জ্যাক গ্রিগরি

অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার

জ্যাক মরিসন গ্রিগরি (ইংরেজি: Jack Gregory; জন্ম: ১৪ আগস্ট, ১৮৯৫ - মৃত্যু: ৭ আগস্ট, ১৯৭৩) নিউ সাউথ ওয়েলসের উত্তর সিডনিতে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা ছিলেন। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯২০ থেকে ১৯২৯ সময়কালে ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।[১] দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডার ছিলেন। বামহাতে ব্যাটিং করার পাশাপাশি ডানহাতে ফাস্ট বোলিংয়ে সবিশেষ দক্ষতা প্রদর্শন করেছেন জ্যাক গ্রিগরি

জ্যাক গ্রিগরি
Jgregory.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজ্যাক মরিসন গ্রিগরি
জন্ম(১৮৯৫-০৮-১৪)১৪ আগস্ট ১৮৯৫
উত্তর সিডনি, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু৭ আগস্ট ১৯৭৩(1973-08-07) (বয়স ৭৭)
বেগা, নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১০৭)
১৭ ডিসেম্বর ১৯২০ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৫ ডিসেম্বর ১৯২৮ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯২০–১৯২৯নিউ সাউথ ওয়েলস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২৪ ১২৯
রানের সংখ্যা ১,১৪৬ ৫,৬৫৯
ব্যাটিং গড় ৩৬.৯৬ ৩৬.৫০
১০০/৫০ ২/৭ ১৩/২৭
সর্বোচ্চ রান ১১৯ ১৫২
বল করেছে ৫,৫৮২ ২২,০১৪
উইকেট ৮৫ ৫০৪
বোলিং গড় ৩১.১৫ ২০.৯৯
ইনিংসে ৫ উইকেট ৩৩
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৭/৬৯ ৯/৩২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩৭/– ১৯৫/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৪ জুলাই ২০১৭

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

১৭ ডিসেম্বর, ১৯২০ তারিখে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। ১৯২১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যান। জোহেন্সবার্গ টেস্টে মাত্র ৭০ মিনিটে ৬৭ বল মোকাবেলা করে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। বল মোকাবেলা ও সময়ের হিসেবে তার ঐ সেঞ্চুরিটি তৎকালীন সময়ে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসের রেকর্ড হিসেবে স্বীকৃতি পায়। পরবর্তীতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভিভ রিচার্ডস ১৯৮৫ সালে ৫৬ বলে সেঞ্চুরি করে নতুন রেকর্ড গড়লেও সময়ের রেকর্ডটি অদ্যাবধি অক্ষত রয়েছে। ১৯২০-২১ মৌসুমের অ্যাশেজ সিরিজে ১৫ ক্যাচ হস্তগত করেন। অদ্যাবধি যে-কোন টেস্ট সিরিজে ফিল্ডসম্যান হিসেবে সর্বাধিক ক্যাচ নেয়ার রেকর্ডটি টিকে রয়েছে।[২] ইনিংসে তার ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান ৭/৬৯। ১৯২০-২১ মৌসুমের ঐ টেস্টে এমসিজিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলায় তিনি সর্বমোট ৮/১০১ করেন।[১]

খেলার ধরনসম্পাদনা

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলসের পক্ষে ১২৯টি খেলায় অংশগ্রহণ করেন। ১৯২০ থেকে ১৯২৮ সাল পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেট আঙ্গিনায় তার দৃপ্ত পদচারণ ছিল। এ সময়ে তিনি অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ২৪ টেস্টে অংশ নেন। মূলতঃ ক্ষীপ্রগতির ডানহাতি ফাস্ট বোলার হলেও ব্যাটিংয়েও সমানতালে স্বীয় প্রতিভার বিচ্ছুরণ ঘটিয়েছেন। ৩৬.৫০ গড়ে ১১৪৬ রান সংগ্রহ করেন; তন্মধ্যে সেঞ্চুরি করেন দুইটি। ব্যাটিং করতেন বামহাতে ও গ্লাভসবিহীন অবস্থায়। এছাড়াও, দেহের নিম্নাঙ্গে বক্সবিহীন অবস্থায় ব্যাটিংয়ে নামতেন তিনি।[৩]

মূল্যায়নসম্পাদনা

 
জ্যাক গ্রিগরি'র ব্যাটিং

১৯২২ সালে উইজডেন কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটার মনোনীত হন তিনি।[৪] টাইমসের প্রতিবেদনে ১৯২৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের ইংল্যান্ড গমনে জর্জ ফ্রান্সিসজর্জ জনের বোলিংকে অস্ট্রেলীয় বোলার - জ্যাক গ্রিগরি ও টেড ম্যাকডোনাল্ডের ১৯২১ সালের ইংল্যান্ড সফরকালীন খেলার সাথে তুলনা করা হয়েছিল।[৫]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের ইতিহাসের সূচনালগ্নে অংশগ্রহণকারী অন্যতম দুই অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার ডেভ গ্রিগরিনেড গ্রিগরি সম্পর্কে তার কাকা।

১৯২৮ সালে সফরকারী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রিসবেন টেস্ট চলাকালে গুরুতরভাবে হাঁটুর আঘাতপ্রাপ্তির কারণে ক্রিকেট জীবন থেকে দূরে সরে আসতে হয় তাকে। ৭ আগস্ট, ১৯৭৩ তারিখে নিউ সাউথ ওয়েলসের বেগা এলাকায় ৭৭ বছর বয়সে জ্যাক গ্রিগরি’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "List of Players who have played for New South Wales". www.cricketarchive.com. Retrieved 11 July, 2017
  2. Cricinfo - Records - Test matches - Most catches in a series
  3. Cashman, profile of Gregory.
  4. "Wisden's Five Cricketers of the Year"ESPNcricinfoESPN। ২৩ মার্চ ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ এপ্রিল ২০১৫ 
  5. "A Great Finish at Scarborough", The Times, London (43439), পৃষ্ঠা 5, ৬ সেপ্টেম্বর ১৯২৩ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

গ্রন্থপঞ্জীসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা