প্রধান মেনু খুলুন

রেডিও টুডে

বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ব্যক্তিমালিকানাধীন এফএম রেডিও স্টেশন

রেডিও টুডে বাংলাদেশের সর্বপ্রথম ব্যক্তিমালিকানাধীন এফএম রেডিও স্টেশন।[১][২] এর প্রচার তরঙ্গ হচ্ছে ৮৯.৬ এফএম। ২০০৫ সাল থেকে এফএম রেডিও চ্যানেল চালু করার পরিকল্পনা শুরু করে রেডিও টুডে কোম্পানি। ২০০৬ সালের অক্টোবর মাসে এর আনুষ্ঠানিক সম্প্রচার শুরু হয়। নগরকেন্দ্রিক এ চ্যানেলটিতে সঙ্গীতের দিকে প্রথম থেকেই প্রাধান্য দেয়া হয়।

রেডিও টুডে
RadioTodayFM89.6.png
প্রচারের স্থানঢাকা
চট্টগ্রাম
সিলেট
খুলনা
বরিশাল
বগুড়া
ময়মনসিংহ
কক্সবাজার
কুষ্টিয়া
সম্প্রচার এলাকা বাংলাদেশ (এফএম)
ব্র্যান্ডিংরেডিও টুডে এফএম ৮৯.৬
স্লোগানঅল ডে অল হিটস
ফ্রিকোয়েন্সি৮৯.৬ এফএম
প্রথম সম্প্রচারমে ২০০৬ (2006-05)
ফরম্যাটসঙ্গীত রেডিও
ভাষাবাংলা
মালিকানাস্বত্ত্বরেডিও ব্রডকাস্টিং এফএম (বাংলাদেশ) কোং লিমিটেড
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট

পরিচ্ছেদসমূহ

প্রথম সম্প্রচারসম্পাদনা

রেডিও টুডে ২৪ ঘণ্টা সম্প্রচার শুরু করে ২০০৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] কমার্শিয়াল সম্প্রচার শুরু হয় ১৫ অক্টোবর। তবে চ্যানেলটির টেস্ট ট্রান্সমিশন শুরু হয়েছিল ৬ মে। সম্প্রচার শুরু হওয়ার বেশ কিছুদিন পর থেকে রেডিও টুডে সংবাদ প্রচার শুরু করে। সংবাদ এবং মিউজিকের পাশাপাশি রেডিও টুডে পারস্পরিক মিথস্ক্রিয়ামূলক অনুষ্ঠানের দিকে নজর দিয়েছে। যার ফলে নানা সময় নানা ধরনের লাইভ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করা হচ্ছে। এসএমএসের মাধ্যমে এসব অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেয়া হচ্ছে।

বিস্তৃতিসম্পাদনা

ঢাকার আশপাশে এ চ্যানেলটির কভারেজ এরিয়া ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত। এর মধ্যে ৭০ কিলোমিটার পর্যন্ত স্টেরিও সাউন্ড এবং ৩০ কিলোমিটার মনো সাউন্ড। মোট ১৫টি জেলা এবং ৭৬টি থানা রেডিও টুডের কভারেজ এলাকায় রয়েছে। এ এলাকায় মোট জনসংখ্যা দুই কোটি ২৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪৭০ জন। এর মধ্যে রেডিও শ্রোতা রয়েছে মোট দুই কোটি তিন লাখ ৫১ হাজার ৯০৮ জন[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]। রেডিও টুডের বর্তমান অনুষ্ঠানধারায় ইনফোটেইনমেন্টকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। ইনফরমেশন প্রদানের ক্ষেত্রে দুটি ধারা রয়েছে চ্যানেলটির। একটি লাইট ইনফরমেশন ও অন্যটি কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স। বর্তমানে চট্টগ্রামের জুবিলী রোডকে কেন্দ্র করে ১০ কিলোমিটার এলাকা রেডিও টুডের সম্প্রচারের আওতায় এসেছে।

অনুষ্ঠানমালাসম্পাদনা

রেডিও টুডেতে প্রতিদিন ভোর ৫টা থেকে ৬টা পর্যন্ত প্রচার হয় ধর্মীয় অনুষ্ঠান সুবেহ সাদিক। এ অনুষ্ঠানে ধর্মীয় সঙ্গীতগুলো বাজানো হয়। তারপর সকাল ৬টা থেকে ৭টা পর্যন্ত ভোরের উপযোগী গানের অনুষ্ঠান ‘ভোর হলো’। সকাল ৭টা ১৫ মিনিট থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্রেকফাস্ট সো গুডমর্নিং ঢাকা। রবিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত দুপুর ১২টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ‘টুডেজ আড্ডা’ প্রচারিত হয়। তবে শনিবার একই সময়ে প্রচারিত হয় ‘ফাটাফাটি আড্ডা।’ শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত প্রচারিত হয় ‘ব্যাক টু ব্যাক’, বেলা ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত ইসলামী গান এবং বেলা ২টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাংলা মুভির গানের অনুষ্ঠান রূপালী গান। শনিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত বিকাল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রচারিত হচ্ছে ড্রাইভ শো ‘ইউটার্ন’। রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ‘তবে তাই হোক’। রাত ১২টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত রাতভর গান। ভোর ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত যন্ত্রসঙ্গীত ‘ব্যাক টু ব্যাক’। বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত প্রচারিত হয় ফোন ইন প্রোগ্রাম ‘হ্যাপি আওয়ার্স’। রাত ১২টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত পুরনো দিনের গানের অনুষ্ঠান ‘সোনালি গান’ প্রচারিত হয়। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চলে দেশ-বিদেশের জনপ্রিয় গানের অনুষ্ঠান ‘টুডেজ ওয়ার্ল্ড মিউজিক’। রাত ১০টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত প্রচারিত হয় ডেডিকেটেড শো ‘হার্ট টু হার্ট’। রেডিও টুডেতে বর্তমানে তিনবার খবর প্রচারিত হচ্ছে। প্রথমবার দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে, দ্বিতীয়বার সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ এবং শেষবার রাত ৯টা ৪৫। এছাড়াও রেডিও টুডেতে আরো নানা ধরনের অনুষ্ঠান প্রচারিত হচ্ছে। সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রতি আধ ঘণ্টা পর পর জানিয়ে দেয়া হয় ঢাকার ট্রাফিক জ্যাম বিষয়ক তথ্য ‘ঢাকার চাকা’। এছাড়া রয়েছে আবহাওয়া বিষয়ক আপডেট ‘রোদ বৃষ্টি’। রেডিও টুডের আউটডোর ব্রডকাস্টাররা বাজার ঘুরে জানিয়ে দেয় বাজার দর। কোথাও কোনো গুরুত্বপূর্ণ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হলে তা লাইভ জানিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা রেখেছে রেডিও টুডে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. রেডিও টুডে সমাচার ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে দৈনিক সমকাল ওয়েব সংস্করণ, ১২ জুন ২০১১ | জানুয়ারি ৮, ২০১৩ তারিখে সংগৃহিত।
  2. রেডিও অবারও শক্তিশালী গণমাধ্যম হিসেবে জনপ্রিয়তা পাবে। সাপ্তাহিক এখন সময়-ডিসেম্বর,২০১২। জানুয়ারি ৮, ২০১২ তারিখে সংগৃহিত।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা