প্রধান মেনু খুলুন

আবদুস সামাদ যিনি টেলিসামাদ নামেই অধিক পরিচিত (৮ জানুয়ারি ১৯৪৫ – ৬ এপ্রিল ২০১৯) ছিলেন বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের শক্তিশালী ও জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা।[১][২]

টেলি সামাদ
টেলি সামাদ.jpg
জন্ম
আবদুস সামাদ

(১৯৪৫-০১-০৮)৮ জানুয়ারি ১৯৪৫
মুন্সীগঞ্জ, বাংলাদেশ
মৃত্যু৬ এপ্রিল ২০১৯(2019-04-06) (বয়স ৭৪)
জাতীয়তাবাংলাদেশী
জাতিসত্তাবাঙালি
নাগরিকত্ববাংলাদেশী
শিক্ষাচারুকলা
পেশাঅভিনেতা
যে জন্য পরিচিতকৌতুক অভিনয়

পরিচ্ছেদসমূহ

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

টেলিসামাদ ১৯৪৫ সালের ৮ জানুয়ারি মুন্সীগঞ্জের (তৎকালীন বিক্রমপুর) সিরাজদীখান উপজেলার নয়াগাঁও গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।[৩] তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা থেকে উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ করেন। তার বড় ভাই চারুশিল্পী আব্দুল হাই।

চলচ্চিত্র জীবনসম্পাদনা

১৯৭৩ সালে ‘কার বউ’ চলচ্চিত্রে কৌতুকাভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন। নয়নমনি ও ‘পায়ে চলার পথ’-এর মত চলচ্চিত্রের মাধ্যমে দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেন। ‘মনা পাগলা’ চলচ্চিত্রে সঙ্গীত পরিচালনার পাশাপাশি ৫০টির মত চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দেন। অভিনয়জীবনে চার দশকে ৬০০’র মত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন।[৪]

বাংলাদেশ টেলিভিশনের ক্যামেরাম্যান মোস্তফা মামুন তার ডাক নাম দিয়েছিলেন টেলিসামাদ। তারপর থেকে তিনি এ নামেই পরিচিত হন। ২০১৫ সালে তার অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র জিরো ডিগ্রী মুক্তি পায়।[৫]

মৃত্যুসম্পাদনা

টেলি সামাদ ২০১৯ সালের ৬ এপ্রিল দুপুরে অসুস্থতাজনিত কারণে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। টেলি সামাদের খাদ্য নালীতে সমস্যার পাশাপাশি বুকে ইনফেকশন, ডায়াবেটিস ছিল।[৬] এরপূর্বে ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে তার বাইপাস সার্জারি করা হয়।[৫]

চলচ্চিত্র তালিকাসম্পাদনা

  • জিরো ডিগ্রী (২০১৫)
  • কুমারী মা (২০১৩)
  • সাথী হারা নাগিন (২০১১)
  • মায়ের চোখ (২০১০)
  • আমার স্বপ্ন আমার সংসার (২০১০)
  • রিকসাওয়ালার ছেলে (২০১০)
  • মন বসে না পড়ার টেবিলে (২০০৯)
  • কাজের মানুষ (২০০৯)
  • মায়ের হাতে বেহেস্তের চাবি (২০০৯)
  • কে আমি (২০০৯) - হাশেম
  • কেয়ামত থেকে কেয়ামত (১৯৯৩)
  • মিস লোলিতা (১৯৮৫)
  • নতুন বউ (১৯৮৩)
  • মাটির ঘর (১৯৭৯)
  • নাগরদোলা (১৯৭৯)
  • গোলাপী এখন ট্রেনে (১৯৭৮) - বঙ্গা
  • অশিক্ষিত (১৯৭৮) - কালা
  • জয় পরাজয় (১৯৭৬)
  • গুন্ডা (১৯৭৬) - জব্বার
  • সুজন সখী (১৯৭৫) - বগা
  • চাষীর মেয়ে (১৯৭৫)
  • রঙিন রূপবান
  • ভাত দে

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "অভিনেতা টেলি সামাদ আর নেই"চ্যানেল আই। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৯ 
  2. "কৌতুক অভিনেতা টেলিসামাদ আর নেই"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৯ 
  3. "অভিনেতা টেলি সামাদ আর নেই"কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৯ 
  4. glitz.bdnews24.com কৌতুকের স্থান নিয়েছে ভাঁড়ামো: টেলি সামাদ
  5. "জনপ্রিয় অভিনেতা টেলি সামাদ আর নেই"বিডিনিউজ২৪। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৯ 
  6. "জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদ আর নেই"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৪-০৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা