প্রধান মেনু খুলুন

নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লব

এক সুমেরীয় চাষীর কাস্তে, প্রায় ৩০০০ খৃষ্টপূর্বাব্দ থেকে।

নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লব, নব্যপ্রস্তর যুগীয় ডেমোগ্রাফিক ট্রান্‌জিশন, কৃষি বিপ্লব, অথবা প্রথম কৃষি বিপ্লব, ছিল অসংখ্য মানব সংস্কৃতির বিস্তৃত পরিসরে বদল, এক শিকারী-সংগ্রহকারীর জীবনধারা থেকে একটি কৃষিকার্য ও স্থায়ী জীবনধারায়, যা তৈরী করে ক্রমবর্ধমানভাবে একটি বৃহত্তর জনসংখ্যার সম্ভাবনা।[১] এই এক জায়গায় স্থায়ী সমাজ অনুমতি দিল মানবজাতিকে উদ্ভিদের সঙ্গে পর্যবেক্ষন ও পরীক্ষা করতে যে কীভাবে তারা বেড়ে ওঠে ও বিকশিত হয়।[২] এই নতুন জ্ঞান উদ্ভিদের গৃহপালনে উৎসাহিত করল।[২][৩]

প্রত্নতাত্ত্বিক তথ্য দেখায় যে বিভিন্ন ধরনের উদ্ভিদের ও প্রাণীদের গৃহপালন ঘটেছিল পৃথিবীর ভিন্ন ভিন্ন অংশে, যা শুরু হয় হলোসিন-এর ভূতাত্ত্বিক সময়-এর একটি উপযুগে[৪], প্রায় ১২,৫০০ বছর আগে।[৫] এটি ছিল বিশ্বের কৃষিকার্যে ঐতিহাসিকভাবে প্রথম প্রমাণিত বিপ্লব। নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লবটি বিপুলভাবে লভ্য খাদ্যসমূহের বৈচিত্র কমাল, যার ফলে মানবপুষ্টিতে মন্দা দেখা গেল।[৬]

নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লবটি একটি সীমিত খাদ্য-উৎপাদন প্রযুক্তির সেটের চেয়ে অনেক বেশি জড়িত। পরবর্তী সহস্রাব্দের সময় এটি বদলায় ছোট ও যাযাবর শিকারী-সংগ্রহকারী দলগুলিকে (যারা এযাবৎ এইভাবে জীবনযাপন করত মানব প্রাগৈতিহাস জুড়ে), স্থায়ী (যাযাবর নয়) সমাজে গ্রাম বা শহরের তৈরীর উপর ভিত্তি করে। এই সমাজগুলি আমুল পরিবর্তিত করে তাদের পরিবেশ বিশেষ খাদ্যশস্য চাষাবাসের মাধ্যমে, কিছু কাজের সাথে যেমন সেচঅরণ্যবিনাশ যা অতিরিক্ত খাদ্য উৎপন্ন করা সম্ভব করল।

এই উন্নতিগুলি ভিত তৈরী করল ঘন জনসংখ্যার, শ্রম বিভাজন ও বৈশিষ্টকরণের, আরও বেশি বাণিজ্যের, অবহনীয় শিল্পস্থাপত্যের উন্নতির, কেন্দ্রীয় প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতার, যাজকতান্ত্রিক ভাবাদর্শের, অব্যক্তিগতকৃত জ্ঞানের মাধ্যম (যেমন, লিখন), এবং সম্পত্তির স্বত্ব। প্রাচীনতম জ্ঞাত সভ্যতার পত্তন ও হয়েছিল দক্ষিণ মেসোপটেমিয়াসুমের-এ (আনুঃ ৫,৫০০ বছর পূর্বে); এটির উত্থান ব্রোঞ্জ যুগ-এরও সূচনা করল।[৭]

উক্ত নব্যপ্রস্তর যুগীয় বৈশিষ্টগুলির সাথে কৃষিকার্যের, তাদের উত্থানের সাথে সম্পর্ক, এবং গবেষণামূলক পরস্পরের সম্পর্ক একাধিক নব্যপ্রস্তর যুগীয় সাইটে এখনও একটি এ্যাকাডেমিক বিতর্কের বিষয়, এবং জায়গা থেকে জায়াগায় ভিন্ন, সামাজিক বিবর্তনের সার্বজনীন নিয়মের বদলে।[৮][৯] লেভ্যান্ট দেখেছিল নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লবের প্রাচীনতম অগ্রগতি প্রায় ১০,০০০ খৃষ্টপূর্বাব্দে, উর্বর চন্দ্রকলার মত বৃহত্তর জায়গা দ্বারা যা অনুসরণকৃত হয়। নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লবটি "অনুপ্রাণিত করল মানব ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়নগুলির কয়েকটি যেমন চাকার আবিষ্কার, শস্য-এর বীজরোপণ এবং টানা হাতে লিখনের উন্নয়ন, গণিত, জ্যোতিষশাস্ত্র এবং কৃষিকার্য।"[১০][১১]

কৃষি বিপ্লবসম্পাদনা

 
পৃথিবীর মানচিত্র যা দেখাচ্ছে কৃষিকার্যের উৎসের আনুমানিক কেন্দ্র এবং প্রাগৈতিহাসে এটির ছড়িয়ে পড়া: উর্বর চন্দ্রকলা (১১,০৫০ বঃপূঃ অর্থাৎ বছর পূর্বে), ইয়াংৎজে আর হলদে নদীর অববাহিকা (৯,০৫০ বঃপূঃ) ও নিউ গিনি উচ্চভূমি (৯,০৫০–৬,০৫০ বঃপূঃ), মধ্য মেক্সিকো (৫,০৫০–৪,০৫০ বঃপূঃ), দক্ষিণ আমেরিকার উত্তর (৫,০৫০–৪,০৫০ বঃপূঃ), সাব-সাহারা আফ্রিকা (৫,০৫০–৪,০৫০ বঃপূঃ, সঠিক অবস্থান অজ্ঞাত), পূর্ব উত্তর আমেরিকা (৪,০৫০–৩,০৫০ বঃপূঃ)।[১২]

নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লব নামটি চালু হয়েছিল ১৯২৩ সালে ভি. গর্ডন চাইল্ড কর্তৃক, মধ্যপ্রাচ্যের ইতিহাসের কৃষি বিপ্লবের ধারাবাহিকের প্রথম বর্ণনা দিতে। এই সময়টিকে "বিপ্লব" বলা হয় এর গুরুত্ব দেখাতে, এবং দেখাতে এর মহান তাৎপর্যতা ও বদলের মাত্রা যা প্রভাবিত করেছিল মানব সমাজকে যেখানে সময়ের সাথে নতুন কৃষি পদ্ধতিগুলি গৃহীত ও সংশোধিত করা হয়েছিল।

বিভিন্ন জায়গায় এই পদ্ধতির সূচনা হয়েছিল ১০,০০০ থেকে ৮,০০০ খৃষ্টপূর্বাব্দের মধ্যে উর্বর চন্দ্রকলায়[৫][১৩] এবং সম্ভবত ৮,০০০ খৃষ্টপূর্বাব্দে মেলানেশিয়ার কুক প্রাচীন কৃষি এলাকায়।[১৪][১৫] এই বিপ্লবটি সর্বত্র দেখা যায় যে এক যাযাবর শিকারী-সংগ্রহকারী জীবনধারা থেকে এক স্থায়ী, কৃষি ভিত্তিক জীবনধারায় বদলের সঙ্গে জড়িত, বিভিন্ন উদ্ভিদ ও প্রাণী প্রজাতির গৃহপালনের সূচনার সঙ্গে—স্থানীয় প্রজাতিগুলির উপর নির্ভর করে, এবং সম্ভবত স্থানীয় সংস্কৃতি দ্বারা প্রভাবিত হয়েও। সাম্প্রতিক প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষণা বলে যে কিছু জায়গায় যেমন দক্ষিণ পূর্ব এশীয় উপদ্বীপে, শিকারী-সংগ্রহকারী থেকে কৃষি ভিত্তিকে বদল রৈখিক ছিল না, ছিল অঞ্চল ভিত্তিক।[১৬]

 
ন্যাপ অফ হোওয়ার গোলাবাড়ি, ৩,৭০০ থেকে ২,৮০০ অবধি অধিকৃত এক জায়গায়।

অনেক প্রতিযোগিতামূলক (কিন্তু পারস্পারিক স্বতন্ত্র নয়) ধারণা আছে সেই কারণগুলির উপরে যা মানব সভ্যতাকে বাধ্য করে কৃষি ভিত্তিক জীবনযাপন করতে। সবচেয়ে বিশেষগুলি হচ্ছে:

  • ওয়েসিস বা মরূদ্যান ধারণা, আসলে রাফায়েল পাম্পেলি কর্তৃক প্রস্তাবিত ১৯০৮ সালে, ভি. গর্ডন চাইল্ড দ্বারা জনপ্রিয় করা হয় ১৯২৮ সালে এবং উল্লেখিত করা হয় চাইল্ডের বই Man Makes Himself (ম্যান মেক্‌স হিমসেলফ; মানুষ নিজেকে সৃষ্টি করে) -এ।[১৭] ধারণাটি স্বীকার করে যে যত জলবায়ু শুষ্ক হতে থাকল আতলান্তিক নিম্নচাপের উত্তরদিকে গমনের কারণে, সমাজগুলি মরূদ্যানের কাছাকাছি বসতি বানাতে লাগল যেখানে তারা অন্যান্য প্রাণীর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক পাততে বাধ্য হল, যেগুলি তখন একসঙ্গে গৃহপালন করা যেত বীজরোপণের মাধ্যমে। তবে, আজ প্রত্নতাত্ত্বিক মহলে এর জন্য অল্পই সমর্থন আছে যেহেতু জলবায়ু তথ্য দেখায় যে তখন পৃথিবী শুষ্ক হওয়ার বদলে আদ্রিত হচ্ছিল, অর্থাৎ আর্দ্রতা বাড়ছিল।[১৮]
  • হিলি ফ্লাঙ্কস হাইপোথিসিস, ১৯৪৮ সালে রবার্ট জন ব্রেইডউড কর্তৃক প্রস্তাবিত, বলে যে কৃষিকার্য শুরু হয় তোরোসজগ্রোস পর্বতমালায়, যেখানে জলবায়ু চাইল্ডের প্রস্তাবের মতন শুষ্ক ছিল না, এবং উর্বর জমিতে গৃহপালনের জন্য অনেক উদ্ভিদ ও প্রাণীর প্রজাতি ছিল।[১৯]
  • ব্রাইয়ান হেইডেন কর্তৃক ফিস্টিং মডেল[২০] বলে যে কৃষিকার্য চালিত হত শক্তির জাঁকাল প্রদর্শনী, যেমন ভোজ দেওয়া দ্বারা, আধিপত্য প্রয়োগ করতে। এর জন্য প্রয়োজন ছিল বড়ো পরিমাণে খাদ্য জমা করার, যা চালাত কৃষি প্রযুক্তি।
  • কার্ল অর্ট্‌উইন সাওয়ার কর্তৃক প্রস্তাবিত জনতাত্ত্বিক ধারণাগুলি[২১] এবং লুই রবার্টস্‌ বিনফোর্ড[২২] ও কেন্ট ভাউন ফ্ল্যানারি দ্বারা গৃহীত স্বীকার করে একটি বাড়ন্ত স্থায়ী জনসংখ্যা যাদের জন্য খাবারের চাহিদা বেশি ছিল। অনেক সামাজিক ও অর্থনৈতিক কারণ খাদ্যের প্রয়োজনকে চালিত করতে সাহায্য করল।
  • বিবর্ধনমূলক/আতর্জাতিকতা তত্ত্ব, ডেভিড রিন্ডস[২৩] ও অন্যান্যদের দ্বারা প্রস্তাবিত, কৃষিকার্যকে দেখে উদ্ভিদ ও মানবজাতির বিবর্ধনমূলক গ্রহণ। রক্ষা করা দ্বারা বন্য উদ্ভিদের গৃহপালন থেকে শুরু হয়ে, এলাকার বৈশিষ্টকরণ ঘটে ও পূর্ণাঙ্গভাবে গৃহপালন শুরু হয়।
  • পিটার জেমস রিচার্ডসন, রবার্ট টার্নার বয়ড, এবং রবার্ট বেটিংগার[২৪] একটি কারণ প্রস্তাবিত করেন যে হলোসিন-এর শুরুতে বেশ স্থিতিশীল জলবায়ুর সাথে সামঞ্জস্য রেখে কৃষির সূচনা হয়। রোনাল্ড রাইটের বই ও ম্যাসি লেকচার ধারাবাহিক A Short History of Progress[২৫] (আ শর্ট হিস্টোরি অফ প্রোগ্রেস; উন্নতির সংক্ষিপ্ত ইতিহাস) এই হাইপোথিসিসটিকে জনপ্রিয় করে।
  • স্বীকারকৃত ইয়াঙ্গার দ্র্যাস ইম্প্যাক্ট ইভেন্ট, দাবি করা হয় এটিই দায়ী কোয়াটারনারি বিলোপ কাণ্ড ও হিমযুগের শেষের জন্য, হতে পারে কৃষিকার্যের জন্য আদর্শ জলবায়ু তৈরী করে দিয়েছিল যা মানবজাতির বেঁচে থাকার জন্য প্রয়োজন।[২৬] কৃষি বিপ্লব নিজে স্বয়ং হচ্ছে ধরনের অতিরিক্ত জনসংখ্যার প্রতিফলন কিছু প্রজাতির দ্বারা যা অনুসরণ করে কিছু সূচনার সময়কে বিলোপের সময়; এই অতিরিক্ত জনসংখ্যা নিজেই শেষ অবধি বিলোপকালকে ছাড়িয়ে যায়।
  • লিওনিড এফিমোভিচ গ্রিনিন যুক্তি দেন যে যা উদ্ভিদই চাষ করা হয়েছিল, কৃষিকার্যের স্বতন্ত্র আবিষ্কার হয়েছিল বিশেষ প্রাকৃতিক আবহাওয়ায় (উদাহরণস্বরূপ, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া)। এটি মনে করা হয় যে শস্যের চাষ নিকট পূর্বের কোথাও শুরু হয়েছিল: প্যালেস্টাইন বা মিশর-এর পাহাড়ে। সেই জন্য গ্রিনিন কৃষি বিপ্লবের সময়কাল ১২,০০০ থেকে ৯,০০০ বছরের মধ্যে রাখেন, যদিও কোনও কোনও ক্ষেত্রে প্রাচীনতম শস্য বা গৃহপালিত প্রাণীর হাড় এমনকী তার চেয়েও প্রাচীন ১৪–১৫ বছর পুরনো।[২৭]
  • অ্যান্ড্রু মাইকেল ট্যাংগিয়ে মুর বলেন যে নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লব শুরু হয় লেভ্যান্ট-এ উন্নয়নের দীর্ঘ কালের সময়, সম্ভবত এপিপ্যালিওলিথিক-এ। "A Reassessment of the Neolithic Revolution" ("আ রিঅ্যসেসমেন্ট অফ দ্য নিওলিথিক রেভোলিউশন"; "নব্যপ্রস্তর যুগীয় বিপ্লবের একটি পুনর্বিবেচনা") -এ, ফ্র্যাঙ্ক হোল আরও বিস্তৃত করেন উদ্ভিদ ও প্রাণী গৃহপালনের মধ্যে সম্বন্ধ। তিনি বলেন যে ইভেন্টগুলি বিভিন্ন সময়ে স্বাধীনভাবে আবিষ্কৃত হয়ে থাকতে পারে, বিভিন্ন অনাবিষ্কৃত স্থলে। তিনি বলেন যে কোনও এমন বিপ্লবস্থল খুঁজে পাওয়া যায়নি যা বর্ণিত করে তাৎক্ষণাৎ এবং বিলম্বিত সমাজ আইনের মধ্যে বদল। তিনি বলেন যে গৃহপালিত পশু (ছাগল, ভেড়া, গরু এবং শূকর)-দের পূর্ণ পরিসর পাওয়া যায়নি ষষ্ঠ সহস্রাব্দে তেল রমাদ অবধি। হোল শেষে বলেন যে "ভবিষ্যতে তদন্তে নিকটতর পর্যবেক্ষণ করা উচিত ইউফ্রেটিস নদীর অববাহিকার পশ্চিম সীমানায়, সম্ভবত আরবীয় উপদ্বীপের সমান দক্ষিণ অবধি, বিশেষ করে যেখানে ওয়াদি প্লেইস্টোসিন বর্ষণের পৃষ্ঠজল বহন করত।"[২৮]

উদ্ভিদের পালনসম্পাদনা

 
নব্যপ্রস্তর যুগীয় জাঁতাকল, শস্য পেষার উপকরণ।

যত কৃষিকার্য গতিবেগ পেতে লাগল, প্রায় ৯,০০০ খৃষ্টপূর্বাব্দ আগে, মানব কাজকর্মের ফল হল কৃত্রিম নির্বাচন শস্যের (যা গমযব দিয়ে শুরু হয়), এবং কেবল যারা বড় বীজ মাধ্যমে বড় শর্করা প্রত্যাবর্তন অনুকূল হবে না। ক্ষুদ্র বীজ বা তিক্ত স্বাদ বৈশিষ্ট্য সহ উদ্ভিদদের অবাঞ্ছিত হিসাবে দেখা হয়েছে। যে গাছগুলি তাদের বীজতলায় দ্রুত বীজ বপন করে তা ফসলের সময়ে সংগ্রহ করা যায় না, অতএব সংরক্ষণ এবং বীজরোপণ করা হয় না উক্ত ঋতুতে; চাষের জন্য বছর নির্বাচন করা হয় যা তাদের ভোজ্য বীজকে আরও দীর্ঘস্থায়ী রাখে।

উর্বর চন্দ্রকলায়সম্পাদনা

 
মৃন্ময় মানব মূর্তি (উর্বরতা দেবী) তাপ্পেহ্‌ সারাব, কেরমানশাহ্‌ ৭০০০–৬১০০ খৃষ্টপূর্বাব্দ।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Jean-Pierre Bocquet-Appel (জুলাই ২৯, ২০১১)। "When the World's Population Took Off: The Springboard of the Neolithic Demographic Transition"Science333 (6042): 560–561। doi:10.1126/science.1208880PMID 21798934বিবকোড:2011Sci...333..560B। সংগ্রহের তারিখ জুন ১০, ২০১২ 
  2. Pollard, Rosenberg, and Tigor (২০১৫)। Worlds together, worlds apart concise edition vol.1। New York: W.W. Norton & Company। পৃষ্ঠা 23। আইএসবিএন 9780393250930 
  3. Compare:Lewin, Roger (২০০৯-০২-১৮) [1984]। "35: The origin of agriculture and the first villagers"। Human Evolution: An Illustrated Introduction (5 সংস্করণ)। Malden, Massachusetts: John Wiley & Sons (প্রকাশিত হয় ২০০৯)। পৃষ্ঠা 250। আইএসবিএন 9781405156141। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-২০[...] the Neolithic transition involved increasing sedentism and social complexity, which was usually followed by the gradual adoption of plant and animal domestication. In some cases, however, plant domestication preceded sedentism, particularly in the New World. 
  4. "International Stratigraphic Chart"International Commission on Stratigraphy। ২০১৩-০২-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১২-০৬ 
  5. Graeme Barker (২০০৯)। The Agricultural Revolution in Prehistory: Why did Foragers become Farmers?। Oxford University Press। আইএসবিএন 978-0-19-955995-4 [পৃষ্ঠা নম্বর প্রয়োজন]
  6. Armelagos, George J. (২০১৪)। "Brain Evolution, the Determinates of Food Choice, and the Omnivore's Dilemma"। Critical Reviews in Food Science and Nutrition54 (10): 1330–1341। doi:10.1080/10408398.2011.635817PMID 24564590আইএসএসএন 1040-8398 
  7. "Neolithic"Ancient History Encyclopedia। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৭-২১ 
  8. "The Slow Birth of Agriculture" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১ জানুয়ারি ২০১১ তারিখে, Heather Pringle
  9. "Wizard Chemi Shanidar"EMuseumMinnesota State University। জুন ১৮, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  10. Milton-Edwards, Beverley (মে ২০০৩)। "Iraq, past, present and future: a thoroughly-modern mandate?"History & Policy। United Kingdom: History & Policy। সংগ্রহের তারিখ ৯ ডিসেম্বর ২০১০ 
  11. http://www.ancientobjectsformoderndilemmas.com/current-projects.html
  12. Diamond, J.; Bellwood, P. (২০০৩)। "Farmers and Their Languages: The First Expansions"। Science300 (5619): 597–603। doi:10.1126/science.1078208PMID 12714734বিবকোড:2003Sci...300..597D 
  13. Thissen, L. "Appendix I, The CANeW 14C databases, Anatolia 10,000-5000 cal. BC." in: F. Gérard and L. Thissen (eds.), The Neolithic of Central Anatolia. Internal developments and external relations during the 9th–6th millennia cal BC, Proc. Int. CANeW Round Table, Istanbul 23–24 November 2001, (2002)
  14. Denham, Tim P.; Haberle, S. G.; ও অন্যান্য (২০০৩)। "Origins of Agriculture at Kuk Swamp in the Highlands of New Guinea"। Science301 (5630): 189–193। doi:10.1126/science.1085255PMID 12817084 
  15. The Kuk Early Agricultural Site
  16. Kealhofer, Lisa (২০০৩)। "Looking into the gap: land use and the tropical forests of southern Thailand"। Asian Perspectives42 (1): 72–95। doi:10.1353/asi.2003.0022 
  17. Gordon Childe (১৯৩৬)। Man Makes Himself। Oxford university press। 
  18. Scarre, Chris (2005). "The World Transformed: From Foragers and Farmers to States and Empires" in The Human Past: World Prehistory and the Development of Human Societies (Ed: Chris Scarre). London: Thames and Hudson. Page 188. আইএসবিএন ০-৫০০-২৮৫৩১-৪
  19. Charles E. Redman (১৯৭৮)। Rise of Civilization: From Early Hunters to Urban Society in the Ancient Near East। San Francisco: Freeman। 
  20. Hayden, Brian (১৯৯২)। "Models of Domestication"। Anne Birgitte Gebauer and T. Douglas Price। Transitions to Agriculture in Prehistory। Madison: Prehistory Press। পৃষ্ঠা 11–18। 
  21. Sauer, Carl O. (১৯৫২)। Agricultural origins and dispersals। Cambridge, MA: MIT Press। 
  22. Binford, Lewis R. (১৯৬৮)। "Post-Pleistocene Adaptations"। Sally R. Binford and Lewis R. Binford। New Perspectives in Archaeology। Chicago: Aldine Publishing Company। পৃষ্ঠা 313–342। 
  23. Rindos, David (ডিসেম্বর ১৯৮৭)। The Origins of Agriculture: An Evolutionary Perspective। Academic Press। আইএসবিএন 978-0-12-589281-0 
  24. Richerson, Peter J.; Boyd, Robert; ও অন্যান্য (২০০১)। "Was Agriculture Impossible during the Pleistocene but Mandatory during the Holocene?"। American Antiquity66 (3): 387–411। doi:10.2307/2694241জেস্টোর 2694241 
  25. Wright, Ronald (২০০৪)। A Short History of Progress। Anansi। আইএসবিএন 0-88784-706-4 
  26. Anderson, David G; Albert C. Goodyear; James Kennett; Allen West (২০১১)। "Multiple lines of evidence for possible Human population decline/settlement reorganization during the early Younger Dryas"। Quaternary International242 (2): 570–583। doi:10.1016/j.quaint.2011.04.020 
  27. Grinin L.E. Production Revolutions and Periodization of History: A Comparative and Theoretic-mathematical Approach. / Social Evolution & History. Volume 6, Number 2 / September 2007 [১]
  28. Hole, Frank., A Reassessment of the Neolithic Revolution, Paléorient, Volume 10, Issue 10-2, pp. 49-60, 1984.