শ্রী স্বামীনারায়ণ মন্দির, করাচি

পাকিস্তানের করাচিতে অবস্থিত হিন্দু মন্দির

শ্রী স্বামী নারায়ণ মন্দির, করাচি' (উর্দু: شری سوامی نارائن مندر‎‎) একটি হিন্দু মন্দির যা পাকিস্তানের একমাত্র স্বামী নারায়ণ মন্দির[১] করাচি শহরের এম. এ. জিন্নাহ রোডে ৩২,৩০৬ square yard (২৭,০১২ মি) এর বেশি আয়তনের জন্য মন্দিরটি প্রসিদ্ধ।[২] ২০০৪ সালের এপ্রিল মাসে মন্দিরটি তার ২১৬ বছর পূর্তি উদযাপন করেছিল।[২] এই মন্দির চত্বরে একটি পবিত্র গোয়ালঘর রয়েছে।[৩] মন্দিরটি করাচিতে একটি হিন্দু পাড়ার কেন্দ্রে অবস্থিত।[৪][৫] যে বিল্ডিংটিতে দর্শনার্থীদের জন্য একটি ধর্মশালা (গেস্ট হাউস) ছিল সেটি এখন সিটি ডিস্ট্রিক্ট সরকারের অফিসে রূপান্তরিত হয়েছে।[৬]

শ্রী স্বামীনারায়ণ মন্দির
سوامی نارائن مندر
Śrī Svāmī Nārāyaṇ Mandir
স্বামী নারায়ণ মন্দির
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিহিন্দুধর্ম
জেলাকরাচি
ঈশ্বরনর-নারায়ণ এবং স্বামীনারায়ণ
অবস্থান
অবস্থানএম. এ. জিন্নাহ রোড, করাচি
রাজ্যসিন্ধু
দেশপাকিস্তান পাকিস্তান
শ্রী স্বামীনারায়ণ মন্দির, করাচি পাকিস্তান করাচি-এ অবস্থিত
শ্রী স্বামীনারায়ণ মন্দির, করাচি
করাচির মধ্যে অবস্থান
স্থানাঙ্ক২৪°৫১′১৫.৭″ উত্তর ৬৭°০০′২৮.৭″ পূর্ব / ২৪.৮৫৪৩৬১° উত্তর ৬৭.০০৭৯৭২° পূর্ব / 24.854361; 67.007972
স্থাপত্য
ধরনহিন্দু মন্দির
সম্পূর্ণ হয়১৭৮৮

পাকিস্তান ও ভারতের স্বাধীনতা এবং পরে

সম্পাদনা
 
করাচির স্বামীনারায়ণ মন্দিরের চূড়া

মন্দিরটি ১৯৪৭ সালে একটি শরণার্থী শিবিরে পরিণত হয়েছিল।[৭] স্বাধীনতার অশান্ত সময়ে স্বামীনারায়ণের আসল ছবিগুলি সরিয়ে ভারতে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।[২] একটি মূর্তি যা মূলত এই মন্দিরে ছিল তা এখন রাজস্থানের খান গ্রামে অবস্থিত।[২] সমস্ত সিন্ধু থেকে ভারতে বসতি স্থাপন করতে ইচ্ছুক লোকেরা এই মন্দির থেকে জাহাজে করে ভারতে যাওয়ার অপেক্ষায় ছিল। এই সময়কালে পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ মন্দিরটি পরিদর্শন করেছিলেন।[৮] ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার পর ১৯৮৯ সালে প্রথমবারের মতো আহমেদাবাদের শ্রী স্বামীনারায়ণ মন্দিরের একদল সাধু মন্দিরে গিয়েছিলেন।[৭] সেই থেকে আহমেদাবাদ মন্দিরের ছোট ছোট দল প্রতি কয়েক বছর পর পর তীর্থযাত্রায় এই মন্দিরে যান।

উৎসব এবং অনুষ্ঠান

সম্পাদনা

পাকিস্তান হিন্দু কাউন্সিলের মতে, স্বামীনারায়ণ জয়ন্তী, রাম নবমী, জন্মাষ্টমী, দশেরা, দিওয়ালি এবং প্রায় সব প্রধান ধর্মীয় উৎসব এই মন্দিরে হিন্দুরা পালন করে থাকে।[৯] হোলি উদযাপন করা হয় মন্দিরের মাঠের কেন্দ্রে হোলির আগুন জ্বালানোর সাথে, তারপরে রঙ নিয়ে খেলা হয়। জন্মাষ্টমীতে কৃষ্ণের ভজন এবং উপদেশ গেয়ে উদযাপন করা হয়। আবার দীপাবলিতে ভক্তরা রামকে তার চৌদ্দ বছরের নির্বাসন থেকে স্বাগত জানাতে প্রদীপ এবং মোমবাতি জ্বালায়। শেষে তিনি রাবণকে পরাজিত করেছিলেন এবং যুবকরা এই উপলক্ষে মন্দিরে পটকা ফাটায়।[১০][১১][১২] এই মন্দিরে হোলি উৎসব উদযাপন করাচির সবচেয়ে বড়।[১৩]

মন্দিরটি বিবাহের স্থান হিসাবেও দ্বিগুণ। ২০০৮ সালে ২০ জন দরিদ্র দম্পতির জন্য একটি গণবিবাহের ব্যবস্থা করা হয়েছিল।[১৪]

হিংলাজ যাত্রা

সম্পাদনা

প্রতি বছর এখানে স্বামীনারায়ণ মন্দির চত্বর থেকে হিংলাজ যাত্রা শুরু হয়।[১৫]

গুরুদ্বার

সম্পাদনা

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশের করাচি জেলায় স্বামীনারায়ণ মন্দির কমপ্লেক্সে যেখানে একটি ছোট হিন্দু সম্প্রদায় বাস করে সেখানে ছোট শিখ সম্প্রদায়ের জন্য একটি গুরুদ্বার তৈরি করা হয়েছে।

গুরুদ্বার সাহেবে পালকি সাহেবে শ্রী গুরু গ্রন্থ সাহিব জি-এর তিনটি সেট রয়েছে। এখানে গুরুদের ছবি এবং গুরু নানক দেব জিকে উৎসর্গ করা একটি ছোট মন্দির রয়েছে। গুরুদ্বার সাহেবেও একটি হিন্দু ঘণ্টা আছে।

অল্প সংখ্যক হিন্দু পরিবারের সুরক্ষার জন্য পুরো কম্পাউন্ডটি একজন নিরাপত্তা প্রহরী দ্বারা সুরক্ষিত।

চিত্রশালা

সম্পাদনা


তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "Shri Swaminarayan Temple, Karachi" 
  2. "Men in Saffron on goodwill tour of Pak"The Times of India। ২০০৪-০৩-৩০। ২০১২-১০-২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৪-১০ 
  3. "Rare Musharraf gesture: temple visit and talk of unity" 
  4. "Minorities in Pakistan lack options – and hope"The National। ২০০৯-০৮-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৯-০৫ 
  5. "Rocking Karachi"H.M. Naqvi। Forbes। ২ সেপ্টেম্বর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ৫ সেপ্টেম্বর ২০০৯ 
  6. "Dilapidated old building haunts CDGK employees"Daily Times। ২০০৮-০৪-২৮। মে ২, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৯-০৫ 
  7. "City on the edge"। Archived from the original on জুন ১, ২০০৮। 
  8. Vazira Fazila-Yacoobali Zamindar (২০০৭)। The long partition and the making of modern South Asia। Columbia University Press। আইএসবিএন 9780231138468। সংগ্রহের তারিখ মে ২২, ২০০৯  Page 52
  9. "Temples in Pakistan: Swami Narayan Temple Opposite Kmc M.A Jinnah Road Karachi."। Archived from the original on ২০১২-০৮-১৫। 
  10. "Pak Hindu community celebrates Holi in Karachi"। The Cheers Magazine। ২০০৮-০৩-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১২-১৯ 
  11. "KARACHI: Janamashtami festival celebrated"Dawn। ২০০৯-০৮-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১২-১৯ 
  12. "Karachi: A place for all souls"globalpost.com। ২০০৯-১১-০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১২-১৯ 
  13. "Hindus in Pakistan set to celebrate Holi"Gulf Times। ২০ মার্চ ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২১ মার্চ ২০১১ 
  14. "Swami Narayan Temple – Eternal bliss"Daily Times। ২০০৮-১১-০২। ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-১২-১৯ 
  15. "History of Hinglaj Maa" 

বহিঃসংযোগ

সম্পাদনা