ দিন বয়সে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়কের মর্যাদা পান তিনি।[২][৫] তার দলটি অস্ট্রেলিয়ার উপকূলের বাইরে সর্বাপেক্ষা দূর্বল দলের পরিচিতি পেয়েছিল।[৬][৭] অস্ট্রেলিয়া দল ৩-০ ব্যবধানে জয় পেলেও তার ব্যাটিং ছিল খুবই দূর্বলমানের। খেলার ধারাবাহিকতা বজায় না থাকায় ও শারীরিক অসুস্থতার কারণে তাকে এক মৌসুম শেষেই দলের বাইরে চলে যেতে হয়। ১৯৫৮-৫৯ মৌসুমে নতুন করে চুক্তি করার পূর্বে হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হওয়ায় ক্রিকেট থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেন তিনি। ক্রেগ পুণরায় নিউ সাউথ ওয়েলস দলে ফিরে আসলেও টেস্ট দলে ঠাঁই পাননি।[৮]

অবসরসম্পাদনা

ফার্মাসিস্ট হিসেবে প্রশিক্ষণের জন্যে ও কাজের প্রতি দায়িত্ববোধের অংশ হিসেবে তাকে মাত্র ২৬ বছর বয়সেই জোরপূর্বক প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট জীবন থেকে অবসর নিতে হয়। ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যাল ফার্ম বুটসের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। নিউ সাউথ ওয়েলস ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন,[৯] সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ড ট্রাস্ট[১০]ব্রাডম্যান মিউজিয়ামের প্রতিষ্ঠানের ন্যায় ক্রিকেটের বিভিন্ন পদে যুক্ত ছিলেন তিনি।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Robinson, p. 262.
  2. Cashman, p. 67.
  3. Robinson, p. 260.
  4. Youngest players on debut for Australia in Test matches – CricketArchive. Retrieved 10 January 2017
  5. "Test matches – Youngest captains"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০৪-০৯ 
  6. Haigh, p. 108.
  7. Benaud, Richie (১৯৯৮)। Anything ButHodder & Stoughton। পৃষ্ঠা 142। আইএসবিএন 0-340-69648-6 
  8. "Player Oracle ID Craig"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৫-১৪ 
  9. Derriman, pp. 208–209.
  10. Perry, p. 201.

আরও দেখুনসম্পাদনা

আরও পড়ুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা


ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
ইয়ান জনসন
অস্ট্রেলীয় টেস্ট ক্রিকেট অধিনায়ক
১৯৫৭/৫৮
উত্তরসূরী
রিচি বেনো