ফরচুন বরিশাল

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ক্রিকেট দল
(বরিশাল বুলস থেকে পুনর্নির্দেশিত)

ফরচুন বরিশাল হলো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বা বিপিএল এ অংশগ্রহণকারী একটি ক্রিকেট দল, যেটি বাংলাদেশের বরিশাল বিভাগের প্রতিনিধিত্ব করছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ২ কোটি টাকার বিনিময়ে দলটির মালিকানা ফরচুন গ্রুপের কাছে বিক্রয় করে।[১] দলটি বিশেষ করে বরিশাল বিভাগকে উপস্থাপন করে।[২]

ফরচুন বরিশাল
কর্মীবৃন্দ
অধিনায়কতামিম ইকবাল
কোচমিজানুর রহমান বাবুল
চেয়ারম্যানগোলাম মর্তুজা
মালিকফরচুন গ্রুপ বাংলাদেশ
দলের তথ্য
শহরবরিশাল
প্রতিষ্ঠা২০১২-১৩: বরিশাল বার্নার্স
২০১৫-১৬: বরিশাল বুলস
ইতিহাস
শিরোপার সংখ্যা
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ জয় জয়

টি২০ কিট

দলটি মূলত ২০১২ সালে বরিশাল বার্নার্স (সংক্ষেপে বিবি নামে পরিচিত) হিসাবে বিপিএলের উদ্বোধনী মৌসুমের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বার্নার্স ২০১২ সালে বিপিএল রানার্সআপ ছিল। বিপিএলের দ্বিতীয় সংস্করণের পরে ২০১৩ সালে বিলুপ্ত হওয়া দলগুলির মধ্যে একটি ছিল বার্নার্স।

ইতিহাস সম্পাদনা

২০১২ মৌসুম সম্পাদনা

২০১২ সালে, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড টি২০ পদ্ধতিতে খেলার জন্য বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ আয়োজন করে। ছয়টি দল নিয়ে একই বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে টুর্নামেন্টটি আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।[৩] ১০ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে হোটেল র‍্যাডিসনে বরিশালসহ বিভাগগুলিকে প্রতিনিধিত্ব করা দলগুলিকে নিলামে তোলা হয়। ১.০১ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের আলিফ এসএসএল স্পোর্টস হোল্ডিং লিমিটেড বরিশাল বার্নাসকে কিনে নেয় যা ছিল নিলামে সবচেয়ে কম দামে কিনে নেয়া দল।[৪]

এই মৌসুমে বরিশালের সবচেয়ে বড় ক্রয় ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিসের ওপেনার ক্রিস গেইলকে ৫৫১,০০০ মার্কিন ডলারে কিনে নেয়া, যা ছিল বিপিএলের প্রথম মৌসুমের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দামে কেনা। যদিও ক্রিস গেইল মাত্র ৫টি খেলার জন্য উপলব্ধ ছিল। এই সংক্ষিপ্ত সময়ে ক্রিস গেইল দুটি শতকসহ সর্বোচ্চ ৯৭.০০ গড়ে রান তুলতে সক্ষম হয়। আসরের বাকী ম্যাচে বরিশাল বার্নাস পাকিস্তানি ওপেনার আহমেদ শেহজাদ ও অস্ট্রেলীয় অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ব্র্যাড হজকে দিয়ে ইনিংসের শুরু করত। দলের অন্য খেলোয়াড়দের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল শাহরিয়ার নাফিস, যিনি "আইকন খেলোয়াড়" ছিলেন। এছাড়া আরো ছিলেন মমিনুল হক, আল আমিন, সৌরাওয়ার্দী শুভ, ইংরেজ উইকেটকিপার ফিল মাস্টার্ড ও পাকিস্তানি ইয়াসির আরাফাত। বরিশাল বার্নাসের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপ দলটিকে সেমিফাইনালে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। সেমিফাইনালে গ্রুপ পর্বের শীর্ষ দল দুরন্ত রাজশাহীকে হারিয়ে ফাইনালে যায় বরিশাল কিন্তু ফাইনালে বরিশাল বার্নাস ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের কাছে ৮ উইকেটে পরাজিত হয়।[৫]

২০১৩ মৌসুম সম্পাদনা

এই মোসুম বরিশাল বার্নাসের জন্য ভালো যায়নি। তারা পয়েন্ট তালিকার ষষ্ঠ দল হিসেবে গ্রুপ পর্ব শেষ করে ও প্লেঅফের জন্য যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হয়। এই মৌসুমে বরিশাল ক্রিস গেইলকে ধরে ব্যর্থ হয়, ক্রিস গেইল ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে খেলার জন্য চুক্তি করেন। তারা সুনীল নারাইনকে তাদের দলে অন্তর্ভুক্ত করে এবং ফিল মাস্টার্ড ও ব্র্যাড হজকে ধরে রাখে। জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে না পারায় বরিশাল বার্নাস ষষ্ঠ হিসেবে এই মৌসুম শেষ করে এবং এটি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ-এ বরিশাল বার্নাসের শেষ মৌসুম ছিল। যাবতীয় বকেয়া পরিশোধের করতে না পারায় পরে আসরে দলটি বাদ দেয়া হয় ও তাদের পরিবর্তে নতুন দল বরিশাল বুলস-কে নেয়া হয়।

২০১৫ মৌসুম সম্পাদনা

বরিশাল বুলস নামে দলটি পূর্বের দল বরিশাল বার্নার্সের পরিবর্তে বিপিএলে আসে। দলটির স্বত্বাধিকারী অ্যক্সিওম টেকনোলজিস যারা ২০১৫ সালে দলটির মালিকানা কিনে নেয়। আর্থিক শর্ত না মানায় দলটিকে বিপিএল ৫ থেকে বাদ দেয়া হয়।[৬] ২০১৮ সালে ষষ্ঠ বিপিএলে অংশগ্রহণের জন্য আর্থিক নিরাপত্তা দিতে না পারায় দলটিকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।[৭]

২০১৫ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দলটিকে নেতৃত্ব দেয় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও দলটির কোচ ছিলেন গ্রাহাম ফোর্ড। ২০১৬ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দলটির প্রধান কোচ ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভ হোয়াটমোর এবং অধিনায়ক ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম

বর্তমান দল সম্পাদনা

  • যেসব খেলোয়াড় আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন তাদের গাঢ় করে দেখানো হয়েছে।
  •  *  রঙের অর্থ সেই খেলোয়াড় দলে নির্বাচনের জন্য বর্তমানে অনুপলব্ধ।
  •  *  রঙের অর্থ সেই খেলোয়াড় পুরো মৌসুমের জন্য দলে নির্বাচনের জন্য অনুপলব্ধ।

আরো দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "Five corporates pick up teams for Bangabandhu T20 Cup"www.espncricinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৮ নভেম্বর ২০২০ 
  2. "বরিশালের ব্র‍্যান্ড অ্যাম্বাসেডর জায়েদ খান, লোগো ও জার্সি উন্মোচন"Cricket97 - We Deal with Cricket। ১৪ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ২০ নভেম্বর ২০২০ 
  3. "Bangladesh Premier League to begin on 9 February"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১১ 
  4. "BPL franchises fetch low prices"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১০ জানুয়ারি ২০১২ 
  5. "Barisal Burners v Dhaka Gladiators, BPL final, 2012"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১৬ 
  6. "বরিশাল বুলস থাকছে না বিপিএলে"দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ৯ আগস্ট ২০১৭ 
  7. "এবারের বিপিএলও খেলা হচ্ছে না বরিশাল বুলসের"প্রিয়.কম। ১৩ আগস্ট ২০১৮। ২৬ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯