বালি একটি দানাদার উপাদান যা সূক্ষ্মভাবে বিভক্ত শিলা এবং খনিজ কণার সমন্বয়ে গঠিত। বালি বিভিন্ন রচনা আছে তবে এর শস্য আকার দ্বারা সংজ্ঞায়িত করা হয়। বালির দানা চেয়ে ছোট হয় নুড়ি চেয়ে coarser পলি । বালি মাটি বা মাটির ধরণের একটি টেক্সচারাল শ্রেণিকেও উল্লেখ করতে পারে; অর্থাত্ ভর দিয়ে 85 শতাংশের বেশি বালি-আকারের কণা সমেত একটি মাটি। [২]

স্যান্ড ডিউনসইদিহান উবারি, লিবিয়া।
কাচের বালু, বালুয়াড়ি, কোয়ার্টজ বালি, আগ্নেয়গিরির বালু, প্রবাল বালু, স্বচ্ছ লাল গারনেট বালি এবং অলিভাইন বালির চিত্রণ। উদাহরণগুলি মঙ্গোলিয়া, এস্তোনিয়া, হাওয়াই এবং মূল ভূখণ্ডের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে (প্রতিটি 1x1 সেমি) [১]

বালির গঠন স্থানীয় নুড়ি পাথরের উৎস এবং বিভিন্ন অবস্থার উপরে নির্ভর করে বিভিন্ন রকম হয় কিন্তু অধিকাংশ ক্ষেত্রে যেমনঃঅভ্যন্তরীণ মহাদেশীয় এবং ক্রান্তীয় উপকূল নয় এমন জায়গাগুলোর গঠনে বালির সবচেয়ে সাধারণ উপাদান হ'ল সিলিকা (সিলিকন ডাই অক্সাইড, বা SiO2 ),যা সাধারণত কোয়ার্টজ আকারে থাকে।বালির ২য় সাধারণ উপাদান হল ক্যালসিয়াম কার্বোনেট যেমনঃ আরাগোনাইট যা গত ৫০ কোটি বছর ধরে বিভিন্ন জীবের গঠনে যেমনঃ প্রবাল,শেলফিশ এদের আকারে তৈরি হয়ে এসেছে ।উদাহরণস্বরুপ যে জায়গাগুলোর বাস্ততন্ত্রে প্রবাল্প্রাচীর বেশি প্রভাব রেখেছে যেমনঃ ক্যারিবিয়ান ,সেখানকার বালির মূল উপাদান এই ক্যালসিয়াম কার্বোনেট।অল্প কিছু ক্ষেত্রে বালি ক্যালসিয়াম সালফেট দ্বারা গঠিত হয় যেমনঃজিপসাম,সেলেনাইট এবং এগুলো ইউনাইটেড স্টেটসের হোয়াইট স্যান্ডস ন্যাচারাল পার্ক এবং স্ল্ট প্লেইনস ন্যাশনাল ওয়াইল্ডলাইফ রিফিউজ এ পাওয়া যায়।

বালি হ'ল মানব সময়সীমার তুলনায় একটি নবীকরণযোগ্য সম্পদ , এবং কংক্রিট তৈরির জন্য উপযুক্ত বালির উচ্চ চাহিদা রয়েছে। [৩] মরুভূমি বালি, প্রচুর পরিমাণে হলেও কংক্রিটের জন্য উপযুক্ত নয়। প্রতি বছর 50 বিলিয়ন টন সৈকত বালি এবং জীবাশ্ম বালি ব্যবহারের জন্য ব্যবহৃত হয়। [৪]

রচনাসম্পাদনা

 
সৈকতের কোয়ার্টজ দানা যুক্ত বালিতে প্রাপ্ত ভারী খনিজ (কালো) ( চেন্নাই, ভারত)।
 
কোরাল গোলাপী স্যান্ড ডিউনস স্টেট পার্ক, ইউটা থেকে প্রাপ্ত বালি। এগুলো হেমাইটাইট কোটিং যুক্ত কোয়ার্টজের দানা এবং এদের রং কমলা ।
 
ক্যালিফোর্নিয়ার পিসমো বিচ এর বালু। উপাদানগুলো মূলত কোয়ার্টজ, চের্ট, ইগনিয়াস রক এবং শেল টুকরা।

বালির সঠিক সংজ্ঞা পরিবর্তিত হয়।প্রকৌশল ও ভূতত্ব ব্যবস্থায় ব্যবহৃত যে সায়েন্টিফিক ইউনিফাইড সয়েল ক্লাসিফিকেশন সিস্টেম তা মার্কিন স্ট্যান্ডার্ড সিভস(চালুনি) এর সাথে মিলে যায়, [৫] এবং 0.04 থেকে 4.75 মিলিমিটারের ব্যাসযুক্ত কণা কে বালি কণা হিসাবে সংজ্ঞায়িত করে। অন্য একটি সংজ্ঞা অনুসারে, ভূতাত্ত্বিকদের দ্বারা ব্যবহৃত কণার আকারের ক্ষেত্রে, কণাগুলির ব্যাসের পরিমাণ ০.০৬২৫ মিমি থেকে  (বা ১/১৬  মিমি) থেকে ২ মিমি এই ব্যাপ্তির মধ্যে থাকা কোন পৃথক কণাকে বালির দানা বলা হয়। বালির দানা নুড়িপাথর (পরবর্তী সিস্টেমে ২ মিমি থেকে শুরু করে  64 মিমি পর্যন্ত এবং পূর্বের সিস্টেম অনুসারে 4.75 থেকে 75 মিমি পর্যন্ত) এবং পলি (০.০৬২৫মিমি এর চেয়ে ছোট কণা থেকে ০.০০৪ মিমি)এর মাঝামাঝি । বালি এবং নুড়িগুলির নির্দিষ্ট আকার এক শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে স্থির ছিল, তবে কণার ব্যাসগুলো ০.০২ মিমি এর ছোট হলে,  বিংশ শতাব্দীর গোড়ার দিকে অ্যালবার্ট অটারবার্গের স্ট্যান্ডার্ড অনুসারে তা বালু হিসাবে বিবেচিত হত। খ্রিস্টপূর্ব ২৪০ অব্দে লেখা আর্কিমিডিসের ' দ্য স্যান্ড রেকোনার এ বালির শস্যগুলো ছিল 0.02 ব্যাস মিমি। ১৯৩৮সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের স্পেসিফিকেশনে বলা হয় ০.০৫ মিমি [৬] আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অফ স্টেট হাইওয়ে অ্যান্ড ট্রান্সপোর্টেশন অফিসারদের দ্বারা ১৯৫৩ সালে প্রকাশিত একটি ইঞ্জিনিয়ারিং স্ট্যান্ডার্ড ন্যূনতম বালির আকার ০.০৭৪ মিমি এ নির্ধারণ করেছে ।মিমি আঙ্গুলের মাঝে ঘষলে বালি শক্ত অনুভূত হয়। পলি(সিল্ট) তুলনামূলক ময়দার মতো অনুভূত হয়।

আইএসও ১৪৬৮৮,০.০৬৩২ মিমি থেকে ০.২মিমি বালি কে সুক্ষ্ম বালি,০.২মিমি থেকে ০.৬৩ মিমি কে মাঝারি বালি এবং ০.৬৩মিমি থেকে ২মিমি কে মোটা বালি হিসাবে বিভক্ত করেছে ।। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, বালি সাধারণভাবে আকারের উপর ভিত্তি করে পাঁচটি উপভাগে বিভক্ত করা হয় , খুব সূক্ষ্ম বালি (১/১৬  মিমি - ১/৮ মিমি ব্যাস), মাঝারি বালি(১/৮  মিমি - ১/৪ মিমি), মোটা বালি  (১/২মিমি - 1 মিমি), এবং খুব মোটা বালু (1 মিমি - 2 মিমি)। এই আকারগুলো ক্রাম্বেইন ফাই স্কেলের উপর ভিত্তি করে, যেখানে আকার Φ = -log2D , কণার আকার ডি মিমি। এই স্কেলে,পুরো সংখ্যায় উপ-বিভাগগুলোর মধ্যে বিভাজন সহ বালির জন্য Φ এর মান −১ থেকে +৪ পর্যন্ত পরিবর্তিত হয়।

 
Perissa, থেকে কালো আগ্নেয় বালির কাছের একটি ছবি সান্তরিনি, গ্রীস

অভ্যন্তরীণ মহাদেশীয় এবং ক্রান্তীয় উপকূল নয় এমন জায়গাগুলোর গঠনে বালির সবচেয়ে সাধারণ উপাদান হ'ল সিলিকা (সিলিকন ডাই অক্সাইড, বা SiO2 ), সাধারণত কোয়ার্টজ আকারে থাকে , যা রাসায়নিক জড়তা এবং যথেষ্ট দৃঢ়তার কারণে, সবচেয়ে বেশি আবহাওয়া প্রতিরোধী একটি খনিজ।

স্থানীয় শিলার উত্স এবং অবস্থার উপর নির্ভর করে ,খনিজ বালির গঠন পরিবর্তনশীল। গ্রীষ্মমন্ডলীয় এবং উপ-ক্রান্তীয় উপকূলীয় অঞ্চলের গঠনে পাওয়া উজ্জ্বল সাদা বালুগুলো ক্ষয়প্রাপ্ত চুনাপাথর এবং এতে অন্যান্য জৈব বা জৈবিকভাবে উদ্ভূত খণ্ডিত উপাদানের পাশাপাশি প্রবাল এবং শেল টুকরা থাকতে পারে, যা বোঝায় ,বালি গঠন জীবন্ত জীবের উপরও নির্ভর করে। [৭] নিউ মেক্সিকোতে হোয়াইট স্যান্ডস ন্যাশনাল পার্কের জিপসাম বালির টিলাগুলো উজ্জ্বল, সাদা রঙের জন্য বিখ্যাত। আরকোস হ'ল একটি বালু বা বেলেপাথর যাতে যথেষ্ট পরিমাণে ফেল্ডস্পার থাকে, এটি (সাধারণত কাছাকাছি) গ্রানাইটিক পাথরের ভেঙে যাওয়া(ওয়েদারিং) এবং ক্ষয়প্রাপ্ত অংশের স্থানান্তরের ফলে উদ্ভূত হয় (এরোসন)। কিছু বালিতে ম্যাগনেটাইট, ক্লোরাইট, গ্লুকোনেট বা জিপসাম থাকে । ম্যাগনেটাইট সমৃদ্ধ বালুকণাগুলি গাঢ় থেকে কালো বর্ণের, যেমন আগ্নেয়গিরির বেসাল্টস এবং অবিসিডিয়ান থেকে প্রাপ্ত বালির মতো। ক্লোরাইট - গ্লুকোনাইট সমৃদ্ধ বালি সাধারণত সবুজ রংএর হয়, যেমন ব্যাসাল্টিক লাভা থেকে থেকে প্রাপ্ত বালিতে বেশি পরিমাণে অলিভিন সামগ্রী রয়েছে। অনেক বালুকণা, বিশেষত দক্ষিণ ইউরোপে যেগুলো ব্যাপকভাবে পাওয়া যায়, সেসব বালির কোয়ার্টজ স্ফটিকগুলির মধ্যে লোহা রয়েছে, যা গভীর হলুদ বর্ণ দেয়। কিছু অঞ্চলে বালুকার মধ্যে কিছু ছোট রত্ন সহ গারনেট( ডালিম দানার মত মণি) এবং অন্যান্য প্রতিরোধী খনিজ রয়েছে।

উৎসসম্পাদনা

মূলত জল এবং বায়ু দ্বারা দীর্ঘ সময় ধরে পাথর বা শিলা গুলির ক্ষয় হয় ,ভেংগে যায় অথবা এদের দ্বারা স্থানান্তরিত হয় এবং এদের তলানি ডাউনস্ট্রীমে প্রবাহিত হয়। এই তলানিগুলো বালির সূক্ষ্ম দানা না হওয়া অবধি ছোট ছোট টুকরো হয়ে যেতে থাকে। এই তলানি কোন ধরণের পাথর থেকে উত্পন্ন এবং সেই পরিবেশের অবস্থার উপরে নির্ভর করে বিভিন্ন বালির বিভিন্ন গঠন হয়ে থাকে। বালি গঠনের সর্বাধিক প্রচলিত শিলা/পাথর হল গ্রানাইট, যেখানে ফেল্ডস্পার খনিজগুলো কোয়ার্টজের চেয়ে দ্রুত দ্রবীভূত হয়, যার ফলে শিলাটি ছোট ছোট টুকরা হয়ে যায়। স্থির পরিবেশের চেয়ে উচ্চ শক্তির পরিবেশে শিলাগুলো আরও দ্রুত বিচ্ছিন্ন হয়। উদাহরণস্বরূপ, গ্রানাইট রকস থেকে উদ্ভূত বালিতে আরও ফেল্ডস্পার খনিজ থাকে কারণ এটি দ্রবীভূত হওয়ার সময় পায় না। ওয়েদারিং(জল ,বায়ু,বরফ দ্বারা পাথর ভেংগে যাওয়া) এ যে বালি সৃস্টি হয় ,তাকে বলে এপিক্লাস্টিক। [৮]

নদী থেকে পাওয়া যে বালি তা নদী থেকে বা তার বন্যার সমভূমি থেকে সংগ্রহ করা হয় এবং নির্মাণ শিল্পে ব্যবহৃত বেশিরভাগ বালির জন্য হিসাব করা হয়। এ কারণে বহু ছোট ছোট নদী নিঃশেষিত হয়ে পড়েছে, যার ফলে পার্শ্ববর্তী জমির পরিবেশগুলোতে উদ্বেগ ও অর্থনৈতিক ক্ষতি হয়েছে। এ জাতীয় অঞ্চলে বালু খননের হার, বালুটি যে পরিমাণে তা পূরণ করতে পারে ,তার পরিমাণকেও ছাড়িয়ে যায়, তাই এটি অনবায়নযোগ্য সম্পদে পরিণত হয়। [৯]

বালুর এই স্তূপ শুষ্ক অবস্থা বা বাতাস দ্বারা প্রবাহিত হয়ার ফলে সৃষ্টি হয়।সাহারা মরুভূমি এর ভৌগোলিক অবস্থান এর জন্য অনেক শুষ্ক এবং এর বিশাল বালুস্তূপের জন্য পরিচিত।এরা এখানে থাকে কারণ খুব অল্প পরিমাণে গাছপালা জন্মায় এবং খুব বেশি পানি থাকেনা ।সময়ের সাথে সাথে বাতাসে সব সুক্ষ কণা যেমনঃমাটি বা মৃত জৈব পদার্থ ভেসে দূরে চলে যায়,শুধুমাত্র বালি এবং বড় পাথরগুলো ছাড়া ।সাহারা মরুভূমির শুধুমাত্র ১৫% বালির স্তূপ বাকি ৭০% পাথর (রক)।বিভিন্ন রকম পরিবেশ সৃষ্টির জন্য এবং বালির গোলাকার ও মসৃণ আকার সৃষ্টির জন্যে এই বাতাস দায়ী।এই বৈশিষ্ট্যগুলোর জন্যই এই বালি নির্মাণের কাজে ব্যবহার করা হয়না।

সমুদ্রসৈকতের বালিও ক্ষয়ের ফলে গঠিত। কয়েক হাজার বছর ধরে, সমুদ্র ঢেউ থেকে আসা অবিচ্ছিন্ন গতির প্রভাবে তীরভূমির নিকটে থাকা পাথরগুলি ক্ষয় হয় এবং পলি জমে ।ভেঙে যাওয়া পাথরখন্ড (ওয়েদারিং) এবং নদীতে জমা তলানি ,সমুদ্র সৈকত তৈরির প্রক্রিয়াও ত্বরান্বিত করে, সমুদ্রের প্রাণীগুলো শিলাপাথরগুলোর উপর প্রভাব ফেলে যেমন তাদের শেওলাগুলি খেয়ে ফেলে। সমুদ্র সৈকতে একবার পর্যাপ্ত পরিমাণে বালি জমে গেলে, তখন জমি আরও ক্ষয় যাতে না ঘটে, সেজন্য সৈকত তখন বাধা হিসাবে কাজ করে। এটি কৌণিক এবং বিভিন্ন আকারের হওয়ার জন্য এই বালিটি নির্মাণের জন্য আদর্শ। [১০]

সামুদ্রিক বালু (বা সমুদ্রের বালি) সমুদ্রের মধ্যে স্থানান্তরিত হওয়া পলি এবং সমুদ্রের শিলাগুলির ক্ষয় থেকে আসে। বালির স্তরের পুরুত্ব পরিবর্তিত হয়, তবে সাধারণত ভূমির কাছাকাছি বেশি বালি থাকে ; এই জাতীয় বালি নির্মাণের জন্য আদর্শ এবং এটি একটি অত্যন্ত মূল্যবান পণ্য। ইউরোপ হল সামুদ্রিক বালির মূল খনি, যা বাস্তুতন্ত্র এবং স্থানীয় ফিশারিগুলিতে ব্যাপক ব্যাঘাত ঘটায়। [৯]

অধ্যয়নসম্পাদনা

 
পশ্চিমের মরুভূমি, মিশর থেকে পাওয়া পিট বালির শস্য। পিটিং বায়ু পরিবহনের ফলে ঘটে।

পৃথক কনা বা দানার উপরে গবেষণার ফলে এর উৎপত্তি এবং কিভাবে প্রবাহিত হয়, তার উপরে অনেক ঐতিহাসিক তথ্য প্রকাশিত হতে পারে। [১১] কোয়ার্টজ বালি যা সম্প্রতি গ্রানাইট বা গিনিস কোয়ার্টজ স্ফটিক থেকে পরিবেষ্টিত হয়েছে তার আকৃতি কৌনিক হবে। এটিকে জিওলজি তে গ্রাস বা বাসাবাড়ি নির্মাণের ব্যবসাতে ধারালো বালি হিসাবে বলা হয় যেখানে কংক্রিটকে প্রাধান্য দেওয়া হয়, এবং বাগান করার ক্ষেত্রে,এটি সয়েল এ্যামেন্ডমেন্ট হিসাবে কাজ করে মাটির গাঠনিক বৈশিষ্ট্যকে উন্নত করে ,কাদামাটিকে আলগা করে । জল বা বাতাসের দ্বারা দীর্ঘ দূরত্বে পরিবাহিত বালু গোলাকার হবে, সেই সাথে কণার পৃষ্ঠে ক্ষয় হওয়ার নমুনা থাকবে। মরুভূমি বালি সাধারণত গোলাকার হয়।

শখের বশে বালু সংগ্রহকারী ব্যক্তিরা আয়নোফাইল হিসাবে পরিচিত। বালির পরিবেশে যে জীবগুলি জন্মে তারা হ'ল সিমোফাইলস(psammophiles)

ব্যবহারসমূহসম্পাদনা

 
ইয়েলো বিল্ডিং স্যান্ড এর দানা। মাইক্রোস্কোপ লুমাম পি -8। ইপিআই লাইটিং। বালির প্রতিটি দানার ছবি মাল্টিফোকাল স্ট্যাকিংয়ের ফল।
  • ঘর্ষণ : স্যান্ডপেপারের আগে, ভেজা বালি ঘূর্ণ্ন ডিভাইসের ইলাস্টিক পৃষ্ঠে এবং খুব শক্ত পাথর (পাথরের ফুলদানি তৈরিতে), বা মেটাল (তামার রান্নার হাঁড়িগুলির দাগ অপসারণ করে পুনরায় ব্যবহারের কাজে) এর মধ্যে ঘর্ষনকারী উপাদান হিসাবে ব্যবহৃত হত।
  • কৃষি : বেলে মাটি তরমুজ, পীচ এবং চিনাবাদামের মতো ফসলের জন্য আদর্শ এবং তাদের নিষ্কাশন এর সুবিধাজনক বৈশিষ্ট্যগুলো দুগ্ধচাষের জন্য তাদের কে উপযুক্ত করে তোলে।
  • বায়ু পরিস্রাবণ : কাপড়ের সাথে মিশ্রিত সূক্ষ্ম বালি কণাগুলি সাধারণত কিছু নির্দিষ্ট গ্যাস মাস্ক ফিল্টার ডিজাইনে ব্যবহৃত হত তবে তা মাইক্রো ফাইবারগুলো দ্বারা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে প্রতিস্থাপিত হয়েছে ।
  • অ্যাকোয়ারিয়া : বালু স্বল্পমূল্যে অ্যাকোরিয়াম বেস উপাদান তৈরি করে যা কারও কারও মতে বাড়িতে ব্যবহারের জন্য নুড়ি থেকে ও ভাল। এটি নোনতা পানির রিফ ট্যাঙ্কগুলির জন্যও প্রয়োজনীয়, যা প্রবাল এবং শেলফিস ভেঙে সৃস্ট আরাগোনাইট সমৃদ্ধ বালির যেমন পরিবেশ তার মত ।
  • কৃত্রিম রিফ : জিওটেক্সটাইল ব্যাগযুক্ত বালু নতুন রিফের ভিত্তি হিসাবে কাজ করতে পারে।
  • পারস্য উপসাগরে কৃত্রিম দ্বীপপুঞ্জ ।
  • সৈকত পুষ্টি : সরকার সৈকতগুলিতে বালু স্থানান্তরিত করে যেখানে জোয়ার, ঝড় বা তীররেখায় ইচ্ছাকৃতভাবে কোন পরিবর্তন ঘটালে তা মূল বালিকে নষ্ট করে। [১২]
  • ইট : ম্যানুফাকচারিং প্লান্ট ইট উত্পাদন করার জন্য কাদামাটি এবং অন্যান্য উপকরণের মিশ্রণে বালি যুক্ত করে। [১৩]
  • কয়লার গোল চাঙ্গড়  : এর ৭৫% মোটা বালু দিয়ে গঠিত।
  • কংক্রিট : বালি অধিকাংশ ক্ষেত্রে এই নির্মাণ সামগ্রীর একটি প্রধান উপাদান।
  • গ্লাস : সিলিকা সমৃদ্ধ বালি সাধারণ চশমাগুলির প্রধান উপাদান।
  • হাইড্রোলিক ফ্র্যাকচারিং : প্রাকৃতিক গ্যাসের জন্য ড্রিলিংএর একটি কৌশল, যা গোলাকার সিলিকা বালি কে ব্যবহার করে, যা হাইড্রোলিক ফ্র্যাকচারিং প্রক্রিয়া দ্বারা সৃষ্ট খোলা ফাটল ধরে রাখার জন্য একটি উপাদান।
  • ল্যান্ডস্কেপিং: বালু ছোট ছোট পাহাড় এবং খাড়া জায়গা তৈরি করে (যেমনঃ গল্ফ কোর্স)।
  • মর্টার : নির্মানের কাজে ব্যবহার করা সিমেন্ট বা পোর্টল্যান্ড সিমেন্টের সাথে এবং চুনের সাথে বালি মিশ্রিত করে নির্মাণে ব্যবহৃত হয়।
  • পেইন্ট : পেইন্টের সাথে বালি মিশ্রিত করে ,দেয়াল এবং সিলিং বা নন-স্লিপ মেঝের পৃষ্ঠগুলির জন্য টেক্সচারযুক্ত ফিনিস উত্পাদন করে।
  • রেলপথ: ইঞ্জিন চালক এবং রেল ট্রানজিট অপারেটররা রেলগুলিতে চাকার ট্র্যাকশন উন্নত করতে বালু ব্যবহার করে।
  • বিনোদন: বালি দিয়ে খেলা ,বীচ বা সৈকতে একটি পছন্দের কাজ। বালির সর্বাধিক ব্যবহারগুলির মধ্যে একটি হ'ল কখনও কখনও জটিল, কখনও কখনও সরল কাঠামো যা বালি দুর্গ হিসাবে পরিচিত তা বানানো, যা অস্থায়ী হয়ে থাকে।। বিশেষত শিশুদের খেলার জায়গাতে, বালির একটি উল্লেখযোগ্য অংশ থাকে এবং তা স্যান্ডবক্স হিসাবে পরিচিত, অনেকগুলো পাবলিক খেলার মাঠে এবং এমনকি কিছু একক পরিবারের বাড়িতেও প্রচলিত। পর্বতারোহী, মোটরসাইকেল চালক এবং বীচ বগি চালকদের কাছে বালির টিলাও জনপ্রিয়।
  • রাস্তা: বালুচর বরফ বা তুষারযুক্ত অবস্থায় ট্র্যাকশন উন্নত করে (এবং এভাবে ট্রাফিক সুরক্ষা)।
  • বালি অ্যানিমেশন : পারফরম্যান্স শিল্পীরা বালিতে চিত্র আঁকেন। অ্যানিমেটেড ছায়াছবির নির্মাতারা ফ্রন্টলিট বা ব্যাকলিট গ্লাসে বালি ব্যবহারের বর্ণনা দিতে একই টার্ম ব্যবহার করেন।
  • বালির কাস্টিং: আর্দ্র কাস্টার বা তেল ছাঁচানো বালু, যা ফাউন্ড্রি স্যান্ড হিসাবে পরিচিত এবং ছাঁচে এই গলিত উপাদান ঢাললে সেই ছাঁচের রূপ নেয়। এই ধরণের বালিকে অবশ্যই উচ্চ তাপমাত্রা এবং চাপ সহ্য করতে পারতে হবে, গ্যাসগুলোর বের হওয়ার সুযোগথাকতে হবে , এই বালির আকার অভিন্ন হতে হবে, ছোট দানাদার আকার থাকবেএবং ধাতু দ্বারা প্রতিক্রিয়াশীল হওয়া যাবেনা।
  • স্যান্ডব্যাগগুলি : এগুলি বন্যা এবং গুলিবর্ষণ থেকে রক্ষা করে। খালি অবস্থায় সস্তা ব্যাগগুলি পরিবহন করা সহজ এবং অদক্ষ হলেও স্বেচ্ছাসেবীরা জরুরি অবস্থার মধ্যে স্থানীয় বালি দিয়ে দ্রুত তাদের পূরণ করতে পারে।
  • স্যান্ডব্ল্যাস্টিং : গ্রেডেড বালি(ছোটবড় সব ধরণের দানা থাকে) ঘর্ষণের একটি উপাদান হিসেবে পরিষ্কারকাজে, পরিচ্ছন্নতায়, প্রস্তুতি এবং মসৃণতার কাজে ব্যবহার করা হয়।
  • সিলিকন : কোয়ার্টজ বালি সিলিকন উৎপাদনের কাঁচামাল।
  • তাপীয় অস্ত্র : ব্যাপকভাবে ব্যবহার না হলেও, ক্লাসিকাল এবং মধ্যযুগীয় সময়কালে আক্রমণকারী সৈন্যদের উপর বালু উত্তপ্ত করা হত এবং ঢেলে দেওয়া হত।
  • পানি পরিস্রাবণ : মিডিয়া ফিল্টার জল পরিশোধনের জন্য বালি ব্যবহার করে। এটি সাধারণত অনেকগুলো ওয়াটার ট্রিটমেন্টে ব্যবহৃত হয়, প্রায়শই র্যাপিড স্যান্ড ফিল্টারের আকারে।
  • উদুʾ : দেহের বিভিন্ন অংশ মুছে ফেলার একটি ইসলামিক রীতি।
  • জোয়ান্থিড "কঙ্কাল": জীবজন্তু এই পর্যায়ে ,সামুদ্রিক বেনথিক সিনডেরিয়ান এর সাথে সম্পর্কিত কোরাল এবং সি এনেমোন তাদের স্ট্রাকচারাল স্ট্রেংথ পেতে তাদের মেসোগ্লেয়া তে বালি যুক্ত করে , যা তাদের জন্য প্রয়োজনীয় ,কারণ তাদের প্রকৃত পক্ষে কোন কঙ্কাল থাকেনা।

সম্পদ এবং পরিবেশগত উদ্বেগসম্পাদনা

কেবলমাত্র কয়েকটি বালু নির্মাণ শিল্পের জন্য উপযুক্ত, যেমনঃ কংক্রিট তৈরির জন্য। জনসংখ্যা এবং শহরগুলোর বৃদ্ধি এবং ফলস্বরূপ নির্মাণ কার্যক্রমের কারণে এই বিশেষ ধরণের বালির বিশাল চাহিদা রয়েছে এবং প্রাকৃতিক উত্সগুলোতে এর পরিমাণ কমছে। ২০১২ সালে ফরাসী পরিচালক ডেনিস দেলেস্ট্রাক নির্মাণকাজে বালির অভাবের প্রভাব নিয়ে "স্যান্ড ওয়ার্স " নামে একটি তথ্যচিত্র তৈরি করেছিলেন। এটি নির্মাণ কাজের বালির বৈধ এবং অবৈধ ,এই দুই ধরণের ব্যবসায়ের পরিবেশগত এবং অর্থনৈতিক প্রভাবগুলি দেখায়। [১৪] [১৫] [১৬]

বালি পুনরুদ্ধার করতে, হাইড্রলিক ড্রেজিং পদ্ধতি ব্যবহৃত হয়। এটি পানির উপরের কয়েক মিটার বালি পাম্প করে একটি নৌকায় ভরে কাজ করে, যা পরে প্রক্রিয়াজাতকরণের জন্য পুনরায় জমিতে স্থানান্তরিত হয়। দুর্ভাগ্যক্রমে, নিষ্কাশিত বালির সাথে মিশ্রিত সমস্ত সামুদ্রিক জীব মারা যায় এবং খনির কাজ সমাপ্ত হওয়ার পরে ও বাস্তুতন্ত্রগুলো বছরের পর বছর ধরে ভোগ করতে পারে। এটি কেবল সামুদ্রিক জীবকেই প্রভাবিত করে না, স্থানীয় মৎস্য ব্যবসা কেও প্রভাবিত করে এবং যেসব লোক পানির ধারে কাছে বাস করে তাদের উপরে ও প্রভাব ফেলে। যখন বালি পানি থেকে বের করা হয় তখন তা ভূমিধসের ঝুঁকি বাড়ায়, যার ফলে কৃষিজমি ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে অথবা ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে। [১৭]

বালুর অনেকগুলি ব্যবহারের জন্য মাছের অবনতি, ভূমিধস এবং বন্যার উপর পরিবেশ উদ্বেগ উত্থাপনকারী একটি উল্লেখযোগ্য ড্রেজিং শিল্পের প্রয়োজন। [১৮] চীন, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া এবং কম্বোডিয়ার মতো দেশ বালু রফতানি নিষিদ্ধ করে, এই বিষয়গুলিকে একটি প্রধান কারণ হিসাবে উল্লেখ করে। [১৯] অনুমান করা হয় যে, বালি এবং নুড়ি পাথরের বার্ষিক খরচ 40 বিলিয়ন টন এবং বৈশ্বিক শিল্পে বালি ইউএস ডলারে 70 বিলিয়ন ডলার। [২০]

২০১৭ সালে ৯৯.৫ বিলিয়ন ডলার শিল্পের মধ্যে,বালির জন্য বিশ্বব্যাপী চাহিদা ছিল ৯.৫৫ বিলিয়ন টন। [২১]

ঝুঁকিসমূহসম্পাদনা

যদিও বালি সাধারণত বিষাক্ত হয়না তবে বালি ব্যবহারে যেমন স্যান্ডব্লাস্টিংয়ের(শক্তিশালী মেশিন দ্বারা বালি স্প্রে করে কোন সারফেসের ফিনিশিং করা) মত কাজের জন্য সতর্কতা প্রয়োজন। স্যান্ডব্লাস্টিংয়ের জন্য ব্যবহৃত সিলিকা বালির ব্যাগে এখন লেবেল থাকে ,যা ব্যবহারকারীকে শ্বাস-প্রশ্বাসের জন্য সুরক্ষা পরিধান করতে সতর্ক করে, যাতে সূক্ষ্ম সিলিকা ধুলা তে শ্বাস প্রশ্বাস নেয়া এড়াতে পারে। সিলিকা বালির জন্য যে সুরক্ষা ডেটা শিটগুলি থাকে তাতে উল্লেখ থাকে যে "সিলিকা স্ফটিকে অতিরিক্ত মাত্রায় শ্বাসগ্রহণ করা স্বাস্থ্যের জন্য গুরুতর উদ্বেগ"। [২২]

উচ্চ ছিদ্রযুক্ত পানির চাপের ক্ষেত্রে, বালি এবং লবণপানি কুইকস্যান্ড গঠন করতে পারে, যা একটি কলয়েড হাইড্রোজেল এবং তরলের মতো আচরণ করে। কুইকস্যান্ড এর ভিতরে ধরা পড়া প্রাণীদের বাঁচার জন্য যথেষ্ট বাধা তৈরি করে, ফলস্বরুপ এরা প্রায়শই এক্সপোজারে(অধিকাংশ ক্ষেত্রে উচ্চ তাপমাত্রা ,বিষাক্ত গ্যাস) মারা যায় (ডুবে যাওয়া থেকে নয়)।

উত্পাদনসম্পাদনা

ম্যানুফাকচার স্যান্ড (এম স্যান্ড) সাধারণত সিমেন্ট বা কংক্রিটের নির্মাণ কাজের জন্য কৃত্রিম প্রক্রিয়ায় রক বা পাথর থেকে তৈরি বালি। এটি নদীতে পাওয়া বালি থেকে পৃথক, আরও কৌণিক এবং এর কিছুটা আলাদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে। [২৩]

কেস স্টাডিজসম্পাদনা

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে অবকাঠামো নির্মাণ ও নতুন দ্বীপ তৈরিতে বালি ব্যবহারের খুব চাহিদা রয়েছে। তারা তাদের নিজস্ব মজুদ ব্যবহার করে এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে ও বালি আমদানি করে। কৃত্রিম দ্বীপগুলি তৈরির জন্য তিনটি প্রকল্প রয়েছে যেখানে ৮৩৫ মিলিয়ন টনেরও বেশি বালু প্রয়োজন, যার ব্যয় হিসাব করা হয়েছে ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। [২৪]

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

বালু খনির পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া
  1. Siim Sepp। "Sand types"। sandatlas.org। ১৩ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  2. Glossary of terms in soil science. (PDF)। Agriculture Canada। ১৯৭৬। পৃষ্ঠা 35। আইএসবিএন 978-0662015338 
  3. Constable, Harriet (৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭)। "How the demand for sand is killing rivers"BBC News Magazine। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  4. Albarazi, Hannah। "The Slippery Slopes of the World Sand Shortage"। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১৯ 
  5. Unified Soil Classification System[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. Urquhart, Leonard Church, "Civil Engineering Handbook" McGraw-Hill Book Company (1959) p. 8-2
  7. Seaweed also plays a role in the formation of sand. Susanscott.net (1 March 2002). Retrieved on 24 November 2011.
  8. Gilman, Larry (২০১৪)। Sand (5 সংস্করণ)। The Gale Encyclopedia of Science। পৃষ্ঠা 3823–3824। 
  9. Padmalal, Maya (২০১৪)। "Sources of Sand and Conservation"। Sand Mining। Springer, Dordrecht। পৃষ্ঠা 155–160। আইএসবিএন 978-94-017-9143-4 
  10. "How Is A Beach Formed?"WorldAtlas (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১০ এপ্রিল ২০১৯ 
  11. Krinsley, D.H., Smalley, I.J. 1972. Sand. American Scientist 60, 286–291
  12. "Importing Sand, Glass May Help Restore Beaches"NPR.org। ১৭ জুলাই ২০০৭। 
  13. Yong, Syed E. Hasan, Benedetto De Vivo, Bernhard Grasemann, Kurt Stüwe, Jan Lastovicka, Syed M. Hasan, Chen (৫ ডিসেম্বর ২০১১)। Environmental and Engineering Geology -Volume III। EOLSS Publications। পৃষ্ঠা 80। আইএসবিএন 978-1-84826-357-4 
  14. See Sand Wars teaser here.
  15. Simon Ings (২৬ এপ্রিল ২০১৪)। "The story of climate change gets star treatment": 28–9। 
  16. Strände in Gefahr? ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে Arte Future, last updated 23 April 2014
  17. Kim, Tae Goun (১৪ সেপ্টেম্বর ২০০৭)। "The economic costs to fisheries because of marine sand mining in Ongjin Korea: Concepts, methods, and illustrative results": 498–507। ডিওআই:10.1016/j.ecolecon.2007.07.016 
  18. Torres, Aurora (৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭)। "The world is facing a global sand crisis"The Conversation। সংগ্রহের তারিখ ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  19. "The hourglass effect"The Economist। ৮ অক্টোবর ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ১৪ অক্টোবর ২০০৯ 
  20. Beiser, Vince (২৬ মার্চ ২০১৫)। "The Deadly Global War for Sand"Wired। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মার্চ ২০১৫ 
  21. Doyle, Alister (১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯)। "As ice melts, Greenland could become big sand exporter: study"reuters.com 
  22. Silica sand MSDS ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১১ মার্চ ২০০৬ তারিখে. Simplot (13 March 2011). Retrieved on 24 November 2011.
  23. Pilegis, M.; Gardner, D. (২০১৬)। "An Investigation into the Use of Manufactured Sand as a 100% Replacement for Fine Aggregate in Concrete": 440। ডিওআই:10.3390/ma9060440পিএমআইডি 28773560পিএমসি 5456819  
  24. PEDUZZI, Pascal (এপ্রিল ২০১৪)। "Sand, rarer than one thinks": 208–218। ডিওআই:10.1016/j.envdev.2014.04.001