প্রধান মেনু খুলুন

লুকা ইয়োভিচ

সার্বীয় ফুটবলার

লুকা ইয়োবিচ (সার্বীয় সিরিলীয় বর্ণমালা: Лука Јовић, উচ্চারিত [lûːka jǒːʋitɕ]) হলেন একজন ফুটবলার যিনি রিয়াল মাদ্রিদ এবং সার্বিয়া জাতীয় ফুটবল দলে স্ট্রাইকার হিসেবে খেলেন।

লুকা ইয়োভিচ
FWC 2018 - Group E - SRB v BRA - Photo 113 (cropped).jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম লুকা ইয়োভিচ
জন্ম (1997-12-23) ২৩ ডিসেম্বর ১৯৯৭ (বয়স ২১)
জন্ম স্থান বিজেলজিনা, রিপাবলিকা স্পোর্সকা,
বসনিয়া এবং হার্জেগোভিনা
উচ্চতা ১.৮২ মি[১]
মাঠে অবস্থান স্ট্রাইকার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ
জার্সি নম্বর ১৮
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
২০০৫–২০১৪ রেড স্টার বেকগ্রেড
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
২০১৪–২০১৬ রেড স্টার বেলগ্রেড ৪২ (১২)
২০১৬–২০১৭ বেনফিকা বি ১৮ (৪)
২০১৬–২০১৯ বেনফিকা (০)
২০১৭–২০১৯এইনট্রাক্ট ফ্রাঙ্কফুর্ট (ধার) ৪৯ (২৫)
২০১৯ এইনট্রাক্ট ফ্রাঙ্কফুর্ট (০)
২০১৯– রিয়াল মাদ্রিদ (০)
জাতীয় দল
২০১২–২০১৩ সার্বিয়া অ-১৬ ১২ (১০)
২০১৩–২০১৪ সার্বিয়া অ-১৭ ১৯ (১৬)
২০১৫ সার্বিয়া অ-১৮ (১)
২০১৪–২০১৬ সার্বিয়া অ-১৯ ১৩ (১০)
২০১৬ সার্বিয়া অ-২০ (০)
২০১৫– সার্বিয়া অ-২১ ১৬ (৭)
২০১৮– সার্বিয়া (২)
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ৪ জুন ২০১৯ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ২০ জুন ২০১৯ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

লুকা সার্বিয়ার বাতার নামক গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।পাঁচ বছরে বয়সে লনজিকায় ফুটবল খেলার সময় বেলগ্রেডে অনুষ্ঠিত মিনি মেক্সি নামক প্রতিযোগিতায় খেলার আমন্ত্রণ পান, যা চার থেকে ১২ বছরের বাচ্চাদের জন্য। সেখানে এক ম্যাচে ৩ গোল করার পর তার বাবাকে প্রতি ম্যাচে £৫০ ও যাতায়াত খরচ ২০০০ রিয়াল দেওয়ার কথা বলা হয়। সেই প্রতিযোগিতায় কোনো ম্যাচে রেড স্টার বেলগ্রেড স্কাউটের চোখে পড়েন।[২][৩][৪]

আন্তর্জাতিক কর্মজীবনসম্পাদনা

১১ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে সার্বিয়া অ-১৭ এর হয়ে ক্রোয়েশিয়া অ-১৭ এর বিপক্ষে হ্যাট্রিক করেন।[৫] পরের বছর অনুষ্ঠিত ২০১৪ ইউরোপীয় অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য সার্বিয়া অ-১৯ দলে ডাক পায়। [৬]

৪ জুন ২০১৮ তারিখে, চিলির বিপক্ষে একটি প্রীতি ম্যাচে ৮৪ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে নেমে জাতীয় দলে অভিষেক করে।[৭] ২০১৮ ফিফা বিশ্বকাপের জন্য সার্বিয়ার ঘোষিত স্কোয়াডে জায়গা করে নেয়।[৮] ব্রাজিলের বিপক্ষে ম্যাচটিতে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলে।[৯] ২০ মার্চ ২০১৯ তারিখে একটি প্রীতি ম্যাচে জার্মানির বিপক্ষে ইয়োভিচ নিজের প্রথম গোল করে।[১০]

অর্জনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Luka Jović"। realmadrid.com। ২ জুলাই ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০১৯ 
  2. "Mozzart Sport: Čudesan slučaj Luke Jovića, ili – Kako je klinac koji je spavao u gepeku stigao do velike pozornice" (Serbian ভাষায়)। ২৭ ডিসেম্বর ২০১৩। 
  3. OBRENOVIĆ, Aleksandar (১১ আগস্ট ২০১৪)। "Terzić: Luka Jović je novi Falkao"। ৫ জুন ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০১৯ 
  4. B. Cvetojevic (১৬ অক্টোবর ২০১৩)। "Zvezdin biser Jović: Hoću kao Pančev" (Serbian ভাষায়)। 
  5. Mozzart Sport (author name unknown) (১১ ডিসেম্বর ২০১৩)। "Luka Jović terorisao Hrvate u Pazovi!" (Serbian ভাষায়)। 
  6. [১] ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৯ আগস্ট ২০১৯ তারিখে Novosti: Na Paunovićevom spisku po četiri igrača Zvezde, Vojvodine i OFK Beograda, tri Partizana... (Serbian) 8 July 2014
  7. "Serbia vs. Chile – 4 June 2018" 
  8. "Soccer: Krstajic names Serbia's final 23-man World Cup squad"। Reuters। ১ জুন ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ৬ জুন ২০১৮ 
  9. Andrew Das (২৭ জুন ২০১৮)। "World Cup: Brazil cruises into next round with easy victory"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ২৭ জুন ২০১৮ 
  10. "Germany 1 Serbia 1"। BBC Sport। ২০ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মার্চ ২০১৯ 
  11. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Soccerway নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  12. "UEFA Europa League Squad of the 2018/19 Season"। UEFA। ৩০ মে ২০১৯। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা