ওনুয়া স্মৃতি ভাস্কর্য

ওনুয়া স্মৃতি ভাস্কর্য হল চাঁদপুর জেলার অন্তর্গত ফরিদগঞ্জ উপজেলার তিনজন প্রখ্যাত ব্যক্তির স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে তৈরি করা একটি স্মৃতিসৌধ বা ভাস্কর্য। এটি মূলত একটি গুণী সমাজ ভাস্কর্য

ওনুয়া স্মৃতি ভাস্কর্য
গুণী সমাজ ভাস্কর্য
Onua sriti vaskorjo 04.jpg
সাধারণ তথ্য
অবস্থাস্মৃতিসৌধ
ধরনস্মৃতিসৌধ/ভাস্কর্য
অবস্থানফরিদগঞ্জ উপজেলা
ঠিকানাফরিদগঞ্জ-রূপসা-রায়পুর রাস্তার মোড়, ফরিদগঞ্জ
শহরফরিদগঞ্জ উপজেলা, চাঁদপুর জেলা, চট্টগ্রাম
দেশবাংলাদেশ
নির্মাণ শুরু হয়েছেআগস্ট - ২০০৮
সম্পূর্ণ২০০৮
স্বত্বাধিকারীবাংলাদেশ সরকার
নকশা এবং নির্মাণ
স্থপতিঅখিল পাল

ইতিহাসসম্পাদনা

কালে কালে ফরিদগঞ্জ উপজেলায় অনেক কৃতি সন্তান জন্ম নিয়েছেন। তাদেরই মধ্যে তিনজন হলেন ওয়ালী উল্লাহ নওজোয়ান, নূরেজ্জামান ভুঁইয়াআইউব আলী খান। ফরিদগঞ্জে যাদের কৃতিত্ব অনেক। যারা ফরিদগঞ্জের তৎকালীন অবক্ষিত ও অবনতিশীল সমাজকে উত্তরণের জন্য শারীরিক, মানসিক ও আর্থিকভাবে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। তাই তাদের স্মরণে এবং তাদের স্মৃতিচিহ্ন রাখার জন্য ফরিদগঞ্জ উপজেলায় একটি স্মৃতিস্তম্ভ বা ভাস্কর্য তৈরি করা হয়। চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে ২০০৮ সালের আগস্ট মাসে এই ভাস্কর্যটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। যা ফরিদগঞ্জ-রূপসা ও লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর রাস্তার মোড়ে অবস্থিত।[১]

নকশা এবং স্মৃতিসৌধ নির্মাণসম্পাদনা

যুগে যুগে আসা ফরিদগঞ্জ উপজেলার কৃতি সন্তানদের মধ্যে অন্যতম তিনজন কৃতি সন্তানের স্মৃতি ধরে রাখতে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে ২০০৮ সালের আগস্ট মাসে এই ভাস্কর্যটি তৈরি করা হয়। এই ভাস্কর্যটির নকশাকারী ছিলেন বাংলাদেশের খ্যাতিমান ভাস্কর শিল্পী অখিল পাল

ওনুয়া স্মৃতি ভাস্কর্যের নকশার তাৎপর্যসম্পাদনা

ভাস্কর্যটি তিনজন ব্যক্তির মুখমণ্ডলের আকৃতি নিয়ে তৈরি করা হয়েছে। যেহেতু এই তিনজনই হচ্ছেন অবক্ষিত ও অবনতিশীল সমাজকে উত্তরণের পথিকৃৎ। তাই তাদের চেহারার সাথে মিলিয়ে তিনজনেরই মুখমণ্ডলের আকৃতি দিয়ে ভাস্কর্যটি তৈরি করা হয়েছে।

চিত্রশালাসম্পাদনা

আরো দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা