প্রধান মেনু খুলুন

লাল কাজল

বাংলা ভাষার চলচ্চিত্র

লাল কাজল ১৯৮২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলাদেশী বাংলা ভাষার নাট্য চলচ্চিত্র। ছায়াছবিটি পরিচালনা করেছেন মতিন রহমান[১] এটি মতিন রহমান পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র। ছায়াছবিটির কাহিনী লিখেছেন ফজল রহমান এবং চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন এটিএম শামসুজ্জামান। এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাবানা, ফারুক, প্রবীর মিত্র, উজ্জ্বল, জুলিয়া প্রমুখ।[২][৩] চলচ্চিত্রটি ৭ম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ১টি বিভাগে পুরস্কার অর্জন করে। এছাড়া শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র হিসেবে বাচসাস পুরস্কার ও প্রযোজক সমিতি পুরস্কার অর্জন করে।

লাল কাজল
পরিচালকমতিন রহমান
প্রযোজক
চিত্রনাট্যকারএটিএম শামসুজ্জামান
কাহিনীকারফজল রহমান
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারসত্য সাহা
চিত্রগ্রাহকরেজা লতিফ
সম্পাদকনুরুন্নবী
পরিবেশকআশা চলচ্চিত্র
মুক্তি১৯৮২
দৈর্ঘ্য১৪১ মিনিট
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

শ্রেষ্ঠাংশেসম্পাদনা

সঙ্গীতসম্পাদনা

লাল কাজল ছায়াছবিটির সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন সত্য সাহা। গীত রচনা করেছেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সাবিনা ইয়াসমিনখন্দকার ফারুক আহমদ। ছায়াছবিটির সঙ্গীতায়োজন হয় ঢাকার আলাউদ্দিন লিটল অর্কেস্ট্রায় এবং সঙ্গীত রেকর্ড করেন এমএ মজিদ।

গানের তালিকাসম্পাদনা

নং.শিরোনামগীতিকারসুরকারকণ্ঠশিল্পীদৈর্ঘ্য
১."নজর লাগবে বলে কপালে টিপ দিলাম"গাজী মাজহারুল আনোয়ারসত্য সাহাসাবিনা ইয়াসমিন৩:২৩

পুরস্কারসম্পাদনা

৭ম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার

  • বিজয়ী: শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী - বিন্দি হুসাইন

বাচসাস পুরস্কার

প্রযোজক সমিতি পুরস্কার

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. এফ আই দীপু (১৫ অক্টোবর ২০১৫)। "মতিন রহমান"দৈনিক যুগান্তর। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ২৫ আগস্ট ২০১৬ 
  2. "জীবন্ত কিংবদন্তি"দৈনিক ইত্তেফাক। ঢাকা, বাংলাদেশ। ৮ অক্টোবর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৫ আগস্ট ২০১৬ 
  3. মোহাম্মদ আওলাদ হোসেন (১ জুন ২০১৫)। "'বড় বড় কথা বাদ দিয়ে এখনকার নির্মাতাদের ভাল ছবি নির্মাণ করতে হবে'"দৈনিক মানবজমিন। ঢাকা, বাংলাদেশ। সংগ্রহের তারিখ ২৫ আগস্ট ২০১৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা