টিম রবিনসন (ক্রিকেটার)

ইংরেজ ক্রিকেটার

রবার্ট টিমোথি টিম রবিনসন (ইংরেজি: Tim Robinson; জন্ম: ২১ নভেম্বর, ১৯৫৮) নটিংহ্যামশায়ারের সাটন-ইন-অ্যাশফিল্ড এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ও বিখ্যাত ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা। বর্তমানে তিনি আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৮৪ থেকে ১৯৮৯ সালের মধ্যে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্টএকদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নিয়েছেন।[১] কাউন্টি ক্রিকেটে নটিংহ্যামশায়ার দলে খেলেছেন।

টিম রবিনসন
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামরবার্ট টিমোথি রবিনসন
জন্ম (1958-11-21) ২১ নভেম্বর ১৯৫৮ (বয়স ৬২)
সাটন-ইন-অ্যাশফিল্ড, নটিংহ্যামশায়ার, ইংল্যান্ড
ডাকনামরব্বো, চপ[১]
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৫১১)
২৮ নভেম্বর ১৯৮৪ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট২৭ জুলাই ১৯৮৯ বনাম অস্ট্রেলিয়া
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ৭৬)
৫ ডিসেম্বর ১৯৮৪ বনাম ভারত
শেষ ওডিআই৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮ বনাম শ্রীলঙ্কা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৭৮-৯৯নটিংহ্যামশায়ার সিসিসি
আম্পায়ারিং তথ্য
ওডিআই আম্পায়ার৪ (২০১৩–২০১৪)
এফসি আম্পায়ার১০৬ (২০০২–বর্তমান)
এলএ আম্পায়ার৯৬ (২০০২–বর্তমান)
টি২০ আম্পায়ার৬০ (২০০৫–বর্তমান)
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ২৯ ২৬ ৪২৫ ৩৯৮
রানের সংখ্যা ১৬০১ ৫৯৭ ২৭৫৭১ ১১৮৮৯
ব্যাটিং গড় ৩৬.৩৮ ২২.৯৬ ৪২.১৫ ৩৪.৩৬
১০০/৫০ ৪/৬ –/৩ ৬৩/১৪১ ৯/৭৫
সর্বোচ্চ রান ১৭৫ ৮৩ ২২০* ১৩৯
বল করেছে ২৫৯
উইকেট
বোলিং গড় ৭২.২৫
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং ১/২২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/– ৬/– ২৫৭/০
উৎস: ক্রিকেট আর্কাইভ, ৫ জুন ২০১৩

১৯৮৬ সালে উইজডেন কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার পান তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে রবিনসনের ব্যাটিংয়ের ধরন অনেকাংশেই জিওফ্রে বয়কটের ন্যায়। ইংল্যান্ড দলে তার সূচনা ছিল প্রতিশ্রুতিশীল। ১৯৮৪-৮৫ মৌসুমে দিল্লিতে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় টেস্টে ভারতের বিপক্ষে অনবদ্য ১৬০ রান করেন। ১৯৮৫ মৌসুমের অ্যাশেজ সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুইটি শতক হাঁকান। কিন্তু, ১৯৮৫-৮৬ মৌসুমে অন্যান্য ইংরেজ ব্যাটসম্যানের ন্যায় তিনিও ওয়েস্ট ইন্ডিজের দূর্দান্ত পেস আক্রমণ মোকাবেলায় ব্যর্থ হন। আট ইনিংসে তিনি মাত্র ৭২ রান করেন। পরের বছরই তিনি ছন্দ খুঁজে পান। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ১৬৬ রান করেন।[২]

১৯৮৭-৮৮ মৌসুমে পাকিস্তান সফরে যান ও ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশ নেন। শীতকালীন এ সফরে তিনি পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড সফরে তিনি তেমন সফলতা পাননি। তন্মধ্যে সর্বাপেক্ষা স্মরণীয় ঘটনা ছিল চূড়ান্ত খেলায় ক্রেগ ম্যাকডারমটের প্রথম বলে এলবিডব্লিউর শিকার হওয়া। সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত দ্বি-শতবার্ষিকী টেস্ট খেলায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিনি পুণরায় ব্যর্থ হন। টনি ডোডেমাইডের শর্ট বলকে হুক করতে গিয়ে তিনি আউট হয়ে যান।

১৯৮৮ সালের ইংল্যান্ডের গ্রীষ্মকালের শেষে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও তিনি ব্যাটিং দক্ষতা দেখাতে পারেননি। শ্রীলঙ্কার মিডিয়াম পেস আক্রমণে আউট হন তিনি। ১৯৮৮-৮৯ মৌসুমে গ্রাহাম গুচের দক্ষিণ আফ্রিকার সম্পর্কের ফলে ভারত ও ইংরেজ ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে তিক্ততাপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠায় এ মৌসুমে ইংল্যান্ড কোন সফরে যায়নি।

১৯৮৯ সালে ওল্ড ট্রাফোর্ডে তিনি সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। খেলা শেষ হবার পূর্বেই প্রকাশ পায় যে, রবিনসন আসন্ন শীত মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকায় বিদ্রোহী সফরের লক্ষ্যে ষোলজন খেলোয়াড়কে নিয়ে একটি পার্টির আয়োজন করেন।[২]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটসম্পাদনা

১৯৯৯ সাল পর্যন্ত কাউন্টি ক্রিকেট খেলেছেন রবিনসন। সর্বমোট ৪২৫টি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ২৭,৫৭১ রান করেন ৬৩ সেঞ্চুরি সহযোগে, ৪২.১৫ গড়ে। টেস্ট খেলায় বল হাতে একবারই বোলিং করেন যা মেইডেন ওভার ছিল।[১]

আম্পায়ারসম্পাদনা

২০০৭ সালে ইসিবি কর্তৃক মনোনীত হয়ে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার খেলা পরিচালনা করেন।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Tim Robinson"। Espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ২৮ এপ্রিল ২০১১ 
  2. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 141। আইএসবিএন 1-869833-21-X 
  3. Burnton, Simon (৫ জুন ২০১৩)। "England v New Zealand – live!"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০১৩Tim Robinson's first decision as an international umpire was really unquibbleable 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

ক্রীড়া অবস্থান
পূর্বসূরী
ক্লাইভ রাইস
নটিংহ্যামশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট অধিনায়ক
১৯৮৮-১৯৯৫
উত্তরসূরী
পল জনসন