আলোচনা যোগ করুন

জ্ঞান বিজ্ঞানের সঠিক চর্চা এবং তার প্রচার আমার একমাত্র লক্ষ্য।

উইকিপিডিয়ায় স্বাগতমসম্পাদনা

↠Tanbirzx () ১৫:১৬, ২১ জুলাই ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আগে অর্থ বুঝুনসম্পাদনা

সুধী, "যুক্তরাষ্ট্রে আঞ্চলিক ভাষার স্বীকৃতি পেল ‘সিলেটি’ ভাষা" এমন চটকদার শিরোনাম দেখে খুশিতে আত্মহারা হবেন না। ভিতরে পড়ে দেখুন।

"মামলায় ভাষা সংক্রান্ত জটিলতা এড়াতে সিলেটি অভিবাসীবহুল মিশিগানের অভিবাসন আদালতের বিচারক সিলেটি ভাষার দোভাষী অনুমোদন করেছেন"

এর মানে এই না যে সিলেটি ভাষা যুক্তরাষ্ট্রে আঞ্চলিক ভাষার স্বীকৃতি পেয়েছে। দয়া করে আগে অর্থ বুঝুন। --আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ১৯:৫৮, ১৯ জুন ২০২১ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

ট্রিভিয়া বা অনুল্লেখ্য বর্ণনাসম্পাদনা

সুধী, সিলেটি পাতায় আপনার সাম্প্রতিক সম্পাদনাটি পুনর্বহাল করতে হলো। কারণ এত বিস্তারিত লেখার প্রয়োজন নেই। বাঙালি জাতি হিসেবে প্রধান ভাষা বাংলা, দ্বিতীয় ভাষা ইংরেজি, এরপর হিন্দি, আরবি, ইন্দোনেশীয়, দিভেহি যা-ই জানুক, এগুলো ট্রিভিয়া, বা অনুল্লেখ্য। এগুলো উপেক্ষা করলেও চলে, আহামরি এমন কিছু নয়। নিবন্ধের তথ্যছকে এরকম দীর্ঘ তালিকা করার প্রয়োজন নেই। এই তালিকা বাতিল করতে গিয়ে আপনার যোগ করা একটি ছবিও বাতিল হয়ে গেছিল। আস্থা রাখা নীতি অনুযায়ী পরবর্তী সম্পাদনায় ওই চিত্রটি পুনরায় যুক্ত করে দিয়েছি।

আরেকটি বিষয়ে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। উইকিপিডিয়ায় রচনাশৈলী অনুযায়ী, সম্মানসূচক সর্বনামে তিনি আপনি, ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু চন্দ্রবিন্দু-যুক্ত সর্বনাম উইকিপিডিয়ায় ব্যবহারযোগ্য নয়। অর্থাৎ তাঁর, তাঁকে ইত্যাদি ব্যবহার করা যাবে না। আপনি বেশ কিছু জায়গায় এই তার-কে তাঁর করে দিয়েছেন। এটি করার প্রয়োজন নেই। এগুলো ভুল করে নয়, ইচ্ছা করেই রাখা হয়েছে। আপনাকে আবারও শুভেচ্ছা। — আদিভাইআলাপ • ১৯:১৬, ২ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

সুপ্রিয় ভাই, শুভেচ্ছা নেবেন। আমি আপনাকে অনুরোধ করেছিলাম, নিবন্ধের নাম নিয়ে বিতর্ক যাবেন না। নামকরণ নীতিমালার বিপক্ষে আলোচনা ছাড়া নিবন্ধ নামান্তর করার ফলে সতর্কবার্তা প্রদান করা হয়। গুরুতর ক্ষেত্রে সম্পাদনা থেকে বাধা পর্যন্ত দেওয়া হয়। শাকিল ভাই হয়তো আপনাকে সতর্কবার্তা দেননি। আপনার প্রতি আমি আবারও অনুরোধ করছি, নিবন্ধ স্থানান্তর সংক্রান্ত সমস্যায় জড়াবেন না। আপনি যত অভিজ্ঞ হবেন এই নীতি সম্পর্কে তত ভালোভাবে জানতে পারবেন। আপনি নিবন্ধটির সম্প্রসারণ্ব মনোযোগ দিন।
পুনশ্চঃ নবাগতদের জন্য গ্রোথ ফিচার ব্যবহার করে আপনার করা একটি সম্পাদনা বাতিল করা হয়েছে। সেটি ভুলভাবে অসম্পর্কিত কিছু নিবন্ধে লিংক করছিল। শুভকামনা। — আদিভাইআলাপ • ২১:১৩, ৫ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
নিবন্ধের নাম স্থানান্তরের ব্যাপারে সতর্ক হলাম। কিন্তু আমি জানতে চাচ্ছি, একটা ভুল নামের পরিবর্তে একটা সঠিক নাম কেন গ্রহণযোগ্য হয় না?
যেহেতু সিলোটি ভাষার নেটিভ নাম এবং ইংরেজি ও বাংলা নাম সিলোটি, আর ইউনিকোডেও ভাষাটির নাম সিলোটি নামেই সংরক্ষিত। তারপরও দ্ব্যর্থতা নিরসনের জন্য হলেও এই নামটির অনুমোদন হবে না কেন? আপনারা বিবেচনা করুন এবং আমাকে বলুন, তবে আমি আর চেষ্টা করবো না নাম স্থানান্তরের (ইনশাআল্লাহ) ‌। Saaty121 (আলাপ) ০৩:২৫, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
নিবন্ধের নামের বিষয়টি আপনাকে আমার আলাপ পাতায় বলেছিলাম। বাংলা উইকিপিডিয়ার জন্য নিবন্ধের নাম প্রমিত বাংলা এবং সর্বাধিক প্রচলিত নামটিই গ্রহণযোগ্য হবে। দুই বিবেচনায়ই “সিলেটি ভাষা” অধিক গ্রহণযোগ্য। কিন্তু যেমনটি বলেছিলাম, নিবন্ধের শীর্ষ অনুচ্ছেদে বিকল্প নামটি আপনি রাখতে পারেন। আপনি লক্ষ্য করুন, সিলেটি নাগরি লিপির ইউনিকোড নাম Syloti Nagri হলেও ইংরেজি নিবন্ধের নাম Sylheti Nagari। কারণ দ্বিতীয় নামটি অধিক প্রচলিত ও পরিচিত। উইকিপিডিয়ার নামকরণসহ এই মূল নীতিমালাগুলো বৈশ্বিক। সমস্ত উইকির জন্যই সমানভাবে প্রযোজ্য। — আদিভাইআলাপ • ০৮:২৯, ৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

বিবর্তন প্রবন্ধে আমি bbc news এর বরাত দিয়ে সংযোজন করেছি।সম্পাদনা

দয়া করে প্রবন্ধটি যাচাই করুন Saaty121 (আলাপ) ০০:৩৫, ৫ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

কানাইঘাট পাবলিক হাই স্কুল নামক নিবন্ধের অপসারণের প্রস্তাবনাসম্পাদনা

 

কানাইঘাট পাবলিক হাই স্কুল নিবন্ধটি উইকিপিডিয়ার নীতিমালা ও নির্দেশাবলী অনুসারে উইকিপিডিয়ায় স্থান পাওয়ার জন্য উপযুক্ত কিনা বা অপসারণ নীতিমালা অনুসারে অপসারণের যোগ্য কি-না এই বিষয়ে মতামতের জন্য একটি আলোচনার সূত্রপাত করা হয়েছে।

একটি ঐক্যমত্যে না পৌঁছানো পর্যন্ত নিবন্ধটি সম্পর্কে উইকিপিডিয়া:নিবন্ধ অপসারণের প্রস্তাবনা/কানাইঘাট পাবলিক হাই স্কুল পাতায় আলোচনা করা হবে, এবং যে কাউকে আলোচনায় অংশগ্রহণে স্বাগতম। মনোনয়ন অপসারণ প্রস্তাবনার নীতি ও নির্দেশিকা ব্যাখ্যা করবে। আলোচনায় উচ্চমানের প্রমাণ এবং আমাদের নীতি ও নির্দেশাবলীর উপর গুরুত্ব দেওয়া হবে।

অপসারণ প্রস্তাবনার আলোচনা চলা অবস্থায় ব্যবহারকারীগণ নিবন্ধটির মান উন্নয়ন করতে পারবেন। অপসারণ প্রস্তাবনাতে নিবন্ধ উন্নয়ন সম্পর্কিত কোন তথ্য থাকলে নিবন্ধের স্বার্থে তা সম্পাদনা করা যাবে। যাইহোক, আলোচনা সমাপ্ত না হওয়া পর্যন্ত নিবন্ধ থেকে নিবন্ধ অপসারণ প্রস্তাবনা টেমপ্লেটটি সরাবেন না। —শাকিল (আলাপ · অবদান) ১১:১১, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আগস্ট ২০২২সম্পাদনা

  উইকিপিডিয়ায় স্বাগতম। অনুগ্রহ করে কোনো নিবন্ধ থেকে নিবন্ধ অপসারণের বিজ্ঞপ্তি সরিয়ে ফেলবেন না অথবা নিবন্ধ অপসারণের আলোচনা থেকে অন্য ব্যক্তির মন্তব্য মুছে ফেলবেন না, যেমনটি আপনি কানাইঘাট পাবলিক হাই স্কুল পাতায় করেছেন। আপনি যদি অপসারণ প্রস্তাবটির বিপক্ষে থাকেন, তাহলে অনুগ্রহ করে নির্ধরিত পাতায় মন্তব্য করুন। ধন্যবাদ। ~ নোমান (📨আলাপ📝অবদান) ১৭:৪৭, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

@MdaNomanআমি অপসারণ প্রস্তাবটির বিপক্ষে Saaty121 (আলাপ) ১৭:৫০, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
তাহলে কেনো অপসারণ অনুচিত তার উপর্যুক্ত কারণ এখানে জানান। ~ নোমান (📨আলাপ📝অবদান) ১৭:৫২, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
এই নিবন্ধ অপসরনের কোন উপযুক্ত কারণ আমি দেখতে পাচ্ছি না। সুতরাং আমি অপসারণ প্রস্তাবের বিপক্ষে। Saaty121 (আলাপ) ১৭:৫৪, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
বিরোধিতা করার জন্য আপনার উপর্যুক্ত তথ্যসূত্র প্রয়োজন। ~ নোমান (📨আলাপ📝অবদান) ১৮:৩৬, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
অপসারণযোগ্য নিবন্ধ গুলো আমি দেখেছি। ওই নিবন্ধগুলোর মধ্যে দুইটি নিবন্ধকে আমি অপসারণ যোগ্য মনে করি না। এর মধ্যে একটা হচ্ছে এটি। যদি আপনাদের দৃষ্টিতে এগুলো অপসরনযোগ্য হয় তাহলে আপনারা অপসারণ করতে পারেন। Saaty121 (আলাপ) ১৮:৪৬, ৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@Saaty121 উল্লেখযোগ্য না হলে নিবন্ধ অপসারণ করা হয়। ~ নোমান (📨আলাপ📝অবদান) ০২:১৯, ৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

ব্যবহারকারী নাম পরিবর্তনের আবেদনসম্পাদনা

সুধী, আপনি যদি আপনার অ্যাকাউন্টের নাম পরিবর্তন করতে চান, তবে দয়া করে উইকিপিডিয়া:ব্যবহারকারী নাম পরিবর্তনের আবেদন পাতায় আবেদন করুন। আপনি স্থানান্তর করলেই নাম পরিবর্তন হবে না —শাকিল (আলাপ · অবদান) ০৪:৫৮, ৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আরবীকরণসম্পাদনা

সুধী, আরবীকরণ পাতায় আপনার সম্পাদনা পুনর্বহাল করা হয়েছে। আপনি নির্দিষ্টি কিছু তথ্য সরিয়েছেন, কিন্তু সম্পাদনা সারাংশে এর কারণ উল্লেখ করেননি। অনুগ্রহ করে এরকমভাবে তথ্য সরিয়ে নেওয়ার আগে আলাপ পাতায় আলোচনা করে নিন। ধন্যবাদ। — আদিভাইআলাপ • ১০:১০, ৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

দুঃখিত ভাই আমি কারণ উল্লেখ না করতে পারার জন্য। আমি যে তথ্যটুকু সরিয়ে নিয়েছিলাম তার তথ্যসূত্র ছিলনা। এবং আমি অপ্রাসঙ্গিক মনে করার কারণে তা সরিয়ে নিয়েছি। Mahbubslt (আলাপ) ১১:২৪, ৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
তথ্যসূত্র না থাকলেই তথ্য সরিয়ে নিতে হয় না। আপনাকে এক্ষেত্রে দুটো জিনিস দেখতে হবে। প্রথমত দেখবেন, তথ্যগুলো সঠিক কি না। যদি সঠিক হয়, তাহলে তথ্যসূত্র যুক্ত করে দেবেন। আশা করা যায়, আপনি যখন সত্যতা যাচাই করবেন, তখনই এই সংক্রান্ত তথ্যসূত্র পেয়ে যাবেন। আর যদি তথ্যটি ভুল হয়, তখন শুধুমাত্র অপসারণ করবেন। তথ্যসূত্র না পেলে, কিন্তু তথ্যের শুদ্ধতা থাকলে, কিংবা আপনি নিশ্চিত না হলে {{তথ্যসূত্র প্রয়োজন}} ট্যাগ যুক্ত করে দেবেন। অন্য কেউ এই সংক্রান্ত তথ্যসূত্র পেলে যুক্ত করে দিতে পারবে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন। শুভকামনা। — আদিভাইআলাপ • ১৬:৪৩, ৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

মুহাম্মদসম্পাদনা

মুহাম্মদ পাতায় আপনার সম্পাদনায় নিরপেক্ষতা প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। আজ সংশোধনের দায়িত্ব আপনার। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৭:৪৭, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আপনি কি পক্ষপাতিত্ব দেখেছেন তা বর্ণনা করুন। অথবা কোন ভুল তথ্য আপনার নজরে এসেছে তা বলুন? Mahbubslt (আলাপ) ১৭:৫৪, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
এখানে সুস্থ মস্তিষ্ক সম্পন্ন কেউ ভুল অথবা পক্ষপাতিত্ব দেখবে বলে মনে হয় না
মুহাম্মাদ (আরবি: مُحَمَّد‎‎; মোহাম্মদ এবং মুহাম্মদ নামেও পরিচিত) ছিলেন একজন আরবের ধর্মীয়, সামাজিক এবং রাজনৈতিক নেতা এবং ইসলামের সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নবী এবং রাসূল, যার উপর ইসলামের প্রধান ধর্মগ্রন্থ কুরআন অবতীর্ণ হয়। আদম, ইব্রাহিম, মূসা, ইসা (যিশু) এবং অন্যান্য নবিদের মতোই মুহাম্মদ একেশ্বরবাদী শিক্ষা প্রচার করার জন্য প্রেরিত। অমুসলিমদের মতে, তিনি ইসলামি জীবনব্যবস্থার প্রবর্তক বা ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা। অধিকাংশ ইতিহাসবেত্তা ও বিশেষজ্ঞদের মতে, মুহাম্মাদ ছিলেন পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় নেতা। তার এই বিশেষত্বের অন্যতম কারণ হচ্ছে আধ্যাত্মিক ও জাগতিক অর্থাৎ ধর্মীয় এবং ধর্মনিরপেক্ষ উভয় জগতেই চূড়ান্ত সফলতা অর্জন। তিনি ধর্মীয় জীবনে যেমন সফল ছিলেন, তেমনই রাজনৈতিক জীবনেও। সমগ্র আরব বিশ্বের জাগরণের পথিকৃৎ হিসেবে তিনি অগ্রগণ্য; বিবাদমান আরব জনতাকে একীভূতকরণ তার জীবনের অন্যতম সাফল্য। কুরআনের পাশাপাশি তার শিক্ষা এবং অনুশীলনগুলো ইসলামি ধর্মীয় বিশ্বাসের ভিত্তি স্থাপন করে। Mahbubslt (আলাপ) ১৮:০১, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
১। অর্থাৎ ধর্মীয় এবং ধর্মনিরপেক্ষ কথাটি উপলদ্ধি হয়ে গেছে। এটি কোনো প্রকাশিত তথ্য নয়।
২।

ইসলামি মতবাদ অনুসারে, তিনি হলেন ঐশ্বরিকভাবে প্রেরিত ইসলামের সর্বশেষ নবী (আরবি: النبي‎‎; আন-নাবিয়্যু) তথা ‘বার্তাবাহক’ ও রাসুল (আরবি: الرسول‎‎; আল-রাসুল)

এই অংশটা কারণ ছাড়া অপসারণ অযৌক্তিক।ধন্যবাদ। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৮:০৫, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
এছাড়াও অমুসলিম লেখক মাইকেল এইচ হার্ট্ট লিখিত 'The 100' বইটি পড়ার পরামর্শ রইলো। এই গ্রন্থে ধর্মীয় এবং ধর্মনিরপেক্ষ কথাটির উল্লেখ রয়েছে। আর ইসলামী মতবাদ অনুসারে মোহাম্মদ (সা.) হলেন সর্বশেষ নবী ও রাসুল এই কথাটির সাথে মোহাম্মদ (সা.) ইসলামের সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নবী এবং রাসূল কথাটির পার্থক্য কি? একই কথা প্রায় পুনরাবৃত্তিমূলক হয়ে যাচ্ছে বলে অধিক গ্রহণযোগ্যটা স্থাপন করেছি এবং কম গ্রহণযোগ্যটা রিমুভ করেছি। এটাকে পক্ষপাতিত্ব বলে? নাকি নিরপেক্ষতার দোহাই দিয়ে নিজের সমর্থিত মতকেই অনুমোদিত করছেন?

Mahbubslt (আলাপ) ১৮:০৩, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আপনারা আপনাদের মাতৃভাষা সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন, ধন্যবাদ। খুব উত্তম ভাবে আপনারা বাংলা ভাষার ব্যবহার জানেন। এবং ভাষাটি খুব ভালোভাবে আপনারা বুঝতে জানেন, ধন্যবাদ। Mahbubslt (আলাপ) ১৮:২২, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
১।

  প্রশ্ন: ইসলামী মতবাদ অনুসারে মোহাম্মদ (সা.) হলেন সর্বশেষ নবী ও রাসুল এই কথাটির সাথে মোহাম্মদ (সা.) ইসলামের সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নবী এবং রাসূল কথাটির পার্থক্য কি?
উত্তর :এটি মুসলিমদের দাবি এবং বিশ্বাস । এজন্য এটুকু অপসারণ উচিৎ নয়।
২।

  প্রশ্ন: পক্ষপাতিত্ব বলে?
উত্তর : হ্যাঁ, নিয়ম অনুযায়ী তাই বলে।
৩।

  প্রশ্ন: নাকি নিরপেক্ষতার দোহাই দিয়ে নিজের সমর্থিত মতকেই অনুমোদিত করছেন?
উত্তর: না, উইকিপিডিয়া সকলের যাচাইযোগ্য মতামতকে প্রাধান্য দিয়ে থাকে।
~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৮:৩৯, ২৬ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@MdaNoman এবং @Mahbubslt ভাই, প্রথমে আমার শুভেচ্ছা নেবেন। আপনাদের আলোচনাটি আমার দৃষ্টিগোচর হলো, এখানে আমি কিছু বলতে চাই। প্রথমত নোমান ভাইকে বলব, নতুনদের প্রতি সহনশীল হতে, আস্থা রাখতে। মাহবুব ভাই প্রথম অংশে যেই কাজটি করেছিলেন, তাতে মূলভাবের আহামরি কোনো পরিবর্তন হয়ে যায়নি, অন্তত আমার চোখে লাগেনি। সামান্য কারণে পুরো সম্পাদনা বাতিল করা উচিত হয়নি। কিন্তু সমস্যাটা আসলে ছিল মাঝের অংশে, ধর্মীয় এবং ধর্মনিরপেক্ষ কথাটায়। (পুরো সম্পাদনা বাতিল না করে ওই অংশটি সংশোধন করা উচিত ছিল। যদিও নোমান ভাইকে দোষ দিচ্ছি না, উনার কাছে পুরো সম্পাদনাটিই সমস্যাযুক্ত মনে হয়েছে, উনি বাতিল করেছেন। বিষয়টি পুরোপুরি স্বাভাবিক। আমি আমার পর্যবেক্ষণ থেকে মন্তব্য জানাচ্ছি শুধু।) মুসলমানেরা মহাম্মদকে (স) তাদের জীবনাদর্শ মানে, অন্য ধর্মাবলম্বীরা তাদের ধর্মপ্রচারকদের জীবনাদর্শ মানে। আপনি যখন কাউকে উদ্ধৃত না করেই বলবেন, কেউ ধর্মনিরপেক্ষদের জন্যও আদর্শ, তখন এটি আপনার ব্যক্তিগত মতামত হয়ে যাবে। উইকিপিডিয়ায় কখনো এভাবে আপনার ব্যক্তিগত মতামত যুক্ত করবেন না। উইকিপিডিয়ায় এরকম ক্ষেত্রে নিরপেক্ষভাবে তথ্য যুক্ত করার নিয়মটি হলো, আপনি উক্তির বক্তাকেও উল্লেখ করবেন। যেমন: মাইকেল এইচ হার্টের মতে... বা মাইকেল এইচ হার্ট তার দ্য ১০০ বইয়ে লিখেছেন/বলেছেন... ইত্যাদি। মাহবুব ভাই, আরেকটি বিষয়ে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই। আপনি প্রায়শই নিবন্ধে লিংকিংয়ের কাজটি করেন, নিঃসন্দেহে সুন্দর এবং সহজ একটি কাজ। তবে কোথাও কোথাও লিংক করা অপ্রয়োজনীয়। আপনার জন্য en:Wikipedia:Manual of Style/Linking এই পাতাটি কাজে দেবে। আপনাদের দুইজনের জন্যই শুভকামনা রইলো।
আদিভাইআলাপ • ০৯:৫৪, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@Meghmollar2017 ধন্যবাদ। আপনি তাকে বিস্তারিত বলেছেন। তবে একটা জিনিষ নিশ্চিত থাকুন, আমার তার উপর আস্থা রয়েছে। সামান্য ত্রুটি দেখে তাকে বার্তা দিয়েছিলাম । আপনি বলেছেন ,"উনার কাছে পুরো সম্পাদনাটিই সমস্যাযুক্ত মনে হয়েছে, উনি বাতিল করেছেন।" কিন্তু আমি তার সম্পাদনা বাতিল করিনি। যেমনটা আপনি পাতার_ইতিহাসে পাবেন। আপনি বোধহয় খেয়াল করেননি। সমস্যা নেই, কেননা আমাদের মূল লক্ষ্য তাকে বোঝানো। :) ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৮:০৮, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
নোমান ভাই, নবী মুহাম্মদ ইসলামের সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নবী কথাটি ইসলামী মতবাদের দৃষ্টিতে নবী মুহাম্মদ ইসলামের সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নবী কথাটির অনুরূপ। কারণ ইসলামের সর্বশেষ ও চূড়ান্ত নবী ইসলামী মতবাদেরই বিশ্বাস হবে। আমি আমার অর্জিত বাংলা ভাষার জ্ঞান থেকে এটাই বুঝতে পারি। আর ধর্মীয় এবং ধর্মনিরপেক্ষতার ক্ষেত্রে মুহাম্মদ সফল ব্যক্তিত্ব, এই কথাটি অধিকাংশ ধর্মনিরপেক্ষতাবাদীদের দ্বারাই স্বীকৃত এবং হাদিস দ্বারা প্রমাণিত। তিনি শুধুমাত্র ধর্ম এবং ধর্মনিরপেক্ষতার দিক দিয়ে নয়, বরং তিনি ধর্ম, বর্ণ, গোত্র ও জাতি নির্বিশেষে সবার সমান অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করে গেছেন এবং তিনি সফল হয়েছেন, এটা ইতিহাস দ্বারা প্রমাণিত এবং ঐতিহাসিকদের দ্বারা স্বীকৃত। এই বিষয়গুলোর তথ্যসূত্র আমার কছে না চেয়ে আপনারা শুধুমাত্র অনলাইনেই খোঁজ নিলে পেয়ে যাবেন। আমি এই তথ্যগুলোতে কোন পক্ষপাতিত্ব দেখতে পাচ্ছিনা। আর নবী মোহাম্মদকে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা বলা অযৌক্তিক ইসলামী শিক্ষার দৃষ্টিতে। ইসলামী নিবন্ধে কি ইসলামের শিক্ষা বা বিশ্বাস অগ্রাধিকার পাবে না? অন্যান্য ধর্মীয় নিবন্ধগুলোতে তাদের বিশ্বাস অগ্রাধিকার পায়, কিন্তু ইসলামের নিবন্ধের ক্ষেত্রে কেন সামগ্রিক ভাবে তৃতীয় পক্ষ হিসেবে তথ্য উপস্থাপন করা হয়?
Mahbubslt (আলাপ) ১৮:২৩, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@Mahbubslt ভাইয়া আমি তেমন কিছু বলিনি। আপনার কথা ঠিক আছে। তবে আমি শুধু মুসলিমদের বিশ্বাস অনুযায়ী লেখার কথা বলেছি। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৮:৪১, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
এই কথাটুকু আপনি নিজেই লিখে সম্পাদনাটি বহাল রাখতে পারতেন। আপনি আমাকে বলেছিলেন, 'আজকে সংশোধনের দায়িত্ব আপনার (আমার)'। কিন্তু আপনি নিজেই সম্পাদনা বাতিল করে ফেললেন। আমি এখন আপনার কাছে অনুরোধ করব আমার সম্পাদনাটি পুনঃস্থাপন করুন। কারণ এতে ইসলামের সঠিক বিশ্বাস মানুষের সম্মুখে উপস্থাপিত হবে। আমার লেখা সম্পাদনায় আপনার বোধগম্যতাকে আমি খুব দুর্বল মনে করছি। সর্বশেষে আপনি যে বিষয়টি সম্পাদনার ক্ষেত্রে লক্ষ্যনীয় হিসেবে আমাকে বলছেন, সেটাও খুব বেশি যুক্তিসংগত নয়। কারণ ইসলামী মতবাদ অনুযায়ী অথবা মুসলমানদের বিশ্বাস অনুযায়ী এই কথাগুলো ছাড়াই পাঠকগণ নিবন্ধন পড়েই বুঝতে পারবেন যে এটা ইসলামের বিশ্বাস অনুযায়ী বলা হচ্ছে। হয়তো আপনার মত দু-এক জন এই ব্যাপারে একটু কম বুঝতে পারেন। Mahbubslt (আলাপ) ১৮:৪৯, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আমি আপনার সম্পাদনা বাতিল করিনি। এখানে দেখুন। আপনি পুনরায় লিখুন। সংশোধনের প্রয়োজন হলে আমি করে দিবো। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৯:০০, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আরও একটি বিষয়। ইসলাম সম্পর্কিত নিবন্ধে আপনার আগ্রহ অনেক প্রশংসনীয়। আপনি চাইলে en:Relics of Muhammad পাতাটি অনুবাদ করতে পারেন। এটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই অনুবাদ করতে পারবেন। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৯:০৪, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আমি আমার সম্পাদনা ফিরিয়ে আনতে পারব না! আমাকে এই বার্তাটি দেখাচ্ছে এই পাতাটি সুরক্ষিত করা হয়েছে তাই শুধুমাত্র স্বয়ংনিশ্চিতকৃত ব্যবহারকারীগণ এটি সম্পাদনা করতে পারবেন। আপনার সুবিধার্থে পাতাটির সাম্প্রতিক লগের বিবরণ নিচে দেওয়া হলো:
সুতরাং সম্পাদনাটি আপনি পুনঃস্থাপন করুন। Mahbubslt (আলাপ) ১৯:১৪, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
ওই সম্পাদনার পর আরও সম্পাদনা হওয়ায় ঐটা আনা সম্ভব হচ্ছে না। অনুগ্রহ করে পুনরায় লিখুন। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৯:১৯, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
উপরে একটি বাক্য আমার নজরে পড়ল, তা নিয়ে দুটো বক্তব্য লিখছি। আপনি লিখেছেন, "আপনারা আপনাদের মাতৃভাষা সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন, ধন্যবাদ"। ব্যাপারটি খুবই খারাপ ও হতাশাজনক। সিলেটের মানুষও বাংলায় লিখেন, পড়েন, কথা বলেন। বাংলাও তাদের অপর মাতৃভাষা বা তার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়। বাংলাকে আপনি যদি দ্বিতীয় মাতৃভাষা বলতে যদি অস্বীকার করেন বা আমাদের যদি এই ধরনের মানসিকতা গড়ে উঠে, আমি জানি না ভবিষ্যতে এই দেশের ভাগ্যে কী আছে। আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ১৯:২৩, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
মাতৃভাষা কখনো দুইটি ভাষা হতে পারে না। বাংলা আমার দ্বিতীয় ভাষা। বাংলা কখনো আমার মাতৃভাষা হতে পারে না। যদিও বাংলা ভাষায় যথেষ্ট পারদর্শী আমি, কিন্তু আমি বাংলার নেটিভ উচ্চারণ পারিনা। আমাদের জাতির অধিকাংশই বাংলা পুরোপুরি পারে না। তবে আমি বোকামি সূলভ কথা পছন্দ করি না। কারণ একটি দেশে একাধিক জাতি থাকতে পারে। একটি দেশে একাধিক ভাষা থাকতে পারে। তাই বলে পাকিস্তানের মতো কোন জাতি অথবা ভাষাকে অবজ্ঞা করার কোন প্রয়োজনীয়তা আমি মনে করি না। জোর করে কোন জাতিকে বাঙালি বানানো অথবা কোন ভাষাকে বাংলার উপভাষা বানানো নিতান্তই অমানবিক। কারণ এটাই প্রকৃতপক্ষে হিংসার বহিঃপ্রকাশ। Mahbubslt (আলাপ) ১৯:২৯, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আমি কখনো একাধিক জাতি থাকতে পারে না বলিনি। অধিকাংশ বাঙালিরাও বাংলা ঠিকমত উচ্চারণ করতে পারে না ও সব বাংলা শব্দ জানে না (আমিও তার মধ্যে রয়েছি, আপনি যে বাংলার কথা বলছেন তা আমিও পারি না। আমার জেলাতেও কেউ শুদ্ধ বাংলা বলে না, স্থানীয় উপভাষায় কথা বলে)। এছাড়া রংপুরের বাঙালির উচ্চারণ আর কক্সবাজারে বাস করা বাঙালি উচ্চারণে পার্থক্য রয়েছে। সিলেট অঞ্চলের অধিকাংশের মাতৃভাষা সিলেটি এটা কেউ অস্বীকার করছে না। আমার কথাটি ভালো করে দেখুন, "বাংলাও তাদের অপর মাতৃভাষা বা তার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়"। দেশের অন্যসব স্থানের মত সিলেটেও বাংলার কথ্য ও লেখ্য ব্যবহার দৈনন্দিন ও ওতপ্রোতভাবেই জড়িত। সিলেটির পর বাংলা সিলেটিদের অপর মাতৃভাষা (বা তার কাছাকাছি) না, এটা অস্বীকার করাটাই বরং বোকামি সুলভ কথা। আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ২০:১৬, ২৭ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
ভাষাবিজ্ঞান মাতৃভাষা হিসেবে মাত্র একটি ভাষাকেই স্বীকৃতি দেয় -এটা আপনাকে বুঝতে হবে। বাংলাদেশেের প্রতিটি স্তরে বাংলার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষার সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা করা হয়, এতে ইংরেজি ভাষাও কি বাঙ্গালীদের মাতৃভাষা হয়ে গেছে? যদি কোন ব্যক্তি একাধিক ভাষাকে মানুষের মাতৃভাষা বানানোর চেষ্টা করে, তবে সেটা স্পষ্টতই মূর্খতা। এছাড়াও বাংলাদেশের বিশেষ করে সিলেটের বিশাল অংশ উর্দু, ফার্সি এবং আরবি ভাষা নিয়েও লেখাপড়া করে, এবং তারা ওই ভাষা গুলোতেে যথেষ্ট পারদর্শী। তাই বলে কি তাদের মাতৃভাষা ওই ভাষা গুলোও হয়ে গেল? আর যদি আপনি বিশ্বাস করেন একটি দেশে একাধিক জাতি ও ভাষা থাকতে পারে, তাহলে এই প্রসঙ্গটি এখানে তুলার কারণটা কি আপনার? দেশের ভবিষ্যৎ নিয়ে এ ব্যাপারে ভাবার কি প্রয়োজন ছিল আপনার? আপনাদের মন মস্তিষ্ক যদি এরকম ভাবে, তাহলে দেশেরর ভবিষ্যৎ অবশ্যই খারাপ হবে। কারণ পাকিস্তানও এরকম মন-মানসিকতার কারণে বাঙ্গালীদের অধিকার খর্ব করেছিল, অবশেষে বাংলাদেশ বিচ্ছিন্ন হলো পাকিস্তান থেকে। সুতরাং বাংলাদেশের উচিত বাংলাদেশের অভ্যন্তরের বিশাল জাতিগুলোকে স্বাধীন জাতি হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া এবং তাদের ভাষা গুলো কেও স্বাধীন ও রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দেওয়া। এবং প্রতিটি আঞ্চলিক ভাষায় পাঠ্যপুস্তক রচনা করা উচিত।
আর আপনি যাদের কথা বলেছেন, রংপুর এবং চিটাগাং এর ভাষা। আপনি কি জানেন, বঙ্গ মুলত কোন অঞ্চল ছিল? বঙ্গ প্রাচীনকালে খুলনা এবং বরিশালের কিছু অংশ মিলে ছিল। কিন্তু আধুনিক কালেও পশ্চিমবঙ্গ এবং পূর্ব বঙ্গ বলতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য এবং বাংলাদেশের পদ্মা ও মেঘনা নদীর দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলকে বোঝায়। আর বঙ্গের হিসাব অনুযায়ী আধুনিক কালেও রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ এবং চিটাগাং, এগুলোও বাংলার অংশ না। সুতরাং এই অঞ্চল গুলোর ভাষা বঙ্গ অঞ্চলের ভাষার সাথে অনেক পার্থক্যপূর্ণ। যদিও রংপুরকে বর্তমানে অনেকে উত্তরবঙ্গ বলে চালিয়ে দেন, তবে এটা ভুল ‌‌। রংপুরের আঞ্চলিক জাতীয়তা (জাতিতত্ত্ব) হচ্ছে রাজবংশী এবং তাদের ভাষা হচ্ছে রংপুরী রাজবংশী। যেটার সাথে বাংলা ভাষার যথেষ্ট পার্থক্য রয়েছে।
অবশেষে সিলোটি ভাষার সাথে বাংলা ভাষার যে পার্থক্য রয়েছে, তা হিন্দি-উর্দু ভাষার মধ্যকার পার্থক্যের চেয়েও বেশি, মালয়-ইন্দোনেশিয়ান ভাষার মধ্যকার পার্থক্যের চেয়েও বেশি, ইংলিশ-স্প্যানিশ ভাষার মধ্যকার পার্থক্যের চেয়েও বেশি, স্প্যানিশ-ফ্রেঞ্চ ভাষার মধ্যকার পার্থক্যের চেয়েও বেশি, ফ্রেঞ্চ-জার্মান ভাষার মধ্যকার পার্থক্যের চেয়েও বেশি এবং রাশিয়ান-ইউক্রেনিয়ান ভাষার মধ্যকার পার্থক্যের চেয়েও বেশি। তাহলে ওই সব ভাষা আলাদা আলাদা ভাষার মর্যাদা পায় এবং স্বাধীন ভাষার স্বীকৃতি নিয়ে রাষ্ট্রভাষার অধিকার ভোগ করতে পারে, কিন্তু সিলোটি ভাষাকে জোর করে বাংলার উপভাষা বানানোর উদ্দেশ্যটা কি? নাকি পাকিস্তানের সেই নিম্ন মানসিকতা এখন বাঙ্গালীদের মাথায়ও কাজ করছে? Mahbubslt (আলাপ) ০৩:৫০, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
জনাব আমাকে বাংলা ও তার উপভাষা, অঞ্চলিক ভাষার কথা বলে লাভ নেই। আমি জানি বাংলাদেশের প্রতিটি জেলার লোকজনের কথা, উচ্চারণে পার্থক্য রয়েছে। আমি কথার মূল বিষয়ও তা নয়। সিলেটি ভাষাকে কেউ বাংলার উপভাষা বলছে না। সিলেট অঞ্চলের অধিকাংশের মাতৃভাষা সিলেটি এটাও কেউ অস্বীকার করছে না। সিলেটি ও বাংলার পার্থক্য থাকতে পারে। আমার কথার মূল বিষয় ছিল, দেশের অন্যসব স্থানের মত সিলেটেও বাংলার কথ্য ও লেখ্য ব্যবহার দৈনন্দিন ও ওতপ্রোতভাবেই জড়িত, সিলেটে সিলেটিরাও বাংলা মাতৃভাষার মত লিখতে-বলতে পারে। সিলেটির পর বাংলা তাদের অপর মাতৃভাষা বা তার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়। "তার চেয়ে কোনও অংশে কম নয়"-এর মানে যদি না বুঝেন, তবে আমার মনে হয় না আপনার সাথে তর্ক করা উচিত। সিলেটির পর বাংলা সিলেটিদের অপর মাতৃভাষার মত, এটা যদি অস্বীকার করতে চান, করুন। আপনার সংজ্ঞায় তো আমার মাতৃভাষাও বাংলা না! আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ১৪:৫২, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
এত ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে কি লাভ ভাই?
আপনি কি আমার ভাষা বোঝেন না?
একজন মানুষ যতই ভালোভাবে একাধিক ভাষা আয়ত্ত করুক না কেন, তার মাতৃভাষা মাত্র একটাই হবে। আর এটাই হচ্ছে ভাষা বিজ্ঞানের নীতি। মানুষ জন্মের পরে সর্বপ্রথম যে ভাষাটি শিখে, সেটাই হচ্ছে তার মাতৃভাষা। বাকি সবগুলোই দ্বিতীয় অথবা তৃতীয় ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পাবে। এই এত সহজ কথাটারে আপনি এত প্যাচাচ্ছেন কি জন্য? এত নেগেটিভ চিন্তা করেন কেন বুঝিনা? আর প্রথম মেসেজটি তো আপনার অনেক জঘন্য ছিল। বোঝা গিয়েছিল সিলেটি ভাষা নিয়ে কথা বললে বাংলাদেশ খন্ড বিখন্ড হয়ে যাবে। যদিও এখন একটু শিথিল দেখতে পাচ্ছি আপনাকে। সর্বশেষ এটাই বলতে চাচ্ছি, আপনি বুঝেন বা না বুঝেন সেটা মূল বিষয় নয়, কিন্তু মানুষের মাতৃভাষা মাত্র একটা ভাষাই হয়। Mahbubslt (আলাপ) ১৬:১৯, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
মানুষের মাতৃভাষা দুটোও হতে পারে, যদিও অধিকাংশ মানুষের ক্ষেত্রে সাধারণত একটি (আমি সেই তর্কে বিতর্কে যাব না, আমি ভাষাবিদ নই ও আমার এই আলোচনার তা নিয়েও নয়)। সিলেটি ভাষা নিয়ে কথা বলেছেন দেখে আমি বার্তা দেইনি। আমি বার্তা দিয়েছি "আপনারা আপনাদের মাতৃভাষা সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন, ধন্যবাদ" লাইনটির কারণে। আপনি বাংলা ভালোই জানেন বুঝেন, আপনার মাতৃভাষার চেয়ে কোন অংশে কম নয়। তারপরেও আপনি লাইনটি দ্বারা যেভাবে বিভেদ টানলেন (আপনারা/আপনাদের/আমাদের), সেই কারণে এই আলোচনা উত্থাপন। আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ১৭:২০, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
১. লাইনটি বলার কারণ হচ্ছে, বাংলা ভাষায় মাতৃভাষী যারা তারা তাদের ভাষার মর্ম উপলব্ধি করতে পারে না। সুতরাং আমি এক অবাঙ্গালী হয়ে তাদের চেয়ে বেশি পন্ডিতি জাহির করতে পারবো না। ২. একজন মানুষের একাধিক মাতৃভাষা থাকতে পারে এর স্বপক্ষে আপনি তথ্যসূত্র বা প্রমাণ উপস্থাপন করুন। নতুবা অযথা কথা টানাটানি বন্ধ করুন। Mahbubslt (আলাপ) ১৮:০৭, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আপনার ২য় প্রশ্নের উত্তরে সূত্র[১]
যাইহোক, এই বিষয়ে লিখতে এখন আসিনি। লক্ষ্য করুন, আপনি মুহাম্মাদ নিবন্ধে যে অনুচ্ছেদের অনুবাদ করেছেন, সেগুলো ইতোমধ্যে নিবন্ধটিতে রয়েছে। বাংলা উইকিতে মুহাম্মাদ নিবন্ধটি নির্বাচিত নিবন্ধ, আমার মনে হয় না এতে অনুবাদ করার মত কোন অনুচ্ছেদ বাকি রয়েছে। আপনি বরং অন্য নিবন্ধ অনুবাদ করুন। এই যেমন শেনজেন এলাকা নিয়ে অনুবাদ কাজ করুন। আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ১৯:৫১, ২৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
কিন্তু সিলেটিরা বাংলা এবং ইংরেজি তৃতীয় স্তরে গিয়ে শিখে। বয়স যখন ছয় বছরের উপর চলে যায় তখন ওই ভাষা গুলোর উপর অধ্যায়ন শুরু করে ‌। এর পূর্বে সিলেটি ভাষা এবং পরবর্তীতে আরবি ভাষার চর্চা বা অধ্যয়ন করে। তাহলে বাংলা ভাষা হবে আমাদের তৃতীয় ভাষা। আমরা মায়ের কাছ থেকে অথবা আমাদের পরিবারের কাছ থেকে বাংলা শিখে বড় হই না। স্কুলে ভর্তি হওয়ার পরে শিক্ষকরা অনেক মেহনতের মাধ্যমে ওই ভাষা গুলো আমাদেরকে শিখতে সাহায্য করেন। Mahbubslt (আলাপ) ১৯:৫৭, ২৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
ছোট বেলায় সূরা মুখস্ত করা মানে আরবি শেখা না। আপনার হিসেবে বাংলা আমারও তৃতীয় ভাষা। ছোটবেলায় আঞ্চলিক ভাষা, কিছু আরবি সূরা ও অক্ষর মুখস্ত করা ও পরে স্কুলে বাংলা পড়া! সে যাককে আপনিই ভালো জানেন। আপনি যদি বাংলাকে আপনার মাতৃভাষার মতো বলতে অস্বীকার করেন তা আপনার ব্যাপার। আফতাবুজ্জামান (আলাপ) ২০:০৪, ২৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
সিলেটের মক্তব আর অন্যান্য অঞ্চলের মক্তব এক না ভাই। এখানে প্রতিদিন সকালে প্রতিটি মসজিদে ইমামগণ বাধ্যতামূলক শিক্ষার্থীদের পড়ান। এখানে শুধু আরবি সূরা তেলাওয়াত করা শিখানো হয় না, আরবি ভাষা শিক্ষা দেওয়া হয়, সেজন্য বলছি। সেই একবারে ছোট্ট কালেই আরবি ভাষায় যথেষ্ট পরিমাণ শিখিয়ে দেওয়া হয় শিশুদেরকে। আমি ভাষা শিক্ষা শব্দটাকে ভালোভাবে বুঝেই কমেন্ট করেছি ভাই। Mahbubslt (আলাপ) ২৩:৩৬, ২৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আবদুল্লাহ ইবনে আবদুল মুত্তালিবসম্পাদনা

সুধী, আবদুল্লাহ ইবনে আবদুল মুত্তালিব নিবন্ধে আপনার সর্বশেষ সম্পাদনাগুলো বাতিল করা হয়েছে। আপনার একটি সম্পাদনায় “ইসলামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নবি” এটি অপ্রয়োজনীয় বর্ণনা, ক্ষেত্রবিশেষে তথ্যসূত্রহীন অংশ। নিবন্ধের শব্দসংখ্যা যথাসম্ভব কম রাখুন, শুধু মূলভাবটুকু রাখুন। এরপরের পরিবর্তনে আপনি একটি ওয়েবসাইট যুক্ত করেছেন, যেটি নির্ভরযোগ্য নয়। অনুগ্রহ করে এ ধরনের ওয়েবসাইট যুক্ত করবেন না। — আদিভাইআলাপ • ১৪:০৫, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

সম্পাদনাটি বাতিল করা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক বলে আমি মনে করি।
১. আমি বিতর্কিত তথ্য অপসারণ করে সর্বসম্মত তথ্য স্থাপন করেছি মাত্র। যেখানে কোন পক্ষপাতিত্ব নেই এবং ভুল-ভ্রান্তিও নেই। কারণ 'মোহাম্মদ (সা.) ইসলামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নবী' -এই কথাটি সত্য। এটা মুসলিম-অমুসলিম সবাই স্বীকার করে। কিন্তু অমুসলিমরা হয়তো তাকে নবী হিসেবে গ্রহণ করে না অথবা তারা অবিশ্বাসী হতে পারে। কিন্তু তিনি ইসলামের গুরুত্বপূর্ণ নবী, এ ব্যাপারে তারা দ্বিমত পোষণ করে না। আশা করি কথাটি বুঝতে পেরেছেন। এছাড়াও 'ইসলামের প্রবর্তক' কথাটি ইসলামের শিক্ষার বিপরীত। কারণ নবী মুহাম্মদ ইসলামের 'প্রবর্তক' নন ইসলামে দৃষ্টিতে। প্রকৃতপক্ষে ইসলাম কোন মানুষ দ্বারা প্রবর্তিত নয়, ইসলাম এমন শিক্ষা দিয়েছে। ইসলাম বলে, ইসলাম স্রষ্টা কর্তৃক প্রবর্তিত। সুতরাং এটা একপক্ষের দৃষ্টিতে সঠিক হলেও বিষয়টির সাথে জড়িত মূল পক্ষের তথ্যের বিপরীত। এজন্য এই তথ্যটি অপসারণ করে আমার দেওয়া তথ্যটি এখানে স্থাপন করা অযৌক্তিক নয়, বরং যুক্তিসঙ্গত।
২. নামের অর্থের ক্ষেত্রে যে কোন অভিধান গ্রহণযোগ্য হতে পারে। সুতরাং ওই লিংকটি বর্জনীয় নয়। এছাড়াও উক্ত নামের অর্থ সমস্ত অভিধান প্রায় ঐরকম ভাবে প্রদান করে। আমি আপনাদেরকে অনুরোধ করব, দয়া করে কোন তথ্য ভালো করে উপলব্ধি করার পর সিদ্ধান্ত নিবেন। তথ্যসূত্রের প্রয়োজন অবশ্যই রয়েছে। কিন্তু তার ব্যবহার বিচার-বিশ্লেষণের উপর নির্ভরশীল। সুতরাং আপনাদের মস্তিষ্ককে সম্প্রসারণ করুন।
উপরোক্ত উত্তরের ভিত্তিতে আশা করি সম্পাদনা পুনর্বহাল করবেন। Mahbubslt (আলাপ) ১৮:১৮, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
সুধী,আমি আপনার সম্পাদনা বিষয়ে কিছু বলছি না। তবে অনুগ্রহ করে আক্রমণাত্মক কথা বলা থেকে বিরত থাকুন। ~ নোমান (আলাপঅবদান) ১৮:২০, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আমি অযৌক্তিক মনে করি এই বাক্যটা আক্রমণাত্মক নয়। এবং আপনাদের মস্তিষ্ক সম্প্রসারণ করুন এই কথাটি ও আক্রমণাত্মক নয়। প্রথম কথাটি আমার বোধগম্যতা প্রকাশ করেছে আর দ্বিতীয় কথাটি ভালোভাবে উপলব্ধি করার পরামর্শ প্রদান করেছে। Mahbubslt (আলাপ) ১৮:২৪, ২৮ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আপনার মন্তব্যের ভঙ্গিমা নিয়ে আমি কোনো আলোচনায় না গিয়ে সরাসরি মূল আলোচনায় যেতে চাইছি। প্রথমত, আপনি আমার কথা না বুঝেই অন্য কথা ধরে বসে আছেন। মুহাম্মদ ইসলামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নবি কি-না, ধর্মী-বিধর্মীরা কী বলছে, তা নিয়ে বিতর্কে যাবার দরকার নেই বা প্রয়োজনও মনে করছি না। সেসব নিয়ে আলোচনার জন্য মুহাম্মদ নিবন্ধ রয়েছে। বর্তমানের আলোচ্য নিবন্ধটি মুহাম্মদের পিতার সম্পর্কে। এখানে মুহাম্মদের এতসব বিস্তারিত বর্ণনা অপ্রাসঙ্গিক। আব্দুল্লাহর নিবন্ধের মুহাম্মদ প্রাসঙ্গিকভাবে তার পুত্র হিসেবে আসবে, কিন্তু মুহাম্মদের এত বিস্তারিত বর্ণনা এখানে অফটপিক
দ্বিতীয়ত, নামের অর্থের ক্ষেত্রে যেকোনো অভিধান গ্রহণযোগ্য হতে পারে, যদি তার নির্ভরযোগ্যতা থাকে। ইন্টারনেটে এরকম হাজারো ওয়েবসাইট পাওয়া যায়। আপনি-আমিও এরকম ওয়েবসাইট খুলতে পারব, পৃথিবীর যে কেউ খুলতে পারবে। এরকম ব্লগসাইটও রয়েছে, সেগুলোতে যে কেউ যা খুশি লিখতে পারে। এগুলো উইকিপিডিয়ায় তথ্যসূত্র হিসেবে যুক্ত করা যাবে না, কারণ এই ওয়েবসাইটগুলোর এডিটোরিয়াল সম্পর্কে স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকে না, বা যারা এগুলো লেখে, তারা কেউ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অভিজ্ঞ বা পারদর্শী না হয়েই লিখে থাকেন। তাতে অসংখ্য ভুল তথ্য থাকে, এগুলো সংশোধন বা প্রুফরিড করার কেউ থাকে না। এগুলো অনুসরণে উইকিপিডিয়ায় লেখা, উইকিপিডিয়ার নির্ভরযোগ্যতাকেই প্রশ্নবিদ্ধ করবে। আপনি যদি কোনো ওয়েবসাইট বা অভিধান থেকে তথ্যসূত্র দিতে চান, তাহলে এর লেখক, প্রকাশক দেখতে হবে। বাংলা একাডেমি বা প্রথমা প্রকাশনের একটি বই থেকে উদ্ধৃতি দিলে সেটি নির্ভরযোগ্য, কারণ তাদের প্রকাশক ও এডিটোরিয়াল বিভাগ প্রফেশনাল। তাদের বই বা প্রকাশনার প্রুফরিড হয়, কোনো ভুল তথ্য তারা দিতে চাইবে না। এটাই হলো যেকোনো ওয়েবসাইট আর নির্ভরযোগ্য সাইটের পার্থক্য। (একই কারণে উইকিপিডিয়া নিজেই উইকিপিডিয়ার জন্য নির্ভরযোগ্য উৎস নয়। কারণ উইকিপিডিয়ায় যেকেউ লিখতে পারে।) এটা বোঝার জন্য মস্তিষ্কের সম্প্রসারণের প্রয়োজন হয় না। প্রয়োজন হয় নীতিমালাগুলো পড়ে বোঝার সক্ষমতা। — আদিভাইআলাপ • ০৫:০৫, ২৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
আমার এত বেশি জ্ঞান নেই যে আপনাদের সাথে তর্ক করব। অবশেষে একটা কথাই বলবো, ইসলামের প্রবর্তক মোহাম্মদের পিতা না লিখে শুধু মোহাম্মদের পিতা লিখে ফেলেন আপনাদের নিবন্ধে। এতে আপনার মত পুঙ্খানুপু ভাবে কার্যকর হবে। নিবন্ধ সংক্ষিপ্ত হবে। আর মোহাম্মদ সম্পর্কে এত ভালো জানার প্রয়োজন হলে মোহাম্মদ নিবন্ধ রয়েছে। আর বাংলা উইকিপিডিয়ায় আমার সম্পাদনা এখানেই সমাপ্ত। আল্লাহ হাফেজMahbubslt (আলাপ) ০৬:২২, ২৯ আগস্ট ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

সেপ্টেম্বর ২০২২সম্পাদনা

  স্বাগতম, আমি Meghmollar2017। সম্প্রতি আপনার সম্পাদিত ইসলাম পাতায় উল্লেখিত তথ্যটি সঠিক নয়, তাই আমি এটি অপসারণ করেছি। আপনি যদি মনে করেন তথ্যটি ঠিক ছিল, তবে নির্ভরযোগ্য তথ্যসূত্র উল্লেখ করে তথ্যটি পুনরায় যোগ করুন, প্রয়োজনে নিবন্ধের আলাপ পাতায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। আর যদি আপনার মনে হয় আমার এই অপসারণটি সঠিক হয়নি, অথবা এই বিষয়ে কোনো প্রশ্ন থাকে তবে অনুগ্রহ করে আমার আলাপ পাতার মাধ্যমে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ। — আদিভাইআলাপ • ০০:৫৯, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

আপনার কাছে মনে হয়েছে সঠিক নয়়, তাই আপনি অপসারণ করে ফেললেন? যদি সঠিক না হয়, তাহলে অপসারণের পূর্বে পৃষ্ঠায় আলোচনা শুরুর কথা ছিল। এবং আপনার যুক্তি উপস্থাপনের প্রয়োজন ছিল। আপনি প্রমাণ দিন, কেন সঠিক নয়? আর
র হ্যামিআআম অবশ্যই রেফারেন্স যুক্ত করব। আপনি এটা রিমুভ করার পূর্বে
তথ্যসূত্র প্রয়োজন এটা যুক্ত করতে পারতেন।
আপনারা ব্যক্তিগত মতামতের উপর এতই গুরুত্ব দেন যে, কোন তথ্য রিমুভ করতে একটুও পর্যালোচনা করেন না। হয়তোবা ইসলাম সম্পর্কে আপনার জ্ঞানের দুর্বলতা রয়েছে, তাই বলে আপনি বিশাল অংশ রিমুভ করে ফেলবেন? আপনি যে তথ্যগুলো প্রত্যাখ্যান করেছেন, তা যে ভুল তার উপস্থাপন প্রমাণ করুন।
Mahbubslt (আলাপ) ০১:৩৬, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
 

Do not create, add, or restore hoaxes to Wikipedia, such as you did with the article বাংলা-অসমীয়া ভাষাসমূহ. Hoaxes are caught and marked for deletion shortly after they are created. If you are interested in how accurate Wikipedia is, a more constructive test method would be to try to find inaccurate statements that are already in Wikipedia – and then to correct them if possible. Please do not disrupt Wikipedia. Feel free to take a look at the five pillars of Wikipedia to learn more about this project and how you can contribute constructively. Thank you. — আদিভাইআলাপ • ১০:০২, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]