ফারুক ইঞ্জিনিয়ার

ভারতীয় ক্রিকেটার

ফারুক মানেকশ ইঞ্জিনিয়ার (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম: ২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৩৮) তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের মহারাষ্ট্রের বোম্বে এলাকায় জন্মগ্রহণকারী পার্সি বংশোদ্ভূত ম্যাচ রেফারি ও সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৬১ থেকে ১৯৭৫ সময়কালে ভারত দলের পক্ষে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

ফারুক ইঞ্জিনিয়ার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামফারুক মানেকশ ইঞ্জিনিয়ার
জন্ম (1938-02-25) ২৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৩৮ (বয়স ৮২)
বোম্বে, মহারাষ্ট্র, ব্রিটিশ ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক, ব্যাটসম্যান, ম্যাচ রেফারি
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১০২)
১ ডিসেম্বর ১৯৬১ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট২৩ জানুয়ারি ১৯৭৫ বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ )
১৩ জুলাই ১৯৭৪ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই১৪ জুন ১৯৭৫ বনাম নিউজিল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ৪৬ ৩৩৫ ১৬০
রানের সংখ্যা ২৬১১ ১১৪ ১৩৪৩৬ ৩০০৮
ব্যাটিং গড় ৩১.০৮ ৩৮.০০ ২৯.৫২ ২৩.৩১
১০০/৫০ ২/১৬ -/১ ১৩/৬৯ ০/১২
সর্বোচ্চ রান ১২১ ৫৪* ১৯২ ৯৩
বল করেছে - - ১৩২ -
উইকেট - - -
বোলিং গড় - - ১১৭.০০ -
ইনিংসে ৫ উইকেট - - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - - -
সেরা বোলিং - - ১/৪০ -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৬৬/১৬ ৩/১ ৭০৪/১২০ ১৫৯/৩১
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৯ আগস্ট ২০১৭

দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়াও, ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি লেগ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন মাতুঙ্গার পোদার কলেজের প্রাক্তন ছাত্র ফারুক ইঞ্জিনিয়ার। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে বোম্বে ও ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে ল্যাঙ্কাশায়ারের পক্ষে খেলেছেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটসম্পাদনা

১৯৫৯ থেকে ১৯৭৫ সময়কালে ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে বোম্বের প্রতিনিধিত্ব করেন। ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটে ১৯৬৮ থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত ল্যাঙ্কাশায়ারের সদস্য ছিলেন। তন্মধ্যে, জুন, ১৯৭৫ সালে বাক্সটনের পার্ক রোডে ল্যাঙ্কাশায়ারের পক্ষে খেলেন। ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ঐ খেলাটি প্রচণ্ড তুষারপাতের কারণে বন্ধ রাখতে হয়েছিল।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটসম্পাদনা

১৯৬১ থেকে ১৯৭৫ সময়কাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সক্রিয় ছিলেন ফারুক ইঞ্জিনিয়ার। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ভারতের পক্ষে ৪৬ টেস্টে অংশ নিয়েছেন। ভারতের পক্ষে দুইটি টেস্ট শতক হাঁকিয়েছেন। ১ ডিসেম্বর, ১৯৬১ তারিখে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে।

২৩ জানুয়ারি, ১৯৭৪ তারিখে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওডিআই অভিষেক হয় তার। ৩৬ বছর ১৩৮ দিন বয়সে ভারতের বয়োজ্যেষ্ঠ ওডিআই ক্রিকেটার হিসেবে ফারুক ইঞ্জিনিয়ারের অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয়।[১]

বহিঃবিশ্ব একাদশের পক্ষে উইকেট-রক্ষক ছিলেন তিনি। ১৯৭০ সালে একাদশের সদস্যরূপে ইংল্যান্ড ও ১৯৭১-৭২ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলেন।

ক্রিকেট বিশ্বকাপসম্পাদনা

১৯৭৫ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ক্রিকেট বিশ্বকাপের উদ্বোধনী আসরে ভারত দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১১ জুন, ১৯৭৫ তারিখে লিডসের হেডিংলি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত প্রুডেন্সিয়াল বিশ্বকাপের ষষ্ঠ খেলায় পূর্ব আফ্রিকার বিপক্ষে স্মরণীয় অবদান রাখেন। এক ক্যাচ নেয়ার পাশাপাশি ৯৩ বলে অপরাজিত ৫৪* রান সংগ্রহ করেন। খেলায় তার দল ১০ উইকেটের বিরাট ব্যবধানে জয় তুলে নেয়।[২] তিনি ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার লাভ করেন।

সম্মাননাসম্পাদনা

১৯৬৫ সালে বর্ষসেরা ভারতীয় ক্রিকেট ক্রিকেটার মনোনীত হন ও ১৯৭৩ সালে পদ্মশ্রী পদক লাভ করেন।[৩] বর্তমানে তিনি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করছেন।

অধিকাংশ সময়েই তিনি ভারতের প্রথম পছন্দের উইকেট-রক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন। বেদী, প্রসন্ন, চন্দ্রশেখরভেঙ্কটরাঘবনের ন্যায় স্পিনার চতুষ্টয়ের বলগুলো সযত্নে গ্লাভস বন্দীতে অগ্রসর হন। অত্যন্ত আক্রমণধর্মী, কার্যকরী ও দর্শনীয় ব্যাটিংশৈলীর ব্যাটসম্যান হিসেবেও তিনি ভূমিকা রেখেছেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Oldest debutant"। Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ ডিসেম্বর ২০১১ 
  2. "1975 Prudential World Cup - 6th Match - East Africa v India - Leeds" 
  3. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ আগস্ট ২০১৭ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা