প্রধান মেনু খুলুন

মার্ক বুচার

ইংরেজ ক্রিকেটার

মার্ক অ্যালান বুচার (ইংরেজি: Mark Butcher; জন্ম: ২৩ আগস্ট, ১৯৭২) লন্ডনের ক্রয়ডন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশ নেন। বামহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি দলের প্রয়োজনে মাঝে-মধ্যে ডানহাতে মিডিয়াম পেস বোলিং করে থাকেন। এছাড়াও, সারে ক্রিকেট দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন মার্ক বুচার[১]

মার্ক বুচার
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামমার্ক অ্যালান বুচার
জন্ম (1972-08-23) ২৩ আগস্ট ১৯৭২ (বয়স ৪৭)
ক্রয়ডন, সারে, ইংল্যান্ড
ডাকনামবুচ, বাজ
উচ্চতা৫ ফুট ১১ ইঞ্চি (১.৮০ মিটার)
ব্যাটিংয়ের ধরনবামহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক, অধিনায়ক
সম্পর্কএআর বুচার (বাবা),
জিপি বুচার (ভাই)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৫৮৪)
৫ জুন ১৯৯৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট৩০ ডিসেম্বর ২০০৪ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৯২-২০০৯সারে
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি এলএ টি২০
ম্যাচ সংখ্যা ৭১ ২৮০ ১৯১ ১৩
রানের সংখ্যা ৪,২৮৮ ১৭,৮৭০ ৪,৪৬০ ২১০
ব্যাটিং গড় ৩৪.৫৮ ৪০.৭০ ৩১.৮৫ ১৭.৫০
১০০/৫০ ৮/২৩ ৩৮/৯৫ ২/২৮ –/২
সর্বোচ্চ রান ১৭৩* ২৫৯ ১৩৯ ৬০
বল করেছে ৯০১ ৭,৭০৩ ২,৫২৭
উইকেট ১৫ ১২৫ ৪৯
বোলিং গড় ৩৬.০৬ ৩৩.৮৯ ৪৫.১০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৪/৪২ ৫/৮৬ ৩/২৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৬১/– ২৬৩/– ৬৩/– ৪/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৫ জুলাই ২০১৫

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

কাউন্টি ক্রিকেটে ১৯৯২ সাল থেকে সক্রিয় ছিলেন তিনি। এ সময় তিনি প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সারে দলের পক্ষে অভিষিক্ত হন।[২][৩] ২০০৬ সালে সহকারী কোচ হিসেবে তার বাবা অ্যালান বুচার সারে দলের কোচের দায়িত্বে ছিলেন। এ সময়ে তিনি ক্লাবের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন। ২০০৯ সালে অবসর গ্রহণের পূর্ব পর্যন্ত সারে দলে খেলেন। কাউন্টি ক্রিকেটের সবগুলো খেলাই সারে দলে খেলেন।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

১৯৯৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে।[৪] এজবাস্টনে অনুষ্ঠিত অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম টেস্টে তিনি অংশগ্রহণ করেন।[৪] ডিসেম্বর, ২০০৪ সালে তিনি তার সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ৭১ টেস্টে ৩৪ ঊর্ধ্ব গড়ে ৮ সেঞ্চুরি হাকিয়েছেন তিনি।[৫] কিন্তু তিনি কখনো একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশ নেননি। ১৯৭০-৭১ থেকে শুরু হওয়া প্রথম একদিনের আন্তর্জাতিকের পর টেস্ট খেলায় অংশগ্রহণ স্বত্ত্বেও ওডিআই না খেলার দিক দিয়ে শীর্ষস্থানে রয়েছেন।[৬]

শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। পাঁচ টেস্টের অ্যাশেজ সিরিজে দুইটি অর্ধ-শতক করেন। এরপর শীত মৌসুমে দলের অন্যান্য সদস্যের ন্যায় তিনিও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ব্যর্থ হন। তিনি মাত্র ১৫ গড়ে রান সংগ্রহ করেন।[৩] কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পরবর্তী সিরিজে তিনি বেশ ভাল করেন। সিরিজে তিনি এক শতক ও দুই অর্ধ-শতক করেন। এরপর শীতের অ্যাশেজ সিরিজের প্রথম টেস্টে শতক করলেও পরের টেস্টগুলোয় তিনি সুবিধা করতে পারেননি। পরবর্তী ১২ টেস্টে কোন অর্ধ-শতকের সন্ধান পাননি।

বুচার ইংল্যান্ড দলকে একটি টেস্টে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ১৯৯৯ সালে নিয়মিত অধিনায়ক নাসের হুসেনের আঘাতজনিত অনুপস্থিতির কারণে তিনি এ দায়িত্ব পান।[৫] নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ঐ টেস্টটি ড্রয়ে পরিণত হয়েছিল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অধিনায়কের দায়িত্ব পালনের পর ২০০০-এর শীতে দল থেকে বাদ পড়েন।

অবসরসম্পাদনা

হাঁটুর আঘাতের কারণে আগস্ট, ২০০৯ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন তিনি।[৭] অবসর পরবর্তীকালে স্কাই স্পোর্টসে ধারাভাষ্যকারের দায়িত্ব পান ও টেস্ট ম্যাচ স্পেশালে খেলা বিশ্লেষণে নিয়োজিত থাকেন। জানুয়ারি, ২০১০ সালে এমসিসি’র আজীবন সম্মানিত সদস্যের মর্যাদা লাভ করেন।[৮]

পরিসংখ্যানসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Surrey players". CricketArchive. Retrieved 1 May, 2017.
  2. http://www.cricketarchive.com/Archive/Players/4/4225/f_Batting_by_Team.html
  3. http://www.cricketarchive.com/Archive/Players/4/4225/f_Batting_by_Season.html
  4. http://www.cricketarchive.com/Archive/Players/4/4225/Test_Matches.html
  5. http://content-uk.cricinfo.com/ci/content/player/9327.html
  6. Lynch, Steven (৫ এপ্রিল ২০০৪)। "Most Tests without an ODI, and Zaheer's road"Cricinfo (ইংরেজি ভাষায়)। ESPN। সংগ্রহের তারিখ ৮ এপ্রিল ২০১২ 
  7. "Knee injuries force Butcher to retire" (ইংরেজি ভাষায়)। CricInfo। ৯ আগস্ট ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৮-০৬ 
  8. "Ashes adversaries awarded MCC life membership" Retrieved 2 September 2010.

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা