২০১৮–১৯ সেরিয়ে আ

২০১৮–১৯ সেরিয়ে আ (স্পন্সরজনিত কারণে সেরিয়া আ টিআইএম হিসাবে পরিচিত) শীর্ষ স্তরের ইতালীয় ফুটবলের ১১৭তম মৌসুম, একটি রাউন্ড-রবিন প্রতিযোগিতার ৮৭তম আসর এবং সেরিয়ে বি থেকে আলাদা লীগ কমিটির অধীনে ৯ম আসর। ইয়ুভেন্তুস সেরিয়ে আ-এর ইতিহাসে ৩৪ বার এবং বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এবং ২০১৯ সালের ২০শে এপ্রিলে, ফিওরেন্তিনার বিপক্ষে জয়ের পরে তাদের শিরোপা রক্ষা করেছিল। ২০১৮ সালের ১৮ই আগস্ট থেকে ২০১৯ সালের ২৬শে মে পর্যন্ত এই মৌসুমটি চলমান ছিল।[২]

সেরিয়ে আ
মৌসুম২০১৮–১৯
তারিখ১৮ আগস্ট ২০১৮ – ২৬ মে ২০১৯
চ্যাম্পিয়নইয়ুভেন্তুস
৩৫তম শিরোপা
অবনমনএম্পোলি
ফ্রোজিনোনে
কিয়েভো
চ্যাম্পিয়নস লীগইয়ুভেন্তুস
নাপোলি
আতালান্তা
ইন্টার মিলান
ইউরোপা লীগলাৎসিয়ো
রোমা
তোরিনো
মোট খেলা৩৮০
মোট গোলসংখ্যা১,০১৯ (ম্যাচ প্রতি এক্সপ্রেশন ত্রুটি: অপরিচিত বিরামচিহ্ন অক্ষর ","।টি)
শীর্ষ গোলদাতাফাবিও কুয়াল্লারেলা
(২৬টি গোল)[১]
সবচেয়ে বড় হোম জয়ফিওরেন্তিনা ৬–১ কিয়েভো
(২৬ আগস্ট ২০১৮)
ইন্টার মিলান ৫–০ জেনোয়া
(৩ নভেম্বর ২০১৮)
সবচেয়ে বড় অ্যাওয়ে জয়ফ্রোজিনোনে ০–৫ সাম্পদোরিয়া
(১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮)
ফ্রোজিনোনে ০–৫ আতালান্তা
(২০ জানুয়ারি ২০১৯)
সর্বোচ্চ স্কোরিংসাসসুওলো ৫–৩ জেনোয়া
(২ সেপ্টেম্বর ২০১৮)
সাসসুওলো ২–৬ আতালান্তা
(২৯ ডিসেম্বর ২০১৮)
সাসসুওলো ৩–৫ সাম্পদোরিয়া
(১৬ মার্চ ২০১৯)
দীর্ঘতম টানা জয়৮ ম্যাচ
ইয়ুভেন্তুস
দীর্ঘতম টানা অপরাজিত২৭ ম্যাচ
ইয়ুভেন্তুস
দীর্ঘতম টানা জয়বিহীন১৮ ম্যাচ
কিয়েভো
দীর্ঘতম টানা পরাজয়৭ ম্যাচ
কিয়েভো
সর্বোচ্চ উপস্থিতি৭৮,৭২৫
ইন্টার মিলান ১–০ মিলান
(২১ অক্টোবর ২০১৮)
সর্বনিম্ন উপস্থিতি৭,০০০
এসপিএএল ১–০ পারমা
(বলোনিয়া, ২৬ আগস্ট ২০১৮)
মোট উপস্থিতি৯১,৯৯,৬৪৯
গড় উপস্থিতি২৪,৯৩১

দলসম্পাদনা

স্টেডিয়াম এবং অবস্থানসম্পাদনা

ক্লাব অবস্থান স্টেডিয়াম ধারণক্ষমতা ২০১৭–১৮ মৌসুম
আতালান্তা বিসি বেরগামো স্তাদিও আতলেতি আজ্জুররি দে'ইতালিয়া ২১,৩০০ ৭ম
বোলোনিয়া ফুটবল ক্লাব ১৯০৯ বোলোনিয়া স্তাদিও রেনাতো দাল'আরা ৩৮,২৭৯ ১৫তম
কাইয়ারি কালচো কাইয়ারি সারদেয়না এরিনা ১৬,২৩৩ ১৬তম
এসি কিয়েভোভেরোনা ভেরোনা স্তাদিও মার্ক'আন্তোনিও বেন্তেয়োদি ৩৮,৪০২ ১৩তম
এম্পোলি ফুটবল ক্লাব এম্পোলি স্তাদিও কার্লো কাস্তেল্লানি ১৬,২৮৪
এসিএফ ফিওরেন্তিনা ফিওরেন্তিনা স্তাদিও আর্তেমিও ফ্রাঞ্চি ৪৩,১৪৭ ৮ম
ফ্রোজিনোনে কালচো ফ্রোজিনোনে স্তাদিও বেনিতো স্তিরপে ১৬,২২৭
জেনোয়া সিএফসি জেনোয়া স্তাদিও লুইগি ফেররারিস ৩৬,৬৮৫ ১২তম
ইন্টার মিলান মিলান সান সিরো ৮০,০১৮ ৪র্থ
ইয়ুভেন্তুস ফুটবল ক্লাব তুরিন ইয়ুভেন্তুস স্টেডিয়াম ৪১,৫০৭ চ্যাম্পিয়ন
এসএস লাৎসিয়ো রোম স্তাদিও অলিম্পিকো ৭২,৬৯৮ ৫ম
এসি মিলান মিলান সান সিরো ৮০,০১৮ ৬ষ্ঠ
এস.এস.সি. নাপোলি নেপলস স্তাদিও সান পাওলো ৬০,২৪০ ২য়
পারমা কালচো ১৯১৩ পারমা স্তাদিও এন্নিও তারদিনি ২৭,৯০৬
এএস রোমা রোমা স্তাদিও অলিম্পিকো ৭২,৬৯৮ ৩য়
ইউসি সাম্পদোরিয়া জেনোয়া স্তাদিও লুইগি ফেররারিস ৩৬,৬৮৫ ১০ম
ইউএস সাসসুওলো কালচো সাসসুওলো মাপেই স্টেডিয়াম - সিত্তা দে ত্রিকোলোরে
(রেজ্জিও এমিলিয়া)
২৩,৭১৭ ১১তম
এসপিএএল ফেররারা স্তাদিও পাওলো মাজ্জা ১৬,১৬৪ ১৭তম
তোরিনো ফুটবল ক্লাব তুরিন স্তাদিও অলিম্পিকো গ্রান্সে তোরিনো ২৭,৯৯৪ ৯ম
উদিনেসে কালচো উদিনে স্তাদিও ফ্রুইলি ২৫,১৩২ ১৪তম

লীগ টেবিলসম্পাদনা

অব দল খে ড্র হা স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন বা অবনমন
ইয়ুভেন্তুস (C) ৩৮ ২৮ ৭০ ৩০ +৪০ ৯০ চ্যাম্পিয়নস লীগ গ্রুপ পর্বের জন্য উন্নীত
নাপোলি ৩৮ ২৪ ৭৪ ৩৬ +৩৮ ৭৯
আতালান্তা ৩৮ ২০ ৭৭ ৪৬ +৩১ ৬৯[ক]
ইন্টার মিলান ৩৮ ২০ ৫৭ ৩৩ +২৪ ৬৯[ক]
এসি মিলান[খ] ৩৮ ১৯ ১১ ৫৫ ৩৬ +১৯ ৬৮
রোমা ৩৮ ১৮ ১২ ৬৬ ৪৮ +১৮ ৬৬ ইউরোপা লীগ গ্রুপ পর্বের জন্য উন্নীত
তোরিনো ৩৮ ১৬ ১৫ ৫২ ৩৭ +১৫ ৬৩ ইউরোপা লীগ দ্বিতীয় বাছাইপর্বের জন্য উন্নীত
লাৎসিয়ো ৩৮ ১৭ ১৩ ৫৬ ৪৬ +১০ ৫৯ ইউরোপা লীগ গ্রুপ পর্বের জন্য উন্নীত[গ]
সাম্পদোরিয়া ৩৮ ১৫ ১৫ ৬০ ৫১ +৯ ৫৩
১০ বোলোনিয়া ৩৮ ১১ ১১ ১৬ ৪৮ ৫৬ −৮ ৪৪
১১ সাসসুওলো ৩৮ ১৬ ১৩ ৫৩ ৬০ −৭ ৪৩[ঘ]
১২ উদিনেসে ৩৮ ১১ ১০ ১৭ ৩৯ ৫৩ −১৪ ৪৩[ঘ]
১৩ এসপিএএল ৩৮ ১১ ১৮ ৪৪ ৫৬ −১২ ৪২
১৪ পারমা ৩৮ ১০ ১১ ১৭ ৪১ ৬১ −২০ ৪১[ঙ]
১৫ কাইয়ারি ৩৮ ১০ ১১ ১৭ ৩৬ ৫৪ −১৮ ৪১[ঙ]
১৬ ফিওরেন্তিনা ৩৮ ১৭ ১৩ ৪৭ ৪৫ +২ ৪১[ঙ]
১৭ জেনোয়া ৩৮ ১৪ ১৬ ৩৯ ৫৭ −১৮ ৩৮[চ]
১৮ এম্পোলি (R) ৩৮ ১০ ২০ ৫১ ৭০ −১৯ ৩৮[চ] সেরিয়ে বি-এ অবনমিত
১৯ ফ্রোজিনোনে (R) ৩৮ ১০ ২৩ ২৯ ৬৯ −৪০ ২৫
২০ কিয়েভো[ছ] (R) ৩৮ ১৪ ২২ ২৫ ৭৫ −৫০ ১৭
উৎস: Serie A, সকারওয়ে
শ্রেণীবিভাগের নিয়মাবলী: ১) পয়েন্ট; ২) হেড-টু-হেড পয়েন্ট; ৩) হেড-টু-হেড গোল পার্থক্য; ৪) গোল পার্থক্য; ৫) স্বপক্ষে গোল; ৬) ড্র (নোট: সমতায় থাকা দলগুলোর মধ্যে সকল ম্যাচ খেলা শেষে কেবল হেড-টু-হেড রেকর্ড ব্যবহার করা হবে)।[৫]
(C) চ্যাম্পিয়ন; (R) অবনমন।
টীকা:
  1. আতালান্তা হেড-টু-হেড পয়েন্টে ইন্টার মিলান হতে এগিয়ে গিয়েছে: আতালান্তা ৪–১ ইন্টার মিলান, ইন্টার মিলান ০–০ আতালান্তা।
  2. মিলান আর্থিক ফেয়ার প্লে লঙ্ঘনের জন্য উয়েফা প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়ে।[৩]
  3. ২০১৮–১৯ কোপা ইতালিয়া জয়লাভ করে ইউরোপা লীগের গ্রুপ পর্বের জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছিল।
  4. গোলের পার্থক্যে সাসসুওলো উদিনেসের চেয়ে এগিয়ে গিয়েছে: সাসসুওলো –৭, উদিনেসে –১৪।
  5. হেড-টু-হেড পয়েন্ট দ্বারা অবস্থান নির্ধারিত করা হয়েছে: পারমা: ৯ পয়েন্ট; কাইয়ারি: ৭ পয়েন্ট; ফিওরেন্তিনা: ১ পয়েন্ট।
  6. জেনোয়া হেড-টু-হেড পয়েন্টে এম্পোলির আগে অবস্থান করেছে: জেনোয়া ২–১ এম্পোলি, এম্পোলি ১–৩ জেনোয়া।
  7. মিথ্যা অ্যাকাউন্টিংয়ের জন্য দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পরে কিয়েভো হতে তিনটি পয়েন্ট কেটে নেওয়া হয়েছিল।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Player Statistics"। Lega Nazionale Professionisti Serie A। সংগ্রহের তারিখ ১২ মে ২০১৯ 
  2. "Serie A and Coppa Italia changes for 2018/19 confirmed - Forza Italian Football"forzaitalianfootball.com 
  3. "AC Milan banned from Europa League next season over Financial Fair Play breaches"। BBC। ২৮ জুন ২০১৯। 
  4. "Chievo get three point deduction"। Football Italia। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮। 
  5. "Norme organizzative interne della F.I.G.C. - Art. 51.6" (PDF) (italian ভাষায়)। Italian Football Federation। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা